সাতক্ষীরায় জেলা সাহিত্য সম্মেলনে দু বাংলার কবি সাহিতিকদের মিলন মেলা

এস.এম. শহিদুল ইসলাম : গ্রীস্মের কান্না বর্ষা। আর বর্ষার চোখ মোছাতে প্রকৃতির রঙ্গমঞ্চে এসেছে শরৎ। ছেঁড়া ছেঁড়া মেঘ। ধানের ক্ষেতে রৌদ্র ছায়ায় লুকোচুরির খেলা। এমনই স্বপ্নিল পরিবেশে শনিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে সাতক্ষীরা জেলা সাহিত্য সম্মেলন। সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমীতে অনুষ্ঠিত হয় এ সম্মেলন। সম্মেলন কে ঘিরে সাতক্ষীরা শিল্পকলা একাডেমি পরিণত হয় দু বাংলার প্রখ্যাত কবি সাহিত্যিকদের মিলন মেলায়।
গতকাল সকাল ৯টায় জাতীয় পতাকা উত্তোলন ও জাতীয় সঙ্গীত পরিবেশনের মধ্যে দিয়ে শুরু হয় সম্মেলন। সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম সম্মেলনের উদ্বোধন করেন। এরপর তৃপ্তি মোহন মল্লিক ও তারদল পরিবেশণ করেন সম্মেলন সঙ্গীত। সম্মেলনের প্রথম পর্বে সভাপতিত্ব করেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার ইনামুল হক বিশ্বাস। এতে বক্তব্য রাখেন, সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, অধ্যক্ষ সুকুমার দাস, দৈনিক কালের চিত্রের সম্পাদক আবু আহমেদ, জেলা  জাপার সভাপতি শেখ আজাহার হোসেন, সম্মিলিত সাহিত্য উদ্যোগের নির্বাহী সভাপতি গাজী শাহজাহান সিরাজ, নিশিকান্ড বন্দ্যোাপাধ্যায়, কলকাতার শচীন দাশ, আব্দুস শুকুর খান, অপূর্ব দত্ত, ঢাকার সাযযাদ কাদির, গোলাম কিবরিয়া পিনু, হাসান মোস্তাফিজুর রহমান, শামিম হোসেন, অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, খায়রুল বাসার, গাজী আজিজুর রহমান, শেখ আব্দুল ওয়াদুদ, কবীর রায়হান, সালেহা আক্তার প্রমুখ। আলোচনা ও আবৃত্তিতে মুখরিত হয় শিল্পকলা একাডেমি মিলনায়তন। সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের উপাধ্যক্ষ  নিমাই চন্দ্র মন্ডল, নিশিকান্ড বন্দ্যোপাধ্যায়, এস তুহিন, সৈয়দ একতেদার আলী, জেসমিন নাহার খুশিসহ প্রমুখ আবৃত্তি করে সম্মেলনকে মুখরিত করেন। আবৃত্তি শেষে প্রানোচ্ছ্বাস পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয় মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান। এতে স্থানীয় শিল্পীরা সঙ্গীত পরিবেশন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন অরুপ কুমার সাহা, নিত্যানন্দ সরকার, সুফিয়ান সজল ও বেনু খান।

নিখোঁজ মৎস্য আহরণকারীর লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ

পত্রদূত ডেস্ক: দেবহাটা উপজেলার সীমান্ত নদী ইছামতিতে নিখোঁজ মৎস্য আহরণকারীর লাশ ফেরত দিয়েছে বিএসএফ। শনিবার দুপুরে বিজিবি ও বিএসএফ’র পতাকা বৈঠক শেষে ওই লাশ হস্তান্তর করা হয়। নিহতের নাম নজরুল ইসলাম। সে দেবহাটার কোমরপুর গ্রামের মৃত এন্তাজ মোড়লের ছেলে। গত ৩ দিন আগে নজরুল ইছামতিতে মাছ ধরতে যেয়ে নিখোঁজ হয়েছিল। গতকাল সকালে ভারতীয় সীমান্তে সে দেশের বিএসএফ লাশ পাওয়ার পর আনুষ্ঠানিকভাবে হস্তান্তর করে।

বিজিবি জানায়, গত বুধবার সকালে সে ইছামতি নদীতে মাছ ধরতে যায়। এরপর থেকে নিখোঁজ ছিল। পরিবারের সদস্যরা খোজাঁখুজিঁর পর না পেয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে পড়ে। ভারতের সীমানায় নজরুলের লাশ ভেসে উঠলে বিএসএফ বিজিবিকে জানিয়ে উপজেলার চরশ্রীপুর এলাকায় পতাকা বৈঠকের মাধ্যমে শনিবার দুপুরে লাশ হস্তান্তর করে। বৈঠকে বাংলাদেশের পক্ষে নেতৃত্ব দেন দেবহাটা বিজিবি ক্যাম্পের কোম্পানি কমান্ডার সুবেদার সুলতান হোসেন। ভারতের পক্ষে নেতৃত্ব দেন সোলপুর বিএসএফ ক্যাম্পের ইন্সপেক্টর শিবচরন কুমার।

