খুলনায় নাগরিক সমাবেশে বক্তারা: যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাঞ্চাল করার জন্য জামায়াত বহুমাত্রিক চক্রান্ত করছে

মিথ্যা প্রচারের মাধ্যমে রাষ্ট্র ও রাষ্ট্রের মূলনীতির বিরুদ্ধের ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের দাঁড় করিয়ে দিয়ে মুক্তিযুদ্ধের চেতনা ও বাংলাদেশকে ধ্বংস করা যাবে না। অসাম্প্রদায়িকতাকে নাস্তিক মুরতাদ কাফের বলে আখ্যা দিয়ে মৌলবাদী রাষ্ট্র প্রতিষ্ঠার যে ষড়যন্ত্র তার বিরুদ্ধে মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী প্রগতিশীল সকল মানুষকে ঐক্যবদ্ধভাবে প্রতিরোধের জন্য এগিয়ে আসতে হবে।
শনিবার বিকাল ৩টা শহীদ হাদিস পার্কে অনুষ্ঠিত নাগরিক সমাবেশে বক্তারা এ কথা বলেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির জেলা সভাপতি ডা. শেখ বাহারুল আলম। অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন- খুলনা সিটি কর্পোরেশনের সাবেক মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় ভারপ্রাপ্ত সভাপতি, লেখক ও সাংবাদিক শাহরিয়ার কবির, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির সহ-সভাপতি অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের কেন্দ্রীয় সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু, পেশাজীবী সমন্বয়পরিষদের কেন্দ্রীয় মহাসচিব অধ্যাপক ডা. কামরুল হাসান খান, একাত্তরের ঘাতক দালাল নির্মূল কমিটির কেন্দ্রীয় আইন সম্পাদক ব্যারিস্টার ড. তুরিন আফরোজ, খুলনা প্রযুক্তি ও প্রকৌশল বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মুহাম্মদ আলমগীর, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ফয়েক উজ জামান, জাতীয় সঞ্চালন পরিষদের কেন্দ্রীয় সহ-সভাপতি ইমারত আলীসহ স্থানীয় নেতৃবৃন্দ।
সভায় শাহরিয়ার কবির বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাঞ্চাল এবং সরকার উৎখাতের জন্য জামায়াত, বিএনপি চক্র হেফাজতে ইসলামকে ঢাল হিসেবে ব্যবহার করছে। ৫ মে হেফাজতে ইসলামের কাঁধে ভর করে জামায়াত বিএনপি সরকার উৎখাতের মহাষড়যন্ত্র করেছিল। মহাজোট সরকাররে সময়োপযোগী পদক্ষেপের কারণে এই চক্রান্ত ব্যর্থ হলেও ষড়যন্ত্রকারীরা বসে নেই। অবিলম্বে যুদ্ধাপরাধের দায়ে দল হিসেবে জামায়াত, রাজাকার, আলবদর বাহিনীর বিচার করতে হবে এবং সংবিধান রাষ্ট্রের বিরুদ্ধে বিদ্রোহের জন্য জামায়াতে ইসলামী ও হেফাজতে ইসলামের সকল কর্মকাণ্ড নিষিদ্ধ করতে হবে।
অধ্যাপক মুনতাসীর মামুন বলেন, হেফাজত ইসলামের কার্যক্রম বন্ধ করতে হবে। হাইকোর্টের নির্দেশ সত্ত্বেও খুলনাতে এখনও রাজাকার খান এ সবুর এর নামে প্রধান সড়কের নাম রয়ে গেছে। উচ্চতর আদালতের নির্দেশ অনুযায়ী খান এ সবুরের নাম বাতিল করে আদি নাম ঐতিহাসিক যশোর রোড রাখার দাবি জানাচ্ছি।
সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি নাসির উদ্দিন ইউসুফ বাচ্চু মৌলীবাদী ও সাম্প্রদায়িক অপশক্তির বিরুদ্ধে নাগরিকদের এই মহাসমাবেশ আয়োজনের জন্য খুলনাবাসীকে অভিনন্দন জানিয়ে বলেন- যতদিন বাংলাদেশে জামায়াতে ইসলামীর রাজনীতি নিষিদ্ধ এবং শেষ যুদ্ধাপরাধীর বিচার শেষ না হবে ততদিন আমরা রাজপথ ছেড়ে যাব না। মুক্তিযুদ্ধের চেতনার ধারক গণজাগরণমঞ্চকে চোখের মনির মত দেখতে হবে।
ব্যারিস্টার তুহিন আফরোজ বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার বাঞ্চাল করবার জন্য জামায়াত ইসলামী দেশে ও বিদেশে বহুমাত্রিক চক্রান্ত করছে। তারা যতই ষড়যন্ত্র করুক পৃথিবীর কোন শক্তিই ৭১এর গণহত্যাকারী ও মানবতাবিরোধীদের চলমান বিচার বন্ধ করতে পারবে না।
সভায় বক্তারা বলেন, ধর্মীয় মিথ্যাচারের সাম্প্রদায়িক উস্কানি দাতাদের বিচার করতে হবে। জামায়াত-শিবিরের রাজনীতি নিষিদ্ধ করতে হবে। নেতৃবৃন্দ বলেন, যুদ্ধাপরাধীদের বিচার নিশ্চিত করে জাতিকে দায়মুক্ত করতে হবে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কলারোয়ায় সীমানা পিলার ও এক ভারতীয় নাগরিকসহ তিন পাচারকারী আটক

