দেবহাটায় আনসার-ভিডিপি সদস্যদের ডিউটি দেওয়ার নামে উৎকোচ গ্রহণের অভিযোগ!


প্রকাশিত : July 9, 2019 ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: দেবহাটায় ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আনসার-ভিডিপির সদস্যদের ডিউটি দেওয়ার নামে উৎকোচ গ্রহণের অভিযোগ উঠেছে উপজেলার আনছার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত প্রশিক্ষক নার্গিস বেগমের বিরুদ্ধে। এছাড়া ইউনিয়ন দলনেতা ও কিছু আনসার-ভিডিপির সদস্য জড়িত বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাছাড়া এ নির্বাচনে ঘুষ না দেওয়ায় পূর্বের নির্বাচনে দায়িত্ব পালনকারী অনেক সদস্য এবার বাদ পড়েছেন।
উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, ৫ম উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে দেবহাটা উপজেলার ৫টি ইউনিয়নের ৪০টি ভোট কেন্দ্রে মোট ৯৭ হাজার ৮৩৬ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। যার মধ্যে ৪৯ হাজার ২১৫ জন পুরুষ এবং ৪৮ হাজার ৬২১ জন মহিলা। প্রতিটি ভোট কেন্দ্রে একজন করে পুলিশ এবং একজন পিসি, একজন এপিসি, ছয়জন পুরুষ, চারজন নারীসহ ১২ জন আনসার-ভিডিপি সদস্য নিরাপত্তার দায়িত্বে ছিলেন।
বুধবার সকাল থেকে দিনব্যাপী উপজেলা আনছার ভিডিপির অফিসে পিসিদের ৩৪৬০ টাকা এবং সদস্যদের ৩১৬০ টাকা দেওয়া হয়েছে। টাকা নেওয়ার পরে অধিকাংশ আনছার ও ভিডিপির সদস্যের সাথে কথা বলে জানা যায় বিগত উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ডিউটি নেওয়ার আগে তাদের প্রত্যেকের কাছ থেকে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা করে টাকা হাতিয়ে নিয়েছেন উপজেলা আনছার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত প্রশিক্ষক নার্গিস বেগম। নির্বাচনী দায়িত্ব পালনের জন্য তাদের এলাকার দলনেতার কাছে উক্ত টাকা জমা দিতে হয়েছে।
এ বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশের অনিচ্ছুক দায়িত্বরত কয়েকজন আনসার সদস্য সত্যতা স্বীকার করে বলেন, টাকা না দিলে ভোটের ডিউটি করতে দিবে না এই ভয় দেখিয়ে আমাদের কাছ থেকে টাকা নিয়েছে। তাদের এই টাকা প্রত্যেক দলনেতাদের মাধ্যমে প্রদান করা হয়েছে বলে জানান।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন ইউনিয়ন আনসার দলনেতা জানান, নির্বাচনের দিন কেন্দ্রে দায়ত্বিপালনের জন্য আনসার সদস্যের নিকট ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা করে নিয়ে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তার কাছে জমা দিয়েছি। দরিদ্র্র সদস্যদের কাছ থেকে ৫০০ থেকে ৭০০ টাকা করে আদায় করতে খুব কষ্ট লাগে। তারপরও অফিসারদের মন রক্ষা করার জন্য এসব টাকা উত্তোলন করতে হয়।
এবিষয়ে উপজেলা আনছার ভিডিপির ভারপ্রাপ্ত প্রশিক্ষক নার্গিস বেগম অর্থ নেওয়ার অভিযোগ অস্বীকার করে বলেন, আমি কারো কাছ থেকে টাকা নেয়নি। আমার নাম ব্যবহার করে যদি কেউ অর্থ আদায় করে থাকে তাহলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।