কালিগঞ্জে পৃথক চুরির অভিযোগে জনতার হাতে দু’যুবক আটক

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে পৃথক চুরির অভিযোগে দুই যুবককে আটক করেছে জনতা। ঘটনা দু’টি ঘটেছে গত বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলার মথুরেশপুর ও কুশুলিয়া ইউনিয়নে।
আটককৃতরা হলেন শ্যামনগর উপজেলার কৈখালি ইউনিয়নের কৈখালি গ্রামের নওশাদ আলীর ছেলে রফিকুল ইসলাম (৩০) ও আশাশুনি উপজেলার বসুখালি গ্রামের মৃত আলী বক্স’র ছেলে সিরাজুল ইসলাম (৩৫)।
স্থানীয় সূত্র জানান, বৃহস্পতিবার দিবাগত রাত ১২ টার দিকে উপজেলার মথুরেশপুর ইউনিয়নের নিজদেবপুর গ্রামে একটি হিরো হোন্ডা মোটর সাইকেলে ৩ জন ব্যক্তি সন্দেহজনকভাবে ঘোরাফেরা করছিল। এসময় স্থানীয়রা তাদেরকে চ্যালেঞ্জ করলে মোটর সাইকেলে থেকে দু’জন পালিয়ে যায়। তবে মোটর সাইকেল চালক রফিকুল ইসলাম জনতার হাতে আটক হয়। তার কাছ থেকে চুরির বিভিন্ন সরঞ্জাম উদ্ধার হয়েছে। পরবর্তীতে থানায় খবর দিলে উপ-পরিদর্শক জিয়ারাত আলী ঘটনাস্থল থেকে রফিকুল ইসলামকে আটক করে থানায় নিয়ে যায়।
এর আগে রাত ৯টার দিকে উপজেলার কুশুলিয়া ইউনিয়নের পুলিন বাবুর হাটখোলা নামক স্থান থেকে সাইকেল চুরির সময় জনতার হাতে সিরাজুল ইসলাম নামে এক চিহ্নিত চোর আটক হয়েছে। পরবর্তীতে থানায় খবর দিলে পুলিশ তাকে থানায় নিয়ে যায়। শুক্রবার সকালে আসামিকে আদালতে প্রেরণ করা হয়েছে বলে জানা গেছে।

কালিগঞ্জে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের গুড়ির সাথে মাইক্রোবাসের ধাক্কায় আহত ৩

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে মাইক্রোবাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে রাখা গাছের গুড়ির সাথে ধাক্কা লেগে চালকসহ গুরুতর আহত হয়েছে ৩ জন। ঘটনাটি ঘটেছে শুক্রবার সকাল সাড়ে ৮টার দিকে উপজেলার পাউখালি মোড় এলাকায়।
আহতরা হলেন, শ্যামনগর উপজেলার খাগরাঘাট এলাকার আব্দুর রহিম গাইনের স্ত্রী রওশানারা বেগম (৪৫) তার ছেলে রেজাউল ইসলাম (৩৪), এবং একই গ্রামের মৃত ওমর আলীর ছেলে চালক আব্দুর রহিম (৪৪)।
প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা যায়, শ্যামনগর থেকে ছেড়ে আসা একটি মাইক্রোবাস (ঢাকা মেট্রো ব-১৪-০১০৮) সাতক্ষীরার দিকে যাচ্ছিলেন। পথিমধ্যে সকাল সাড়ে ৮টার দিকে পাউখালি মোড় এলাকায় পৌঁছালে মাইক্রোবাসটি নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে রাস্তার পাশে রাখা গাছের গুড়ির সাথে ধাক্কা লাগে।
এ সময় মাইক্রোবাসে থাকা চালক আব্দুর রহিম, রওশানারা বেগম ও রেজাউল করিম গুরুতর আহত হন। পরবর্তীতে কালিগঞ্জ ফায়ার সার্ভিস ও সিভিল ডিফেন্স’র সদস্যরা আহতদের দ্রুত উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করে। সেখানে রওশানারা’র অবস্থার অবনতি হলে উন্নত চিকিৎসার জন্য তাকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে রেফার করা হয়।

কালিগঞ্জ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের সামনের রাস্তাটি মেরামত করলেন উপজেলা যুবলীগের সম্পাদক

