পুলিশের রাইটার রফিকের বিরুদ্ধে হামলার অভিযোগে মামলা

ডেস্ক রিপোর্ট: মোবাইলে প্রেমের প্রস্তাব অতঃপর বিয়ের দাবি না মানায় ক্ষুদ্ধ হয়ে মাস্তান নিয়ে কথিত প্রেমিকার বাড়িতে হামলা করার অভিযোগ উঠেছে। বসত বাড়ি ভাঙচুর তছনছ ও বিয়েতে রাজি না হলে অপহরণ করার হুমকিও দেওয়া হয়েছে। নির্যাতিত পরিবার এ ঘটনায় মামলা করতে গেলে চুরির অভিযোগে নামমাত্র একটি মামলা নিয়ে দায় সেরেছে পুলিশ।

আলোচিত প্রেমিকের নাম রফিকুল ইসলাম। তিনি আশাশুনি উপজেলার কুল্যা গ্রামের মৃত আনছার আলী হাওলাদারের ছেলে। বর্তমানে শহরের মুনজিতপুর গ্রামের শ্বশুর হারাণ সরদারের বাড়িতে থাকেন। তিনি পুলিশের রাইটার।

প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, পলাশপোল মধুমল্যার ডাঙ্গীর (কোর্টের পিছনে) ভাড়া বাড়ির বাসিন্দা মইনুদ্দীন ইসলামের ভায়রার বন্ধু ছিল বখাটে রফিক। এরই জেরধরে পারিবারিক সম্পর্ক এবং যাওয়া আসার এক পর্যায়ে মিতুলের স্ত্রী এক সন্তানের জননী জেসমিন পারভীনের (২৫) দিকে কু-নজর পড়ে রফিকের। সুদূর প্রসারি পরিকল্পনা নিয়ে রফিক মোবাইলে বিভিন্ন সময়ে জেসমিনের সাথে কথা বলার এক পর্যায়ে প্রেমের প্রস্তাব দেয়। জেসমিন তার প্রস্তাব প্রত্যাখ্যান করায় রফিক আরও বেপরোয়া হয়ে উঠে। শেষ পর্যন্ত প্রেম নয় তাকে বিয়ে করতে হবে এমন জবরদস্তির এক পর্যায়ে জেসমিন বিষয়টি তার স্বামী মইনুদ্দীন ইসলাম কে জানায়। এতে রফিক ক্ষিপ্ত হয়ে গত ২৯ নভেম্বর জেসমিনের ভাড়া বাসা জজকোর্টের পশ্চিম পার্শের বাড়িতে দিন দুপুরে কয়েকজন বন্ধু মাস্তান নিয়ে হামলা চালায়। এসময় বাড়িতে রক্ষিত আলমারির গ্লাস ভাঙচুরসহ বিভিন্ন জিনিসপত্র তছনছ করে। তাকে বিয়ে না করলে অপহরণ করা হবে বলে আস্ফালন করে চলে যায় তারা। ঘটনার দিন সন্ধ্যায় রফিকসহ অজ্ঞাত কয়েকজনকে আসামি করে সদর থানায় এজাহার দাখিল করলে পুলিশ মামলা নিতে গড়িমসি করে। এক পর্যায়ে ঘটনার কয়েকদিন পর কয়েক দফে এজাহার পরিবর্তন শেষে ৯ ডিসেম্বর সদর থানায় দঃ বিধির ৪৪৮.৪২৭.৩২৩ ও ৩৮০ ধারায় মামলা রেকর্ড করা হয়। নামমাত্র মামলা নিলেও পুলিশ আসামিকে পূর্ব সখ্যতার জেরধরে গ্রেপ্তার করেনি। এমনকি বাদীর সহয়তায় মামলার তদন্তকারি কর্মকর্তা এসআই নাজমুল আসামি রফিককে গ্রেপ্তার করে ছেড়ে দেন বলে অভিযোগ রয়েছে। বর্তমানে রফিক আদালত থেকে জামিনে মুক্ত হয়ে বাদীকে অপহরণ করার হুমকি দিচ্ছে বলে তিনি জানান।

অভিযোগ রয়েছে, রফিক একজন বখাটে, একাধিক বিবাহের নায়ক, কোর্টের মুহুরী, সদর থানায় কর্মরত দারোগাদের সোর্স ও রাইটার হিসেবে কাজ করে থাকে। বর্তমানে ডিবি পুলিশের আওতায় রাইটারের কাজ করে যাচ্ছে। সে ইতোপূর্বে সদর থানায় কর্মরত এসআই আব্দুস সবুরের বিশ্বস্ত রাইটার ছিল। বিগত ২০১০ সালের জানুয়ারি মাসে আকর্ষিক মৃত্যুর পর সরলতার সুযোগ নিয়ে তার ল্যাপটপসহ বিপুল পরিমান অর্থ আত্মসাত করে মোটর সাইকেল ক্রয়সহ বিলাসিতার জীবন যাপন করছে। বিষয়টি জানাজানির পর থানা থেকে বিদায় করা হয় বখাটে রফিককে। বর্তমানে সাতক্ষীরা ডিবি পুলিশের একজন দারোগার রাইটার হিসেবে দায়িত্বে থাকায় তাকে কেউ কিছুই করার ক্ষমতা রাখে না বলে শ্বাসিয়ে চলেছেন তিনি।

কলারোয়ায় যক্ষ্মা প্রতিরোধে কলেজ শিক্ষকদের ভূমিকা বিষয়ক মতবিনিময়

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: রোববার সকাল ১০টায় কলারোয়ায় শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রি কলেজের শিক্ষক মিলনায়তনে যক্ষ্মা প্রতিরোধে কলেজ শিক্ষকদের ভূমিকা শীর্ষক এক  মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

কলেজের ২৫ জন শিক্ষকের অংশগ্রহণে মতবিনিময় সভায় সাতক্ষীরা জেলা নাটাবের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল হান্নান মোল্লার সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের টিএইচও ডা. আব্দুর রহমান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন শেখ আমানুল্লাহ ডিগ্রি কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবুল খায়ের,  উপজেলা সরকারি হাসপাতালের এমওডিসি ডা. আব্দুল আলিম। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য দেন কলেজের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আবুল খায়ের। মূল বক্তা ছিলেন উপজেলা হাসপাতালের এমওডিসি ডা. আব্দুল আলিম। মুক্ত আলোচনায় বক্তব্য রাখেন, কলেজের অধ্যাপক শেখ জাভিদ হাসান, মনিরা বেগম, আব্দুর রহমান প্রমুখ। সভা পরিচালনা করেন জাতীয় যক্ষ্মা নিন্ত্রয়ণ প্রতিরোধ কমিটি নাটাব’র কেন্দ্রীয় প্রতিনিধি জাহাঙ্গীর আলম।

 

ফলোআপ: দুর্নীতির সংবাদ প্রকাশে কুশলিয়া স্কুল এন্ড কলেজের অধ্যক্ষের গাত্রদাহ, সাংবাদিকদের দেখে নেবেন

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জ উপজেলার দক্ষিণ শ্রীপুর কেএমএল উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের অধ্যক্ষ, কয়েকজন প্রভাষক ও সহকারি শিক্ষকের বিধি বহির্ভুত নিয়োগ সংক্রান্ত সংবাদ পত্রিকায় প্রকাশিত হওয়ায় অধ্যক্ষ আবু রাইহান সিদ্দিকীর গাত্রদাহ শুরু হয়েছে। অনিয়ম ও দুর্নীতি ধামাচাপা দেয়ার উদ্দেশ্যে তিনি ১০ লাখ টাকার মিশন নিয়ে দৌঁড়ঝাপ শুরু করেছেন। পাশাপাশি সংবাদ প্রকাশের সাথে সংশ্লিষ্ট সাংবাদিকদের দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন।

