নলতায় মেমোরি লোডের অন্তরালে চলছে অবৈধ ব্যবসা, যুবসমাজ ধংসের মুখে


প্রকাশিত : April 5, 2012 ||

নলতা প্রতিনিধি : নলতায় মোবাইল এর মেমোরি লোডের অন্তরালে চলছে রমরমা অবৈধ ব্যবসা। নলতা সদরের অলি গলিতে ছড়িয়ে পড়ছে এ ব্যবসা। নলতা জেলার একটি অন্যতম স্থান। এখানে রয়েছে সূফি সাধক পীরে কামেল খাঁন বাহাদুর আহছানউল্লাহ (রহ:) এর মাজার শরীফ। আর এই মাজার শরীফকে কেন্দ্র করে নলতায় গড়ে উঠেছে বহু শিল্প প্রতিষ্ঠান। এদের ভিতর কিছু অসাধু ব্যবসায়ী মোবাইলে অডিও ভিডিও লোডের নামে সাইনবোর্ড টানিয়ে গোপনে চালিয়ে যাচ্ছে অবৈধ ভিডিও লোডের ব্যবসা। প্রাপ্ত সূত্রে জানা যায়, এসব সিডি ও কম্পিউটারের দোকান গুলোতে সবসময় ভিড় লেগেই থাকে। দোকানগুলোতে না চাইতেই পাওয়া যায় দেশি বিদেশি হরেক রকম অশ্লীল ভিডিও। দেশি ভিডিওতে পাইরেসি যুক্ত করে সিডি ও মোবাইলের মেমোরি কার্ডে লোড দিয়ে বিক্রি করছে অহরহ। এমনকি বেশি বিক্রির আশায় বিদেশি বিভিন্ন অশ্লীল ছবিতে এলাকার স্কুল কলেজ পডুয়া ছেলে মেয়েদের ছবি যুক্ত করছে বলে জানা গেছে। ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের ভয়ে এসব ভিডিও ফুটেজ তাদের কম্পিউটারে ফোল্ডার লক অথবা আলাদা সিডিতে কফি করে দোকানের গোপন স্থানে রাখে বলে জানা গেছে। এ ব্যাপারে এক কাস্টমারের কাছে জানতে চাইলে তিনি বলেন, ভাই আর বলবো কি দোকানে মোবাইলে লোড দিতে যেয়ে পড়তে হচ্ছে মহা বিপাকে। সিরিয়াল দিয়ে লাইনে দাঁড়িয়ে থাকার মত অবস্থা। কারণ উঠতি বয়সের ছেলে এমনকি মেয়েরাও সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত এসব দোকানে ভিড় করছে। নলতার বেশ কিছু মোবাইল, ষ্টুডিও, ঘড়ি ও লাইব্রেরির দোকানের অন্তরালে কম্পিউটার মাধ্যমে চালিয়ে যাচ্ছে এই মুক্ত বাণিজ্য। এমনকি নলতার অলি গলিতে পর্যন্ত ছোট ছোট টল বসিয়ে এই ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। দেশের অন্যান্য স্থানে এ ব্যাপারে অভিযান অব্যাহত থাকলেও এখনো পর্যন্ত নলতায় কোন অভিযান পরিচালনা করেনি সংশ্লিষ্ট প্রশাসন। এর ফলে সবচেয়ে ক্ষতিগ্রস্থ হচ্ছে এলাকার যুব সমাজ। এ ব্যাপারে বিভিন্ন সময় পত্র পত্রিকায় লেখালেখি হলেও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা না নেয়ায় অভিভাবকরা তাদের সন্তানদের নিয়ে চিন্তিত হয়ে পরেছেন। এব্যাপারে কর্তৃপক্ষের দৃষ্টি আকর্ষণ করেছে এলাকাবাসী।