ডেস্ক রিপোর্ট: ভারতে পাচারকালে দেড় কোটি টাকা মূল্যের ২২ কেজি ওজনের একটি সীমানা পিলার ও এক ভারতীয় নাগরিকসহ তিন পাচারকারীকে আটক করেছে বিজিবি। শনিবার সকাল ৮টার দিকে খুলনার বটিয়াঘাটা থেকে প্রাইভেট কারে করে সাতক্ষীরার কলারোয়া উপজেলার কাকডাঙ্গায় নিয়ে যাওয়ার সময় ভাদিয়ালি এলাকা থেকে তাদেরকে আটক করা হয়।
আটককৃতরা হলো, ভারতের পশ্চিমবঙ্গের উত্তর ২৪ পরগণা জেলার বারাসাত মহকুমা সদরের অমুল্য হালদারের ছেলে শম্ভু হালদার (৩৮), সাতক্ষীরা জেলা সদরের বৈকারী গ্রামের আব্দুস সবুর সরদারের ছেলে মনিরুজ্জামান (২৫) ও পুরাতন সাতক্ষীরার কাজী নাসিরউদ্দিনের ছেলে কাজী খায়রুল ইসলাম দীপু (২৫)।
কাকডাঙ্গা বিজিবি ক্যাম্পর নায়েক সুবেদার হোসেন আলী জানান, একটি পাচারকারী চক্র সীমানা পিলার নিয়ে ভারতে পাচার করছে মর্মে তিনি গোপনে খবর পান। এরই ভিত্তিতে তার নেতেৃত্বে বিজিবি সদস্যরা শনিবার সকাল ৮টার দিকে সীমান্তবর্তী ফুলতলা বাজারের পাশে অপেক্ষা করতে থাকেন। এ সময় একটি প্রাইভেটকারকে (ঢাকা মেট্রো-গ-১২-১০৯৬) চ্যালেঞ্জ করলে চালক গাড়ি না থামিয়ে দ্রুত পালিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করে। এ সময় ওই গাড়ি থেকে একটি সীমানা পিলার ও একজন ভারতীয় নাগরিকসহ চারজনকে আটক করা হয়।
আটককৃত খায়রুল ইসলাম দীপু জানান, ভারতীয় নাগরিক শম্ভু হালদার শুক্রবার বিকেলে মনিরুজ্জামানের সঙ্গে কথা বলে বাংলাদেশে আসে। দীপু তার পলাশপোলের বন্ধু আমানুল্লাহর প্রাইভেটকারটি ভাড়া করে। মনিরুজ্জামান, দীপু, আমানুল্লাহ ও শম্ভু খুলনার একটি আবাসিক হোটেলে রাত কাটায়। শনিবার ভোর ৫টার দিকে তারা বটিয়াঘাটায় যেয়ে জনৈক আব্দুর রাজ্জাকের কাছ থেকে দু’লাখ টাকা দিয়ে একটি সীমানা পিলার কিনে বস্তায় জড়িয়ে গাড়িতে তোলার সময় আপত্তি জানালে আমানুল্লাহকে হুমকি দেয় শম্ভু ও মনিরুজ্জামান। একপর্যায়ে আমানুল্লাহ গাড়ি চালাতে রাজি না হওয়ায় সে (দীপু) গাড়ি চালিয়ে সীমান্তে আসে। কাকডাঙ্গা সীমান্তে পৌঁছে দিলে তাদেরকে গাড়ি ভাড়াসহ ৫০ হাজার টাকা দেওয়ার কথা ছিল। বিপদ বুঝে সকলের অজান্তে আমানুল্লাহ মোবাইলে বিজিবিকে খবর দেয়।
সাতক্ষীরা বিজিবি ৩৮ ব্যাটালিয়নের অপারেশন অফিসার আনোয়ারুল মাযহার জানান, পাচারকারীদের সম্পর্কে তথ্য দেওয়ায় আমানুল্লাহকে সাক্ষী করা হয়েছে।
কলারোয়া থানার উপরিদর্শক তোফায়েল আহম্মেদ জানান, এ ব্যাপারে কাকডাঙ্গা ক্যাম্পের নায়েক সুবেদার বাদী হয়ে শনিবার তিনজনের নাম উল্লেখ করে পাচার আইনে একটি মামলা দায়ের করেছেন। এ ছাড়া ভারকীয় নাগরিক শম্ভু হালদারের বিরুদ্ধে পাসপোর্ট আইনে পৃথক আরেকটি মামলা হয়েছে।