নির্ভরযোগ্য সূত্র জানায়, দক্ষিণ শ্রীপুর কেএমএল উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অধ্যক্ষ পদে নিয়োগের জন্য ০৩/১০/২০০৩ তারিখে বিজ্ঞপ্তি প্রকাশ করা হয়। অধ্যক্ষ পদে ৯ জন প্রার্থী আবেদন করেন। ১২/১২/২০০৩ তারিখে অনুষ্ঠিত নিয়োগ পরীক্ষায় ৬ জন প্রার্থী এবং মৌখিক পরীক্ষায় মাত্র ৩ জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করেন। উক্ত তিন জনের মধ্যে একেএস সফিকুজ্জামান ৩৯ নম্বর পেয়ে প্রথম স্থান অর্জন করেন, আবু রাইহান সিদ্দিকী ৩০.৪ নম্বর পেয়ে দ্বিতীয় এবং আহছান রউফ ২৬.৪ নম্বর পেয়ে তৃতীয় স্থান অর্জন করেন। নিয়োগ পরীক্ষায় উপস্থিত ডিজি’র প্রতিনিধি প্রথম স্থান অর্জনকারী একেএস সফিকুজ্জামানকে অধ্যক্ষ হিসেবে নিয়োগের সুপারিশ করেন। কিন্তু অদৃশ্য কারণে ডিজি’র প্রতিনিধির নির্দেশ অমান্য করে তৎকালীন ম্যানেজিং কমিটি সরকারি বিধি লংঘন করে প্রথম স্থান অর্জনকারী একেএস সফিকুজ্জামানের পরিবর্তে অধ্যক্ষ পদে আবু রাইহান সিদ্দিকীকে নিয়োগ দেন। পরবর্তীতে একেএস সফিকুজ্জামান সাতক্ষীরার বিজ্ঞ আদালতে বিষয়টির প্রতিকার চেয়ে মামলা দায়ের করেন। এর প্রেক্ষিতে বিজ্ঞ বিচারক আবু রাইহান সিদ্দিকীকে প্রতিষ্ঠানের সকল কার্যক্রম থেকে বিরত থাকার নির্দেশ দেন। ম্যানেজিং কমিটি অধ্যক্ষ আবু রাইহান সিদ্দিকীকে সাময়িক বহিষ্কার করেন। পরবর্তীতে স্থানীয় সাংসদ চাপ প্রয়োগ করে মামলার বাদী একেএস সফিকুজ্জামানকে মামলা প্রত্যাহারে বাধ্য করেন। এছাড়াও সাংসদের নির্দেশে দক্ষিণ শ্রীপুর উচ্চ মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের তৎকালীন সভাপতি কাজী নওশাদ দিলওয়ার বহিষ্কৃত অধ্যক্ষ আবু রাইহান সিদ্দিকীর সাময়িক বহিষ্কার আদেশ প্রত্যাহার করে প্রতিষ্ঠানে যোগদানের ব্যবস্থা করে দেন। এছাড়াও প্রতিষ্ঠানের ভূগোল, ইসলামের ইতিহাস ও সাংস্কৃতি, ইসলাম শিক্ষা, যুক্তিবিদ্যা, স্কুল শাখায় সহকারি শিক্ষক পদে কাজী সাইফুল্যাহ, দীপংকরসহ কয়েকজন শিক্ষকের বিরুদ্ধে নিয়োগে গুরুতর অনিয়মের অভিযোগ রয়েছে এবং কম্পিউটার বিষয়ের প্রভাষক রওনাকুল ইসলাম ও কম্পিউটার বিষয়ের সহকারি শিক্ষক আব্দুল কাদেরের দাখিলকৃত কম্পিউটার সনদ জাল বলে শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত টিম মন্তব্য করেছেন। এর আগে অধ্যক্ষ ও কয়েকজন প্রভাষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ উত্থাপিত হলে বিগত পরিচালনা পর্ষদ তদন্ত কমিটি গঠন করেন। তদন্ত কমিটি ব্যাপক অনিয়মের তথ্য নিশ্চিত করে প্রতিবেদন জমা দেন। এছাড়াও গত ৬ ও ৭ ডিসেম্বর শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের পরিদর্শক আবুল কালাম আজাদ ও তার সহকারি মোখলেছুর রহমান তদন্ত কার্য সম্পন্ন করেছেন। ওই তদন্তে তারা নিয়োগ বিধি লংঘনসহ বিভিন্ন অনিয়ম ও দুর্নীতির প্রমাণ পেয়েছেন বলে একাধিক নির্ভরযোগ্য সূত্র থেকে জানা গেছে। এখন ওই দুর্নীতি ধামাচাপা দেয়ার জন্য অধ্যক্ষ ১০ লাখ টাকার মিশনে নেমেছেন। উচ্চ মাধ্যমিক পরীক্ষার্থীদের ফরম পূরণ কমিটির মাধ্যমে সরকার নির্ধারিত ফিস্ ছাড়া অতিরিক্ত অর্থ আদায়সহ বিভিন্ন খাত থেকে এই টাকা সংগ্রহের জন্য অধ্যক্ষ ও তার কয়েকজন সহযোগী প্রচেষ্টা চালাচ্ছেন। এছাড়াও শুধুমাত্র চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারি ব্যতীত সকল প্রভাষক, শিক্ষক ও কর্মচারিদের নিকট থেকে ইতোমধ্যে নভেম্বর মাসের বেতন-ভাতার জন্য নির্ধারিত ব্যাংকের চেক জমা নিয়েছেন। অধ্যক্ষ ও প্রভাবশালী কয়েকজন শিক্ষকের ভয়ে এ সব অভিযোগের বিষয়ে কেউ মুখ খুলতে সাহস পাচ্ছেন না।

এদিকে নিয়োগে অনিয়ম ও নানাবিধ দুর্নীতির বিষয়ে কয়েকটি পত্রিকায় তথ্যবহুল সংবাদ প্রকাশিত হওয়ার পর এলাকায় ব্যাপক তোলপাড় সৃষ্টি হয়। এ ঘটনায় অধ্যক্ষ আবু রাইহান সিদ্দিকী সাংবাদিকদের গালিগালাজ করাসহ দেখে নেয়ার হুমকি দিয়েছেন। এসব বিষয়ে জানতে চাইলে অধ্যক্ষ আবু রাইহান সিদ্দিকী বলেন, সবাই কমবেশী দুর্নীতি করে। তাঁর নিয়োগে অনিয়ম থাকার বিষয়টি স্বীকার করে বলেন, এসব ত্রুটিপূর্ণ নিয়োগের দায়-দায়িত্ব ম্যানেজিং কমিটির উপর বর্তায়। পত্রিকায় লিখে কিংবা বিভিন্ন দপ্তরে অভিযোগ দিলেও তাতে কিছু হবে না বলে দম্ভোক্তি করে অধ্যক্ষ বলেন, টাকা দিয়ে সব কিছু ম্যানেজ করা যায়। পত্রিকায় লেখার ফলে এখন কিছু বাড়তি টাকা খরচ হবে। তবে সাংবাদিকদের হুমকি দেয়ার বিষয়টি তিনি অস্বীকার করেছেন।

