মুক্ত কলাম : বাংলাদেশের রাজনৈতিক অস্থিরতা ঃ আমার দাবি

মন্ময় মনির: বাংলাদেশের শিক্ষা ও রাজনীতিতে অস্থিরতা চলছে। এই অস্থিরতা চলছে প্রাথমিক শিক্ষা থেকে বিশ্ববিদ্যালয় পর্যন্ত। বিশ্ববিদ্যালয়ের কতিপয় শিক্ষক অঙ্গাঙ্গিভাবে রাজনীতিতে সম্পৃক্ত হওয়ায় উচ্চ শিক্ষা ব্যাহত হচ্ছে। এক্ষেত্রে মেধাবী শিক্ষার্থীরা শিক্ষকের সান্নিধ্য থেকে বঞ্চিত হচ্ছে। শিক্ষার গুণগত মান কমে যাচ্ছে। রাজনৈতিক অস্থিরতার কারণে বাংলাদেশ এক দুঃসময় অতিক্রম করছে। বাংলাদেশের রাজনীতিতে বঙ্গবন্ধু কন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনার অবদান অনন্য। কোটা পদ্ধতি সবসময় মেধাকে অমূল্যায়ন করে। একজন শিশু জন্মের পরে পিতা-মাতার, তারপর স্কুলের তারপর রাষ্ট্রের হয়ে যায়। আমাদের দেশে শিক্ষানীতি এবং পদ্ধতি বৈষ্যমের চৌহদ্দীতে আবদ্ধ। প্রচলিত শিক্ষা আমাদের সমাজকে বিষাক্ত করে তুলছে। ডা. প্রাণগোপাল মাঝে টেলিভিশনে শব্দদূষণের কথা বললেন। তিনি ৮০ ডেসিমেল এর উপরে শব্দকে দূষণীয় বলে আখ্যায়িত করেছেন। কিন্তু আমাদের শিক্ষার্থী এবং মানুষেরা শব্দদূষণ, পানিদূষণে ভূগছে। মহাজোট সরকার ক্ষমতায় এসে কয়েক হাজার তরুণকে ডাক্তার হিসেবে নিয়োগ দিয়েছেন। নিয়োগ পাবার সাথে সাথে সেই সমস্ত ডাক্তারদের অনেকেই কথিত ব্যক্তিদের ক্লিনিকে যেয়ে তাদেরকে অর্থনৈতিকভাবে সমৃদ্ধ করেছেন। সেই অর্থদিয়ে তারা এদেশকে রাজনৈতিকভাবে অস্থিতিশীল করেছে। তাই আমি মনে করি, সে সমস্ত ডাক্তারদের তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নেয়া উচিৎ।
শিক্ষক, প্রশাসক, ডাক্তার, ঠিকাদার, ইঞ্জিনিয়ার, সাংবাদিকসহ সকল শ্রেণি পেশার মানুষকে সৎ হতে হবে। জাতির শিক্ষকদের ঝবৎাধহঃ ড়ভ ঃযব ংঃধঃব না বলে ঞবধপযবৎ ড়ভ ঃযব ংঃধঃব বললে জাতি এগিয়ে যাবে। পিতা-মাতা ও শিক্ষকরা মানুষের চোখে ও অন্তরে আলো দেয়, সেই আলো দিয়ে রাজনৈতিক লেজুড়বৃত্তিতে লিপ্ত শিক্ষার্থীদের অনেকে। কবি কাবেদুল ইসলাম সাতক্ষীরায় সাহিত্য অনুষ্ঠানে এসে একবার বললেন, প্রশাসকদের নাকি ভারতে জঁষবৎ বলা হয়। বাংলাদেশে পরাজিত প্রশাসনের আমলারাই বহুদিন দেশ শাসন করেছেন। তাই এখনও বাঙালি প্রশাসন সঠিকভাবে গড়ে ওঠেনি। বাংলাদেশের প্রশাসন থেকে পরাজিত আমলাদের ঝেড়ে ফেলতে হবে। তাদের অনুসারীদেরও নিশ্চিহ্ন করতে হবে। এ দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। ফিদেল ক্যাস্ত্রো বঙ্গবন্ধুকে সেই পরামর্শ দিয়েছিলেন।
সাহিত্যিক হুমায়ূন কবীর এবং বিশ্বকবি রবীন্দ্রনাথ ঠাকুর ভারতের শিক্ষা ও কৃষিব্যবস্থাকে উন্নত করার জন্যে বহু পদক্ষেপ গ্রহণ করেছিলেন। তাই ভারতের শিক্ষা ও কৃষিব্যবস্থা এগিয়ে গেছে।
কিছুদিন পূর্বে হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশ মতিঝিল, পল্টন, গুলিস্তান, দৈনিক বাংলার মোড় জুড়ে যে কাণ্ড ঘটিয়েছে তা বাংলাদেশের শাসন ব্যবস্থাকে অবজ্ঞা করেছে। তারা বঙ্গবন্ধুর ৭ মার্চের ভাষণকে উপহাস সরূপ নিয়ে ভিন্নভাবে বক্তব্য উপস্থাপন করে জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকারকে তুচ্ছ করেছে। নাস্তিক বলেছে। তারা যদি শেখ হাসিনা সরকারকে উৎখাত করতে পারে তাহলে যুদ্ধাপরাধীদের বিচার হবে না- এই ভেবে তারা শেখ হাসিনাকে নাস্তিক আখ্যা দিয়েছে। জাতির এই ক্রান্তিকালে আমার কামাল আতাতুর্কের কথা মনে পড়েছে। মনে পড়েছে ফিদেল ক্যাস্ত্রোর কথা। মৌলবাদী শক্তি কমিউনিস্টদের মোটেও দেখতে পারে না। কিন্তু ১৯৭১ সালে রাশিয়া বাংলাদেশকে সহায়তা করেছিল বাংলাদেশ প্রতিষ্ঠিত হওয়ার জন্য। জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর ডাকে এবং ঘোষণায় বাংলদেশ স্বাধীন হয়েছিল বলেই হেফাজতে ইসলামের নেতৃবৃন্দ গলা ফুলিয়ে বলতে পারেন দেশের ৯০% মানুষ মুসলমান। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান বলেছিলেন, ‘আমি বাঙালি, আমি মানুষ, আমি মুসলমান’। আমাদের মধ্যে দেশপ্রেম এবং ধর্মপ্রেম দুটোই থাকতে হবে। এবং তা জাগ্রত করতে হবে। ১৯৭১ সালের মহান মুক্তিযুদ্ধ ছিলো ন্যায়যুদ্ধ। আগে পাকিস্তান শাসকচক্র বাঙালিদের উপর ঝাঁপিয়ে পড়েছিলো। তারপর হত্যার উৎসবে মেতে উঠেছিল। পাকিস্তানিদেরকে আমরা পরাজিত করেছিলাম।
‘কওম’- শব্দের আবিধানিক অর্থ জাতি। কওমি মাদ্রাসার শিক্ষক এবং ছাত্ররা কোন্ জাতিসত্তায় বিশ্বাস করে? বাঙালি নাকি আরবীয়? নাকি পাকিস্তান? তাদের হাতে বাংলাদেশের পতাকা কিন্তু স্বাধীন বাংলাদেশ পুড়িয়ে ফেলবার একি নীল নক্শা তাদের? একজন নাস্তিকও ভাষা বিজ্ঞানী হতে পারে- পারে ক্ষমা চেয়ে ইসলামের পথে হাটতে। যেমনটি পতিত স্বৈরাচার এরশাদ ক্ষমা চেয়ে শেখ হাসিনার মতে-পথে হেঁটেছে। আবার এরশাদ হেফাজতে ইসলামকে সমর্থন দিচ্ছে। এটা রাষ্ট্রের সাথে প্রতারণা ছাড়া আর কিছুই নয়। পৃথিবীতে ১০৪ খানা আসমানী কেতাবের মধ্যে ৪ খানা প্রধান। পালযুগ, সেনযুগ, সুলতানী আমল, মোঘল আমল, বৃটিশ পিরিয়ড, পাকিস্তান আমল অতঃপর ১৯৭১ সালে স্বাধীন বাংলাদেশ। পৃথিবীতে মানব রচিত কিছুই নয়। আবার সবকিছু মানবের কল্যাণে। মানবের মস্তিস্কে চিন্তা-ভাবনা এসেছে সৃষ্টিকর্তার মাধ্যমে।
তাই বাংলা ভাষায় রচিত বাংলাদেশের সংবিধানও সৃষ্টিকর্তার অবদান। ধর্ম নিয়ে বাড়াবাড়ি করা ঠিক নয়। প্রত্যেকটি দেশের শাসনতন্ত্র ধর্মের শিক্ষা থেকে এসেছে। কিছু ধারা রাষ্ট্রপরিচালনার সুবিধার্থে শাসকমণ্ডলী বসে ঠিক করে নেন। তাই আমি মনে করি ধর্ম নিরপেক্ষ দেশই পৃথিবীতে সবচেয়ে ভালো।
প্রসংগত বলা যায়, একটি শিশু যদি রাষ্ট্রের হয়. তাহলে সেই শিশুদের শিক্ষা প্রদানের দায়িত্বও রাষ্ট্রের কর্তা ব্যক্তিদের। নিজের সন্তানকে সুশিক্ষা না দিয়ে তাকে যদি বলা হয় তুমি কিছুই শেখোনি তাহলে তার দায়-দায়িত্ব অভিভাবকের ঘাড়ে বর্তায়। রাষ্ট্র যদি দেশের সন্তানদের শিক্ষা দিতে ব্যর্থ হয়ে হত্যা করে তাহলে নিঃসন্দেহে সেই রাষ্ট্র মানবতাবিরোধী কাজ করবে। তাই রাষ্ট্র্রের ভূ-খণ্ড এবং সম্পদ অনুসারে জনসংখ্যা একান্ত দরকার। এক্ষেত্রে পরিবার পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়কে দায়ভার নিতে হবে। একজন বেশ্যার চেয়ে একজন দুর্নীতিবাজ, ঘুষখোর, দস্যু বহুগুণে খারাপ। কবি রুদ্র মুহম্মদ শহীদুল্লাহ যথার্থই বলেছেন, ‘বেশ্যাকে তবু বিশ্বাস করা চলে/রাজনীতিকের ধমনী শিরায় সুবিধাবাদের পাপ’। একজন দুর্নীতিবাজ শত-সহস্র সন্তানদের রক্তশোষণ করে জাতির সন্তানকে বিনষ্ট করে। কবি আরো বলেছেন, ‘বেশ্যাকে তবু বিশ্বাস করা চলে/বুদ্ধিজীবীর রক্তস্নায়ুতে সচেতন অপরাধ।’ তাই বলে কি বেশ্যারা ভালো? তাও ঠিক নয়।
সবশেষে বলতে চাই, বাংলাদেশ হবে একটি অসম্প্রদায়িক রাষ্ট্র। সেখানে ধর্মীয় স¤প্রীতি থাকবে। সকল ক্ষেত্রে থাকবে উচ্চ স্তরের গণতন্ত্র। মুখে গণতন্ত্রের কথা না বলে রাষ্ট্রের সকল ইউনিটে গণতন্ত্রের চর্চা থাকতে হবে।

