যুদ্ধাপরাধীদের বিচারের দাবিতে শ্যামনগরে আ.লীগের মিছিল, লেলিনকে বহিষ্কারের ঘোষণায় মিষ্টি বিতরণ


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ৫, ২০১২ ||

শ্যামনগর প্রতিনিধি: যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তরান্বিত করার দাবিতে শ্যামনগর উপজেলা আওয়ামী লীগ বুধবার সন্ধ্যায় মিছিল করেছে। তবে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ থেকে সফিউল আযম লেনিনকে বহিষ্কার সংক্রান্ত খবর ছড়িয়ে পড়লে মিছিলটি আনন্দ মিছিলে রুপ নেয়। পরে মিছিলে অংশগ্রহণকারী দলীয় নেতাকর্মী ও সমর্থকসহ লেনিনের নির্যাতনের শিকার সাধারণ মানুষ পরস্পরকে মিষ্টি মুখ করায়।  তবে জেলা আওয়ামী লীগের দায়িত্বশীল সূত্র লেলিন বহিস্কার হয়েছে এমন সত্যতা নিশ্চিত করেনি।

মিছিল থেকে দল এবং সরকারের ভাবমূর্তি রক্ষার জন্য এমন একটি সাহসী সিদ্ধান্ত গ্রহণের জন্য সাতক্ষীরা জেলা, খুলনা মহানগর এবং কেন্দ্রীয় নেতৃবৃন্দের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানানো হয়।

উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি জগলুল হায়দার জানান, সাংগঠনিক সম্পাদক পদ থেকে বহিষ্কৃত আ.লীগ নেতা লেনিন সাম্প্রতিক সময়ে শ্যামনগর উপজেলা আ.লীগের প্যারালাল একটি বলয় সৃষ্টি করে চাঁদাবাজি ও সন্ত্রাসী কর্মকাণ্ড পরিচালনা করে দারুণভাবে দলীয় ভাবমূর্তি ক্ষুণœ করে আসছিলের। দলীয় নেতাকর্মীসহ জনপ্রতিনিধি, প্রশাসনের কর্মকর্তা-কর্মচারী সর্বোপরি সাধারণ মানুষকে সে জিম্মি করে রেখেছিল। এছাড়া শ্যামনগর মুক্ত দিবস উদযাপনের প্রাক্কালে লেনিন এক মুক্তিযোদ্ধাকে লাঞ্ছিত এবং অপর এক মুক্তিযোদ্ধার পুত্রসহ উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের কমান্ডারকে জীবন নাশের হুমকি প্রদর্শন করে নুতন করে সমালোচনার ঝড় তোলেন। এ ঘটনার পর থেকে লেনিনকে উপজেলা আ.লীগ থেকে বহিষ্কারের দাবি ওঠে। এক পর্যায়ে গত ৪ ডিসেম্বর উপজেলা আ.লীগের কার্যনির্বাহী কমিটির সভায় সর্বসম্মতিক্রমে লেনিনকে বহিষ্কারের জন্য জেলা আ.লীগ নেতৃবৃন্দের হস্তক্ষেপ দাবি করা হয়।

প্রত্যক্ষদর্শী ও উপজেলা আ.লীগের নেতৃবৃন্দ জানায়, শীর্ষ যুদ্ধাপরাধীদের বিচার তরান্বিত করার দাবিতে প্রতিদিনের ন্যায় বুধবার সন্ধ্যায় উপজেলা আ.লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের পক্ষ থেকে মিছিল বের করা হয়। এক পর্যায়ে শ্যামনগর উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ থেকে লেনিনকে বহিষ্কারের খবর এলাকায় পৌঁছাতেই নেতাকর্মীরা উল্লাসে ফেঁটে পড়ে। এসময় যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তির দাবিতে শুরু হওয়া মিছিল আনন্দ মিছিলে রুপ নেয়।

শ্যামনগর উপজেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক গাজী আনিছুজ্জামান আনিচ জানান, জেলা আ.লীগের সভায় লেনিনকে শ্যামনগর উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদকের পদ থেকে বহিষ্কারের সিদ্ধান্ত হয়। তিনি আরও বলেন, উক্ত সভায় সর্বসম্মতিক্রমে তিরিশ দিনের সময়সীমা নির্ধারণ করে দিয়ে পাঁচ সদস্যের একটি কমিটিকে লেনিনের সাধারণ সদস্য পদ বাতিল সংক্রান্ত সিদ্ধান্ত গ্রহণের দায়িত্ব দেয়া হয়।

সভাপতি জগলুল হায়দার, সাধারণ সম্পাদক আনিছুজ্জামান আনিচ, অপর সাংগঠনিক সম্পাদক গোলাম মোস্তফা মুকুল, ক্রীড়া সম্পাদক আতাউল হক দোলনসহ দলীয় নেতাকর্মীরা মিছিলে অংশ নেয়। এর আগে দলীয় কার্যালয় থেকে শুরু হওয়া মিছিল থেকে জামায়াত শিবিরকে দেশব্যাপী অরাজকতা সৃষ্টিকারী উল্লেখ করে অবিলম্বে তাদের রাজনীতি নিষিদ্ধ এবং যুদ্ধাপরাধীদের শাস্তির দাবি জানানো হয়। মিছিলটি নকিপুর বাজারে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে আবারও দলীয় কার্যালয়ে এসে শেষ হয়।