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের চৌরাস্তা থেকে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স পর্যন্ত রাস্তাটির অবস্থা খুবই বেহাল। রাস্তাটির বিভিন্ন স্থানে খানা খন্দে পরিণত হয়েছে। সামান্য বৃষ্টি হলেই ময়লা পানি জমে কর্দমাক্ত রাস্তা দিয়ে চলাচলকারী অসুস্থ রোগীসহ পথচারিদের ব্যাপক ভোগান্তি পোহাতে হত। সকলের সীমাহীন কষ্ট লাঘব করতে সাতক্ষীরা-৩ আসনের সংসদ সদস্য ডা. আ ফ ম রুহুল হক’র নির্দেশনায় কালিগঞ্জ উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান নাইম যুবলীগের নেতা কর্মীসহ স্থানীয়দের সাথে নিয়ে গত ৭ অক্টোবর থেকে রাস্তাটি মেরামত করার জন্য কাজ শুরু করেন। ১৬ হাজার ইট, ৪ হাজার ৫’শ ফুট বালি দিয়ে তিন যাবৎ অক্লান্ত পরিশ্রম করে ৪০০ ফুট হেয়ারিং বন্ড রাস্তার তৈরির কাজ সমাপ্ত করেছেন।

এ উপলক্ষে বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) সন্ধ্যার দিকে রাস্তাটির উদ্বোধন করেন উপজেলা যুবলীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান নাইম। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক তারালী ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হোসেন ছোট।

বিশেষ অতিথি ছিলেন ছিলেন চাম্পাফুল ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক গাইন, জেলা পরিষদ সদস্য নুরুজ্জামান জামু, ভাড়াশিমলা ইউপি’র সদস্য আহম্মদ আলী, খালেক খান,সামসুর রহমান, চাম্পাফুল ইউপি’র সদস্য ঠাকুর দাস সরদার, উপজেলা যুবলীগের সহ-সভাপতি রেজাউল করিম রেজা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক লক্ষণ কুমার ঘোষ, সাবেক ক্রীড়া সম্পাদক সুশান্ত বিশ্বাস, ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি মেহেদি হাসান, সাধারণ সম্পাদক কেরামত আলী, বিষ্ণুপুর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি শাহ -আলম, কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন যুবলীগের সভাপতি ফজলুল রহমান, শিক্ষক আব্দুস সামাদ, যুবলীগ নেতা মহিউদ্দিন গাজী, রবিউল ইসলাম, মোকলেছুর রহমান। সমগ্র অনুষ্ঠানের সঞ্চালনায় ছিলেন উপজেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক জাহিদ হাসান।

 

কালিগঞ্জে জাতীয় শ্রমিকলীগের প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) বিকেলে উপজেলা আওয়ামীলীগের কার্যালয়ে শ্রমিকলীগের সভাপতি শেখ শাহাজালালের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা আওয়ামী লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহ্বায়ক তারালী ইউপি চেয়ারম্যান এনামুল হোসেন ছোট।

বিশেষ অতিথি ছিলেন সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির সদস্যসচিব ধলবাড়িয়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি সজল মুখার্জী, চাম্পাফুল ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান মোজাম্মেল হক গাইন, উপজেলা যুব লীগের সাবেক আহ্বায়ক শেখ ইকবাল আলম বাবলু, উপজেলা যুব লীগের সাধারণ সম্পাদক নাজমুল হাসান নাইম, স্বেচ্ছাসেবক লীগের সভাপতি নুরুজ্জামান জামু, কাটুনিয়া রাজবাড়ী কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুল ওহাব প্রমুখ।

উপজেলা শ্রমিকলীগের সাধারণ সম্পাদক আব্দুস সবুরের সঞ্চালনায় এসময় আরও বক্তব্য রাখেন উপজেলার ১২ টি ইউনিয়ন শ্রমিকলীগের সভাপতি ও সম্পাদকবৃন্দ।  সভায় জাতীয় শ্রমিকলীগের ৫০ তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকী যথাযথ মর্যাদায় পালনের লক্ষ্যে বিভিন্ন সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

প্রয়াত কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ডা. মোসলেম আলীর কুলখানি অনুষ্ঠিত

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগর ইউপি’র সাবেক চেয়ারম্যান ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক স্বাস্থ্য বিষয়ক সম্পাদক  ডা. মোসলেম আলীর কুলখানি অনুষ্টিত হয়েছে। বৃহস্পতিবার (১০ অক্টোবর) যোহরের নামাজের পর এ কুলখানি অনুষ্ঠিত হয়।

এসময় উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী, উপজেলা যুব লীগের সাবেক আহ্বায়ক, রিপোর্টার্স ক্লাবের সাধারণ সম্পাদক শেখ ইকবাল আলম বাবলু, উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি, রিপোর্টার্স ক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক শেখ শাওন আহমেদ সোহাগ, কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন আওয়ামীলীগের সভাপতি মোস্তফা কবিরুজ্জামান মন্টু, সাধারণ সম্পাদক নুর আহমেদ সুরুজ, সাংবাদিক হাবিবুল্লাহ বাহার, মোহাম্মদ জামাল উদ্দিন, কুশুলিয়া কলেজ ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতি রাহিত হাসান, কুশুলিয়া ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাবেক সহ-সভাপতি আবু রায়হান, নলতা ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মামুন হোসেন, কৃষ্ণনগর ইউনিয়ন ছাত্রলীগের সভাপতি উজ্জ্বল হোসেন, সহ-সভাপতি আরিফুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক ফারুক হোসেন প্রমুখ।

