যারা যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে নৈরাজ্য চালাচ্ছে তারা শহীদদের সাথে বেঈমানী করছে: খুলনা নগর আ.লীগ


প্রকাশিত : December 15, 2012 ||

খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের নেতৃবৃন্দ বলেছেন, হরতাল অবরোধ করে মানবতাবিরোধী যুদ্ধাপরাধীদের বিচার কোন অবস্থাতেই বাধাগ্রস্ত করা যাবে না। যারা যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে দেশে নৈরাজ্য চালাচ্ছে তারা এদেশের সকল শহীদদের সাথে বেঈমানী করছে। এসকল বেঈমানদের এদেশের জনগণের কাঠ গড়ায় দাড়াতে হবে। এদেশের জনগণই ওই সকল বেঈমানদের বিচার করবে। সেজন্যে দলের সকল স্তরের নেতাকর্মীদের ঐক্যবদ্ধভাবে হরতালকারী  বিএনপি-জামায়াতকে মোকাবেলা করতে হবে।

নেতৃবৃন্দ আরো বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর লক্ষ্যে বিএনপি দেশব্যাপী হরতালের নামে নৈরাজ্য করছে। তারা তত্ত্বাবধায়ক সরকারের দাবিকে সামনে আনলেও মূখ্যত তারা জামায়াত যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্যই এই আন্দোলন করছে।

নেতৃবৃন্দ বলেন, বিএনপি যদি তত্ত্বাধায়ক সরকার পদ্ধতি চাইতেন তাহলে তারা সংসদে যেয়ে আলোচনার মাধ্যমে সকল সমস্যার সমাধান করতে পারতেন। অথচ তারা সেদিকে না যেয়ে ইস্যুবিহীন আন্দোলন করে জনজীবনে ভীতি সৃষ্টি করার লক্ষ্যে গাড়ি ভাংচুর, অগ্নিসংযোগ, হামলা চালানো হচ্ছে।

নেতৃবৃন্দ দলের নেতাকর্মীদের উদ্দেশ্য বলেন, বিএনপি যে যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানোর জন্য এই আন্দোলন করছে, তা জাতির সামনে তুলে ধরে তাদের মুখোশ খুলে দিতে হবে। যেখানে জামায়াত শিবির এবং তাদের দোসরদের পাওয়া যাবে সেখানেই তাদের প্রতিহত করতে হবে।

যুদ্ধাপরাধীদের বিচার দ্রুত সম্পন্ন ও জামায়াত-শিবিরের ধর্মভিত্তিক রাজনীতি নিষিদ্ধের দাবিতে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগের উদ্যোগে শুক্রবার সকাল ১০টায় খুলনা নগরীর পিকচার প্যালেস মোড়ে অনুষ্ঠিত মানব বন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।

মানব বন্ধন কর্মসূচিতে খুলনা মহানগর আওয়ামী লীগ’র সভাপতি ও সিটি মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেকের সভাপতিত্বে এবং মহানগর আওয়ামী লীগ সাধারণ সম্পাদক মিজানুর রহমান মিজানের পরিচালনায় বক্তব্য রাখেন জাতীয় কমিটির সদস্য এ্যাড. চিশতি সোহরাব হোসেন শিকদার, শেখ হায়দার আলী, কাজী এনায়েত হোসেন প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি