আমাদের আয়ের অর্থ সাতক্ষীরার উন্নয়নের জন্য আদায় করতে হবে : স্বাস্থ্যমন্ত্রী রুহুল হক


প্রকাশিত : জুলাই ৮, ২০১২ ||

আহসান হাবিব, আশাশুনি : স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী অধ্যাপক ডাঃ আ ফ ম রুহুল হক বলেছেন, স্বাস্থ্য সেবা মানুষের দোড় গোড়ায় পৌঁছে দিতে পারায় বাংলাদেশ বিশ্ব দরবারে প্রশংসা পেয়েছে। কমিউনিটি ক্লিনিকের মাধ্যমে স্বাস্থ্য সেবা দেখে বান কি মুন, ড. বাবাচন্ডেসহ বহু দেশ প্রশংসা করেছে। বর্তমান সরকার শিশু মৃত্যুর হার, টিকাদান পদ্ধতি, মাতৃত্ব মৃত্যুর হার, জন্ম নিয়ন্ত্রণ পদ্ধতি, শিক্ষার মান উন্নয়নসহ চাকুরীর বয়সসীমা বাড়িয়েছে। বিশ্ব দরবারে চিকিৎসা খাতে মাথাপিছু যেখানে ২৮/৩০ ডলার খরচ হয়, সেখানে বাংলাদেশ মাথাপিছু মাত্র ৮ ডলারে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছে এটা জেনে বিশ্বব্যাপী প্রশংসিত হয়েছে। যেমন আমরা দক্ষিণ-দক্ষিণ সহযোগিতা পুরস্কার পেয়েছি। আইটি পদ্ধতিতে স্বাস্থ্য বিভাগের উন্নত চিকিৎসা ব্যবস্থা করা হয়েছে। তিনি বলেন, আমি প্রচার বিমুখ, কথা গুছিয়ে বলতে পারিনা, সময় মত আসতে পারিনা, সেটাই আমার দোষ। তবে আমার কাছে এলাকার মানুষ কোন কাজ নিয়ে ফিরে এসেছে, এটা বললে, আমি বলব, সে মিথ্যা কথা বলছে। শনিবার সকালে আশাশুনি ডিগ্রী কলেজ মিলনায়তনে জাতীয় মৎস্য সপ্তাহ’১২ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। উপজেলা পরিষদ পুকুরে মৎস্য পোনা অবমুক্ত করে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা শরীফ নজরুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভার শুরুতে কোরআন তেলাওয়াত করেন মাওঃ আবুল বাশার ও গীতা পাঠ করেন অসীম চক্রবর্তী। পরে মাস্টার অজিত বৈরাগীর দলের পরিবেশনায় উদ্বোধনী সংগীত পরিবেশন করা হয়। অসীম চক্রবর্তীর উপস্থাপনায় প্রধান অতিথি আরও বলেন, আওয়ামী লীগ সরকার গরীবের পেটের খোঁজ রাখে, বিধায় নিত্য প্রয়োজনীয় জিনিসের দাম সহনশীল রয়েছে। বাংলাদেশ সাদা সোনা নামে খ্যাত চিংড়ি বিদেশে রপ্তানি করে প্রতিবছর ২ হাজার কোটি টাকা রাজস্ব আয় করে। সে অনুপাতে আমাদের সাতক্ষীরার উন্নয়নে আমাদের আয়ের অর্থ আদায় করতে হবে। এই জেলায় আমি একমাত্র ব্যক্তি যে, সাড়ে তিন বছর কেবিনেট মন্ত্রী হিসাবে আছি। অন্য কোন সরকারের আমলে সাতক্ষীরায় এতদিন মন্ত্রী ছিল না। দেশে ২৩ কোটি বই ছাত্র-ছাত্রীদের ঘরে পৌঁছে যায়, মহিলারা ভাতা পায়, ৩ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ নিয়ে ক্ষমতায় এসে ৫/৬ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুৎ তৈরী করেছি। বাংলাদেশের মানুষকে যারা ভাল চোখে দেখে না, তারা এখন একত্রিত হয়েছে। আমাদের তর্ক বিতর্ক করার সময় নাই। দেশের উন্নয়ন করতে হলে চাই শেখ হাসিনার সরকার। তিনি নির্বাচনী সব ওয়াদা পূরণ করায়, বিরোধী দলীয় নেতারা ঈর্ষান্নিত হয়ে দেশে অরাজকতা সৃষ্টি করছে। উক্ত অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদ প্রশাসক সাবেক এমপি মুনছুর আহম্মেদ, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) মনোয়ার হোসেন, উপজেলা চেয়ারম্যান আবু বাশার মুহাম্মাদ মোস্তাকিম, জেলা মৎস্যজীবী সমিতির সভাপতি মোল্যা রফিকুল ইসলাম, উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ডাঃ মোখলেছুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আব্দুল হান্নান, ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল, শেখ জাকির হোসেন প্রমুখ। সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন উপজেলা সিনিয়র মৎস্য কর্মকর্তা নৃপেন্দ্রনাথ বিশ্বাস ও মানপত্র পাঠ করেন অধ্যক্ষ রুহুল আমিন। অনুষ্ঠান শেষে বিশিষ্ট চিংড়ি ব্যবসায়ী রাজ্যেশ্বর দাশকে শ্রেষ্ঠ মৎস্যচাষী, মুশফিক হায়দার সুমনকে শ্রেষ্ঠ পোনা চাষী ও পিরোজপুর সমবায় সমিতি কে শ্রেষ্ঠ মৎস্য সমিতি হিসাবে পুরস্কৃত করেন।