তালায় ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে মামলা করে পালিয়ে বেড়াচ্ছে এক ব্যক্তি


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২৩, ২০১২ ||

তালা প্রতিনিধি: তালা উপজেলার হরিহরনগর গ্রামের ভূমিদস্যু নিজাম গাজী গংদের বিরুদ্ধে মামলা করে পালিয়ে বেড়াচ্ছে হাফিজুর রহমান নামের এক ভূমিহীন। সরকারিভাবে দলিলমূলে দেওয়া জমি দখল বুঝে পেতে ভূমিহীন পরিবারটি ভূমিদস্যুদের হাতে হয়রানির শিকার হচ্ছে। ভূমিদস্যুদের বিরুদ্ধে মামলা করেও পরিবারটি এখন নিরাপত্তাহীনতায় ভূগছে। বর্তমানে ওই জমির দখল পেতে পরিবারটি এখন পথে পথে ঘুরছে। জমির দখল ও জীবনের নিরাপত্তার দাবিতে শনিবার বিকেলে হাফিজুর গাজী তালা রিপোটার্স ক্লাবে সংবাদ সম্মেলনে এ অভিযোগ করেন।

এ সময় তিনি লিখিত বক্তব্যে বলেন, ভূমিহীন হিসেবে ২০১০ সালের ১৮ আগস্ট তালা উপজেলা সহকারি কমিশনার (ভূমি) অফিস থেকে ৪৪৮৭ নং রেজিস্ট্্িরকৃত কোবলা দলিল মূলে ৬৬ শতক জমি আমার স্ত্রী জুলেখা বেগমের নামে বন্দোবস্ত  দেওয়া হয়। কিন্ত ওই জমি কাগজে কলমে বুঝে দেওয়া হলেও বাস্তবে দেওয়া হয় নি। আমার নামে বন্দোবস্ত দেওয়া পুরো জমিই ওই এলাকার প্রভাবশালী নিজাম গাজী গংরা ভোগদখল করছে। আমি ১১ আগস্ট ২০১২ তারিখে সকালে ওই জমিতে ধান রোপন করতে গেলে নিজাম গাজীগংরা আমাদের উপর অতর্কিত হামলা চালায়। এ ঘটনায় আমি বাদী হয়ে নিজাম গাজীসহ ৭ জনের নাম উল্লেখ করে তালা থানায় একটি মামলা করি। যার মামলা নং ২১,তারিখ ৩০/০৮/১২ ইং।

তিনি আরও বলেন, মামলা করার পর থেকে নিজাম গাজী গং আরও বেপরোয়া হয়ে ওঠেছে। এখন জীবনে মেরে ফেলারও হুমকি দিচ্ছে। তিনি অভিযোগ করে বলেন, প্রশাসনের কর্মকর্তারা জমির দলিল হস্তান্তর করে তাদের দায়িত্ব সেরেছেন। জমির দখল বুঝে দেয় নি। স্থানীয় তহশীলদারসহ সংশ্লি¬ষ্ট অফিসের কর্তাব্যক্তিদের ম্যানেজ করে ভূমিদুস্যরা ভূমিহীনদের নামের বন্দোবস্তকৃত জমি দখল করছে। বন্দোবস্ত দেওয়া ওই জমি দখলে পেতে ভূমিহীন পরিবারটি উর্দ্ধতন কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন। এদিকে অভিযুক্ত নিজাম গাজী জমি তার দখলে থাকার কথা স্বীকার করে জানান, এই জমির বৈধ কাগজপত্র তার কাছে আছে। তালা থানার ওসি রবিউল ইসলাম জানান, এমন বিষয় আমার জানা নেই।