কৈখালীতে অতিথি পাখি শিকারের মহড়া চলছে


প্রকাশিত : ডিসেম্বর ২৩, ২০১২ ||

কৈখালী (শ্যামনগর) প্রতিনিধি: শ্যামনগরের কৈখালী ইউনিয়নটির বেশীর ভাগ এলাকা বিশ্ববিখখ্যাত সুন্দরবন দ্বারা বেষ্টিত। ঝরা নদী,খাল বিল,হাওর বাঁওড় আর মৎস্য ঘেরে প্রচুর খাদ্য থাকায় অতিথি পাখির বিচরণ অনেক বেশী এখানে। তবে মানুষ রুপী কিছু মাংসাশী হায়নার শিকারে প্রতিদিন ধ্বংস হচ্ছে শত শত অতিথি পাখি। ইউনিয়নটির বিভিন্ন স্হানে নদীচরে গড়ে উঠেছে ছোট বন সাদৃশ্য। বিশেষ করে পরানপুর বিজিপি ক্যাম্পের কাছে কাঠামারী এলাকায় এ বনটি গভীর গাছে নির্জন ও অভয় অরন্যে পরিণত হয়েছে। তবে অবাক হতে হয় বিজিপি সদস্যদের সামনে থেকে শিকারীদের নির্ভয়ে বিচরণ ও পাখি শিকার করার দৃশ্যটি দেখে। কৈখালীর বিভিন্ন গ্রামে শীত মৌসুমে বেড়াতে আসে  বাহিরে থেকে কিছু অতিথি। সাথে থাকে অনুমোদন বিহীন বন্দুক। অত্র ইউনিয়নে কিছু  প্রভাবশালী ব্যক্তি, অবসরপ্রাপ্ত বিডিয়ার, পুলিশের দ্বারাও সংঘটিত হচ্ছে এ জঘন্য কাজটি নাম না প্রকাশে অনেকেই অভিযোগে জানান। কেউকেউ আবার বন্দুক ভাড়া দিচ্ছে শিকার করা পাখির অর্ধেক অংশে।উপজেলার ৪ নং নূরনগরের হরিপুর থেকে আসা একটি পরিচিত দলকে একাধিক বন্দুক সহ মোটর সাইকেল যোগে প্রতিদিন সকালে দেখা যায়। এভাবে প্রতিদিন সকালে বিভিন্ন গ্রামে ও উপকূলীয় চরে গড়ে উঠা বোন সাদৃশ্য গাছের সারিতে এই শিকারীদের মহড়া বন্ধ সহ শাস্তি মূলক ব্যবস্হা গ্রহনের জোর দাবি এলাকাবাসীদের।