অনুষ্ঠানের দোয়া মোনাজাত পরিচালনা করেন গুনাকারকাটি খায়রিয়া আজিজিয়া কামিল মাদ্রাসার ভাইস প্রিন্সিপাল মুফতি মাওলানা আবু তাহের।

ডা. হযরত আলীর শয্যা পাশে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুহুল হক এমপি

মুক্তিযুদ্ধের সংগঠক ও সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি, কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের সাবেক উপদেষ্টা ডা. মো. হযরত আলীর শয্যা পাশে সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী, বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের উপদেষ্টা ম-লীর সদস্য অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল হক এমপি, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ও সাবেক সাংসদ মুনসুর আহমেদসহ কালিগঞ্জ উপজেলা আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ। প্রেসবিজ্ঞপ্তি

কালিগঞ্জের বসন্তপুর সীমান্তে কঠোর নিরাপত্তার মধ্যেও আবেগ উচ্ছ্বাসে বিজয়া দশমী উদযাপন

নিয়াজ কওছার তুহিন: বুধবার দুপুরের পর থেকে মেঘে ঢাকা আকাশ। সেই সাথে গুড়ি গুড়ি বৃষ্টি। এর মধ্যেই ছিল কালিগঞ্জে বসন্তপুর ও ভারতের হিঙ্গলগঞ্জ সীমান্ত নদীতে শুভ বিজয়া দশমী উপলক্ষে প্রতিমা বিসর্জনের প্রস্তুতি। এবারও বিজয়া দশমীতে মিলনমেলা উপভোগের জন্য বসন্তপুর বিজিবি ক্যাম্প এলাকায় কালিন্দী, ইছামতি ও কাকশিয়ালী নদীর মোহনায় ভীড় করতে থাকে শিশুসহ সর্বস্তরের মানুষ। সীমান্ত নদীর মাঝ বরাবর ছিল বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি) ও ভারতের বর্ডার সিকিউরিটি ফোর্স (বিএসএফ) এর কঠোর নজরদারি। এর মধ্যেই অনেক আবেগ ও উচ্ছ্বাসে নিজ নিজ দেশের পতাকা নিয়ে কালিন্দীর বুকে নামে বেশ কিছু ইঞ্জিন চালিত নৌকা, কার্গো ও স্যালো ইঞ্জিনচালিত ছোট নৌকা। কিছু নৌযানে ছিল প্রতিমা। প্রায় সন্ধ্যা পর্যন্ত নৌকাগুলো নিজ নিজ সীমানার মধ্যে চক্কর দিতে থাকে। দু’দেশের মানুষ একে অপরকে জানায় শুভেচ্ছা। নিরাপত্তার কড়াকড়িতে মিলনমেলায় আনন্দের কিছুটা কমতি হলেও যেটুকু প্রাপ্তি ঘটেছে তাতেই অনেকের চোখেমুখে ফুটে ওঠে তৃপ্তির ছাপ। তবে বিগত বছরের মতো এবার সন্ধ্যায় আঁতশবাজির ঝলকানি চোখে পড়েনি।
প্রসঙ্গত, এবছর কালিগঞ্জের ১২ ইউনিয়নে ৫২ মন্ডপে দুর্গাপূজা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৮ অক্টোবর) বিজয়া দশমীর আনুষ্ঠানিকতা সম্পন্ন হলেও প্রতিমা বিসর্জন হয়েছিল কয়েকটি মন্ডপে। অবশিষ্ট মন্ডপের প্রতিমা বিসর্জন হয়েছে বুধবার। জাতীয় হিন্দু মহাজোট কালিগঞ্জ উপজেলা শাখা ও বাংলাদেশ পূজা উদযাপন পরিষদ কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার নেতৃবৃন্দ ছাড়াও উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাঈদ মেহেদী, ভাইস চেয়ারম্যান শেখ নাজমুল ইসলামসহ রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ বিভিন্ন পূজামন্ডপ পরিদর্শন করেন। উপজেলার মৌতলার পরমানন্দকাটি সার্বজনীন দুর্গামন্দিরে বিগত বছরের ন্যায় এবারও বৃহৎ পরিসরে দুর্গাপূজার আয়োজন করা হয়। সেখানে ছিল ১৩১টি প্রতিমা। ছিল বর্ণাঢ্য আলোকসজ্জা। এই মন্ডপে ছিল সনাতন ধর্মাবলম্বীদের উপচে পড়া ভিড়। এছাড়াও দক্ষিণ শ্রীপুর ইউনিয়নের গোবিন্দকাটি হাইস্কুল মাঠ পূজামন্ডপ, মৌতলার লক্ষ্মীনাথপুর ফুটবল মাঠ পূজা মন্ডপ, নলতার কালীবাড়ি সার্বজনীন পূজা মন্ডপ, তারালীর কাঁকশিয়ালী কালীতলা সার্বজনীন পূজামন্ডপ, কুশুলিয়া রথখোলা, জিরণগাছা ও ভদ্রখালী পূজামন্ডপ, বিষ্ণুপুরের বাবুর বাড়ি, উদয়বাবুর বাড়ি ও পারুলগাছা সার্বজনীন পূজামন্ডপসহ প্রায় সকল পূজামন্ডপে ছিল দেবীভক্তদের ভিড়। দুর্গাপূজা উপলক্ষে অধিকাংশ পূজামন্ডপে ধর্মীয় যাত্রাপালা, আরতি প্রতিযোগিতা, উলুধ্বনি ও শঙ্খবাজানো প্রতিযোগিতা, বস্ত্র বিতরণসহ নানা অনুষ্ঠানমালার আয়োজন করা হয়। এবছর দেবী দুর্গা ঘোটকে (ঘোড়া) চড়ে মর্ত্যালোকে পিতৃগৃহে এসেছিলেন। আবার কৈলাশে স্বামীর গৃহে ফিরেছেন ঘোটকে চড়েই।

কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগরে গাঁজাসহ তিন মাদকসেবী আটক

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের কৃষ্ণনগরে সাত পুরিয়া গাঁজাসহ তিন মাদবসেবীকে আটক করা হয়েছে। আটককৃতরা হলো উপজেলার কৃষ্ণনগর ইউনিয়নের রঘুনাথপুর গ্রামের আনু সরদারের ছেলে আজিজুল ইসলাম (৩৫), সোতা গ্রামের বাবু মন্ডলের ছেলে শংকর মন্ডল (১৯) ও অজিয়ার গাজীর ছেলে আশিক হোসেন (১৮)। স্থানীয়রা জানান, বুধবার বেলা সাড়ে ১২টার দিকে স্থানীয় গ্রাম পুলিশের কয়েকজন সদস্য ইউনিয়নের দক্ষিণ রঘুনাথপুর দীঘির পাড় এলাকা থেকে আজিজুল, শংকর ও আশিশকে আটক করে। পরে তাদের নিকট থেকে সাত পুরিয়া গাঁজা পাওয়া যায়। তাদেরকে ইউনিয়ন পরিষদে নিয়ে এসে থানায় খবর দিলে পুলিশ তাদেরকে থানায় নিয়ে আসে।

ডা. হজরত আলীর আশু রোগমুক্তি ও সুস্থ্যতা কামনা

মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক হওয়া সত্ত্বেও সনদ না নেওয়া মানবসেবী ডা. হজরত আলী গুরুতর অসুস্থ্য। যিনি অন্যের অসুস্থতার খবর পেয়ে চিকিৎসাসেবা দিতে ছুটে গেছেন তিনি বর্তমানে স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে শয্যাশায়ী। ডা. হজরত আলীর আশু রোগমুক্তি ও সুস্থ্যতা কামনা করে বিবৃতি দিয়েছেন বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, সাতক্ষীরা জেলা ইউনিটের সাবেক কমান্ডার মশিউর রহমান মশু, মুক্তিযোদ্ধা হাসনে জাহিদ জজ, মুক্তিযোদ্ধা জালাল উদ্দীন, মুক্তিযোদ্ধা বদরুল ইসলাম খান, মুক্তিযোদ্ধা মিজানুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা মাহাবুবুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কামরুজ্জামান বাবু, মুক্তিযোদ্ধা সুভাষ সরকারসহ মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সকল সদস্য। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

জীবনযোদ্ধা বীর: ডা. হজরত আলী

জীবনযোদ্ধা বীর: ডা. হজরত আলী

রফিকুজ্জামান খোকন: ডাক্তার হজরত আলী। পিতা মৃত শের আলী গাজী। গ্রাম-হাড়দ্দহ, বসন্তপুর, মথুরেশপুর, কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা। ৮৯ বছর বয়সী মানুষটি বর্তমানে বয়সজনিত কারণে নানাবিধ জটিল রোগে আক্রান্ত। তাঁর ঘটনাবহুল নির্লোভ জীবনের ঘটনা তুলে ধরতে লেখকের ক্ষুদ্র প্রয়াস।