 

তালায় সাংস্কৃতিক মেলা

তালা প্রতিনিধি: রোববার সকালে তালার শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের মাঠে অন্ত্যজ সাংস্কৃতিক মেলা অনুষ্ঠিত হয়েছে।

মেলার উদ্বোধন করেন এবং এ উপলক্ষে আয়োজিত আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহবুবুর রহমান। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন ও স্বাগত বক্তব্য রাখেন ভূমিজ ফাউন্ডেশন’র সভাপতি এবং উত্তরণ পরিচালক শহিদুল ইসলাম। আব্দুল্লাহেল হাদীর পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ  অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন ডুমুরিয়া উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা মেহেদী আল মাসুদ, যুব উন্নয়ন কর্মকর্তা এসএম কামরুজ্জামান, তালা মহিলা কলেজের অধ্যক্ষ আব্দুর রহমান, শহীদ মুক্তিযোদ্ধা মহাবিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ মহিবুল্লাহ মোড়ল, অচিন্ত্য সাহা, রবিউল ইসলাম, পানি কমিটির সাধারণ সম্পাদক মীর জিল্লুর রহমান ও রিপোটার্স ক্লাবের সভাপতি মীর জাকির হোসেন।

বক্তব্য রাখেন উপজেলা অন্ত্যজ পরিষদের সভাপতি নীল কোমল দাশ, শসাঙ্ক শেখর ঢালী, রমেশ চন্দ্র, গোপাল কৃষ্ণ সরকার এবং অন্ত্যজনেত্রী স্বরসতী দাস প্রমুখ। মেলা লাঠি খেলা, অষ্টক পালা, পালকির গান, ঢোল-সানাই এর মহড়া এবং ঢোলের তালে গান পরিবেশিত হয়। অনুষ্ঠানে ভূমিজ ফাউন্ডেশন ও অন্ত্যজদের বাহারি স্টল ছিল চোখে পড়ার মতো।

 

এলিকজার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলে অভিভাবক সমাবেশ

পত্রদূত রিপোর্ট: রোববার সকাল ১০টায় এলিকজার ইন্টারন্যাশনাল স্কুলের ২০১২ শিক্ষাবর্ষের চূড়ান্ত ফলাফল প্রকাশ ও অভিভাবক সমাবেশ বিদ্যালয় চত্বরে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্কুলের অধ্যক্ষ হাফিজুর রহমান মাসুমের সভাপতিত্বে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিদ্যালয় পরিচালনা কমিটির সদস্য মুক্তিযোদ্ধা সুভাষ সরকার, বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণির শিক্ষার্থীদের অভিভাবকবৃন্দ এবং বিদ্যালয়ের শিক্ষকমণ্ডলী। সমাবেশে অভিভাবকবৃন্দ তাদের বক্তব্যে বিদ্যালয়ের শিক্ষার সার্বিক মান নিয়ে সন্তুষ্টি প্রকাশ করেন। অধিকাংশ অভিভাবক বিদ্যালয়ে প্রাপ্ত তাদের সন্তানদের সামাজিক শিক্ষার জন্য শিক্ষকদের ধন্যবাদ জানান এবং তারা ব্যতিক্রমধর্মী এই শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটিতে তাদের সন্তানদের দ্বাদশ শ্রেণি পর্যন্ত অধ্যয়ন করানোর অভিপ্রায় ব্যক্ত করেন।

আলোচনা শেষে বিদ্যালয়ের বিভিন্ন শ্রেণির ফলাফল প্রকাশ করা হয়। ২০১২ শিক্ষাবর্ষ থেকে প্রথমবারের মত বিদ্যালয়ের প্রতিটি সেমিস্টারের ফলাফল গ্রেডিং পদ্ধতিতে (জিপিএ) প্রকাশ করা হয়েছে। এই পদ্ধতিতে একটি শিক্ষাবর্ষের ৪টি সেমিস্টারের জিপিএ-র ভিত্তিতে উক্ত শিক্ষাবর্ষের সিজিপিএ (ক্যারিয়ার গ্রেড পয়েন্ট এভারেজ) নির্ধারণ করা হয়েছে।