জেলায় সাড়ে ৫ হাজার বিঘা জমিতে তিলের আবাদ, তিল চাষে ঝুঁকছে কৃষক

ইব্রাহিম খলিল: সাতক্ষীরায় তিল চাষের আবাদ বেড়েছে। স্বল্প খরচে অধিক লাভজনক হওয়ায় এ ফসলটি চাষ করতে আগ্রহ বাড়াচ্ছেন জেলার কৃষকরা। তাই গত বারের চেয়ে এবার সাতক্ষীরা জেলায় ২০ শতাংশ বেশি জমিতে তিলের আবাদ হয়েছে। উৎপাদনও ভালো হবে বলে আশা করছেন চাষী ও জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর।
জেলার কলারোয়া উপজেলার আলাইপুর গ্রামের কৃষক আতিয়ার রহমান জানান, অন্যান্য ফসলের পাশাপাশি প্রায় ৫/৬ বছর যাবত তিনি তিল চাষ করেন। অন্য সব ফসলের তুলনায় তিল চাষে খরচ কম এবং লাভও বেশি হয়। তাই এবার ২ বিঘা জমিতে তিল চাষ করেছেন। যা গত বারের তুলনায় ২৫ শতাংশ বেশি। তিনি বলেন, গেল বছর দেড় বিঘা জমিতে তিল চাষ করেছিলেন তিনি। প্রতি বিঘা জমিতে সার, কীটনাশক ও বীজ বপনসহ অন্যান্য খরচ প্রায় দেড় থেকে ২ হাজার টাকা। আতিয়ার রহমান বলেন, উৎপাদন খরচ বাদে গতবার দেড় বিঘা জমিতে তিল চাষ করে প্রায় ১৫ হাজার টাকা লাভ হয় তার। তবে এবার ২০ থেকে ২২ হাজার টাকা লাভ হতে পারে বলে আশা করছেন তিনি।
জেলার সদর উপজেলার কাটিয়া সরকার পাড়া গ্রামের তিল চাষী সামছুদ্দীন আহমেদ জানান, চলতি মৌসুমে দেড় বিঘা জমিতে তিল চাষ করেছেন। এই কৃষক বলেন, দেড় বিঘা জমিতে ১৩ থেকে ১৪ মণ তিল উৎপাদন হবে বলে আশা করছি। তার এলাকার অধিকাংশ কৃষকই এই স্বল্প সময়ের ফসলটি চাষ করেন। সামছুদ্দীন বলেন, বাজারে ভালো চাহিদা থাকায় তিল বিক্রি করতেও কোনো সমস্যা হয় না।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তর সূত্রে জানা যায়, চলতি মৌসুমে সাতক্ষীরার সাতটি উপজেলায় প্রায় সাড়ে ৫ হাজার বিঘা জমিতে তিলের আবাদ হয়েছে। এরমধ্যে সাতক্ষীরা সদরে ২ হাজার বিঘা, কলারোয়ায় ২ হাজার ৬০০ বিঘা, তালায় ১ হাজার ২০০ বিঘা, দেবহাটায় ১১০ বিঘা, কালিগঞ্জে ২২০ বিঘা, আশাশুনিতে ৮০ বিঘা ও শ্যামনগরে ৪০ বিঘা জমিতে তিলের আবাদ হয়েছে। যা গত বারের তুলনায় প্রায় ১৫ শতাশং বেশি বলে জানান কৃষি বিভাগ।
জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের উপ-পরিচালক মো. সোলায়মান আলী জানান, অল্প সময়ের ফসল হিসেবে তিল চাষ লাভজনক। তাছাড়া এটি চাষ করতে খরচও তুলনামূলক অনেক কম হয়। তিনি আরও বলেন, সাতক্ষীরার দোয়াশ মাটিতে প্রতি হেক্টর জমিতে সোয়া ১ মেট্রিকটন পর্যন্ত তিল উৎপাদন করা সম্ভব। অন্যদিকে তিলের তেলের চাহিদাও ব্যাপক দেশে। ফলে এটি বেশি বেশি চাষ করলে তেলের চাহিদাও কমে যাবে তেমনি কৃষকও লাভবান হবে বলে জানান তিনি।

