কপিলমুনি সাব পোস্ট অফিসের বেহাল দশা, ভবনে ফাটল, জনবল সংকট


প্রকাশিত : মার্চ ২০, ২০১৩ ||

পলাশ কর্মকার, কপিলমুনি (খুলনা): খুলনা জেলার ঐতিহ্যবাহী কপিলমুনি সাবপোস্ট অফিসের বেহাল দশার সৃষ্টি হয়েছে। ভবনের বিভিন্ন স্থানে দেখা দিয়েছে ফাটল, অফিসে জনবলও নেই পর্যাপ্ত।
জানা যায়, দানবীর রায় সাহেব বিনোদ বিহারী সাধু কপিলমুনি (বিনোদগঞ্জ) বাজার প্রতিষ্ঠার পর থেকে এ পোস্ট অফিসের সেবা অত্রাঞ্চলের লক্ষ লক্ষ মানুষ ভোগ করে আসছে। পাইকগাছাÑখুলনা সড়কের সন্নিকটে আনুমানিক ২০ বছর পূর্বে কপিলমুনি বাজারের মধ্যভাগে কলেজ রোডে ৯ শতাংশ জমির উপর অবস্থিত পোস্ট অফিসটি প্রতিষ্ঠিত হয়। প্রতিষ্ঠার পর থেকে এক কক্ষ বিশিষ্ট ভবনের অফিসটিতে চলে আসছিল পাইকগাছাসহ ৩টি থানার কাজ। কিন্তু সম্প্রতি অফিস ভবনটির ছাদে কয়েক জায়গায় ফাঁটল দেখা দিয়েছে। খুয়ে খুয়ে পড়ছে প্ল¬াস্টার। এছাড়া সীমানা প্রাচীর ও গেটের অবস্থাও খুবই নাজুক। পোস্ট অফিস ও সীমানা প্রাচীরের এ ভগ্নদশায় সচেতন এলাকাবাসী উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন। অফিস কক্ষে অত্যন্ত মূল্যবান কাগজ-পত্রাদি ও সরকারি সম্পদ থাকায় অফিস ভবনটি সংস্কার তথা আধুনিকায়ন এখন সময়ের দাবিতে পরিণত হয়েছে। এখানেই শেষ নয়, অত্যন্ত জনবহুল এলাকা কপিলমুনির জনগুরুত্বপূর্ণ পোস্ট অফিসে সরেজমিনে গেলে দেখা যায়, অফিসের সামনে ও ভেতরে অসংখ্য মানুষ সেবা নিতে দাঁড়িয়ে আছেন। কেউ এসেছেন মানিট্রান্সফার (ইএমওএমএমও) করতে, আবার কেউ এসেছেন ডাকবীমা, রাজস্ব টিকিট, জিইপি বা সাধারণ হিসাবের কাজে। সকলেই পোস্ট মাস্টার ও পোস্টম্যানকে বলছেন, আমাকে আগে দিন, আমি খুব ব্যস্ত আছি। আবার কেউবা বলছেন, আমি অনেক দূর থেকে এসেছি আমাকে একটু ছাড়িয়ে দিন। কিন্তু এতোগুলো লোকের কাজ করবে মাত্র দু’জন মানুষ। কিন্তু এখানে কর্মরত আছেন মাত্র দুজন ব্যক্তি। সরকারি নীতিমালা অনুযায়ী সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৫টা পর্যন্ত অফিস টাইম হলেও কখনো কখনো দেখা যায় দিনের সকল লেনদেনের হিসেবের ইতি টানতে সন্ধ্যা হয়ে যায় তাদের। এ ব্যাপারে কর্তৃপক্ষের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এলাকাবাসী।