পৃথক অভিযানে দু’মাদক ব্যবসায়ী আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি: ভ্রাম্যমাণ আদালত এবং মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের পৃথক অভিযানে মাদক দ্রব্যসহ দু’মাদক ব্যবসায়ী আটক হয়েছে। রোববার সকাল ১০টায় সাতক্ষীরা নির্বাহী ম্যাজিস্ট্রেট রবিউল হাসানের নেতৃত্বে ভ্রাম্যমাণ আদালত সদর উপজেলার আগড়দাঁড়ী গ্রামের মৃত জুম্মান আলী সরদারের ছেলে মাহফুজ আলী সরদারের (৫০) বাড়িতে অভিযান চালিয়ে নিজের পকেটে রাখা ৪১ পুরিয়া ১৫০ গ্রাম গাঁজাসহ মাহফুজকে আটক করে।

এদিকে সকাল সাড়ে ৮টায় মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ অধিদপ্তরের উপ-পরিদর্শক কাজী মাহমুদ হারুন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে সদর উপজেলার সাতানী গ্রামের মৃত অহেদ আলীর ছেলে আশরাফ আলী দালালের (৪৮) বাড়িতে অভিযান চালিয়ে ১৬ পিচ লুপিজেসিপ ইনজেকশনসহ আটক করে। এ ব্যাপারে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণ আইনে পৃথক দুটি মামলা হয়েছে বলে জানা গেছে।

নলতায় জমে উঠেছে শীতবস্ত্রের কেনাকাটা

আহাদুজ্জামান আহাদ, নলতা: শীত শুরু হতে না হতে বইতে শুরু করেছে শৈত্য প্রবাহ। এর মধ্যেই নলতায় শীতবস্ত্রের কেনাকাটা শুরু হয়েছে পুরো মাত্রায়। বিশেষ করে শীতবস্ত্রের পুরোনো কাপড়ের ব্যবসা জমে উঠেছে নলতার বিভিন্ন দোকান ও হাটবাজারে। নতুন শীতবস্ত্রের পাশাপাশি চাহিদা বেড়ে গেছে পুরানো শীতবস্ত্রের। পুরোনো শীতবস্ত্রের দাম গতবারের তুলনায় একটু বেশি হলেও চাহিদার কমতি নেই। নতুনের চেয়ে তুলনামূলক কম দাম হওয়ায় মফস্বল শহরের নিম্ন আয়ের বেশির ভাগ মানুষ পুরোনো শীতবস্ত্র কেনাকাটার দিকে ঝুকে পড়েছেন। নলতার হাট বাজার, ফুটপাত ও বিভিন্ন মার্কেট ঘুরে দেখা গেছে, আমদানিকৃত পুরোনো শীতবস্ত্রের দোকানগুলোতে বেশি ভিড় করছেন ক্রেতারা। তবে মার্কেটগুলোতে গত বছর যে কাপড় ৪০০-৪৫০ টাকায় বিক্রি হয়েছে এ বছর তা ৭০০-৭৫০ টাকায় বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে। ছোটদের শীতবস্ত্রের দামও বেশ চড়া। পুরোনো কাপড় ব্যবসায়ী খালেক জানান, গত বছরের তুলনায় এ বছর আমাদেরকে একটু বেশি দামে কাপড় ক্রয় করতে হচ্ছে। এ কারণে পুরানো শীতবস্ত্র গতবারের চেয়ে বেশি দামে বিক্রি করতে হচ্ছে। শীতবস্ত্রের দাম এ বছর একটু বেশি হলেও থেমে নেই মানুষের কেনাকাটা। শীত মোকাবেলা করতে সাধারণ মানুষের কেনাকাটা দিন দিন বেড়েই চলেছে।

তালায় গম আত্মসাতের অভিযোগে ইসলামকাটি ইউপি চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা গোলাম ফারুক ফের অবরুদ্ধ

তালা প্রতিনিধি: দুস্থ ও অসহায় মহিলাদের জন্য বরাদ্ধকৃত ভিজিডির গম আত্মসাৎ করার অভিযোগে তালার ইসলামকাটি ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুককে রোববার অবরুদ্ধ করে রাখে এলাকাবাসী। দীর্ঘ সময় অবরুদ্ধ থাকার পর সরকারি কর্মকর্তার হস্তক্ষেপে তিনি মুক্তি পান।

জানা গেছে, রোববার সকালে তালার ইসলামকাটি ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে সংশ্লিষ্ট ইউপি চেয়ারম্যান, জামায়াত নেতা অধ্যাপক গোলাম ফারুক নিজে উপস্থিত থেকে সরকারি ভিজিডি প্রকল্প’র গম ১২৩ জন বিধবা, হতদরিদ্র ও অসহায় মহিলাদের অনুকূলে জন প্রতি ৩০ কেজি করে বিতরণ করছিলেন। কিন্তু গম কম হতে পারে সন্দেহে অসহায় মহিলারা উক্ত গম অন্যত্র নিয়ে মেপে ৩০ কেজির স্থলে ২৩ থেকে ২৪ কেজি করে পান। বিষয়টি মহিলারা তৎক্ষণাৎ ফাঁস করলে এলাকাবাসী ঘটনাস্থলে বিষয়টির প্রমাণ পেয়ে ইউপি চেয়ারম্যানকে অবরুদ্ধ করে রাখে। পরে সংবাদ পেয়ে তালা থেকে সরকারি কর্মকর্তারা ঘটনাস্থলে যেয়ে চেয়ারম্যানকে উদ্ধারসহ বাকি মহিলাদের মাঝে তাদের প্রাপ্য ৩০ কেজি করে গম প্রদান করে পরিস্থিতি শান্ত করেন।