যে কোন মূল্যে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার বন্ধ করতে হবে: শ্রম প্রতিমন্ত্রী

পত্রদূত ডেস্ক: শ্রম ও কর্মসংস্থান প্রতিমন্ত্রী বেগম মন্নুজান সুফিয়ান বলেন, যুবসমাজকে মাদকের ছোঁবল থেকে রক্ষা করতে যে কোন মূল্যে মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার বন্ধ করতে হবে। প্রতিমন্ত্রী শনিবার দুপুরে খুলনার বয়রাস্থ ম্যানগ্রোভ ইনস্টিটিউট অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজি চত্বরে বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন খুলনা মহানগর শাখা আয়োজিত ‘মাদকমুক্ত সমাজ গঠনে সুশীল সমাজের ভূমিকা’ শীর্ষক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
প্রতিমন্ত্রী বলেন, মাদকের বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন গড়ে তুলে যুবসমাজকে দক্ষ মানবসম্পদে পরিণত করতে হবে। মাদকদ্রব্যের অপব্যবহার রোধে ব্যবস্থা নিতে হবে। তিনি আরও বলেন, যুবসমাজকে মাদকের ছোবল থেকে রক্ষা করতে সরকারী উদ্যোগের পাশাপাশি বেসরকারি সংস্থা, স্বেচ্ছাসেবী সংগঠন, শিক্ষক, বাবা-মা, অভিভাবকসহ সমাজের সব শ্রেণি-পেশার মানুষকে সম্মিলিতভাবে এগিয়ে আসতে হবে
এতে সভাপতিত্ব করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন খুলনা মহানগর শাখার সভাপতি শরীফ ফজলুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন ম্যানগ্রোভ ইনস্টিটিউট অব সাইন্স এন্ড টেকনোলজির পরিচালক এস এম সাইফুল ইসলাম মোমেন, অধ্যক্ষ সহিল উদ্দিন, বাংলাদেশ ভোকেশনাল শিক্ষক সমিতির কেন্দ্রিয় সভাপতি সিকদার আব্দুল হালিম, সংরক্ষিত মহিলা কাউন্সিলর মেমরী সুফিয়া রহমান শুনু এবং সমাজ সেবক শেখ আব্দুল¬াহ। স্বাগত বক্তৃতা করেন বাংলাদেশ মানবাধিকার কমিশন খুলনা মহানগর শাখার সাধারণ সম্পাদক অ্যাডভোকেট শেখ অলিউল ইসলাম।

রেউই বাজারে চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের নামে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ

মনিরুল ইসলাম মনি: সদর উপজেলার রেউই বাজারে পাবলিক চেকপোস্ট বসিয়ে পুলিশের নামে চাঁদা আদায়ের অভিযোগ উঠেছে। দীর্ঘদিন ধরে চাঁদা আদায় করা হলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হচ্ছে না।
একটি দায়িত্বশীল সূত্র জানিয়েছে, রেউই বাজারের একটি পাবলিক চেকপোস্ট গড়ে তোলা হয়েছে। ওই চেকপোস্টে পুলিশের নামে চাঁদা তুলছে একই এলাকার মতি ও ফারুক। তাদের বিরুদ্ধে পুলিশের নামে প্রকাশ্যে ভারতীয় পণ্য ছিনতাইয়ের অভিযোগও রয়েছে। চোরাচালানের সুবিধার্থে চেক পোস্ট থেকে বিশেষ সাংকেতিক কাগজের টোকেনও দেয়া হয়। টোকেনটি দেয়া হয় মূলত সদর থানা পুলিশ ও ডিবি পুলিশের নামে। প্রকাশ্যে চাঁদাবাজি করলেও তাদের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ না করায় পুলিশের ভূমিকা নিয়ে প্রশ্ন উঠেছে। এলাকাবাসী দাবি করেছে, চেকপোস্টে আদায়কৃত টাকা উপরে মহল পর্যন্ত যায়। এ কারণে মতি ও ফারুকের বিরুদ্ধে কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয় না।
অভিযোগ রয়েছে, তাদের নেতৃত্বে এলাকায় একটি ছিনতাইকারী চক্র সক্রিয় রয়েছে। এরা ভারতীয় পণ্য ছিনতাইসহ নানা অপরাধমূলক কর্মকাণ্ড করে। এলাকাবাসী ভয়ে মুখ খুলতে সাহস পায় না। আবার অনেক সময় তারা পুলিশ দিয়ে সাধারণ মানুষকে হয়রানি করে থাকে। এলাকবাসী এ ব্যাপারে পুলিশ সুপারের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।
এ ব্যাপারে মতি চাঁদা আদায়ের সত্যতা স্বীকার করে বলেন, এখান থেকে যে চাঁদা তোলা হয়, তা থানার বড় সাহেব জানেন।
অপরদিকে ফারুকের সাথে যোগাযোগের চেষ্টা চালিয়েও তার মোবাইলে সংযোগ স্থাপন করা সম্ভব হয়নি।
সদর থানার ওসি আমানুল্লাহ জানান, আমাদের নামে সীমান্তের কোথাও চাঁদা তোলা হয় না। বিষয়টি দেখা হবে।
ডিবি পুলিশের ওসি মোশারফ হোসেন জানান, আমি যোগদানের পরে শুনেছি, রেউই বাজারে ডিবি পুলিশের নামে একজন চাঁদা তোলে। বিষয়টি জরুরী ভিত্তিতে দেখা হবে।

জেলা ১৪ দলের বিক্ষোভ মিছিল আজ

গত ৫ ফেব্র“য়ারি থেকে সাতক্ষীরাসহ দেশব্যাপী পুলিশের উপর হামলা, আওয়ামী লীগ ও অঙ্গ সহযোগী সংগঠনসহ মুক্তিযুদ্ধের পক্ষের বিভিন্ন নেতৃবৃন্দের উপর হামলা, যানবহন ভাঙচুর, অগ্নিসংযোগ এবং গত ২৮ ফেব্র“য়ারি সাবেক ছাত্রনেতা এএমবি মামুন হোসেনের হত্যাকারীদের গ্রেপ্তারের দাবিতে আজ রোববার সকাল ৮টায় শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কস্থ শহীদ মিনার থেকে বিক্ষোভ মিছিল বের হবে।
মিছিলে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগ ও তার সকল অংগ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং জেলা ১৪ দলের শরীক দলের নেতৃবৃন্দকে অংশগ্রহণের আহবান জানিয়েছেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এবং জেলা ১৪ দলের যুগ্ম আহবায়ক নজরুল ইসলাম। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