দেবহাটা বিজিবি ক্যাম্পের সুবেদার সুলতান হোসেন বিষয়টি নিশ্চিত করে লাশটি তার পরিবারের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে বলে জানান।

 

 

 

 

 

জেলায় চলতি অর্থ বছরে ২১টি সাইক্লোন সেন্টার নির্মিত হবে

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা সদর এমপি এমএ জব্বার শিক্ষার্থীদের মানবীয় গুণাবলীর আলোকে চরিত্র গঠন করে সততা ও নিষ্ঠার সাথে নির্ভেজাল দেশ প্রেমিক হিসেবে গড়ে ওঠার আহ্বান জানিয়ে বলেছেন, জ্ঞানভিত্তিক আলোকিত সমাজ বির্নিমাণে শিক্ষক ও শিক্ষার্থীরা দেশের ভবিষ্যৎ কাণ্ডারী। শিক্ষার আলো অন্ধকারাচ্ছন্ন সমাজ থেকে কুসংস্কার ও ধর্মান্ধতা দূর করে। শিক্ষা ছাড়া কোন জাতি উন্নতি করতে পারে না। নারী শিক্ষার উপর গুরুত্বারোপ করে এমপি জব্বার বলেন, একজন শিক্ষিত মা-ই পারেন একটি শিক্ষিত জাতি উপহার দিতে। নারী শিক্ষার উন্নয়ন ছাড়া দেশের সামষ্টিক উন্নয়ন সম্ভব নয়। এমপি জব্বার বলেন, বর্তমান সরকার শিক্ষা বান্ধব সরকার। শিক্ষার গুণগত মানোন্নয়নে ও শিশুর প্রতিভা বিকাশে সরকার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন নতুন ভবন নির্মাণ করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি করছে। শিক্ষকদের প্রশিক্ষণ দিচ্ছে। গরীব মেধাবী শিক্ষার্থীদের উপবৃত্তি প্রদান করছে। তিনি বলেন, সরকার বিগত ৩ বছর ৮ মাসে সাতক্ষীরায় যে উন্নয়ন করেছে তা গত ৪০ বছরেও হয় নি। সাতক্ষীরা সদরের ব্রহ্মরাজপুর ডিবি গালর্স হাইস্কুল, আবাদের হাট গালর্স হাইস্কুল, ভোমরা পল্লীশ্রী হাইস্কুলসহ কয়েকটি স্কুলের নাম উল্লেখ করে তিনি বলেন, বর্তমান সরকার সাতক্ষীরা সদরে ৮টি শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে নতুন ভবন নির্মাণ করে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। উন্নয়নের এ ধারা অব্যাহত আছে। চলতি বছরে সাতক্ষীরা জেলায় ২১টি সাইক্লোন সেন্টার হবে। তার মধ্যে সাতক্ষীরা সদরে হবে ৭টি। এসব সাইক্লোন সেন্টার হবে কোন না কোন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে। ফলে ওই সব শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে ফিরে আসবে শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ। তিনি আরো বলেন, অতি বর্ষণ জনিত কারণে সাতক্ষীরার রাস্তাঘাটগুলো পঁচে গেছে। এসব রাস্তাঘাটগুলো আগামী সাত দিনের মধ্যে সংস্কার করে জনগণের চলাচলের উপযোগী করা হবে। ভ্যান-রিকশা-সাইকেল চালকরা এসব ভাঙাচোরা রাস্তায় চলাচল করতে গিয়ে সীমাহীন দুর্ভোগ পোহাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, সাতক্ষীরা পৌরসভার সকল রাস্তা মেরামতে বরাদ্দ পাওয়া গেছে। এছাড়া ভোমরা সড়ক, বাদামতলা সড়ক, নারকেলতলা থেকে থানাঘাটা সড়কসহ সাতটি রাস্তা আগামী সাত দিনের মধ্যে সংস্কারের জন্য সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে কঠোর নির্দেশ দেয়া হয়েছে। মানুষের সর্বোচ্চ সেবা নিশ্চিত করতে হবে। সরকারি কোন দপ্তর থেকে কোন মানুষ সেবা থেকে বঞ্চিত হলে, সে দপ্তরের কর্মকর্তাকে সাতক্ষীরা ছেড়ে চলে যাবার আহবান জানান এমপি জব্বার।

