তালার ত্রাস বিদ্যুৎ বাহিনী প্রধান বিদ্যুৎ ২ সহযোগীসহ গ্রেফতার


প্রকাশিত : জুলাই ২০, ২০১২ ||

তালা প্রতিনিধি: পুলিশের পুরষ্কার ঘোষিত সন্ত্রাসী, তালার ত্রাস, বিদ্যুৎ বাহিনী প্রধান বিদ্যুৎ বাছাড় গুলি, ফেন্সিডিল ও ২ একান্ত সহযোগী সহ আবারও আটক হয়েছে। গত বৃহস্পতিবার রাতে তালার সিমান্তবর্তী বিনোরপোতা এলাকা থেকে পুলিশ তাদের আটক করে। তালা থানা পুলিশের তালিকাভুক্ত শীর্ষ সন্ত্রাসী ধৃত বিদ্যুতের বিরুদ্ধে তালা থানায় হত্যা, ডাকাতি, চাঁদাবজি, ছিনতাই, চুরি ও অস্ত্র সহ বিভিন্ন ধরনের দেড় ডজন মামলা রয়েছে। এছাড়া আশপাশের থানায় তার নামে আরও একাধিক মামলা রয়েছে। যার অধিকাংশ মামলা বিচারাধীন। বিগত ২০০০ সালের দিকে উপজেলার মাগুরা এলাকায বিদ্যুৎ বাহিনীর সাথে পুলিশ ও যৌথ বাহিনীর মুখোমুখি বন্দুক যুদ্ধে প্রথমবারের মতো অস্ত্র ও সঙ্গী সহ আটক হয় বিদ্যূৎ। দীর্ঘ ৪/৫ বছর জেল খাটার পর জামিনে এসে এলাকায় আবারও শুরু করে রামরাজত্ব। এরপর সে একাধিকবার বিভিন্ন সন্ত্রাসী ঘটনায় পুলিশের হাতে ধরা পড়লেও আদালত থেকে জামিনে এসে সে এলাকায় পুনরায় তার বাহিনী দিয়ে ছিনতাই, চাঁদাবাজী, হত্যা, ডাকাতি সহ নানান সন্ত্রাসী কর্মকান্ড চালিয়ে যায়। এলাকার মানুষের নিকট মূর্তিমান আতংক, বিদ্যুৎ বাহিনীর অত্যাচারে অতিষ্ঠ ছিল সাধারন মানুষ। সম্প্রতি বিদ্যূৎ তালার খেশরা ইউনিয়নের ইউপি সদস্য রাশেদ সানাকে হত্যার উদ্দেশ্যে গুলি ও বোমা নিক্ষেপ ও জেয়ালা ঘোষপাড়ায় ২০ লক্ষ টাকার সম্পদ ডাকাতিতে সম্পৃক্ত থাকায় পুলিশ প্রশাসন আবারও তাকে ধরতে তৎপর হয়ে ওঠে। তালা উপজেলার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতি অবনতি দেখা দিলে পুলিশ ২ শীর্ষ সন্ত্রাসী বিদ্যুৎ বাছাড় ও মোজাফ্ফরকে ধরিয়ে দেবার জন্য ১০ হাজার টাকা করে পুরষ্কার ঘোষনা করে।

তালা থানার ওসি মো. রবিউল ইসলাম জানান, বৃহস্পতিবার রাত ৯ টার দিকে উপজেলার মাগুরাডাঙ্গা গ্রামের মৃত.কানাইলাল বাঁছাড়ের পুত্র বিদ্যুৎ বাছাড় (৪০) তার একান্ত সহযোগী উপজেলার শাহাপুর গ্রামের ছমির খাঁর পুত্র ডাকাতি, ছিনতাই ও মাদক সহ একাধিক মামলার আসামী, সন্ত্রাসী বিল্লাল খাঁ (৩২) এবং বিদ্যুতের আপন ভাতিজা ও অস্ত্র ভান্ডারের রক্ষক শতীষ বাছাড়ের কন্যা পূর্নীমা রানী (২০) কে নিয়ে মটরসাইকেল যোগে ভারতে পালিয়ে যাবার চেষ্টা করে। গোপন এমন সংবাদের ভিত্তিতে থানার সকল অফিসার ও অন্যান্য ফোর্স নিয়ে থানার সিমান্তবর্তী বিনোরপোতা ব্রীজ সংলগ্ম খুলনা-যশোর সড়কে ব্যরিকেড দিয়ে তাদের আটক করা হয়। এসময় তাদের দেহ তল্লাশি করে ২০ বোতল ফেন্সিডিল, ৬ রাউন্ড থ্রী নট থ্রী রাইফেলের গুলি, ১ রাউন্ড বন্দুকের গুলি ও একটি নাম্বরবিহীন মটরসাইকেল উদ্ধার করা হয়। তিনি আরও জানান, বিদ্যুৎ বাহিনীর নিকট বোমা সহ বিভিন্ন ধরনের একাধিক আগ্নেয়স্ত্র রয়েছে। এসকল অস্ত্র গুলো বিদ্যুৎ তার ভাতিজা পূর্নীমার তত্বাবধানে রয়েছে। এসকল অস্ত্র উদ্ধারের জন্য গতকাল শুক্রবার সকালে পুলিশ অভিযান চালিয়ে নিজ বাড়ি থেকে পূর্নীমার বাবা শতীষ বাছাড় (৬০) কে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে। এই রিপোর্ট লেখাকালীন গ্রেফতারকৃতদের বিরুদ্ধে অস্ত্র ও মাদক দ্রব্য আইনে মামলার প্রস্তুতি চলছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।

এদিকে বাহিনী প্রধান বিদ্যুৎ সহ তার ২ সঙ্গী সন্ত্রাসীকে আটক করায় এলাকার মানুষের মাঝে স্বস্তি ফিরে এসেছে।