পাটকেলঘাটায় কৃষক মাঠ দিবস

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: শনিবার বিকাল ৪টায় পাটকেলঘাটার তৈলকূপী সাধুখা পাড়া বিলে বিনা-৫০ জাতের ধানের প্রদর্শনী কৃষক প্রশিক্ষণ ও মাঠ দিবস অনুষ্ঠিত হয়।
কপোতাক্ষ এন্টার প্রাইজের পরিচালক বিশ্বজিৎ সাধুর সভাপতিত্বে মাঠ দিবসে বক্তব্য রাখেন, পাটকেলঘাটা হারুণ-অর-রশিদ ডিগ্রি কলেজের উপাধ্যক্ষ আতিয়ার রহমান, ইরির মাঠ কর্মকর্তা কৃষিবিদ সুব্রত কুমার, উত্তম মজুমদার, নারায়ণ মজুমদার, কৃষি উপ-সহকারি আমজাদ হোসেন, পীষূষ কান্তি পাল, কল্যাণ পাল, প্রভাষক সমর, শ্যামপদ সাধু প্রমুখ। বক্তারা বলেন, বিনা-৫০ কোমলমতি ধান সুসাধু, সুগন্ধি চিকন জাতের ধান, যা বিদেশে রপ্তানি করে সরকার অনেক অর্থ উপার্জন করতে পারে।

জেলায় জামায়াতের আধা বেলা হরতাল আজ, গ্রেপ্তার ২

ডেস্ক রিপোর্ট: শনিবার সকালে শহরের জজকোর্ট এলাকা থেকে ডিবি পুলিশের একটি দল অভিযান চালিয়ে জেলা জামায়াতের কর্মপরিষদ সদস্য এবং জেলা জামায়াতের শ্রম বিষয়ক সম্পাদক এ্যাড. আব্দুল আজিজ (৪৫) কে গ্রেপ্তার করেছে। এদিকে সন্ধ্যায় শহরের আমতলা মোড়ের সফিকুল ইসলামের ছেলে শিবির কর্মী মঞ্জুরুল ইসলামকে (১৫) আটক করেছে পুলিশ।
এদিকে জেলা জামায়াতের নায়েবে আমীর মইনুল হকসহ জেলা জামায়াতের পাঁচ নেতার মুক্তির দাবিতে আজ রোববার জেলায় অর্ধদিবস হরতাল ডেকেছে জামায়াত।
অতিরিক্ত পুলিশ সুপার জয়দেব চৌধুরি জানান, গত ২৮ ফেব্র“য়ারি মাও. দেলোয়ার হোসাইন সাঈদীর রায়ের পর শহরের সার্কিট হাউজ মোড়ে পুলিশের উপর জামায়াত-শিবিরের হামলায় প্রত্যক্ষ মদদ এবং সাবেক ছাত্রলীগ নেতা মামুন হত্যার ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে পুলিশ তাকে গ্রেপ্তার করেছে। এছাড়া সন্ধ্যায় শহরের আহছানিয়া মিশন মাদ্রাসা থেকে শিবির মিছিল বের করলে মঞ্জুরুল ইসলামকে আটক করা হয়।
জেলা জামায়াতের আমির সাবেক এমপি মাওলানা আব্দুল খালেক মন্ডল হরতালের বিষয়টি নিশ্চিত করে বলেন, জেলার শীর্ষ নেতৃবৃন্দের মুক্তির দাবিতে রোববার সকাল ৬টা থেকে বেলা ১২টা পর্যন্ত জেলা জুড়ে অর্ধদিবস হরতাল পালন করা হবে।

যশোরে সড়ক দুর্ঘটনায় ২ জন নিহত, আহত ২

যশোর প্রতিনিধি: যশোরে পৃথক দুটি সড়ক দুর্ঘটনায় দুইজন নিহত ও দু’শিশু আহত হয়েছে।
পুলিশ ও হাসপাতালসূত্রে জানা গেছে, যশোর শহরতলির নাজির শংকরপুর গ্রামের মুনশি আফসার উদ্দিনের ছেলে শাহাবুদ্দিন (৪৫) মোটর সাইকেলযোগে তার দুই শিশু পুত্র সালমান (৭) ও বোখারি (৪)কে নিয়ে যশোর শহরের সেক্রেট হার্ট স্কুল (বড় মিশন) যাবার পথে শহরের চার খাম্বার মোড়ে পৌঁছালে একটি মাটি বোঝাই ট্রাক তাদের চাপা দিলে ঘটনাস্থলে পিতা শাহাবুদ্দিন নিহত ও তার দুই পুত্র মারাত্মকভাবে আহত হয়। আহতদের দ্রুত যশোর ২৫০ শয্যা জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করলে তাদের অবস্থার অবনতি ঘটায় ঢাকায় পাঠানো হয়েছে। পুলিশ জানিয়েছে, মাটির ট্রাকের ড্রাইভার না থাকার দরুণ হেলপার শাহিনুর ট্রাকটি চালিয়ে যাচ্ছিল।
অপর দুর্ঘটনাটি ঘটে শুক্রবার সন্ধ্যায় যশোর সদর উপজেলার গোপালপুর গ্রামে। একই উপজেলার হাটবিলা গ্রামের আজগার আলির পুত্র জামাল হোসেন (২২) নসিমন নিয়ে বাড়ি ফেরার পথে একটি মাটি বোঝাই ট্রাক তাকে ধাক্কা দিলে তিনি মারাত্মকভাবে আহত হয়। তাকে আশংকাজনক অবস্থায় যশোর ২৫০ শয্যা হাসপাতালে ভর্তি করলে শনিবার সকাল সাড়ে দশটায় তার মৃত্যু হয়।