শনিবার সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়নের এনবিবিকে আল মদীনা দাখিল মাদরাসায় নতুন সাইক্লোন সেন্টার নির্মাণের লক্ষ্যে স্থান পরিদর্শন ও মাদরাসার ভবন সম্প্রসার উপলক্ষ্যে আয়োজিত এক মতবিনিময় সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্যে সাতক্ষীরা সদর এমপি এম এ জব্বার এসব কথা বলেন। মাদরাসার সভাপতি শওকাত হোসেনের সভাপতিত্বে মতবিনিময় সভায় বক্তব্য রাখেন, প্রকৌশলী মাহমুদুল হক, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাংগঠনিক সম্পাদক জাহাঙ্গীর কবীর, ত্রাণ ও দুর্যোগ বিষয়ক সম্পাদক কানাইলাল সাহা, দপ্তর সম্পাদক শেখ নাঈম আহমেদ, ব্রহ্মরাজপুর ইউনিয়ন জাপার সভাপতি আব্দুল খালেক, সাধারণ সম্পাদক শামসুর রহমান সোনা, ধূলিহর ইউনিয়ন জাপার সভাপতি আরশাদ আলী, মাদরাসার সুপার এবিএম হাফিজুর রহমান, সহ-সুপার আতিয়ার রহমান, সহ-শিক্ষক সাইফুল্লাহ সরদার, মোজাফফর রহমান, ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সুমাইয়া খাতুন প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন শিক্ষক আলমগীর হোসেন।

 

 

 

আগামী ১৬ অক্টোবর সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নির্বাচন

নিজস্ব প্রতিনিধি: আগামী ১৬ অক্টোবর সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের নির্বাচন। শনিবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের বার্ষিক সাধারণ সভায় এ তফশিল ঘোষণা করা হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন প্রেসক্লাবের সভাপতি আবুল কালাম আজাদ। সভায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি অধ্যক্ষ আবু আহমেদ, জিএম মনিরুল ইসলাম মিনি ও বর্তমান সভাপতি আবুল কালাম আজাদ সকল দ্বিধা-দ্বন্দ্ব-বিভেদ ভুলে সাংবাদিকদের ঐক্যবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। সভায় ৬ লাখ ৬৩ হাজার ৪৪৬ টাকার আয় ব্যয়ের হিসাব অনুমোদন করা হয়। এর মধ্যে প্রত্যেক সদস্যের নামে ১২ হাজার টাকার একটি করে এফডিআর খোলা হয়েছে বলে জানানো হয়। এর আগে সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের গঠনতন্ত্রে কল্যাণ তহবিল ও সঞ্চয় তহবিল সংক্রান্ত বিধান যুক্ত করে নতুন ধারা সংযোজন এবং কতিপয় ধারা সংশোধনের লক্ষ্যে পৃথক সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় এ্যাড. অরুন ব্যানার্জিকে আহবায়ক এবং এ্যাড. দিলীপ কুমার দেব ও আবুল কাশেমকে সদস্য করে তিন সদস্য বিশিষ্ট নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়।

সভায় বার্ষিক রিপোর্ট পেশ করেন প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল বারী এবং আয় ব্যয়ের হিসাব পেশ করেন অর্থ সম্পাদক কালি দাস রায়। সভায় উপস্থিত ছিলেন, দৈনিক কালের চিত্র’র সম্পাদক আবু আহমেদ, দৈনিক ইত্তেফাক ও একুশে টিভির জিএম মনিরুল ইসলাম মিনি, বাসসের এ্যাড. অরুন ব্যানার্জি, বিটিভি ও সকালের খবর এবং পূর্বাঞ্চলের মোজাফর রহমান, ইনকিলাবের আব্দুল ওয়াজেদ কচি, সমকাল ও এটিএন বাংলার এম কামরুজ্জামান, জনকন্ঠের মিজানুর রহমান, আমাদের সময়ের মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, লোকসমাজের শেখ মাসুদ হোসেন, আমাদের অর্থনীতির শেখ ফরিদ আহমেদ ময়না, মানব জমিনের ইয়ারব হোসেন, বাংলাদেশ প্রতিদিন ও চ্যানেল টুয়েন্টিফোর’র মনিরুল ইসলাম মনি, সময়ের খবরের রুহুল কুদ্দুস, নিউ নেশনের এবিএম মোস্তাফিজুর রহমান, এনএনবির ও সময় টিভির মমতাজ আহমেদ বাপী, আবাসের কাজী জামাল উদ্দিন মামুন, জনতার কালি দাস রায়, পত্রদূতের এ্যাড. খায়রুল বদিউজ্জামান, মোহনা টিভি ও সমাজের কথার আব্দুল জলিল, বাংলাবাজার পত্রিকার গোলাম সরোয়ার, ভোরের কাগজের দিলীপ কুমার দেব, গ্রামের কন্ঠের সেলিম রেজা মুকুল, সংবাদের আবুল কাশেম, বৈশাখী টিভির শামিম পারভেজ, গাজী টিভির অসিম বরন চক্রবর্তী, আজকালের খবরের এম জিললুর রহমান, কালের চিত্র, খবর পত্র ও অনির্বানের রবিউল ইসলাম, কালের চিত্রের আশরাফুল ইসলাম খোকন প্রমুখ।

