রাখে আল−াহ মারে কে!


প্রকাশিত : August 24, 2012 ||

সামিউল মনির, শ্যামনগর: সাতক্ষীরার উদ্দেশ্যে যাত্রীবাহী একটি বাস শ্যামনগর বাসস্ট্যান্ড অতিক্রম করে বেলা সাড়ে দশটার দিকে। কয়েক মিনিটের মধ্যে প্রচন্ড এক বিস্ফোরণে গোটা এলাকা প্রকম্পিত হয়। মুহূর্তেই ছড়িয়ে পড়ে সাতক্ষীরা অভিমুখে ছেড়ে যাওয়া গেটলক বাসটি বাসস্ট্যান্ড থেকে দুইশ গজ দূরত্ব অতিক্রম করে দুর্ঘটনার শিকার হয়েছে। গাড়ির চালক ও স্থানীয়রা জানায়, স্থানীয় এমপি গোলাম রেজার বাড়ি পর্যন্ত পৌঁছানো মাত্রই যাত্রীবাহী বাসটির সামনের বাম পাশের টায়ার বিস্ফোরিত হয়। এসময় চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে ফেললে গাড়িটি বাম পাশ দিয়ে সাইকেলযোগে এগিয়ে চলা এক যুবককে অনেকটা মুখে করে নিয়ে প্রচন্ড জোরে ধাক্কা মারে রাˉ—ার পাশের বড় একটি কড়ই গাছে।

এসময় গাড়ির সম্মুখভাগ দুমড়ে মুচড়ে যাওয়ার পাশাপাশি গাড়ির জানালার কাঁচ ভেঙে অনেকেই আহত হয়। গাড়িটি কাত হয়ে যাওয়ায় প্রত্যেকে তার নিজের বসার স্থান থেকে বিচ্যুত হয়।

সরেজমিনে ঘটনাস্থলে পৌঁছে জানা যায়, মুন্সিগঞ্জের নজরুল গাজী ও তার স্ত্রী কলালোয়া উপজেলার মাদরা গ্রামে যাচ্ছিল জামাইয়ের বাড়িতে। দুর্ঘটনার সময় মাত্র পনের দিন বয়সী নাতি শাব্বির ছিলেন নানি রুপালী বেগমের কোলে। দুর্ঘটনার পরপরই তার কোল থেকে শাব্বির সরে গেলেও ভাগ্যক্রমে ছোট শিশুটির কোন ক্ষতি হয়নি। ঘটনার আকস্মিকতা কাটিয়ে উঠতে প্রায় দশ মিনিট সময় লেগে যায় রুপালী ও তার পরিবারের। পরক্ষণে তারা উপলব্ধি করেন পনের দিনের শিশু শাব্বির শোভা পাচ্ছে ˉ’ানীয় এক উদ্ধারকর্মীর কোলে। সে জানায়, কোথা থেকে কিভাবে শিশুটি তার কাছে এসেছে সেকথা তার স্মরণে নেই। শুধু জানে যে শিশুটি লাফিয়ে তার কোলে এসে পড়ে।

এ ঘটনা রটে যাওয়ার পর স্থানীয়দের মুখে বলতে শোনা যায় রাখে আল−াহ মারে কে!