সরকার দেশের মানুষের নিরাপত্তা হরণ করেছে: জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ১২, ২০১২ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সরকারের কঠোর সমালোচনা করে সাতক্ষীরা জেলা বিএনপির নেতৃবৃন্দ বলেন, তত্ত্বাবধায়ক সরকার ব্যবস্থা বিলুপ্ত করে সরকার গণতন্ত্রকে গলাটিপে হত্যা করেছে। কিন্ত তত্ত্বাবধায়ক সরকার ছাড়া এ দেশে কোন নির্বাচন হবে না। গতকাল মঙ্গলবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা শহরের খুলনা রোড মোড়ে জেলা স্বেচ্ছাসেবক দল আয়োজিত এক আলোচনা সভায় বিএনপি নেতারা এসব কথা বলেন।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নামে মিথ্যা মামলা ও হামলা চালিয়ে সরকার গোটা দেশে অশান্তির আগুন জ্বালিয়ে দিয়েছে। দেশের মানুষের নিরাপত্তা হরণ করে সরকার সন্ত্রাসের রাজত্ব কায়েম করেছে। জনগণের সাথে ধোকা দিয়ে ক্ষমতায় এসে সরকার গোটা দেশকে দুর্নীতির নরকে পরিণত করেছে।

জেলা বিএনপি নেতারা বলেন, দেশবাসী আর দুর্নীতিবাজ ও ধোকাবাজ সরকারের মুখ দেখতে চায় না। দেশবাসী নির্দলীয় নিরপেক্ষ তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে অবাধ, সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ নির্বাচন চায়।

নেতৃবৃন্দ বলেন, দুর্নীতি রন্ধ্রে রন্ধ্রে প্রবেশ করেছে। সরকারের মন্ত্রী-এমপিরা দুর্নীতির মাধ্যমে কোটি কোটি টাকার মালিব হয়েছে। সারা দেশে আওয়ামী সন্ত্রাসীরা গুম, খুন, চাঁদাবাজি, লুটতরাজ, ধর্ষণ, টেন্ডারবাজি চালাচ্ছে। এ অবস্থা থেকে দেশের মানুষ মুক্তি চায়। জেলা স্বেচ্ছাসেবক দলের আহবায়ক তারিকুল হাসানের সভাপতিত্বে আলোচনা সভায় বক্তব্য রাখেন, জেলা বিএনপির  সভাপতি সাবেক এমপি হাবিবুল ইসলাম হাবিব, জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক এড, সৈয়দ ইফতেখার আলী, যুগ্ম সম্পাদক মোদাচ্ছেরুল হক হুদা, সাংগঠনিক সম্পাদক তাসকিন আহমেদ চিশতি, সদর থানা বিএনপির সভাপতি চেয়ারম্যান আব্দুল আলিম, পৌর বিএনপির সভাপতি আবুল হাসান হাদী, জেলা কৃষক দলের সাধারণ সম্পাদক আবু জাহিদ ডাবলু, মারুফ হাসান, খোরশেদ আলম, আইনুল ইসলাম নান্টা, আহাদুজ্জামান আর্জেদ, শফিকুল আলম বাবু, আবিদুল হক মুন্না প্রমুখ।  সভা পরিচালনা করেন, এড. কামরুজ্জামান ভুট্টো।