 

 

 

পাঁচ মাদক সেবীকে ১৯ হাজার টাকা জরিমানা

ডেস্ক রিপোর্ট: মাদক সেবন করার অভিযোগে আটকের পর জরিমানা দিয়ে মুক্তি পেয়েছে ৫ ব্যক্তি। শনিবার সকালে শহরের খুলনার রোড এলাকা থেকে ডিবি পুলিশ তাদেরকে আটক করে। এসময় ৫ জনকে ১৯ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে।

সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসনের বেঞ্চ সহকারি জগদিস বিশ্বাস জানান, ডিবি পুলিশ সকালে অভিযান চালিয়ে শহরের সদর হাসপাতাল সংলগ্ন এলাকা থেকে ৫ মাদক সেবনকারীকে আটক করে। ধৃতরা হল শহরের পলাশপোল গ্রামের আবু তালেবের ছেলে সাইদুল, ইকবাল হোসেনের ছেলে রবিউল, আমীর আলীর ছেলে সোহরাব, মতিয়ারের ছেলে বিল্লাল হোসেন ও গনি গাজির ছেলে আবুল কালাম। ধৃত ৫ জনের ২ জনকে ১০ হাজার টাকা ও ৩ জনকে ৯ হাজার টাকা জরিমানা শেষে ছেড়ে দেওয়া হয়। গতকাল দুপুরে সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রেজাউল করিম এ জরিমানা করেন।

কালিগঞ্জের কুশলিয়ায় মন্দিরের মূর্তি ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের কুশলিয়ায় একটি মন্দিরের ভিতরে প্রবেশ করে সনাতন ধর্মাবলম্বীদের দেবতা শ্রী শ্রী ব্রক্ষ্মার মূর্তি ভাংচুর করেছে দুর্বৃত্তরা। ঘটনাটি ঘটেছে গত শুক্রবার দিবাগত রাতে। এ ঘটনায় এলাকার সনাতন ধর্মাবলম্বীদের মাঝে আতংক সৃষ্টি হয়েছে।

সরেজমিন জানা যায়, উপজেলার কুশলিয়া-চন্ডিতলা সড়কের সোলাকুড়া এলাকায় সনাতন ধর্মাবলম্বীদের একটি ব্রক্ষ্মা মন্দির রয়েছে। কুশলিয়া ও পার্শ্ববর্তী এলাকার ভক্তবৃন্দ এই মন্দিরে প্রায় ২শ’ বছর যাবত ব্রক্ষ্মা ও লক্ষী পূজা করে আসছে। মন্দির কমিটির সাধারণ সম্পাদক নারায়ন চন্দ্র মন্ডল (৫২) জানান, তিনি গতকাল ভোর সাড়ে ৬ টার দিকে মন্দিরের বাশের তৈরী দরজা বাইরে পড়ে আছে এমন খবরের ভিত্তিতে তিনি মন্দিরে যান। এসময় মন্দিরের বেদী থেকে ব্রক্ষ্মা ও ষষ্ঠী দেবতার মূর্তি নিচে নামানো অবস্থায় দেখতে পান। এক পর্যায়ে তিনি ব্রক্ষ্মা মূর্তির মস্তক ও দু’টি হাত সম্পূর্ণ বিচ্ছিন্ন অবস্থায় নিচে পড়ে থাকতে দেখেন। বিষয়টি তিনি স্থানীয় ইউপি সদস্য কাজী গোলাম মোস্তফা, মন্দির কমিটির অন্যান্য সদস্যসহ এলাকাবাসীকে জানান। খবর পেয়ে কালিগঞ্জ সার্কেলের সহকারি পুলিশ সুপার মোহাম্মদ তাজুল ইসলাম ও থানা পুলিশ দ্রুত ঘটনাস্থলে পৌঁছান। পরবর্তীতে সাতক্ষীরা পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান, কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার তৌফিক-ই-লাহী চৌধুরী, কালিগঞ্জ উপজেলা পূজা উদ্যাপন পরিষদের সভাপতি অধ্যাপক সনৎ কুমার গাইন, সাধারণ সম্পাদক ডা. মিলন কুমার ঘোষ, যুগ্ম সম্পাদক অধ্যাপক নারায়ন চন্দ্র চক্রবর্তী রাজিবসহ সাংবাদিকবৃন্দ ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশ সুপার মূর্তি ভাঙার সাথে জড়িত দুর্বৃত্তদের খুঁজে বের করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি প্রদানের আশ্বাস দেন। সাতক্ষীরা জেলা পরিষদের প্রশাসক ও সাবেক সংসদ সদস্য মুনসুর আহম্মেদ গতকাল বিকেলে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। বর্তমানে এলাকায় থমথমে পরিবেশ বিরাজ করছে।

নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন জানান, প্রতিবছর অত্যন্ত জাকজমকপূর্ণ পরিবেশে ব্রক্ষ্মা পূজা অনুষ্ঠিত হয়। শুরু থেকে কুশলিয়া সোলাপুকুর পাড়ে স্থাপিত মন্দিরে পূজা অর্চনা হতো। বিগত ৭/৮ বছর পূর্বে কুশলিয়া গ্রামের মৃত সহির উদ্দীনের ছেলে কাজী শামসুদ্দীনের (৫৮) সাথে মন্দিরের জায়গা নিয়ে স্থানীয় সংখ্যালঘুদের বিরোধ হয়। পরবর্তীতে স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গের মধ্যস্থতায় ১৬ শতক দেবোত্তর জমির পরিবর্তে কাজী শামসুদ্দীন কুশলিয়া-চন্ডিতলা সড়কের পাশে ৮ শতক জমি মন্দিরের নামে রেকর্ড করে দেন। এরপর বিগত ৬ বছর যাবত শান্তিপূর্ণ পরিবেশে পূজা অর্চনা চলছিল বলে তারা জানান। কিছুদিন পূর্বে কুশলিয়া গ্রামের বলাই সরদারের (৬২) বাড়ির বারান্দায় ও দরজার সম্মুখে রাতের আধারে গরুর হাড়গোড় ফেলে রেখে যায় দুর্বৃত্তরা। এ নিয়ে এলাকায় ব্যাপক চাঞ্চল্যের সৃষ্টি হয়।

 

 

 

 

খুলনা জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা

খুলনা ব্যুরো: লাইসেন্সবিহীন কিংবা হেলমেটবিহীন মটরসাইকেল দেখামাত্রই তাদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে। খুলনা জেলা আইনÑশৃঙ্খলা কমিটির মাসিক সভায় শনিবার এ সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়নে উপস্থিত সকলে একমত পোষণ করেন।

খুলনা জেলা আইন-শৃঙ্খলা কমিটির সভা গতকাল দুপুরে জেলা ম্যাজিস্ট্রেট মেজবাহ উদ্দিনের সভাপতিত্বে তাঁর সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান সভায় প্রধান অতিথি  ছিলেন।

শ্রম প্রতিমন্ত্রী তাঁর বক্তৃতায় বলেন, আইন-শৃঙ্খলা রক্ষাকারী বিভিন্ন দপ্তর সম্মিলিতভাবে কাজ করলে আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির দ্রুত উন্নতি ঘটবে। তিনি আসন্ন দুর্গাপূজার মন্ডপগুলোতে যে প্রতিমা তৈরির কাজ চলছে সেখানে পুলিশি টহল জোরদার করার নির্দেশনা দেন। এছাড়া তিনি মাদকদ্রব্য নিয়ন্ত্রণের ব্যাপারে আরো কঠোর হতে সংশ্লি¬ষ্টদের আহবান জানান।

সভায় মেট্রপলিটন পুলিশের নগর গোয়েন্দা বিভাগের উপ-পুলিশ কমিশনার জুলফিকার হায়দার এবং অতিরিক্ত পুলিশ সুপার শফিকুল ইসলাম বলেন, নম্বরবিহীন মটরসাইকেল চলাচল বন্ধ করা গেলে নগরীসহ অন্যান্য স্থানে ছিনতাই, মটরসাইকেল চুরি ও মাদক পাচার বহুলাংশে নিয়ন্ত্রণ করা সম্ভব। কেননা অপরাধীরা নম্বরবিহীন মটরসাইকেল ব্যবহার করে এসব অপরাধ ঘটায়। এতে উপস্থিত সদস্যরা একমত পোষণ করেন এবং সিদ্ধান্তটি বাস্তবায়নে সকলে সহযোগিতা করবেন বলে মত দেন।

সভায় আইন-শৃঙ্খলা প্রতিবেদনে জানানো হয় খুলনা জেলার নয়টি থানায় গত আগস্ট মাসে ডাকাতি ১টি, রাহাজানি ১টি,  চুরি ১১টি, খুন ৮টি, ধর্ষণ ৩টি, অস্ত্র আইনে ১টি, অস্ত্র উদ্ধার ১টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ২৪টি, মাদকদ্রব্য ১৪টি, নারী ও শিশু পাচার ২টি এবং অন্যান্য আইনে ১৬০টিসহ মোট ২২৫টি মামলা দায়ের হয়।  গত জুলাই মাসে মামলা দায়ের হয়েছিল ২৪১টি।

