আশাশুনির হাজিপুরে মসজিদের জমি বিক্রির টাকা আত্মসাথের অভিযোগ


প্রকাশিত : August 6, 2019 ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: আশাশুনির হাজিপুর জামে মসজিদে জমি বিক্রির টাকা আত্মসাথের অভিযোগ উঠেছে ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি কাদের মাষ্টারের বিরুদ্ধে।
এলাকাবাসি জানান, সদর উপজেলার বালিয়াডাঙ্গা গ্রামের মৃত অহেদের স্ত্রী খোরজান বিবি ১৯৬০ সালে কাশেমপুর মৌজায় ৩২৬, ৫৮২৯ ও ৩৯৩ দাগের ৭৮ শতক জমি ক্রয় করেন। কিন্তু খোরজান বিবির কোনো সন্তান না থাকায় ওই সব দাগের ৭৮ শতক জমি আশাশুনি উপজেলার হাজিপুর এলাকার হাজিপুর জামে মসজিদে দান করেন তিনি। একপর্যায়ে ওই ৭৮ দাগের জমির মধ্যে ৭৪ শতক জমি কয়েকমাস পূর্বে ৬ জনের কাছে ৫৩ লাখ টাকা বিক্রি করা হয়। মসজিদের এসব দাগের জমি রেজিষ্ট্রি মোতাবেক ক্রয় করে। ক্রয়কৃতরা হলেন ৩২৩ দাগের ২৬ শতক জমি ৩০ লাখ টাকায় ক্রয় করে পলাশপোল এলাকার আরিফুজ্জামান। ৫৮২৯ দাগের ১৫ শতক জমি ৮ লাখ টাকায় ক্রয় করে কাশেমপুর গ্রামের কুদ্দুসের ছেলে রফিকুল। ৩৯৩ দাগের ৩৩ শতক জমি ১৯ লাখ ২০ হাজার টাকায় জমি ক্রয় করে বালিডাঙ্গায় ওয়াদুতের স্ত্রী মনোয়ারা, আজিজের ছেলে আনারুল ইসলাম, কাশেমপুর গ্রামের হোসেনের ছেলে বাদশা ও সিটি কলেজ সংলগ্ন কাশেমপুর কওমী মাদরাসার ছোট ক্বারী নামে এক হজুর।
সূত্রে জানায় মসজিদের জমি বিক্রি ৫৭ লাখ ২০ হাজার টাকার মধ্যে মসজিদের ফান্ডের নামে ২৮ লাখ ৮০ হাজার টাকা জমা হয়। আর বাকী টাকা ভাগবাটোয়ারা করে নেয় ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি কাদের মাষ্টার, কাশেমপুর গ্রামের ওজিয়ারের ছেলে ইউনুচ ক্বারী ও কুদ্দুসের ছেলে রফিকুল আরো অনেকে।
কাশেমপুর গ্রামের নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক এক ব্যক্তি বলেন, ৩২৩ দাগের ২৬ শতক জমির বিক্রির টাকা জমি ক্রয় মালিক আরিফুজ্জামান নগদে ১০ লাখ টাকা মসজিদের সভাপতির কাছে প্রদান করে। আর বাকী ২০ লাখ টাকা ক্বারী ইউনুচ আলির নামে ব্যক্তির কাছে এফ আই সি ব্যাংকের চেকের মাধ্যমে পরিশোধ করেন। এরপর ওই ২০ লাখ টাকার চেকটি ওই ব্যাংকের মাধ্যম থেকে ইউনুচ আলির নামে পি অডার করে ইসলামী ব্যাংকে নিয়ে ওই ২০ লাখ টাকা ক্বারী ইউনুচ আলি উত্তোলন করে সূত্রে জানান। এদিকে মসজিদের জমি বিক্রির টাকা ভাগবাটোয়ারা হওয়ার ফলে এলাকার সাধারণ মানুষের মধ্যে ক্ষোভের সৃষ্টি হয়েছে।
ওই মসজিদ কমিটির সভাপতি কাদের মাষ্টার বলেন, ২৮ লাখ ৮০ হাজার টাকায় মসজিদের জমি বিক্রি করা হয়েছে। এ ব্যাপারে তদন্তপূর্বক টাকা উদ্ধারসহ আত্মসাতকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থার জন্য দুদকসহ সংশিষ্টদের কাছে আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকার সাধারণ জনগণ।