স্বাধীনতা ঘোষণার পর পরই সাাতক্ষীরায় আওয়ামী লীগ নেতা এড. এএফএম এন্তাজ আলী, এড. মুনসুর আলী, কাজী কামাল ছট্টু ও আবু নাসিম ময়না পিএন স্কুলে একটি বৈঠক করেন। সাতক্ষীরায় স্বাধীনতা আন্দোলন গতিশীল করার লক্ষ্যে সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন এবং আওয়ামী লীগ ঘোষিত সকল কর্মসূচি পালন করার সিদ্ধান্ত গ্রহণ করেন। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের স্বাধীনতা ঘোষণার পরে এই কমিটি নব-নির্বাচিত এমপিএ স. ম আলাউদ্দীনকে কোলকাতায় পাঠান অস্ত্র-গোলাবারুদ সংগ্রহের জন্য। সাতক্ষীরা মহকুমা সংগ্রাম পরিষদের সভাপতি ছিলেন সৈয়দ কামাল বখত সাকী ও সাধারণ সম্পাদক এএফএম এন্তাজ আলী। থানাগুলোর সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদক যথাক্রমে নি¤œরূপÑ

কলারোয়া: মমতাজ উদ্দিন আহমেদ এমপিএ ও শেখ আমানুল্লাহ

তালা: ডা. আক্তার হোসেন ও প্রদীপ কুমার মজুমদার।

আশাশুনি:  এসএম এ মহিদ ও নবাব আলী

দেবহাটা: মাষ্টার শাহজাহান আলী ও সনৎ কুমার সেন।

কালিগঞ্জ: ডা. হজরত আলী ও মাষ্টার জেহের আলী।

শ্যামনগর: শেখ আতিয়ার রহমান ও এমকে ফজলুল হক এমপিএ।

(স্বাধীনতার দুর্জয় অভিযান: স. ম. বাবর আলী)

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় ডা. হজরত আলী ভারতের শুন্যেরবাগান শরণার্থী ক্যাম্পের বাংলাদেশ সরকারের নির্দেশে শিবির ডাক্তার হিসেবে দায়িত্ব গ্রহণ করেন। প্রকাশ থাকে যে উনি এই দায়িত্ব পালনের জন্যে কোন পারিশ্রমিক গ্রহণ করতেন না। বিকেল থেকে রাত আটটা-নয়টা পর্যন্ত ভারতের বরুণহাটে চেম্বারে রুগী দেখে যে আয় করতেন সেটা দিয়েই সংসার চালাতেন।

১৯৭১ সালে মুক্তিযুদ্ধের সময় বসন্তপুরে তাঁর দোতলা পাঁকাবাড়ি পাকসেনারা আগুন দিয়ে পুড়িয়ে দেয়। এরপর কালিগঞ্জে তাঁর নিজস্ব চেম্বারও লুটপাট শেষে অগুন লাগিয়ে দেয় রাজাকারদের সহযোগিতায়।

স্বাধীনতার পর দেশে ফিরে নিয়মিত পেশার অংশ হিসেবে আবার চেম্বার দিয়ে ডাক্তারি করতে থাকেন। বাংলাদেশ সরকার মুক্তিযুদ্ধে তাঁর অবদানের স্বীকৃতি স্বরূপ ডাক্তার হিসেবে সরকারি পদে চাকরির প্রস্তাবনা দেন। বিনয়ের সাথে তিনি সে প্রস্তাব প্রত্যাখান করেন।

অনুরূপভাবে মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে নিজের নাম তালিকাভূক্তির জন্যে কোনো ফরম তিনি পুরণ করেননি বা কোনো ফরমে সই পর্যন্ত করেননি। প্রাক্তন উপজেলা কমান্ডার নাছির উদ্দিন, শেখ ওয়াহেদুজ্জামানসহ অনেকের অনেক অনুরোধ উপরোধ বিভিন্ন সময়ে সবিনয়ে প্রত্যাখ্যান করেন। তার একটাই কথা ‘ফরম পূরণ করে আমি কখনোই মুক্তিযোদ্ধা হবো না, তা ছাড়া আমিতো সংগঠক।’

১৯৭৫-এর পট-পরিবর্তনের পর দেশে যখন বঙ্গবন্ধু, আওয়ামী লীগ, মুক্তিযুদ্ধ, মুক্তিযোদ্ধা, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাসহ সব শুভ চেতনার প্রায় মৃত্যুময় মুহূর্তÑসেই সংকটের সময়ে একজন সাহসী মানুষ কালিগঞ্জের ষষ্ঠিতলা মোড়ে ‘বঙ্গবন্ধু হত্যার বিচার চাই’ লেখা প্লাকার্ড ঝুলিয়ে ঘন্টার পর ঘন্টা দাঁড়িয়ে থাকতেন বছরের পর বছর। মানুষটির নাম ডাক্তার হজরত আলী। এমন মনন মানস জীবনযোদ্ধা বীর কালিগঞ্জ, সাতক্ষীরা নয় দেশবাসীর গর্ব। আমাদের হৃদয়ে বেঁচে থাকবেন তিনি চিরদিন। লেখক: মুক্তিযোদ্ধা