দেবহাটায় ইছামতির ভেঁড়িবাধে ফের ভাঙন

দেবহাটা প্রতিনিধি: দেবহাটায় ইছামতি নদীর ভেঁড়িবাধে ফের ভাঙন দেখা দিয়েছে। এতে গোটা ভেঁড়িবাধ নদী গর্ভে বিলীন হয়ে যেকোন সময় বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা দেখা দিয়েছে। ভীত সন্ত্রস্ত দিন কাটাচ্ছে সাধারণ মানুষ।
বছর দেড়েক আগে ইছামতি নদীর ভেঁড়িবাধ ভেঙে প্লাবিত হয়েছিল ১০টি গ্রাম। এবার সংস্কার হওয়া সেই ভেঁড়িবাধ থেকে মাত্র কয়েক মিটার দূরে নতুন ভাঙন দেখা দিয়েছে। এলাকাবাসী দিন কাটাচ্ছে শঙ্কায়। পূর্বে ভাঙন কবলিত স্থানটি মেরামতের জন্য ভাঙনের পাশ দিয়ে যত্রতত্রভাবে শুরু করা হয় কাউন্টার বাঁধ নির্মাণ কাজ। কিন্তু প বাঁধ ভেঙে বিস্তীর্ণ এলাকা প্লাবিত হওয়ার আশংকা থাকা সত্ত্বেও মেরামত করা হয়নি অন্যান্য ভাঙন কবলিত স্থানগুলো। বর্তমানে আবারো ভাঙতে শুরু করেছে সুশীলগাতী এলাকার ভেড়িবাঁধ।
একদিকে ঘূর্ণিঝড় মহাসেনের আশংকা, অন্যদিকে ইছামতি নদীতে পানি বৃদ্ধি পাওয়ার পর বৃহস্পতিবার ঝূকিপূর্ণ হয়ে ওঠে ইছামতি নদীর ভেড়িবাঁধের ভাঙন কবলিত স্থানটি। খবর পেয়ে সেখানে ছুটে যান উপজেলা চেয়ারম্যান এ্যড. স.ম গোলাম মোস্তফা, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা আ.ন.ম তরিকুল ইসলাম, সাতক্ষীরা পৌর এলাকা-১ এর নির্বাহী প্রকৌশলী আঃ মান্নান খান, দেবহাটা সদর ইউপি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, এসও কাজী আজাদ হোসেন ও আবুল হোসেন, প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা শাহরিয়ার মাহমুদ রঞ্জু, স্থানীয় ইউপি সদস্যসহ স্থানীয়রা। এসময় ভাঙন কবলিত ২শ মিটার স্থানটি অতি ঝুকিপূর্ণ হওয়ায় দ্রুত মেরামতের জন্য তাৎক্ষণিকভাবে ৮ লক্ষ টাকা বরাদ্দের মৌখিক ঘোষণা দেন নির্বাহী প্রকৌশলী আঃ মান্নান খান। এর পাশাপাশি দুর্ঘটনা এড়াতে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা প্রাথমিকভাবে মাটি কেটে কাজের উদ্বোধন করেন।

খুলনায় একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অগ্রগতি বিষয়ক কর্মশালা

পত্রদূত ডেস্ক: পল্ল¬ী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের অধীন ‘একটি বাড়ি একটি খামার প্রকল্পের অগ্রগতির ২ বছর’ শীর্ষক কর্মশালা বৃহস্পতিবার দুপুরে খুলনা জেলা প্রশাসকের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব শেখ ওয়াহিদ উজ জামান এতে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তৃতা করেন।
প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব বলেন, ভিশন ২০২১ বাস্তবায়ন ও দারিদ্র্য বিমোচনে একটি বাড়ি একটি খামার গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখছে। এ প্রকল্পটি ইতোমধ্যে জনগণের কাছে আস্থা ও বিশ্বাস অর্জন করেছে এবং জনগণ এর সুফল ভোগ করছে। তিনি এ প্রকল্পকে দেশের সর্ববৃহৎ সামাজিক নিরাপত্তা কর্মসূচি হিসেবে উল্লে¬খ করে বলেন, দেশের সকল গ্রামে এ কার্যক্রম চালু করা হলে দরিদ্র জনগোষ্ঠী মাইক্রোক্রেডিট নামক ঋণের অত্যাচার থেকে চিরতরে মুক্তি পাবে।
কর্মশালায় জানানো হয়, সারাদেশে ৬৪টি জেলার ৪৮৩টি উপজেলায় এ কার্যক্রম চালু আছে। প্রতিটি উপজেলায় চারটি করে মোট এক হাজার ৯৩২টি ইউনিয়নে ১৭ হাজার তিনশ গ্রাম সমিতির অধীনে ১০ লাখ ৩৮ হাজার পরিবার এ প্রকল্পের আওতায় পুঁজিগঠন, প্রশিক্ষণ ও জীবিকায়নের জন্য আয়বর্ধক কার্যক্রম বাস্তবায়ন করছে। এ সকল সদস্যের নিজস্ব সঞ্চয় ২শত ৭৫ কোটি টাকা, সরকার উৎসাহ বোনাস দিয়েছে ২শত ৭৫ কোটি টাকা এবং ঘূর্ণায়মান তহবিল হিসেবে সরকার থেকে প্রদান করা হয়েছে তিনশত ৫০ কোটি টাকা যা একীভূত হয়ে গড়ে উঠেছে নয়শত কোটি টাকার বিশাল অংকের তহবিল। এ তহবিল ব্যবহার করে গ্রামীণ জনপদে গড়ে উঠেছে পাঁচ লাখ ৫১ হাজার আয়বর্ধক কৃষিভিত্তিক ক্ষুদ্র ক্ষুদ্র খামার যেখানে ইতোমধ্যে বিনিয়োগ হয়েছে ছয়শত কোটি টাকা।
এতে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল জলিল। সভাপতিত্ব করেন খুলনা জেলা প্রশাসক মেজবাহ উদ্দিন। কর্মশালায় প্রতিবেদন উপস্থাপন করেন প্রকল্পের পরিচালক ড. প্রশান্ত কুমার রায়। কর্মশালায় খুলনা বিভাগের ১০ জেলার জেলা প্রশাসক, অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তাসহ প্রকল্পের সাথে সংশ্লি¬ষ্ট উর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
এর আগে তিনি একই স্থানে খুলনা বিভাগের উন্নয়ন সংক্রান্ত বিষয়ে বিভাগীয় পর্যায়ের কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় করেন।

এসিড আক্রান্তদের তিন দিনব্যাপী সবজি চাষ প্রশিক্ষণ সমাপ্ত

ডেস্ক রিপোর্ট: এসিড আক্রান্তদের স্বনির্ভরতা অর্জনে তিন দিনব্যাপী সবজি চাষ প্রশিক্ষণ কর্মশালা বৃহস্পতিবার সমাপ্ত হয়েছে। সাতক্ষীরা খামার বাড়িতে অনুষ্ঠিত এ প্রশিক্ষণে ২৪ জন এসিড আক্রান্ত ব্যক্তি অংশ নেন।
বৃহস্পতিবার দুপুর একটায় স্বদেশ’র নির্বাহী পরিচালক মাধব চন্দ্র দত্তের সভাপতিত্বে প্রশিক্ষণের সমাপনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খামার বাড়ির উপ-পরিচালক সোলায়মান আলী। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সদর সহকারি পুলিশ সুপার মীর গোলাম মোস্তফা, সহকারি কৃষি কর্মকর্তা আফজাল হোসেন, বাংলাদেশ মহিলা সংস্থা সাতক্ষীরা শাখার সাধারণ সম্পাদক জ্যো¯œা দত্ত, একশান এইডের প্রোগ্রাম অফিসার নাজমুন্নাহার।
বক্তারা এসিড সন্ত্রাস প্রতিরোধে সকলকে এগিয়ে আসার আহবান জানিয়ে বলেন, এসিড আক্রান্তদের অন্যের বোঝা না হয়ে নিজের পায়ে দাঁড়াতে হবে। যাতে অন্যের করুণার পাত্র হতে না হয় সেজন্য ক্ষুদ্র বিনিয়োগের মাধ্যমে হাঁস-মুরগী পালন ও বাড়ির আঙিনায় সবজি চাষ যথেষ্ট উপযোগী। তাদরেকে বেসরকারিভাবে আর্থিক সহায়তার আশ্বাস দেন তারা।

ডিবি পুলিশের অভিযানে ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ ৩ জন আটক

