অবশেষে ফিরে এলো খুলনার সাথী


প্রকাশিত : অক্টোবর ২৯, ২০১২ ||

আলিপুর প্রতিনিধি: ভারত থেকে ফিরে এসেছে খুলনার সাথী। এতে দীর্ঘশ্বাস ফেলে বাঁচল ভাড়াটে মোটরসাইকেল চালক ভাড়–খালী গ্রামের আব্দুল জলিল। গত ৮ অক্টোবর খুলনার জোড়াগেট এলাকার জোমশেদ হাওলাদারের কন্যা সাথী খাতুন বাড়ি থেকে রাগ করে ভারতে আত্মীয়ের বাড়িতে যাওয়ার উদ্দেশ্যে সাতক্ষীরা আসে। এসময় হাটের মোড় থেকে ভাড়াটে মোটরসাইকেল চালক ভাড়ুখালী গ্রামের সুকচাঁদ মোড়লের পুত্র আব্দুল জলিলের মোটর সাইকেলযোগে ভোমরায় আসে। স্থানীয় দালালের মাধ্যমে ভারতে চলে যায়। পরে সীমান্তের ওপারে সাথী দালালের খপ্পরে পড়লে তার বাড়িতে ফোন করে। এবং বলে যে আব্দুল জলিল তাকে ভারতে পাঠিয়েছে। এরইজের ধরে সাথীর বাবা আব্দুল জলিলকে তার মেয়েকে ভারত থেকে না নিয়ে আসলে তার বিরুদ্ধে মামলা করবে বলে সাফ জানিয়ে দেয়। এতে অসহায় চালক আব্দুল জলিল মামলার ভয়ে এসব কিছুতে জড়িত না হয়েও সে ভারতে যেয়ে দীর্ঘ ১০/১২ দিন খোজাখুজির পর তাকে উদ্ধার করে নিয়ে আসে। সাথী গনমাধ্যম কর্মীদের জানায়, সে নিজ ইচ্ছাই ভোমরা সীমান্তের কিছু দালালের মাধ্যমে ভারতে যায়। মোটর সাইকেল চালক আব্দুল জলিলের কোন দোষ নেই। পরে আব্দুল জলিল নিজ অর্থায়নে সাথীকে তার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয় ও সাথীর মায়ের সাথে কথা হলে মেয়েকে ফিরে পাওয়ার কথা তিনি স্বীকার করেন। তখনই নিদোর্ষ মোটরসাইকেল চালক আব্দুল জলিল দীর্ঘশ্বাস ফেলে আল্লাহ বাঁচিয়েছে বলে জানায়।