পাইকগাছায় পিকআপ ও মোটরসাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে আহত ৩
পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: পাইকগাছায় পিকআপ ও মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষে ৩ জন গুরতর আহত হয়েছে।
আহতরা হলেন, পিকআপ চালক লিটন মিয়া, মোটরসাইকেল চালক গ্যারেজ মিস্ত্রী হান্নান গাজী ও আরোহী রহমত মোড়ল। তাদেরকে পাইকগাছা হাসপাতালে ভর্তি করার পর পিকআপ চালক লিটনের অবস্থা আশংকাজনক হওয়ায় তাকে খুলনা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। মোটরসাইকেল চালক হান্নান গাজীর ডানহাত ও আরোহী রহমতের ডান পা ভেঙে গেছে। এছাড়া তাদের শরীরে বিভিন্ন স্থান কেটে ও থেঁতলে গেছে।
প্রত্যক্ষদর্শী ও থানা পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, শনিবার সকাল ৬টায় পাইকগাছা সড়কের বান্দিকাঠি মোড়ে পিকআপের (খুলনা মেট্রো ন-১১-০৫৩১) সাথে মোটর সাইকেলের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এসময় পিকআপ চালক নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাড়ির বাম্পারে করে মোটর সাইকেলটিকে প্রায় ৫০ গজ টেনে ছিঁচড়ে পাশের একটি বাড়ির দেওয়ালে আঘাত করে। এতে উল্লিখিতরা আহত ও পিকঅপের সামনের গ্লাস ভেঙে গেছে এবং মোটর সাইকেলটি দুমড়ে মুছড়ে গেছে। স্থানীয়রা আহতদের উদ্ধার করে পাইকগাছা হাসপাতালে নিয়ে যায়।
সূত্র জানায়, পিকআপ চালক লিটন মিয়া কয়রা উপজেলার নজরুল ইসলামের পুত্র, মোটর সাইকেল চালক হান্নান গাজী পাইকগাছার সরল গ্রামের কাদের গাজীর পুত্র ও রহমত মোড়ল গদাইপুর গ্রামের মৃত সাজ্জাত মোড়লের পুত্র। পুলিশ ঘটনাস্থল থেকে দুর্ঘটনা কবলিত পিকআপ ও মোটর সাইকেলটি উদ্ধার করেছে।

