শ্যামনগরে মোবাইল রিচার্জে অতিরিক্ত অর্থ আদায় চলছে, ক্ষুব্ধ গ্রাহক


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ৭, ২০১২ ||

শ্যামনগর অফিস: শ্যামনগর উপজেলার অধিকাংশ মোবাইল রিচার্জ ব্যবসায়ী ৫০ টাকার নিচে রিচার্জের ক্ষেত্রে অতিরিক্ত ১/২ টাকা গ্রহণ করায় সেবাগ্রহীতাদের মধ্যে ক্ষোভের সঞ্চার হচ্ছে। অনেক ক্ষেত্রে বিষয়টি নিয়ে সেবাগ্রহীতাদের সাথে রিচার্জ ব্যবসায়ীদের বাকবিতণ্ডা হচ্ছে। বিষয়টি নিরসনে সংশি¬ষ্ট কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে ভুক্তভোগীরা।

জানা যায়, বিভিন্ন মোবাইল অপারেটরদের পক্ষ থেকে রিচার্জ ব্যবসায়ীদের ১ হাজার টাকায় ২৭ টাকা কমিশন দেয়া হয়। রিচার্জ ব্যবসায়ীরা ১ হাজার টাকায় ১শ টাকা কমিশনের দাবিতে কিছুদিন পূর্বে রিচার্জ বন্ধ রেখে আন্দোলনে নামে। কিন্তু কোম্পানিগুলো তাদের দাবি না মানায় ব্যবসায়ীরা সাধারণ সেবা গ্রহীতার নিকট থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করে আসছে।

তথ্যানুসন্ধানে জানাগেছে, শ্যামনগর উপজেলা সদর, হরিনগর, মুন্সিগঞ্জ, আড়পাঙ্গাসিয়া, নওয়াবেঁকী, গোডাউন মোড়সহ বিভিন্ন স্থানে সেবা গ্রহীতার নিকট থেকে ২০ টাকায় অতিরিক্ত ১ টাকা গ্রহণ করা হচ্ছে। এ নিয়ে প্রতিনিয়ত ব্যবসায়ীদের সাথে সেবা গ্রহীতাদের কথা কাটাকাটি লেগেই আছে। গত সোমবার মুন্সিগঞ্জে ইকবলের ফ্লেক্সিলোড ব্যবসায়ীর দোকানে জনৈক এক সাংবাদিক ২০ টাকা লোড দিতে বললে, সে ১৯ টাকা ঢুকবে বলে জানান। ১ টাকা কিসের জিজ্ঞাসা করলে ইকবল কোন কৈফিয়ত দিতে পারবে না বলে জানান।

এ বিষয়ে শ্যামনগর উপজেলা রিচার্জ ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি, মোমেনা পল¬ীফোনের মালিক আক্তার হোসেন জানান, আমরা আন্দোলন করেছিলাম, কিন্তু কোম্পানিগুলো সাড়া না দেওয়ায় আমরা সেবা গ্রহীতাদের নিকট থেকে অতিরিক্ত টাকা আদায় করছি না। আমরা প্রত্যেকটি দোকানে দৃষ্টি আকর্ষণের জন্য টানিয়ে দিয়েছি, ২০ টাকার নিচে লোড দেওয়া হয় না। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের আশু হস্তক্ষেপ প্রয়োজন।