নিজস্ব প্রতিনিধি: ডিবি পুলিশের অভিযানে বৃহস্পতিবার রাত সাড়ে ৮ টার দিকে শহর উপকণ্ঠের বিনেরপোতা এলাকায় ৫০ বোতল ফেনসিডিলসহ ৩ জনকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। ধৃতরা হল তালা উপজেলার নলতা গ্রামের পীর বক্সের ছেলে আব্দুল্যাহ আল মামুন, একই এলাকার গাউস শেখের ছেলে এনামুল ও মনির উদ্দীনের ছেলে আব্দুল কুদ্দুস। এব্যাপারে তাদের বিরুদ্ধে মাদক আইনে রাতেই একটি মামলা দায়ের করেছে ডিবি পুলিশ।

নির্ঘুম রাত কাটলো পাইকগাছাবাসীর

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: পাইকগাছা উপজেলা সংলগ্ন উপকূলীয় এলাকার মানুষ ঘূর্ণিঝড় মহাসেন আতংকে গত দু’দিন চরম উৎকণ্ঠা ও উদ্বেগের মধ্য দিয়ে পার করেছে। তবে পাইকগাছায় তেমন কোন ক্ষয়-ক্ষতি হয়নি। দু’দিনের প্রবল বর্ষণে কিছু ঘর-বাড়ি ধসে পড়েছে। নদীর স্বাভাবিক জোয়ারের থেকে ২ থেকে ৩ ফুট পানি বৃদ্ধি পেয়েছে। বুধবার রাতে পাইকগাছার নিম্ন এলাকার মানুষ ঘূর্ণিঝড় মহাসেন আতংকে সারারাত নির্ঘুম আতংকে পার করেছে। বর্তমানে পাইকগাছার জনজীবন স্বাভাবিক রয়েছে।

জেলা জামায়াতের নায়েবে আমির মাইনুল হকসহ গ্রেপ্তার ৩

কলারোয়া প্রতিনিধি: জেলা জামায়াতের সিনিয়র নায়েবে আমির অধ্যাপক মাইনুল হককে (৬৫) কে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। বৃহস্পতিবার বিকেল ৩টার দিকে তাকে গ্রেপ্তার করা হয়। তিনি কলারোয়া উপজেলার জালালাবাদ গ্রামের মৃত হেকমত উল্লার ছেলে ও কলারোয়া সরকারি কলেজে অধ্যাপনা করতেন।
কলারোয়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এসআই সাজেদুল ইসলাম সাংবাদিকদের জানান, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে এসআই তোফায়েল আহম্মেদের নেতৃত্বে ডিবি পুলিশের একটি দল বৃহস্পতিবার বিকেলে তার বাড়িতে অভিযান চালিয়ে তাকে গ্রেপ্তার করে। তার বিরুদ্ধে সাতক্ষীরা সিটি কলেজের ছাত্রলীগ নেতা মামুন হত্যাসহ ১৫টি মামলা আছে।
অপরদিকে, থানার এসআই বাবলুর রহমান সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে উপজেলার গোপিনাথপুর গ্রামের মৃত ফারুক সরদারের ছেলে আব্দুর রহিম (৩৫) ও মুরারীকাটি গ্রামের মৃত রইচউদ্দীন মোড়লের ছেলে রেজাউল ইসলাম (৪০) কে তাদের বাড়ি থেকে গ্রেপ্তার করেন। গ্রেপ্তারকৃতদের বিরুদ্ধে কলারোয়া থানায় একটি মামলা নং-১০/১৩ রয়েছে। প্রসঙ্গত, অধ্যাপক মইনুল হক কেন্দ্রীয় জামায়াতের নেতা অধ্যক্ষ ইজ্জত আলীর শ্বশুর।

কালিগঞ্জের খুব্দীপুর প্রাথমিক বিদ্যালয়ের অভিভাবক প্রতিনিধি নির্বাচনে গোলাম ফারুক পূর্ণ প্যানেলে জয়ী

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জের ধলবাড়িয়া ইউনিয়নের খুব্দীপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক প্রতিনিধি পদে বৃহস্পতিবার নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। দু’জন পুরুষ অভিভাবক প্রতিনিধি পদের বিপরীতে মোট ৫ জন এবং দু’জন মহিলা অভিভাবক প্রতিনিধি পদে মোট ৪ জন প্রার্থী দু’টি প্যানেলে ভাগ হয়ে নির্বাচনে প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।
সকাল ৮টা থেকে বিকেল ৪টা পর্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত নির্বাচনে বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সাবেক সভাপতি এসএম গোলাম ফারুক পূর্ণ প্যানেলে বিজয়ী হয়েছেন। এসএম গোলাম ফারুক (ছাতা) ২১৪ ভোট এবং সোহরাব হোসেন (আনারস) ২০৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর প্রার্থী ফজলুর রহমান (ফুটবল) ১১০ ভোট, গোলাম রব্বানী (আম) ৯২ ভোট এবং আব্দুস সাত্তাার (মাছ) পেয়েছেন ৮৬ ভোট।
মহিলা অভিভাবক প্রতিনিধি পদে রিজিয়া পারভীন (কলস) ২৬০ ভোট এবং মুসলিমা খাতুন (মোরগ) ২০৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। অপর প্রার্থী লাইজু পারভীন (মই) ১৩৮ ভোট এবং রেহানা পারভীন (চেয়ার) পেয়েছেন ১০১ ভোট। নির্বাচনে প্রিজাইডিং অফিসারের দায়িত্ব পালন করেন গণেশপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শান্তি কুমার। কালিগঞ্জ উপজেলা শিক্ষা অফিসার তপন কুমার কর্মকার, সমীর কুামরা দাস এবং উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের সহকারি ইন্সট্রাক্টর ইয়াসিন আলী নির্বাচন কার্যক্রম পরিদর্শন করেন।

কুমিরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিল আজ

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: পাটকেলঘাটা থানার কুমিরা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের কাউন্সিল আজ। কাউন্সিলকে ঘিরে নেতা-কর্মীদের মাঝে ব্যাপক উৎসাহ উদ্দীপনা পরিলক্ষিত হচ্ছে। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, ইতিমধ্যে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সকল ওয়ার্ড কমিটি গঠন প্রক্রিয়া স¤পন্ন হয়েছে।
আজ বিকাল ৩টায় কুমিরা হাইস্কুল মাঠে সম্মেলনের উদ্বোধন করবেন তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম। সম্মেলনে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি শেখ মুজিবুর রহমান এমপি।
সম্মেলনে সভাপতি পদে বর্তমান সভাপতি কাজী তবিবর রহমান (চশমা), শেখ আজিজুল ইসলাম (চেয়ার), শহিদুল ইসলাম মোড়ল (দেয়াল ঘড়ি), আব্দুস সালাম সরদার (হরিণ) ও শ্যামল ঘোষ (ছাতা) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন।
সাধারণ সম্পাদক পদে বর্তমান সাধারণ সম্পাদক সুভাষ চন্দ্র বসু (মোরগ) ও যুবলীগ নেতা রফিকুল ইসলাম মোড়ল (গোলাপ ফুল) প্রতিদ্বন্দ্বিতা করবেন। সম্মেলনকে ঘিরে তৃণমূল পর্যায়ের নেতাকর্মীদের মাঝে চাঙ্গাভাব বিরাজ করছে। প্রার্থীরা জয়লাভের আশায় সকাল থেকে গভীর রাত পর্যন্ত ইউনিয়নের প্রত্যন্ত অঞ্চলে কাউন্সিলরদের কাছে সমর্থন আদায়ের লক্ষ্যে কাজ করছেন।
এদিকে সভাপতি পদে ত্রি-মুখী প্রতিদ্বন্দ্বিতা হবে বলে কাউন্সিলরা ধারণা করছেন। অপর দিকে সাধারণ সম্পাদক পদে সুভাষ চন্দ্র বসু ও রফিকুল ইসলামের মধ্যে হাড্ডাহাড্ডি লড়াইয়ের সম্ভবনা রয়েছে। সম্মেলনে দুটি অঘোষিত প্যানেল কাজ করছে বলে জানা গেছে। কাউন্সিলরা অতীত বিশ্লেষণ করে যোগ্য প্রার্থীদেরকে ভোট প্রদান করবেন বলে জানিয়েছেন।
সম্মেলন প্রস্তুত কমিটির আহবায়ক মিজানুর রহমান জানান, সম্মেলনের জন্য সকল প্রস্তুতি ইতোমধ্যে সম্পন্ন হয়েছে।

পাইকগাছায় আদালতের নির্দেশ অমান্য করে ঘের দখলের চেষ্টা

মনিরুল ইসলাম মনি, পাইকগাছা থেকে ফিরে: খুলনা জেলার পাইকগাছা থানার তেতুলিয়া মৌজার গংগার কোনা মাঝের আবাদ মৎস্য ঘেরটিতে খুলনার ৪র্থ যুগ্ম জজ আদালত স্থিতিবস্থা জারি করলেও সন্ত্রাসী বাহিনী দিয়ে জোরপূর্বক ঘের দখলের চেষ্টার অভিযোগ উঠেছে। একই সাথে পাইকগাছা থানার অফিসার ইনচার্জের (ওসি) সহযোগিতায় সন্ত্রাসী বাহিনীর প্রধান ডুয়েল ঘের মালিক জিএম মুকিত, নির্মল মজুমদার, কুদ্দুস ও হানিফের বিরুদ্ধে মিথ্যা ও হয়রানিমূলক মামলা দিয়ে তাদেরকে ঘরছাড়া করেছে।
প্রসঙ্গত, ওই মৎস্য ঘেরে সন্ত্রাসী হামলার আশংকায় ঘের মালিক মুকিত গং পাইকগাছা থানায় গত ১ মে একটি সাধারণ ডায়েরি করেন, যার নং ২৯। এরপর প্রশাসন কোন আইনগত ব্যবস্থা না নেওয়ার কারণে গত ৩ মে ওই ঘেরে সন্ত্রাসীরা পুনরায় হামলা চালায়। এ ঘটনায় ঘের মালিক জিএম মুকিত বাদী হয়ে সুপ্রিম কোটের হাইকোর্ট ডিভিশনে একটি রিট পিটিশন দাখিল করেন। মহামান্য আদালত রিট পিটিশনটি শুনানির জন্য আমলে নিয়েছেন। রিট পিটিশন নং ৪৯৪৪।