মহানগরীর পাঁচটি থানায় গত আগস্ট মাসে চুরি ৮টি, খুন ২টি, ধর্ষণ ২টি, অস্ত্র আইনে ২টি, অস্ত্র উদ্ধার ১টি, দ্রুতবিচার ২টি, অপহরণ ১টি, নারী ও শিশু নির্যাতন ১২টি, মাদকদ্রব্যে ২৯টি এবং অন্যান্য ৪০টি সহ মোট ৯৬টি মামলা দায়ের হয়েছে। গত জুলাই মাসে এ সংখ্যা ছিল ১৩১টি।

 

 

শ্যামনগরে ব্যবসায়ী গুম

শ্যামনগর প্রতিনিধি: শ্যামনগরে আব্দুল্লাহ আল বারী (বাকী) নামের এক চিংড়ি ব্যবসায়ীকে অপহরণ করেছে দুর্বৃত্তরা। গত ২১ সেপ্টেম্বর শুক্রবার রাত সাড়ে আটটার দিকে নকিপুর বাজার থেকে বাসায় ফেরার পথে অজ্ঞাত দুর্বৃত্তরা তাকে অপহরণ করে। সাদা রংয়ের একটি মাইক্রো বাসযোগে তাকে উঠিয়ে নিয়ে যাওয়া হয়েছে বলে পরিবারের সদস্যরা অভিযোগ করেছে। এ ঘটনায় শ্যামনগর থানায় অপহৃতের স্ত্রী বাদী হয়ে একটি সাধারণ ডায়েরি করেছে। যার নং ৯৩৬। তবে কে বা কারা তাকে অপহরণ করেছে, গতকাল সন্ধ্যা পর্যন্ত তা নিশ্চিত হওয়া যায় নি।

এদিকে তার পরিবারের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে র‌্যাব, ডিবি কিংবা সরকারের বিশেষ কোন সংস্থা আব্দুল্লাহ আল বারীকে (বাকী) অপহরণের সাথে জড়িত থাকতে পারে। অপহৃত আব্দুল্লাহ আল বারী (বাকী) বাদঘাটা গ্রামের মৃত সামছুল হক গাইনের ছেলে। তবে এ বিষয়ে র‌্যাব বা অন্য  কোন সংস্থার নিকট থেকে তাৎক্ষণিক কোন প্রতিক্রিয়া পাওয়া যায় নি।

অপহৃতের স্ত্রী খাদিজাতুল কোবরা জানান, তার স্বামী আব্দুল্লাহ আল বারী (বাকী) ডায়াবেটিকস এর রোগী। গত কয়েক মাসের মধ্যে দু’দফা তিনি হৃদরোগে আক্রান্ত হন। খাদিজাতুল কোবরা আরও জানান, তার স্বামী প্রতিদিন বিকালে হাঁটতে বের হয় এবং মসজিদে এশার নামায আদায় করে বাড়িতে ফেরে।

তিনি গতকাল দুপুরে নিজ বাড়িতে সংবাদকর্মীদের উপস্থিতিতে অভিযোগ করে বলেন, শুক্রবার এশার নামায শেষে বাড়ি ফিরতে দেরী হওয়ায় তার মুটোফোনে কল দিয়ে ফোন বন্ধ পাওয়া যায়। এসময় আত্মীয় স্বজনদের পাশাপাশি পরিচিতদের মাধ্যমে বিভিন্ন জায়গায় খোঁজখবর নিয়েও তার কোন হদিস মেলে নি বলে তিনি অভিযোগ করেন। স্থানীয় এক ব্যক্তি রাস্তায় দাড়িয়ে ঘটনা প্রত্যক্ষ কবরেন বলে তিনি দাবি করেন।

আব্দুল্লাহ আল বারী ওরফে বাকী অপহরণ ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী বাদঘাটা গ্রামের শিবুপদ মন্ডলের ছেলে প্রভাষচন্দ্র জানান, আব্দুল্লাহ আল বারী (বাকী) বাজার থেকে বাসায় ফেরার পথে উপজেলা পশু সম্পদ অধিদপ্তরের সামনে পৌঁছলে একটি সাদা রংয়ের মাইক্রোবাস এসে তার পাশে দাড়িয়ে যায়। তিনি আরও জানান মুহূর্তের মধ্যে মাইক্রোবাস থেকে ৪ জন অপরিচিত ব্যক্তি দ্রুত রাস্তায় নেমে এসে জোরপূর্বক বাকীকে মাইক্রোবাসে তুলে নেয়। এসময় বাকী “আল্লাহ  গো” বলে কয়েকবার ডাক-চিৎকার করলে মাইক্রোবাসটি দ্রুত গতিতে বেরিয়ে যেয়ে মূল সড়কের দিকে চলে যায়।