উল্লেখ্য, ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুকের বিরুদ্ধে ইতোপূর্বে সরকারি চালচুরি, ত্রাণ বিতরণে অনিয়ম, কপোতাক্ষ বাঁধ কেটে এলাকা পানিতে তলিয়ে দিয়ে ত্রাণ বাণিজ্যসহ নানাবিধ অভিযোগ রয়েছে। ইউপি চেয়ারম্যান জামায়াত নেতা গোলাম ফারুকের ধারাবাহিক দুর্নীতি ও অপকর্মের বিরুদ্ধে এবার ফুঁসে উঠেছে এলাকাবাসীসহ পরিষদের একাধিক সদস্য।

নাম প্রকাশে অনিচছুক এক ইউপি সদস্য জানান, প্রভাবশালী একটি রাজনৈতিক মহলকে ম্যানেজ করে ধারাবাহিকভাবে চেয়ারম্যান গরিব মানুষের হক এভাবে চুরি করে আসছে। তিনি জানান, ভিজিডি প্রকল্প’র বরাদ্ধকৃত গমের একটি অংশ পাটকেলঘাটায় বিক্রি করে রোববার তিনি ১২৩ জন মহিলার মাঝে মাথা পিছু ২৩/২৪ কেজি বিতরণ করেন।

এ ব্যপারে ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম ফারুক জানান, ১২৩ জন দুস্থ মহিলার মাঝে ২৮ কেজি করে গম বিতরণ করা হচ্ছিল। কিন্তু একটি মহল বিষয়টি ট্যাগ অফিসারকে জানায় এবং পরিষদ চত্বরে বিশৃঙ্খলা সৃষ্টি করে। এ ব্যপারে তালা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. মাহাবুবুর রহমান জানান, চেয়ারম্যান গোলাম ফারুকের বিরুদ্ধে গম কম দেবার অভিযোগ পেয়ে সংশ্লিষ্ট ট্যাগ অফিসারকে ঘটনাস্থলে পাঠিয়েছি। এই মুহূর্তে আমি ঢাকায় যাচ্ছি, যে কারণে বিস্তারিত জানতে পারেনি। জানতে চাইলে ট্যাগ অফিসার উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্মকর্তা আশিষ কুমার নন্দী বলেন, ভাই ব্যস্ত আছি, পরে কথা বলবো। তবে, পরে তাকে ফোন করেও পাওয়া যায়নি।

পৌর সিআইজি কমিটি গঠন

রোববার বেলা সাড়ে ১১টায় সাতক্ষীরা পৌরসভা অডিটোরিয়ামে ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে ও সুশীলনের বাস্তবায়নে এসডিএলজি প্রকল্পের আওতায় স্থানীয় সরকার আইন ২০০৯ কে বাস্তবায়ন করার লক্ষ্যে ২৭ সদস্য বিশিষ্ট সিআইজি কমিটি গঠন করা হয়। পৌরসভার প্রত্যেক ওয়ার্ড থেকে ৬ জন পুরুষ ও ৪ জন নারী মিলে ৯০ জন সদস্যের উপস্থিতিতে এ কমিটি গঠন করা হয়।

এ উপলক্ষে আয়োজিত সভায় সভাপতিত্ব করেন প্যানেল মেয়র শেখ শফিক উদ দৌলা সাগর। বক্তব্য রাখেন সুশীলনের ডিডি মোস্তফা আক্তারুজ্জামান, এপিসি সাহিদা খাতুন ডালিম, কাউন্সিলর আছাদুজ্জামান অনজু, আইনুল ইসলাম নান্টা, জ্যোৎসা আরা, সচিব সাইফুল ইসলাম। সভায় উপস্থিত ছিলেন কাউন্সিলর ওসমান গণি মিন্টু, ফারহাদীবা খান সাথী, মাসুম বিল্লাহ শাহিন, শাহীনুর রহমান শাহীন, সুশীলনের পিও এম ম্ত্তুালিব হোসেন, সুমন চ্যাটার্জী প্রমুখ। ২৭ সদস্য বিশিষ্ট কমিটির সভাপতি নির্বাচিত হন ৮নং ওয়ার্ডের সিআইজি সদস্য মোহাম্মাদ আলী সিদ্দীকী, সম্পাদক নির্বাচিত হন ২নং ওয়ার্ডের সিআইজি সদস্য সৈয়দ হায়দার আলী তোতা। সভা পরিচালনা করনে পিও মাহবুবুল আলম মিন্টু। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