শহর সম্মিলিত ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের কমিটি গঠন: মাহবুবুর সভাপতি, শাহীন সম্পাদক

বৃহস্পতিবার সন্ধ্যা ৬.৩০ মিনিটে এসএস টাওয়ার বড় বাজারে সম্মিলিত ব্যবসায়ী ঐক্য পরিষদের সাধারণ সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সভায় কাপড়, জুতা, কসমেটিকস, মুদি, সাইকেল ব্যবসায়ী, হাডওয়ার, এ্যালুমিনিয়াম সমিতির সদস্যদের নিয়ে পরিষদের ২ বছর মেয়াদি ২১ সদস্য বিশিষ্ট কমিটি গঠন করা হয়।
কমিটির সদস্যরা হলেন, সভাপতি মাহবুবুর রহমান, সহ-সভাপতি আমজাদ হোসেন খান, সাফায়েত হোসেন, সাধারণ সম্পাদক শেখ শাহিন আল প্রিন্স, সহ-সাধারণ সম্পাদক আবুল বারাকাত, কোষাধ্যক্ষ মিহির কুমার সাহা, সাংগঠনিক সম্পাদক মোফাজ্জেল হোসেন, প্রচার সম্পাদক শেখ শফিকুজ্জামান, দপ্তর সম্পাদক সেলিম পারভেজ, কার্যকরী সদস্য শওকাত আলী, মফজুলার রহমান, হাবিবুর রহমান, বজলুর রহমান, মাহামুদুল ইসলাম, মীর মাসুদ পারভেজ, আলাউদ্দিন, মেজ ভাই, আসাদুর রহমান, আব্দুর রশিদ, সিরাজুল ইসলাম ও ভোলানাথ সাহা। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

বুধহাটা ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট ঘোষণা

আশাশুনি প্রতিনিধি: আশাশুনির বুধহাটা ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় ইউনিয়ন পরিষদ চত্বরে প্রকাশ্য বাজেট অধিবেশন ও ২০১৩-১৪ অর্থবছরের উন্নয়ন পরিকল্পনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন জেলার শ্রেষ্ঠ ও বুধহাটা ইউপি চেয়ারম্যান আব্দুল হান্নান। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান জিএম মতিয়ার রহমান, কুল্যা ইউপি চেয়ারম্যান এসএম রফিকুল ইসলাম, শোভনালী ইউপি চেয়ারম্যান শহিদুল ইসলাম শহীদ, কাদাকাটি ইউপি চেয়ারম্যান মফিজুল হক মোড়ল, বুধহাটা বিবিএম কলেজিয়েট স্কুলের অধ্যক্ষ চিত্তরঞ্জন ঘোষ, আশাশুনি প্রেসক্লাব সভাপতি জিএম মুজিবুর রহমান, সেক্রেটারি এসএম আহসান হাবিব, আব্দুস সালাম ও আহমেদ শরীফ। অনুষ্ঠানে আগামী ২০১৩-১৪ অর্থবছরের প্রস্তাবিত (ব্যয়) ১ কোটি ৭ লক্ষ ৬৯ হাজার টাকার বাজেট ঘোষণা করেন ইউপি সচিব জিএম সামছুল আরেফিন। বাজেট অধিবেশনে উপস্থিত সাধারণ জনগণের মতামত গ্রহণ করা হয়।
সিপিপি ইউনিয়ন লিডার ফারুক হোসেন লেলিনের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানের শুরুতে পবিত্র কোরআন থেকে তেলাওয়াত করেন মাও. ইসমাইল হোসেন ও গীতা পাঠ করেন পুলিন চন্দ্র মণ্ডল। বাজেট অধিবেশনে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ও উপস্থিত ছিলেন, প্রাক্তন মেম্বার নজরুল ইসলাম, শেখ আছাফুর রহমান, উপ-সহকারি কৃষি কর্মকর্তা জিয়াউল হক জিয়া, প্রাক্তন মেম্বর গফফার, স্বাস্থ্য সহকারি আবু মুছা, মহিলা মেম্বার খায়রুননেছা, শরীফা খাতুন, আম্বিয়া খাতুন, ইউপি সদস্য আজহারুল ইসলাম, ফজলুল হক, হাদিউজ্জামান, আবু সাইদ, লিয়াকত আলি, রেজওয়ান আলি, রফিকুল ইসলাম, আব্দুল হান্নান, মতিয়ার রহমান প্রমুখ।