অপহৃত ব্যবসায়ীর স্ত্রী খাদিজাতুল কোবরা জানান, সুন্দরবনের কুখ্যাত দস্যু কালু বাহিনীর প্রধানসহ তার কয়েকজন সহযোগীকে পুলিশের হাতে ধরিয়ে দেওয়ার পর থেকে সে (বাকী) বেশ কয়েক বছর ধরে নিরাপত্তাহীন জীবন যাপন করে আসছিল। এর আগে তার শত্রুপক্ষ র‌্যাব এবং ডিবিকে দিয়ে তাকে দু’দফা উঠিয়ে নেয়ার চেষ্টা করে বলেও তিনি অভিযোগ করেন।

এবিষয়ে শ্যামনগর থানার অফিসার ইনচার্জ আমীর তৈমুর ইলি জানান, অপহৃত ব্যবসায়ীর স্ত্রী তার স্বামীকে খুঁজে পাওয়া যাচ্ছে না মর্মে শ্যামনগর থানায় একটি সাধারণ ডায়েরি করেছেন। বিষয়টিকে গুরুত্বের সাথে নিয়ে তার খোঁজখবর নেয়া হচ্ছে বলে তিনি জানান।

 

 

সেই দু’মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

নিজস্ব প্রতিনিধি: শনিবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর বাজার থেকে চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী রিয়াজ হোসেন মহব্বত ও নজরুল ইসলামকে পুলিশ গ্রেপ্তার করেছে। সদর থানার ওসি জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতের এসআই আবু জাফর সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর বাজার থেকে ৫০ গ্রাম গাজাসহ সাতক্ষীরা সদরের বালুই গাছা গ্রামের আমির আলীর ছেলে বিয়াজ হোসেন (মহব্বত) ও একই থানার ধুলিহর গ্রামের আবু দাউদের ছেলে নজরুল ইসলাম কে গ্রেপ্তার করে। এ ব্যাপারে মাদক দ্রব্য আইনে মামলা হয়েছে। এদিকে তাদের গ্রেপ্তারের খবরে ধূলিহর ও ব্রহ্মরাজপুর এলাকাবাসী স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলেছে।

শ্যামনগরে বুশরা গ্রুপের বৃক্ষ বিতরণ

শনিবার দুপুর ১২টায় বুশরা গ্র“প লিমিটেডের শ্যামনগর প্রকল্প অফিসের উদ্যোগে বৃক্ষ বিতরণ করা হয়। শাখা ব্যবস্থাপক আব্দুর রবের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন শ্যামনগর উপজেলা সমবায় অফিসার জহুরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি ছিলেন বুশরা গ্র“পের চেয়ারম্যান শেখ শরিফুল ইসলাম, ব্যবস্থাপনা পরিচালক শেখ ইকবাল কবির পলাশ, উপ-ব্যবস্থাপনা পরিচালক জাহিদুল ইসলাম, ইঞ্জিঃ শেখ সুলতান মাহমুদ, জোন ইনচার্জ ফিরোজ আওয়াল প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

মানব পাচার প্রতিরোধে কর্মশালা

 

শনিবার সকাল ৯টায় মানব পাচার প্রতিরোধে জেলা আইনজীবী সমিতির মিলনায়তনে দিনব্যাপী এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়েছে। আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. আব্দুল মজিদের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্য রাখেন এপিপি এড. ফরিদা আক্তার বানু, আইনজীবী সমিতির সাধারণ সম্পাদক এড ওসমান গণি, সাবেক সভাপতি এড. এসএম হায়দার, সাবেক সেক্রেটারি সরদার আমজাদ হোসেন, এড. শাহ আলমসহ সদস্যবৃন্দ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

 

পাইকগাছা নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির সম্মেলন

রাড়–লী (পাইকগাছা) প্রতিনিধি: শনিবার বিকালে পাইকগাছা স্মৃতিসৌধ চত্বরে পাইকগাছা নাগরিক অধিকার বাস্তবায়ন কমিটির সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়। মুক্তার হোসেনের সভাপতিত্বে সম্মেলনে সর্ব সম্মতিক্রমে একটি কমিটি গঠন হয়। এতে সভাপতি মনোনীত হয়েছেন মুক্তার হোসেন ও  সাধারণ সম্পাদক মনোনীত হয়েছেন প্রদীপ।

 

সুশীলন পরিচালকের ৫০তম জন্মবার্ষিকী পালিত

নিজস্ব প্রতিনিধি: বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা সুশীলনের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মোস্তফা নুরুজ্জামানের ৫০তম জন্মবার্ষিকী পালিত হয়েছে। এ উপলক্ষ্যে শনিবার দিনব্যাপী সুশীলনের কর্মকর্তা ও উন্নয়ন কর্মীরা বিভিন্ন কর্মসূচি পালন করেছে। এসব কর্মসূচির মধ্যে ছিলো কেক কাটা, ফুলেল শুভেচ্ছা জ্ঞাপন, মিষ্টি বিতরণ ও আলোচনা সভা।