জেলা বিএনপির সমাবেশ

শহর প্রতিনিধি: রোববার বিকাল ৪টায় শহরের শহীদ স ম আলাউদ্দিন চত্বরে গণসমাবেশ করেছে জেলা বিএনপি। কেন্দ্রীয় বিএনপির’র ভারপ্রাপ্ত মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরসহ সকল রাজবন্দীর মুক্তি, বিরোধী দলের নেতাকর্মীদের নামে হযরানি মূলক মিথ্যা মামলা প্রত্যাহার এবং কেয়ারটেকার সরকারের অধীনে নির্বাচনের দাবিতে এ গণসমাবেশ আয়োজন করা হয়।

গণসমাবেশে জেলা বিএনপি’র সিনিয়র সহ-সভাপতি কামরুল ইসলাম ফারুকের সভাপতিত্বে উপস্থিত ছিলেন জেলা তাঁতী দলের সভাপতি রফিকুল আলম বাবু, জেলা বিএনপি’র সহ-সভাপতি ইমামুল ইসলাম শরিফ, ইউছুপ আলী, এসএম আকবর হোসেন, ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক অধ্যাপক মোদাছেরুল হক হুদা, যুগ্ম-সাধারণ সম্পাদক শের আলী, আবিদুর রহমান, সাংগঠনিক সম্পাদক তাসকিন আহমেদ চিশতি, প্রচার সম্পাদক শাহিনুল করিম, ঝাউডাঙ্গা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান রফিকুল ইসলাম, সদর বিএনপিরর আহবায়ক শহিদুল ইসলাম ও জেলা ছাত্র দলের সভাপতি হাফিজুর রহমান মুকুল প্রমুখ।

কলারোয়ায় পুলিশের অভিযানে ওয়ারেন্টভুক্ত ৪ আসামি আটক

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: রোববার কলারোয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে বিভিন্ন মামলার ৪ জন ওয়ারেন্টভুক্ত আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।

কলারোয়া থানার পরিদর্শক সিকদার আকক্াছ আলী সাংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) তারিকুল ইসলাম রোববার ভোর রাতে উপজেলার উত্তর ভাদিয়ালী গ্রামের মৃত গয়রাতুল্লার ছেলে সাইফুল ইসলাম (৩৫) ও রফিকুল ইসলাম (৪০) কে তাদের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেন। তাদের দুজনের বিরুদ্ধে ১৯৭৪ সালের স্পেশাল পাওয়ার ্এ্যাক্ট এর-২৫(বি)এর মামলা রয়েছে। একই সময় উপজেলার নাথপুর গ্রাম থেকে আব্দুল কাদের দালালের ছেলে আবুল হোসেন দালাল (৩৫) কে গ্রেপ্তার করা হয়। গ্রেপ্তারকৃত আবুল হোসেনের বিরুদ্ধে কলারোয়া থানায় একটি মামলা (নং-১৮/১২) রয়েছে। অপরদিকে, ভাদিয়ালী গ্রামের মৃত ওয়াহেদ আলীর ছেলে আঃ হাকিম (৩০) কে তার বাড়ি থেকে পুলিশ গ্রেপ্তার করে। গ্রেপ্তারকৃত আসামি আব্দুল হাকিমের বিরুদ্ধে ঢাকা বিমানবন্দর থানার মামলা নং-৪২ (১১)০৭,ধারা-৪১৯/ ৪২০/ ৪৬৭/ ৪৭১/ ১০৯ পিসি’র ওয়ারেন্ট রয়েছে।

কলারোয়ায় ২শ’ বোতল ফেনসিডিলসহ মাদক ব্যবসায়ী গ্রেপ্তার

ভ্রাম্যমাণ প্রতিনিধি: রোববার কলারোয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ২শ’ বোতল ফেনসিডিলসহ এক মাদক ব্যবসায়ীকে গ্রেপ্তার করেছে।

কলারোয়া থানার পরিদর্শক সিকদার আকক্াছ আলী জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে থানার উপ-পুলিশ পরিদর্শক (এসআই) তারিকুল ইসলাম ও বাবলুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে রোববার ভোর রাতে উপজেলার কেরালকাতা ইউনিয়নের সিংঙ্গা গ্রামের কাঁচা রাস্তার উপর ওৎ পেতে থাকেন। এসময় ওই রাস্তা দিয়ে ২ ব্যক্তিকে আসতে দেখে তাঁরা তাদের ধাওয়া করেন। পুলিশের ধাওয়া খেয়ে মাদক ব্যবসায়ী উপজেলার নাথপুর গ্রামের আব্দুল কাদেরের ছেলে আবুল হোসেন (৩৫) পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা কালে গ্রেপ্তার হয়। পুলিশ তার কাছ থেকে দুইটি বস্তা উদ্ধার করে। এ’সময়  পুলিশ ওই বস্তায় তল্লাশি চালিয়ে ২শ’ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করে। আটককৃত ফেনসিডিলের বাজার মূল্য ৮০ হাজার টাকা বলে জানা গেছে। এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় একটি মামলা নং-১৮/১২ দায়ের হয়েছে।

