লুটপাট: শত বছরের এই বটগাছের মুল্য ৩৬’শ টাকা!


প্রকাশিত : January 6, 2013 ||

পত্রদূত রিপোর্ট: সাতক্ষীরা সদর উপজেলা পারকুকরালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের মাঠে কালের স্বাক্ষী হয়ে দাড়িয়ে থাকা বিশাল জীবিত বটগাছ মৃত দেখিয়ে নাম মাত্র মূল্যে বিক্রি করার অভিযোগ উঠেছে। এদিকে শনিবার সকালে গাছটি কাটতে শুরু করলে স্থানীয় লোকজন তাতে বাধা দেয়। এক পর্যায় উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা টেন্ডার বাতিল করে গাছটি রক্ষার চেষ্টা শুরু করেন। তিনি সদর উপজেলার প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার দুলাল সরকার কে ঘটনাস্থলে পাঠিয়ে গাছকাটা বন্ধ করে দেন। তবে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার নির্দেশ এখন আর মানছেন না গাছ ক্রয়কারী জনৈক আব্দুল গফ্ফার।

উলে¬খ্য, পারকুকরালী সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকার যোগসাজসে গত ১৫ দিন আগে বিদ্যালয় মাঠে অবস্থিত একটি বিশাল আকারের বটগাছ মৃত দেখিয়ে বিক্রির অনুমতি চেয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাকে চিঠি দেন। সে মোতাবেক কয়েকলাখ টাকার গাছ মাত্র ৩৬ ‘শ টাকা বিক্রি করা হয়। স্থানীয় আব্দুল গফফার গাছটি ক্রয় করেন। বিষয়টি জানাযানি হলে এলাকায় তোলপাড় শুরু হয়। একপর্যায় বিষয়টি উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো: আসাদুজ্জমান সরেজমিন তদন্ত করে গাছটি জীবিত দেখতে পেয়ে টেন্ডার বাতিল করে বটগাছটি রক্ষার নির্দেশ দেন। কিন্তু উপজেলা কর্মকর্তার নির্দেশ অমান্য করে বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষিকা ও বিদ্যালয় পরিচালনা পরিষদের সভাপতির যোগসাজসে শনিবার সকালে গাছটি কাটা শুরু হয়। এসময় গ্রামবাসি বাধা দেয়। পরে সদর উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা দুলাল চন্দ্র সরকার ও পুলিশ ঘটনাস্থলে যান এবং গাছ কাটা বন্ধ করে দেন। স্থানীয় কাউন্সিলর শাহিনুর রহমান শাহিন জানান, বটগাছটি এলাকার একটি ঐতিহ্য। সুতারাং বটগাছটি না কেটে যাতে সংরক্ষন করা যায় সে ব্যাপারে প্রশাসনের সহযোগীতা চেয়েছেন।