কালিগঞ্জে জমি দখলকে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণ, লুটপাট ও হামলাম, ইউপি সদস্যসহ আহত ৪


প্রকাশিত : August 5, 2019 ||

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে জমি ও বাড়িঘর দখলকে কেন্দ্র করে ককটেল বিস্ফোরণ, হামলা ও লুটপাটের অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ইউপি সদস্যসহ ৪জন গুরুতর জখম হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে শনিবার দিবাগত রাতে উপজেলার রতনপুর ইউনিয়নের গোয়ালপোতা গ্রামে।
সরেজমিন ঘটনাস্থলে যেয়ে জানা যায়, রতনপুর ইউনিয়নের দুলাবালা গ্রামের মৃত কওছার আলীর ছেলে ও রতনপুর ইউপি’র প্রাক্তন চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের সাথে ১৩ বিঘা জমি নিয়ে একই ইউনিয়নের কাশিশ্বরপুর গ্রামের আশরাফ আলীর ছেলে আরিফুল ইসলাম ছোট’র দীর্ঘদিন বিরোধ চলে আসছিল। স্থানীয়ভাবে একাধিকবার মিমাংসার চেষ্টা করে ব্যর্থ হওয়ায় শেষ পর্যন্ত বিষয়টি আদালতে গড়ায়। বিজ্ঞ আদালতের রায় মুজিবুর রহমানের পক্ষে যায়। সেই থেকে প্রায় ১০ বছর যাবত ওই জমিতে বসবাস করছেন প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান মুজিবুর রহমানের বাড়ির কেয়ারটেকার মৃত বাবর আলী গাজীর ছেলে আব্দুল বারী গাজী (৫০), তার স্ত্রী রাশিদা খাতুন (৪৫), পঞ্চম শ্রেণিতে পড়–য়া ছেলে রাসেল গাজী, মানসিক ভারসাম্যহীন কণ্যা মাহফুজা খাতুন ও মৃত সৈয়দ আলী বৈদ্যের ছেলে আব্দুল মাজেদ বৈদ্যে।
দীর্ঘদিন পর হঠাৎ ওই জমি দখলের পায়তারা শুরু করে আরিফুল ইসলাম ছোট গং। এর প্রেক্ষিতে শনিবার দিবাগত রাতে আরিফুল ইসলাম গং দেশীয় অস্ত্রসন্ত্র নিয়ে ৫০/৬০ জনের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী সাথে নিয়ে কটটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে বাড়িসহ জমি দখল করে।
এসময় ওই বাড়িতে থাকা কেয়ারটেকর আব্দুল বারী গাজীর পরিবারের সদস্যসহ আব্দুল মাজেদ বৈদ্যেকে অস্ত্রের মুখে বেঁধে রেখে ওই বাড়িতে থাকা দু’টি গরু, একটি ছাগল, নগদ ৪৫ হাজার টাকাসহ অন্যান্য জিনিসপত্র লুটপাটসহ বাড়িঘর ভাঙচুর ও ত্রাস সৃষ্টির জন্য একাধিক কটটেল বিষ্ফোরণ ঘটায়।
এসময় স্থানীয় ইউপি সদস্য বাবু গাজী (৪০), তার ভাগ্নে সিরাজুল ইসলাম (৩৪), গ্রামবাসী রজব আলী (৬৫) তার কণ্যা রওশানারা খাতুন (৪২) ঘটনাস্থলে পৌছালে আরিফুল ইসলাম ছোট’র বাহিনী দেশীয় অস্ত্র দিয়ে কিছু বুঝে ওঠার আগেই ওই চারজনকে কুপিয়ে গুরুতর জখমসহ পুনরায় ককটেল বিষ্ফোরণ ঘটিয়ে পুরা এলাকায় ত্রাস সৃষ্টি করে।
এরপর ভোর ৫টার দিকে স্থানীয়রা পুলিশের সহযোগিতায় আহত ওই চার জনকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। এদের মধ্যে রজব আলী ও তার কণ্যা রওশানারা খাতুনের অবস্থা আশংকাজনক বলে জানা গেছে।
পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে একটি পরিত্যক্ত ককটেলসহ আরিফুল ইসলাম ছোট’র সহোদর লিটন হোসেন (৪০), মহিষকুড় গ্রামের বাবু হোসেনের ছেলে সবুজ হোসেন (২৫) ও নইহাটি গ্রামের ইউসুপ আলী সরদারের ছেলে শরিফুল ইসলামকে (২৬) আটক করে থানায় নিয়ে আসেন। কালিগঞ্জ থানার উপ-পরিদর্শক আইনুদ্দীন বিশ্বাস বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।