কালিগঞ্জে ফেন্সিডিল ও গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী আটক

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে পুলিশের অভিযানে ৩ বোতল ফেন্সিডিল ও ৫০ গ্রাম গাঁজাসহ সবির হোসেন ওরফে সাগর নামে এক মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছে। তিনি উপজেলার ভাড়াশিমলা ইউনিয়নের সাতবসু গ্রামের আবু বক্কারের ছেলে।
থানা সূত্রে জানা যায়, সোমবার দিবাগত রাত ৯ টার দিকে থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক জিল্লুর রহমান ও লিটন হোসেন গোপন সংবাদের ভিত্তিতে উপজেলার পুরাতন মৌতলা কাঁচাবাজার এলাকায় মাদক বিরোধী অভিযান পরিচালনা করেন। এসময় ৩ বোতল ফেন্সিডিল ও ৫০ গ্রাম গাঁজাসহ মাদক ব্যবসায়ী সাগরকে আটক করা হয়। আটক মাদক ব্যবসায়ীকে মঙ্গলবার সকালে জেলা কারাগারে প্রেরণ করা হয়েছে।

কালিগঞ্জে উপজেলা আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি লীগের পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন

বিশেষ প্রতিনিধি: বাংলাদেশ আওয়ামী তথ্য-প্রযুক্তি লীগ কালিগঞ্জ উপজেলা শাখার ৫২ সদস্য বিশিষ্ট পুর্ণাঙ্গ কমিটি গঠন করা হয়েছে। জেলা শাখার সভাপতি এর সভাপতি এজাজ আহমেদ খান ও সাধারণ সম্পাদক আবু রায়হান সিদ্দিকী সাক্ষরিত পত্রে কমিটি গঠনের বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। কমিটির সভাপতি মনোনীত হয়েছেন মাসুদ পারভেজ ক্যাপ্টেন ও সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়েছেন হুমায়ূন কবির হান্টু।
কমিটির অন্যান্যরা হলেন সহ-সভাপতি অলিউর রহমান,সুমন কুমার ঘোষ আফছার উদ্দীন সরদার, হেলাল গাজী, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক রবিউল ইসলাম, শহিদুল ইসলাম, মনিরুজ্জামান মনি, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্রাহাম লিংকন, সহ-সাংগঠনিক সম্পাদক মামুন অর রশিদ, মনিরুল ইসলাম, কওছার আলী, অর্থ বিষয়ক সম্পাদক মোমিনুর রহমান, সহ-অর্থ বিষয়ক সম্পাদক শেখ নাসির উদ্দীন, প্রচার সম্পাদক মাসুম বিল্লাহ, সহ-প্রচার সম্পাদক আরিফুল ইসলাম, দপ্তর সম্পাদক আইয়ুব আলী, সহ-দপ্তর সম্পাদক রবিউল ইসলাম, ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক সেলিম জাহাঙ্গীর মিলন, সহ- ধর্ম বিষয়ক সম্পাদক আলমগীর হোসেন, আইন বিষয়ক সম্পাদক আব্দুল্লাহ আল মামুন (সবুজ), সহ-আইন বিষয়ক সম্পাদক শেখ আকরাম, যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক বুলবুল আহমেদ, সহ-যুব ও ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক আবু রায়হান, পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক জাকির হোসেন, সহ-পরিবেশ বিষয়ক সম্পাদক শাহাদাৎ হোসেন, মহিলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক তাহমিনা পারভীন, সহ-মহিলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক হাসিনা পারভীন, সহ-মহিলা ও শিশু বিষয়ক সম্পাদক মিতা আক্তার মিনু, মরিয়ম খাতুন, সদস্য যথাক্রমে মাসুদ, ইউসুফ আলী, শহিদুল ইসলাম, আবু হোসেন, আরিজুল ইসলাম, খবির উদ্দীন, আব্দুস সবুর, ফরহাদ হোসেন, সেলিম হোসেন, আবু মুসা, জাহাঙ্গীর আলম, মামুন, সাইফুল ইসলাম, আছাদুল ইসলাম, কবির হোসেন, খোকন, আকরাম হোসেন, জব্বার আলী, খোরশেদ আলী।

