বৈকারি গরুর খাটালে সন্ত্রাসী হামলা, এ্যাম্বুলেন্স ভাংচুর


প্রকাশিত : January 6, 2013 ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদর উপজেলার বৈকারি গরুর খাটালে শহরের ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা ফের হামলা চালিয়েছে। এসময় সন্ত্রাসীদের অবরুদ্ধ করে ফেলে স্থানীয় জনতা। পরে পুলিশ তাদের উদ্ধার করে। হামলায় আহত গরু ব্যবসায়ীকে হাসপাতালে নেওয়ার পথে সন্ত্রাসীরা দ্বিতীয় দফায় হামলা চালিয়ে একটি এ্যাম্বুলেন্স ভাংচুর করেছে। শনিবার সকাল থেকে দুপুর পর্যন্ত দফায় দফায় এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

স্থানীয় একাধিক সূত্র জানায়, বেশ কিছুদিন যাবত সদর উপজেলার তলুইগাছা গরুর খাটালে দুই পক্ষের উত্তেজনা ছড়িয়ে পড়ায় গরু ব্যবসায়ীরা ওই খাটালে গরু উঠাচ্ছিল না। শনিবার সকালে ওই খাটালে গরু উঠানোর জন্য শহর উপকণ্ঠের কাশেমপুর কদমতলা ও কুচপুকুর এলাকার বাসিন্দা আলাউদ্দীন, আনিছুর, আলম, রমজান, সাইদুল, একরামুল, শাওন ও পাপ্পু একত্রে বৈকারি গরুর খাটালে যায়। সেখানের ব্যবসায়ীদের গরু তলুইগাছা খাটালে নেওয়ার কথা জানালে তারা রাজি না হওয়ায় হাড়দ্দাহ গ্রামের জহর গাজীর ছেলে গরু ব্যবসায়ী রফিক গাজীকে ব্যাপক মারপিট করে সন্ত্রাসীরা। এসময় স্থানীয় জনতা ও ব্যবসায়ীরা ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীদের অবরুদ্ধ করে ফেলে। খবর পেয়ে সদর থানার এসআই আলী রেজা সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে ঘটনাস্থলে পৌঁছে তাদেরকে উদ্ধার করে।

এদিকে আহত গরু ব্যবসায়ীকে দুপুরে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে এ্যাম্বুলেন্স যোগে আনার পথে ওই সন্ত্রাসী ও তাদের লোকজন রাস্তায় বসে কাশেমপুর এলাকায় এ্যাম্বুলেন্স পৌঁছানো মাত্রই ভাংচুর করে। বিকালে স্থানীয়ভাবে মিমাংসা করে সন্ত্রাসীদের পক্ষ থেকে আব্দুল মান্নান এ্যাম্বুলেন্স চালককে ১০ হাজার টাকা দেওয়ার প্রতিশ্র“তি দেন। এদিকে সদর থানার এসআই আলী রেজা জানান, গরু ব্যবসার টাকা আদায়কে কেন্দ্র করে এই সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। তবে কোন মামলা হয়নি।