হরতালের ১ম দিন অতিবাহিত: পরিবহনে আগুণ, ভাঙচুর


প্রকাশিত : মে ৯, ২০১৩ ||

ডেস্ক রিপোর্ট: ১৮ দলীয় জোটের বুধবার ও বৃহস্পতিবার সকাল সন্ধ্যা হরতালের প্রথম দিনে সাতক্ষীরায় পরিবহনে আগুণ, ট্রাক ভাঙচুর, ইট বিছিয়ে ও টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ করা হয়। হরতালের সমর্থনে বিএনপি শহরে ও জামায়ত-শিবির শহরতলীর বিভিন্ন স্থানে মিছিল করে। মহাজোটের পক্ষ থেকে শহরে হরতালবিরোধী মিছিল হয়েছে।
পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, বুধবার সকাল সাড়ে ৬টার দিকে খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের বিনেরপোতা এলাকায় হরতালের সমর্থনে ছাত্র শিবির কর্মীরা দুটি ট্রাক (মাগুরা-ট-১১-০০৪৬ ও খুলনা মেট্রো- ভ- ১১-০১৮৮) ভাঙচুর করে। এর আগে তারা বিকেরপোতা ব্রিজের দক্ষিণ পাশে ইট বিছিয়ে ও টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধসহ পিকেটিং করে তারা।
পিকেটাররা সকাল ৬টার দিকে যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ছয়ঘরিয়া মোড়ে টায়ার জ্বালিয়ে সড়ক অবরোধ ও হরতাল সমর্থনে বিক্ষোভ মিছিল করে। সকাল পৌনে নয়টার দিকে পুলিশি পাহারায় ঢাকা থেকে ফিরে আসা ১০টি পরিবহনকে স্কোয়াড করে সাতক্ষীরায় নিয়ে যাওয়ার সময় পিছনে পড়ে যাওয়া ঈগল পরিবহনের দু’টি বাস (ঢাকা মেট্রো-ব-১৪২৯৮৩ ও ঢাকা মেট্রো-ব-১৪-৩৬১৫) ভাঙচুর করার পর একটিতে আগুণ ধরিয়ে দেয় পিকেটাররা। পরে ফায়ার ব্রিগেড যেয়ে আগুণ নিভিয়ে ফেলে। একই সময়ে তারা একটি মালবাহী ট্রাক (যশোর-ট-১১-০৪৮০) ভাঙচুর করে।
পিকেটাররা সকাল ৭টার দিকে শহরতলীর বাকাল ও রামচন্দ্রপুর এলাকায় টায়ার জ্বালিয়ে মহাসড়ক অবরোধ করে। সকাল সাড়ে ১০টায় পিকেটাররা রামচন্দ্রপুর মোড়ে একটি মোটর সাইকেল ও একটি ইজিবাইক ভাঙচুর করে। সকাল সাড়ে ৮টার দিকে শহরের শহীদ আলাউদ্দিন চত্বর থেকে জেলা বিএনপি’র সাধারণ সম্পাদক অ্যাড. সৈয়দ ইফতেখার আলীর নেতৃত্বে একটি মিছিল বের হয়। সকাল ১১টায় জেলা ১৪ দল শহরের শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক থেকে হরতালবিরোধী একটি মিছির বরে করে। দুপুরে জাতীয়তাবাদী আইনজীবী ফোরাম সাতক্ষীরা জজ কোর্ট চত্বরে পৃথক মিছিল বের করে।
এদিকে জেলার আটটি রুটে বাস ও ভারী যানচলাচল বন্ধ রয়েছে। সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনাল থেকে দূরপাল্লার কোন পরিবহন ছেড়ে যায়নি। সাতক্ষীরা ভোমরা স্থল বন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম স্বাভাবিক থাকলে পণ্যবাহী কোন ট্রাক বন্দর ছেড়ে যায়নি। নাশকতা এড়াতে শহরে বিপুল সংখ্যক পুলিশ-বিজিবি মোতায়েন রয়েছে।