শ্যামনগরে মোটর সাইকেল চালক সমিতির নির্বাচনকে ঘিরে উৎসবের আমেজ


প্রকাশিত : মে ১, ২০১৩ ||

শ্যামনগর অফিস: শ্যামনগর উপজেলা মোটর সাইকেল চালক সমিতির ত্রি-বার্ষিক নির্বাচনকে ঘিরে রীতিমত উৎসবের আবহ সৃষ্টি হয়েছে। প্রার্থীরা দৈনন্দিন কাজের পাশাপাশি দিনরাত ভোটারদের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা চালাচ্ছেন। যে যার মত করে ভোটারদের সাথে সখ্যতা গড়ে তুলে ভোটটি নিজের করে নিতে চেষ্টা করছেন। কেউ কেউ একটু বাড়িয়ে নির্বাচনে বিজয়ী হতে পারলে সমিতির স্বার্থে কল্যাণ ফান্ড গঠনসহ আপদকালীন সহায়তা তহবিল গড়ে তোলার প্রতিশ্রুতিও দিচ্ছেন।
আগামী ৬ মে এ নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। ২৮৩ জন মোটর সাইকেল চালক এতে ভোট দেবেন। প্রকাশ্যে রাজনৈতিক পরিচিতির সূত্র ধরে নির্বাচনে অবতীর্ন না হলেও ভিতরে ভিতরে প্রার্থীরা রাজনৈতিক পরিচিতিকে কাজে লাগানোর চেষ্টা করছেন।
নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, নয় সদস্যের কমিটির মধ্যে সভাপতি, সহ-সভাপতি, সাধারণ সম্পাদক, অর্থ সম্পাদক ও কার্যকরী সদস্য পদে নির্বাচন অনুষ্ঠিত হবে। সূত্র মতে, নির্বাচনে সভাপতি পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন উপজেলা ছাত্রলীগের সাবেক সভাপতির ভাই যুবলীগ কর্মী স ম আব্দুস সোবহান, সদর ইউনিয়ন আ.লীগের কর্মী ঠিকাদার নুর মোহাম্মদ এবং উপজেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক লিয়াকত আলী। এছাড়া সহ-সভাপতি পদে যুবলীগ নেতা আনিছুর রহমান ও জামাল হোসেন, অর্থ সম্পাদক পদে শেখ মশিউর রহমান এবং মোজাফ্ফর হোসেন প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন। এছাড়া সাধারণ সম্পাদকের গুরুত্বপূর্ণ পদে সদর ইউনিয়নের বাদঘাটা ওয়ার্ড বিএনপি’র কর্মী সাবেক ক্রিকেটার ও ক্রীড়া সংগঠক ফয়েজ বাবু এবং উপজেলা তরুণলীগের আহবায়ক মামুনুর রশীদ প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছে। এদিকে কার্যকরী সদস্যের চারটি পদের জন্য প্রতিদ্বন্দ্বিতা করছেন রেজাউল ইসলাম, মুন্না, শান্ত, অহিদুল ইসলাম ও খলিল।
প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্বপ্রাপ্ত শেখ মমিনুর রহমান জানান, সকাল ন’টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত ভোট গ্রহণ চলবে। শ্যামনগর সদর ইউনিয়ন পরিষদের সভাকক্ষে ভোট গ্রহণ করা হবে।
সাধারণ সম্পাদক পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতাকারী ফয়েজ বাবু প্রতিশ্রুতি ব্যক্ত করে বলেছেন, তিনি নির্বাচিত হতে পারলে চালকদের আপদকালীন আর্থিক নিরাপত্তার জন্য ফান্ড গঠনের উদ্যোগ নেয়ার পাশাপাশি সমিতির নিজস্ব একটি কার্যালয় গড়ে তোলার সর্বত্র চেষ্টা চালাবেন।