ফিরে দেখা ২০১২: জেলায় ৮ থানায় বিভিন্ন ঘটনায় ৩ হাজার ২শ’টি মামলা রেকর্ড


প্রকাশিত : January 11, 2013 ||

এম জিললুর রহমান: ফিরে দেখা ২০১২ সালে সাতক্ষীরা জেলার ৮টি থানায় ৩ হাজারের অধিক মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। খুন, ধর্ষণ, রাহাজানি, চাঁদাবাজি, চুরি, ডাকাতি, অপহরণ, ছিনতাই, মাদক, এসিড সন্ত্রাস, নারী নির্যাতনসহ বিভিন্ন ঘটনায় এসব মামলা হয়। তবে নারী নির্যাতনের ঘটনা বেড়েছে উদ্বেগজনক হারে। ৪০টি খুন, ৩৬টি ধর্ষণ, ৩৪টি অপহরণের ঘটনা ঘটলে নারী নির্যাতনের ঘটনা ঘটেছে ৪০০টি। এছাড়া মাদকের সাথে জড়িত থাকার অভিযোগে মামলা হয়েছে প্রায় ৩০০টি। তবে বছরের শেষ সময়ে মাদক দ্রব্য নিয়ন্ত্রণে সংশ্লিষ্ট অধিদপ্তর এবং থানা পুলিশের কার্যক্রমের চেয়ে ডিবি পুলিশের ভূমিকা বেশ উজ্জ্বল।
প্রাপ্ত তথ্যে জানা গেছে, জেলার ৮টি থানায় ২০১২ সালের জানুয়ারি মাসে মামলা হয়েছে ২২৮টি, ফেব্র“য়ারি মাসে মামলা হয়েছে ২২৯টি, মার্চ মাসে মামলা হয়েছে ২৭২টি, এপ্রিল মাসে ২৭৪টি, মে মাসে মামলা হয়েছে ৩১৮টি, জুন মাসে ২৯৯টি, জুলাই মাসে ৩১১টি, আগস্ট মাসে ২৭৪টি, সেপ্টেম্বর মাসে ২৪৬টি, অক্টোবর মাসে ২৯১টি, নভেম্বর মাসে ২৪০টি এবং ডিসেম্বর মাসে ২১০টি মামলা হয়। জেলায় ফেলে আসা বছরে মোট মামলা হয়েছে ৩ হাজার ১৯২টি।
এরমধ্যে গত ১২ মাসে সাতক্ষীরা সদর থানায় মামলা হয়েছে ৯৫৮টি। অর্থাৎ গড়ে এ থানায় মামলা হয়েছে প্রতি মাসে ৮০টি করে। কলারোয়া থানায় ২০১২ সালের পহেলা জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত বিভিন্ন অপরাধে মামলা হয়েছে ৪১৮টি। অর্থাৎ মাসে গড়ে প্রায় ৩৫টি করে মামলা হয়। গড়ে ২ দিনে ৩টি করে মামলা রেকর্ড করা হয়। একই ভাবে বিগত বছরে পাটকেলঘাটা থানায় মোট মামলা হয়েছে ১১০টি। মাসে গড় হিসেবে ৯টি করে মামলা রেকর্ড হয়েছে। একইভাবে তালা থানায় গত এক বছরে মামলা হয়েছে ২৫৮টি। প্রতিমাসে গড় হিসেবে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে ২১টি করে। এতে গড়ে ২দিনে ১টি করে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে। দেবহাটা থানায় এক বছরে মামলা হয়েছে ২০৩টি। এরমধ্যে প্রতি মাসের গড় হিসেবে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে ১৭টি করে। আশাশুনি থানায় মামলা হয়েছে এক বছরে ৩০৯টি। প্রতি মাসের গড় হিসেবে মামলা রেকর্ড করা হয়েছে ২৫টি করে। কালিগঞ্জ থানায় বিগত ২০১২ সালে মোট মামলা হয়েছে ৩৫০টি। সর্বশেষ শ্যামনগর থানায় এক বছরে মামলা হয়েছে ৫১৭টি। প্রতি মাসে গড় মামলা ৪৩টি করে।
পুলিশের দায়িত্বশীল সূত্র জানায়, ২০১২ সালে সাতক্ষীরা জেলার মধ্যে সাতক্ষীরা সদর থানায় সর্বোচ্চ মামলা রেকর্ড করা হয়েছে ৯৫৮টি। দ্বিতীয় পর্যায়ে আছে শ্যামনগর থানা, সেখানে মামলা হয়েছে ৫১৭টি এবং তৃতীয় পর্যায়ে আছে কলারোয়া থানা, সেখানে মামলা হয়েছে ৪১৮টি। এছাড়া সবচেয়ে কম মামলা হয়েছে পাটকেলঘাটা থানায়। সেখানে এক বছরের মামলার সংখ্যা ১১০টি। সবচেয়ে মজার ব্যাপার ফেলে আসা বছরের ডিসেম্বর মাসে পাটকেলঘাটা থানায় মামলা হয়েছে মাত্র ২টি।
তবে ভুক্তভোগীদের অভিযোগ প্রকৃত নির্যাতনকারিদের অধিকাংশ সময় থানায় মামলা করতে ব্যর্থ হয়ে আদালতের দারস্থ হতে হয়। আদালতের প্রক্রিয়া দীর্ঘ সময় অতিবাহিত হওয়ার কারণে প্রকৃত বিচার থেকে বঞ্চিত হন নির্যাতিত মানুষ। আবার সামান্য ঘটনায় বড় ধরনের মামলা করে মানুষকে হয়রানি করার অভিযোগ হরহমেশাই ঘটছে।