কালিগঞ্জে মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ মোড়লকে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় দাফন

নিজস্ব প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদের দাফন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১টায় উপজেলার পূর্ব নলতা আল-হেরা প্রি-ক্যাডেট মাদ্রাসা সংলগ্ন জামে মসজিদ প্রাঙ্গনে জানাজা শেষে পারিবারিক কবরস্থানে মরহুমের দাফন সম্পন্ন হয়। কালিগঞ্জ থানার সহকারী উপ-পরিদর্শক জিল্লুর রহমানের নেতৃত্বে ও গার্ড কমান্ডার সহকারী উপ-পরিদর্শক আফজাল হোসেনের পরিচালনায় গার্ড অব অনার প্রদানকালে উপস্থিত ছিলেন শ্যামনগর উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) নাহিদ হাসান। এসময় সময় এলাকার গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ছাড়াও উপস্থিত ছিলেন কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার প্রতিনিধি আরিজ উদ্দীন, নলতা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা ও সাংবাদিক আবুল হোসেন, মুক্তিযোদ্ধা যথাক্রমে গোলাম রসুল, ইসরাইল হোসেন, অজেদ মোড়ল, কাশেম আলী সরদার প্রমুখ। মুক্তিযোদ্ধা আব্দুল হামিদ মোড়ল (৬৮) গত সোমবার দিবাগত রাত ৮টার দিকে নিজস্ব বাসভবনে ইন্তেকাল করেন (ইন্নালিল্লাহি…রাজিউন)। মৃত্যুকালে তিনি স্ত্রী, ৫ ছেলে ও ২ মেয়েসহ অসংখ্য গুণগ্রাহী রেখে গেছেন। তিনি দীর্ঘদিন যাবত ডায়াবেটিস, কিডনি ও শ^াসকষ্টজনিত নানা রোগ জটিলতায় ভুগছিলেন। আব্দুল হামিদ মোড়ল ভারতের বিহারের চাকুলিয়া হতে সামরিক প্রশিক্ষণ গ্রহণ করে ৯নং সেক্টরে খুলনা, শিরোমনি, খালিশপুরসহ বিভিন্ন স্থানে যুদ্ধে অংশ নেন। যুদ্ধপরবর্তী সময়ে খুলনার খালিশপুরে অবস্থিত স্টার জুটমিলে কর্মজীবন শুরু করেন এবং সেখান থেকেই তিনি অবসর গ্রহণ করেন। মু্িক্তযোদ্ধা আবুল হামিদ মোড়লের মৃত্যুতে এলাকায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে।

নলতা শরীফে আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার ৮৫তম বর্ষপূর্তী উদ্যাপন উপলক্ষে প্রস্তুতি সভা

