তালায় মহিলা মেম্বর লাঞ্চিত’র ঘটনায় মামলা : হামলাকারীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন


প্রকাশিত : এপ্রিল ৪, ২০১২ ||

অভিযুক্তরা ঘটনার মোটিভ ঘুরাতে থানায় নাটকীয় অভিযোগ !

কপোতাক্ষ অঞ্চল প্রতিনিধি : তালা সদর ইউনিয়ন পরিষদ কার্যালয়ে মহিলা মেম্বর রেবেকা মকবুল লাঞ্চিত ও শ্লীলতাহানীর ঘটনায় অবশেষে থানায় মামলা হয়েছে। এদিকে গতকাল মঙ্গলবার বিকেলে মহিলা সংরক্ষিত ৭,৮ ও ৯ নং ওয়ার্ড বাসী ‘অনতি বিলম্বে নির্যাতন কারীদের গ্রেফতার চাই’ এই ব্যানারে মানববন্ধন শেষে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার মাধ্যমে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছে। এসময় তারা স্বারকলিপিতে উল্লেখ ‘তালা সদর ইউনিয়নের ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের সংরক্ষিত মহিলা আসনের মহিলা সদস্যা রেবেকা মকবুলের উপর ইউনিয়ন পরিষদের অফিস কক্ষে হামলা এবং শারীরিক নির্যাতন ও শ্লীলতাহানীর ঘটনায় অনতি বিলম্বে ইউপি চেয়ারম্যানসহ সংশ্লিষ্টদের গ্রেফতার পূর্বক বিচারের দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান।’ অন্যদিকে অভিযুক্ত নিয়ামত মোড়ল ঘটনার মোটিভ ভিন্নখাতে নিতে থানায় কাউন্টার মামলা করতে মরিয়া হয়ে উঠেছে।

তালা সদর ইউনিয়নের সংরক্ষিত ৭, ৮ ও ৯ নং ওয়ার্ডের মহিলা মেম্বর রেবেকা মকবুল জানান, গত সোমবার সকালে আমি ইউপি ভবনে গেলে চেয়ারম্যানের পোষ্য ক্যাডার নিয়ামত মোড়ল (৩৫) আমার উপর অতর্কিত হামলা করে। এক পর্যায়ে আমাকে জোরপূর্বক  ইউপি ভবনের মধ্যে নিয়ে শ্লীলতাহানীর চেষ্টা করা হয়। এসময় আমার আত্মচিৎকারে ইউপি সচীব সহ ২/৩ জন এগিয়ে আসলে আমাকে ফেলে রেখে পালিয়ে যায়।

তিনি আরও জানান,মাদকাসাক্ত ও বখাটে নেয়ামত পরিষদের কেউনা,অথচ সে পরিষদে ২৪ ঘন্টা অবস্থান করে মেম্বরদের সকল কাজে হস্তক্ষেপ করে। তার বিরুদ্ধে একাধীক অভিযোগ থাকলেও চেয়ারম্যান’র কারনে কেউ কিছু বলতে পারে না। তবে লাঞ্চিত ও শ্লীলতাহানীর ঘটনায় তালা থানায় মহিলা মেম্বর রেবাকা মকবুল বাদী হয়ে একটি মামলা করেছে। যার মামলা নং ৩,তারিখ ০৩/০৪/২০১২ ইং। তালা থানার ওসি মোঃ রবিউল ইসলাম মামলা হওয়ার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, আসামী গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।