চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে কথা বলে কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান এখন পলাতক


প্রকাশিত : সেপ্টেম্বর ২৫, ২০১২ ||

ডেস্ক রিপোর্ট: চোরাকারবারীদের বিরুদ্ধে উপজেলা আইনশৃঙ্খলা কমিটিতে কথা বলায় শ্যামনগরের কৈখালী ইউপি চেয়ারম্যান এখন পালিয়ে দিনাতিপাত করছেন। অন্যদিকে একজন ইউপি চেয়ারম্যান হওয়া সত্ত্বেও শ্যামনগর থানা পুলিশ এক আওয়ামী লীগ নেতার পেটুয়া বাহিনী হিসেবে ওই চেয়ারম্যানের বাড়িতে অব্যাহত ভাবে হানা দিচ্ছে। পুলিশ ওই চেয়ারম্যানের বাড়ি থেকে দুটি মটর সাইকেল, স্কুল পড়–য়া মেয়ের মোবাইল সেটসহ ঘরের বিভিন্ন জিনিসপত্র তছনছ করেছে। পুলিশ কর্তৃক এই নির্দয় ঘটনা ঘটেছে শ্যামনগর উপজেলার কৈখালী ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রেজাউল করিমের শ্যামনগরস্ত বাড়ীতে। কৈখালী ইউনিয়নের ইউপি সদস্য/সদস্যা বৃন্দ সাংবাদিকদের কাছে লিখিত ভাবে অভিযোগ করে উল্লেখিত কথাগুলি বলেন। লিখিত বক্তব্যে বলা হয়, শ্যামনগর উপজেলার ৫নং কৈখালী ইউনিয়নের নিদয়া গ্রােিমর কুখ্যাত চোরাকারবারী সন্ত্রাসী লিয়াকত আলীর বিরুদ্ধে উপজেলার মাসিক আইনশৃঙ্খলা কমিটির সভায় সুনির্দিষ্ঠ অভিযোগ করে ইউপি চেয়ারম্যান বক্তব্য দেন। যাহা  আইনশৃঙ্খলা সভায় রেজুলেশন করা হয়েছে। এ ই ঘটনার পর উপজেলার আওয়ামী নেতা গাবুরা ইউনিয়নের সাবেক চেয়ারম্যান এতে দারুনভাবে ক্ষুব্দ হয়ে ওই চোরাকারবারীর পক্ষ নিয়ে চেয়ারম্যানের শায়েস্তা করার জন্য শ্যামনগর থানায় একটি মিথ্যা মামলা দেয়। যার নং ১৭/১২। এই মিথ্যা মামলা নিয়ে পুলিশের ভুমিকা রহস্যজনক বলে তারা মন্তব্য করেন। পুলিশ আওযামী লীগের ওই নেতার ইচ্ছা মাফিক চেয়ারম্যানের বাড়ীতে হানা দিয়ে জিনিসপত্র তছনছ করছে। চেয়ারম্যান বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও উপজেলা চেয়ারম্যানসহ প্রত্যেককে অবহিত করলেও পুিলশ তা কর্নপাত করছে না।

২৪.৯.১২