আহাদুজ্জামান আহাদ: বিশিষ্ট শিক্ষাবিদ, শিক্ষা ও সমাজ সংস্কারক, সাহিত্যিক, দার্শনিক, সুফী-সাধক, পীরে কামেল সুলতানুল আউলিয়া কুতুবুল আকতাব গওছে জামান আরেফ বিল¬াহ হজরত শাহ্ছুফী আলহাজ্জ খানবাহাদুর আহ্ছানউল¬া (র.) ‘¯্রষ্টার এবাদত ও সৃষ্টের সেবা’ এ মহান ব্রতকে সামনে রেখে ১৯৩৫ সালে নলতা শরীফে প্রতিষ্ঠা করেন কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশন। সেখান থেকে আহ্ছানিয়া মিশনের সংখ্যা বৃদ্ধি পেতে পেতে বর্তমানে দেশ-বিদেশে পুরুষ ও মহিলা আহ্ছানিয়া মিশনের শাখা প্রায় দুইশত বলে তথ্য পাওয়া যায়। তাই আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার ৮৫তম বর্ষপূর্তী উদ্যাপন, কেন্দ্র ও শাখা মিশন সমূহের আন্ত:সংযোগ বৃদ্ধি এবং সু-সংগঠিতকরণের লক্ষ্যে ২৮ টি লিয়াজোঁ কমিটির প্রস্তুতি সভা ৮ সেপ্টেম্বর মঙ্গলবার বিকাল ৫টা থেকে রাত সাড়ে ৭টা পর্যন্ত অনুষ্ঠিত হয়েছে।
নলতা কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সভাপতি, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি, সাবেক স্বাস্থ্যমন্ত্রী অধ্যাপক ডা. আ ফ ম রুহুল এমপি’র সভাপতিত্বে এবং এ এফ এম এনামুল হক ও প্রভাষক মো. মনিরুল ইসলামের যৌথ সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত প্রস্তুতি সভায় আরো বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার ৮৫তম বর্ষপূর্তী উদ্যাপন অনুষ্ঠানের আহবায়ক ও নলতা পাক মাজার শরীফের শ্রদ্ধেয় খাদেম মৌলভী আনছার উদ্দিন আহমদ, কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সহ-সভাপতি মো. আব্দুর রাজ্জাক, সহ-সভাপতি মুনসুর আহমদ, সাধারণ সম্পাদক মো. আব্দুল মজিদ, সাবেক সভাপতি মুহাম্মদ সেলিম উল¬াহ, যুগ্ম-সম্পাদক মো. এনামুল হক খোকন, সহ-সম্পাদক চৌধুরী আমজাদ হোসেন ও মো. মালেকুজ্জামান, কোষাধ্যক্ষ মো. আনোয়ারুল হক, কর্মকর্তা মো. সাইদুর রহমান, মো. ইউনুছ, আবুল ফজল, অধ্যক্ষ মো. রিয়াজুল ইসলাম, ডা. নজরুল ইসলাম, চেয়ারম্যান মো. আজিজুর রহমান, মো. রবিউল হক, মো. আনারুল ইসলাম, মো. আনিছুজ্জামান খোকন, ডা.আবুল কাশেম, রেজাউল ইসলাম, হাফেজ শামছুল হুদা, মাওলানা মো. আশরাফুল ইসলাম আজিজী, প্রভাষক মো. মাসুদ করিম, প্রভাষক মো. মনিরুজ্জামান মহসিন, সহকারী অধ্যাপক আব্দুল¬াহ সিদ্দিকী, প্রভাষক আহছান রউফ চান্দু, প্রভাষক বাপ্পীসহ কেন্দ্রীয় মিশনের অন্যান্য কর্মকর্তা, অনুষ্ঠান উদযাপন উপলক্ষে গঠিত ২৮টি লিয়াজোঁ কমিটির সদস্যবৃন্দ ও অনুষ্ঠান উদ্যাপনের সাব-কমিটির সদস্যবৃন্দ তথা সংশ্লি¬ষ্ট ব্যক্তিবর্গ। সভায় ২০২০ সালের নির্ধারিত দিনে আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার ৮৫তম বর্ষপূর্তী অনুষ্ঠান সফল ও সার্থক করার জন্য যার যার উপর অর্পিত দায়িত্ব সঠিকভাবে পালনের উপর গুরুত্বারোপ করা হয়।
উলে¬খ্য, ২০১৫ সালের ১৫ মার্চ নলতা শরীফে কেন্দ্রীয় আহ্ছানিয়া মিশনের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় এবং পাক মাজার শরীফের শ্রদ্ধেয় খাদেম আলহাজ্জ মৌলভী আনছার উদ্দিন আহমদের সভাপতিত্বে আহ্ছানিয়া মিশন প্রতিষ্ঠার ৮০তম বর্ষপূর্তী আনুষ্ঠান সফলভাবে সম্পন্ন হয়েছিল বলে জানা যায়।

কালিগঞ্জের মুড়াগাছায় সাঁতার প্রতিযোগিতাসহ বিভিন গ্রামীণ খেলা

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের মুড়াগাছা গাজীরহাট মোড় সংলগ্ন পুকুরে সাঁতার প্রতিযোগিতাসহ বিভিন্ন গ্রামীণ খেলাধুলা অনুষ্ঠিত হয়েছে। মঙ্গলবার বিকাল তিনটার দিকে স্থানীয় যুব কমিটির উদ্যোগে সাঁতার প্রতিযোগিতায় প্রথম স্থান অধিকার করেছেন আব্দুল আজিজ, দ্বিতীয় হয়েছেন মহাসিন হোসেন এবং তৃতীয় স্থান অধিকার করেছেন রাকিব হোসেন। খেলা শেষে বিজয়ীদের মাঝে আকর্ষনীয় পুরস্কার প্রদান করা হয়।
এছাড়াও ৩ বছরের একটি শিশু পানির উপরে ভেসে থাকা, পানির নিচে দীর্ঘক্ষণ ডুবে থাকা, কাঁটাযুক্ত খেজুর গাছের উপরে উঠে লাফালাফি করা, পানকৌড়ি ধরা, তৈলাক্ত কলাগাছের মাথায় ওঠা, হাঁড়ি ভাঙ্গাসহ বিভিন্ন আকর্ষণীয় খেলা অনুষ্ঠিত হয়।
এসময় স্থানীয় সংরক্ষিত মহিলা ইউপি সদস্য রোকেয়া খাতুন বেবী, ইউপি সদস্য আব্দুস সাত্তার, আব্দুল কাদের, হাবিবুর রহমান বাবু, সমাজসেবক জাহাঙ্গীর আলমসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ উপস্থিত ছিলেন।