দেয়াড়া ও যুগিখালী ইউনিয়ন আ.লীগের কাউন্সিল সম্পন্ন

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়া উপজেলার ১১নং দেয়াড়া ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিল বৃহস্পতিবার অনুষ্ঠিত হয়েছে। সকালে খোরদো সালেহা হক বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত দেয়াড়া ইউনিয়ন ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন মাহাবুবর রহমান মফে ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন প্রভাষক আব্দুল মান্নান।
এদিকে বুধবার সকালে উপজেলার বামনখালী মমতাজ উদ্দীন হাইস্কুল চত্বরে অনুষ্ঠিত ত্রি-বার্ষিক কাউন্সিলে যুগিখালী ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি নির্বাচিত হয়েছেন বাবুল বাশার ও সাধারণ সম্পাদক নির্বাচিত হয়েছেন রবিউল হাসান।
কাউন্সিল দুটিতে অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি মহিদুল হক, উপজেলা আ.লীগের সম্মেলন প্রস্তুতি কমিটির আহবায়ক ও উপজেলা চেয়ারম্যান বিএম নজরুল ইসলাম, আ.লীগের যুগ্ম আহবায়ক প্রাক্তন ইউপি চেয়ারম্যান ফিরোজ আহম্মেদ স্বপন, বাজার ব্যবসায়ী সমিতির সভাপতি ও আ.লীগের যুগ্ম আহবায়ক আরাফাত হোসেন, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু ও মিসেস মনোয়ারা ফারুক, আ.লীগ নেতা অধ্যাপক এমএ ফারুক, যুবলীগ’র সাবেক সভাপতি ইউপি চেয়ারম্যান স ম মোরশেদ আলী, সাবেক সাধারণ সম্পাদক রবিউল আলম মল্লিক রবি, উপজেলা যুবলীগ আহবায়ক শেখ আমজাদ হোসেন, ইউপি চেয়ারম্যান অধ্যাপক এমএ কালাম, উপজেলা ছাত্রলীগ সভাপতি মোস্তাফিজুর রহমান মোস্তাক, সাধারণ সম্পাদক শেখ ইমরান হোসেন প্রমুখ।

তালায় সমবায় সমিতির নির্বাচন: আব্দুল হামিদ চেয়ারম্যান

তালা অফিস: তালা উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির নির্বাচন বৃহস্পতিবার শান্তিপূর্ণ পরিবেশে অনুষ্ঠিত হয়েছে। নির্বাচনে সমিতির সাবেক চেয়ারম্যান কালাম বিশ্বাসকে পরাজিত করে আব্দুল হামিদ চেয়ারম্যান নির্বাচিত হয়েছেন। তালা পল্লী উন্নয়ন বোর্ড কার্যালয়ে সকাল ১০টা থেকে ৪টা পর্যন্ত নির্বাচনের ভোট গ্রহণ করা হয়।
নির্বাচন কমিশন সূত্রে জানা গেছে, তালা উপজেলা কেন্দ্রীয় সমবায় সমিতির ১৪৩ জন সদস্য এতে ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে ২টি ভোট বাতিল হয়েছে।
নির্বাচনে আ.লীগ সমার্থিত প্রার্থী আব্দুল হামিদ ৯৯ ভোট পেয়ে এই সমিতির চেয়ারম্যান নির্বাচিত হলেন। হামিদের নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী সমিতির সাবেক চেয়ারম্যান ও বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী আবুল কালাম বিশ্বাস পেয়েছেন মাত্র ৪২ ভোট। অপরদিকে ভাইস চেয়ারম্যান পদে মো. আব্দুর রশিদ ৮৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আসাদুজ্জামান পেয়েছেন ৫৫ ভোট।

খলিলনগরে ওয়ার্ড সভা

তালা (সদর) প্রতিনিধি: আগামী ২৯ মে তালা উপজেলার খলিলনগর ইউনিয়ন পরিষদে ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের বাজেট অধিবেশন উপলক্ষে বৃহস্পতিবার বিকাল ৪টায় খলিলনগর বাজারে ৫নং ওয়ার্ডের ওয়ার্ড সভা অনুষ্ঠিত হয়। ইউপি সদস্য বিশ্বজিৎ মণ্ডডলের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন খলিলনগর ইউপি চেয়ারম্যান প্রণব ঘোষ বাবলু।
সভায় বক্তৃতা করেন ইউপি সচিব রেজাউল করিম, ইউপি সদস্য লিয়াকত মোড়ল, মেহেদি হাসান, ময়না বিবি, কৃষক মালেক শেখ, যুব সংগঠনের সিরাজুল খান, ব্যবসায়ী মিজান গোলদার, বিউটি খাতুন, সাথি আক্তর প্রমুখ।
উল্লেখ্য, তালা উপজেলার ১২নং খলিলনগর ইউনিয়ন পরিষদের প্রকাশ্য বাজেট অধিবেশন ২৯ মে অনুষ্ঠিত হবে।