সুশীলনের উপদেষ্টা সিদ্দিকুর রহমানের সভাপতিত্বে এসব কর্মসূচি অনুষ্ঠিত হয়। কর্মকর্তারা সুশীলনের প্রতিষ্ঠাতা পরিচালক মোস্তফা নুরুজ্জামানের দীর্ঘায়ু ও সুস্থতা কামনা করেন।

 

নলতায় এইডস বিষয়ক কর্মশালা

আহাদুজ্জামান আহাদ, নলতা: নলতা হাসপাতাল এন্ড কমিউনিটি হেলথ্ ফাউন্ডেশন’র ব্যবস্থাপনায় শনিবার বিকাল ৫টায় নলতা হাসপাতালের কনফারেন্স রুমে এইচআইভি এইডস বিষয়ক এক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়। নলতা ইউপি চেয়ারম্যান আসাদুর রহমান সেলিমের সভাপতিত্বে কর্মশালায় বক্তব্যে রাখেন, নলতা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আনারুল ইসলাম, ইউপি সদস্য মাসুদুল হক ডালিম, নলতা সমাজ উন্নয়ন ফাউন্ডেশন’র নির্বাহী পরিচালক আশরাফুল ইসলাম, সাংবাদিক আবুল হোসেন, নলতা হাসপাতাল এন্ড কমিউনিটি হেলথ্ ফাউন্ডেশন’র কাউন্সেলর সাইফুল ইসলাম, মোখলেছুর রহমান প্রমুখ।

কর্মশালায় বক্তারা বলেন, বর্তমান বিশ্বে সমগ্র মানব জাতির জীবন ও সভ্যতার জন্য বড় হুমকি হিসাবে যা বিবেচিত হচ্ছে তার নাম এইডস। এর কোন প্রতিষেধক নেই। প্রতিরোধই হলো এর থেকে বাঁচার একমাত্র উপায়। প্রতিরোধের জন্য প্রথমে আমাদের এইডস সম্পর্কে জানতে হবে। এইডসের সবচেয়ে বড় শক্তি হলো, এ সম্পর্কে মানুষের অজ্ঞতা। যার সুযোগ নিয়ে এই রোগের জীবাণু ছড়িয়ে পড়ছে একজন থেকে বহুজনের শরীরে। মহামারী রূপ নিচ্ছে বিশ্বজুড়ে। এইডসের হাত থেকে রক্ষা পাওয়ার জন্য আমাদের এইডস সম্পর্কে জানতে হবে। এইচআইভি একটি ভাইরাস যা মানুষের দেহে প্রবেশ করে মানুষের স্বাভাবিক রোগ প্রতিরোধ ব্যবস্থাকে সম্পূর্ণরূপে ধ্বংস করে ফেলে। ফলে অক্রান্ত মানুষের দেহে এক বা একাধিক রোগের লক্ষণ দেখা দেয়। কর্মশালা সঞ্চালনা করেন নলতা হাসপাতাল এন্ড কমিউনিটি হেলথ্ ফাউন্ডেশন’র এরিয়া ম্যানেজার নিত্য বিশ্বাস।

 

 

খাদিজাতুল কোবরা (রা.) মাদ্রাসায় মা সমাবেশ

আলিপুর প্রতিনিধি: সদর উপজেলার গয়েশপুরের খাদিজারুল কোবরা (রা.) মহিলা দাখিল মাদ্রাসায় বাল্যবিবাহ ও ঝড়েপড়া রোধে জনসচেতনতার লক্ষ্যে শনিবার বিকাল ৩টায় মা সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। মাদ্রাসা সুপার ও ভোমরা স্থলবন্দর প্রেসক্লাবের সহ-সভাপতি এমএম আব্দুর রউফের সভাপতিত্বে সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মাদ্রাসার সভাপতি ও সদর উপজেলা চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাবেক ছাত্র নেতা আবু সাঈদ, শ্রমিক লীগের সহ-সভাপতি হারুন উর রশিদ। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন সহকারি মৌলবী আব্দুল খালেক, মাওলানা রবিউল ইসলাম, হাফেজ মাও: রবিউল ইসলাম, সহকারি শিক্ষক মোখলেছুর রহমান, আবুল হাসান, শিক্ষিকা মিলি পারভীন, মৃতুঞ্জয় রায়, মাওলানা শামছুল আলম, সহকারি শিক্ষক জামিলা পারভীন, রুহুল আমিন ও এসএমসি’র পক্ষে তহমিনা খাতুন। সমাবেশ পরিচালনা করেন করেন সুপার মাওলানা আব্দুল আজিজ।