আশাশুনিতে প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে শিক্ষা সহায়ক উপকরণ বিতরণ

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আইডিয়ালের সার্বিক তত্ত্বাবধানে এবং লিলিয়েন ফন্ডস’র সহায়তায় আশাশুনিতে প্রতিবন্ধী শিশুদের মাঝে শিক্ষা সহায়ক উপকরণ হিসেবে খাতা, কলম, পেন্সিল, শিশু খাদ্য এবং হুইল চেয়ার বিতরণ করা হয়েছে।

এ ছাড়া মানুষের জন্য ফাউন্ডেশনের সহায়তায় চিংড়ি ঘেরে কর্মরত নারীর ক্ষমতায়ন প্রকল্পের আওতায় সংস্থার আশাশুনি কার্যালয়ে দরিদ্র নারীদের আর্থিকভাবে স্বচ্ছল করে তোলার লক্ষ্যে অনুষ্ঠিত ১৫ দিনব্যাপী দর্জি বিজ্ঞান ও উৎপাদিত পণ্য বাজারজাতকরণ বিষয়ক প্রশিক্ষণ শেষে প্রশিক্ষণার্থীদের মাঝে সনদপত্র প্রদান করা হয়েছে। অনুষ্ঠানে  বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আশাশুনি উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা ফাতেমা জোহরা, , উপজেলা সমাজসেবা কর্মকর্তা শেখ মহসীন আলী,  উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা আকতারুজ্জামান, মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার আঃ হান্নান ও সাংবাদিক মুজিবর রহমান।

এছাড়া  উপস্থিত ছিলেন আইডিয়ালের প্রকল্প ব্যবস্থাপক শেখ আহসানুল ইসলাম, প্রকল্প কর্মকর্তা (প্রশিক্ষণ) শহীদুল্লাহ সরদার, প্রকল্প কর্মকর্তা শাহাদাৎ হোসেন এবং আশাশুনি শাখার সহকারি প্রকল্প কর্মকর্তা মনিশংকর হালদার। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন আইডিয়ালের সমন্বয়কারী ( নির্বাহী প্রধান) ডা. নজরুল ইসলাম। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

শহরে শিবিরের বিক্ষোভ মিছিল

কেয়ারটেকার সরকার ব্যবস্থা পুনঃপ্রবর্তনের দাবিতে রোববার বিক্ষোভ মিছিল করেছে শহর ছাত্রশিবির। সকাল ১০টার দিকে আমতলা মোড় থেকে মিছিলটি বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে খুলনার রোড মোড়ে গিয়ে শেষ হয়। পরে অনুষ্ঠিত বিক্ষোভ সমাবেশে বক্তব্য রাখেন শহর শিবিরের  সেক্রেটারি রোকনুজ্জামান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

 

 

‘দেশের কল্যাণে প্রযুক্তি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম’

 

দেশে প্রযুক্তি, কারিগরি ও বৃত্তিমূলক শিক্ষার গুরুত্ব অপরিসীম। উন্নত বিশ্ব সর্বাধুনিক প্রযুক্তির বিকাশ ঘটিয়ে ক্রমাগত নতুন নতুন সৃষ্টির পথে এগিয়ে চলেছে। একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলায় আমাদের শিক্ষা ব্যবস্থায় আমূল পরিবর্তন আনতে হবে। শনিবার সকাল ১১টায় খুলনা শহরের খালিশপুর হাউজিং এস্টেটের সাউথ বেঙ্গল ইনস্টিটিউট অব টেকনোলজির নবীন বরণ, বৃত্তি প্রদান ও সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে বাংলাদেশ আঞ্চলিক সংবাদপত্র পরিষদের কেন্দ্রীয় সভাপতি, খুলনা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক অনির্বাণ সম্পাদক অধ্যক্ষ আলী আহমেদ একথা বলেন।

ইনস্টিটিউট’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক ফয়জুর রহমান’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তৃতা করেন খুলনা সিটির ১৫নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর ও খুলনা চেম্বারের পরিচালক আমিনুল ইসলাম মুন্না, বিশিষ্ট সমাজসেবক শেখ মোশাররফ হোসেন, সুকুমার রায় বিশ্বাস, শিল্পপতি আজিজুল কবির ও খুলনা শিপইয়র্ডের ইঞ্জিনিয়ার সোহেল আহমেদ। প্রধান অতিথি ছাত্রছাত্রীদের যুব সমাজের নৈতিক অবক্ষয় ও অপসংস্কৃতির দিকে পা না বাড়িয়ে সমাজ, দেশ ও জাতির কল্যাণে সম্যক শিক্ষা গ্রহণের আহবান জানান। প্রেস বিজ্ঞপ্তি