কেসিসি নির্বাচন: সেনা মোতায়েনের দাবি জানালো বিএনপি

শনিবার সকালে খুলনা মহানগর বিএনপি ও অঙ্গ-সহযোগী সংগঠন সমূহের এক জরুরী যৌথ সভা অনুষ্ঠিত হয়। দলীয় কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সভায় সভাপতিত্ব করেন মহানগর বিএনপির সভাপতি নজরুল ইসলাম মঞ্জু এমপি। সভায় সিটি কর্পোরেশন নির্বাচন অবাধ, সুষ্ঠু ও নিরপেক্ষ করতে নির্বাচন কমিশনের কঠোর ও কঠিন পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানানো হয়। এছাড়া ভোটারদের নিরাপদে ভোট দেয়ার পরিবেশ সৃষ্টির লক্ষ্যে নির্বাচনের আগেই নগরীতে সেনা মোতায়েন ও চাঁদাবাজ, টেন্ডারবাজ, দখলবাজ, মাদক ব্যবসাসহ অন্যান্য অপকর্মের হোতাদের তালিকা প্রকাশ করে গ্রেপ্তারের দাবি জানানো হয়। সভা থেকে কেসিসি নির্বাচনে জাতীয়তাবাদী নাগরিক ফোরাম সমর্থিত প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনিকে আসন্ন নির্বাচনে ভোট দেয়ার জন্য নগরবাসীর প্রতি উদাত্ত আহবান জানানো হয়। মনির নির্বাচনী কার্যক্রম পরিচালনার জন্য ফোরামের পূর্ণাঙ্গ কমিটি গঠনের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়।
সভায় বক্তব্য রাখেন, সাহারুজ্জামান মোর্তুজা, কাজী সেকেন্দার আলী ডালিম, সৈয়দা নার্গিস আলী, মীর কায়সেদ আলী, অ্যাড. আব্দুল মালেক, অ্যাড. এমএ আজিজ, শেখ মোশারফ হোসেন, অধ্যাপক আব্দুল মান্নান, অ্যাড. বজলার রহমান, অ্যাড. এসআর ফারুক, অ্যাড. ফজলে হালিম লিটন, অধ্যাপক আমীর আলী, শেখ খায়রুজ্জামান খোকা, স ম আব্দুর রহমান, জাহিদুর রহমান, ফখরুল আলম, আরিফুজ্জামান অপু, শেখ হাফিজুর রহমান, মাহবুব কায়সার, নজরুল ইসলাম বাবু প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

দেবহাটায় আউশ মৌসুমের লবণ সহিষ্ণু ধান বীজ বিতরণ

বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা আইডিয়ালের সার্বিক ব্যবস্থাপনা, বাংলাদেশ সরকার ও ইরি’র সহযোগিতা এবং ইউএসএআইডি’র অর্থায়নে উচ্চ ফলনশীল ধান চাষে কৃষকদের উদ্বুদ্ধ করার লক্ষ্যে দেবহাটা উপজেলার পারুলিয়াস্থ আইডিয়াল’র প্রধান কার্যালয়ে ২৩০ জন কৃষকের মাঝে আউশ মৌসুমের ২.৫ কেজি হারে ৫৫০ কেজি উন্নত মানের স্বল্প মেয়াদী লবণ সহিষ্ণু বিআর-১৪, বিআর-১৬, বিআর-২৬, ব্রিধান-২৭, ব্রিধান-৪২ এবং ব্রিধান-৪৮ জাতের ধান বীজ বিতরণ করা হয়েছে। সংস্থার সমন্বয়কারী (নির্বাহী প্রধান) কৃষিবিদ ডা. নজরুল ইসলাম উপস্থিত থেকে কৃষকদের মাঝে এই বীজ বিতরণ করেন।
এছাড়া সংস্থার কুলিয়া উপ-শাখা অফিস থেকে ৯৬ জন কৃষকের মাঝে ২৪০ কেজি ও সদর উপজেলার ঘোনা উপ-শাখা অফিস থেকে ৯২ জন কৃষকের মাঝে ২৩০ কেজি ধান বীজ বিতরণ করা হয়। অন্যদিকে কালিগঞ্জ শাখা অফিস থেকে ১৬৮ জন কৃষকের মাঝে ৪২০ কেজি ধান বীজ বিতরণ করা হয়। আশাশুনি শাখা অফিস থেকে ৬৪ জন কৃষকের মাঝে বিতরণ করা হয় ১৬০ কেজি ধান বীজ।
অনুষ্ঠানে উন্নত চাষাবাদ পদ্ধতি, চাষাবাদের বিভিন্ন সমস্যা ও তার সম্ভাব্য সমাধান নিয়ে বক্তব্য প্রদান করেন প্রকল্পের প্রোগাম কো-অর্ডিনেটর দেবব্রত সরকার। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

ভোমরা বন্দরের যাত্রা শুরু: বিমাতা সুলভ নয়, আপন মায়ের মতো ভালোবেসে ভোমরা বন্দরকে আদর্শ বন্দর হিসেবে গড়ে তুলবো: নৌপরিবহনমন্ত্রী

শহীদুল ইসলাম: নৌ-পরিবহনমন্ত্রী শাহাজান খান এমপি বলেছেন, বিএনপি ১৬ বছরে যে উন্নয়ন করেছে, আওয়ামী লীগ ৪ বছরে তার দশগুণ বেশি উন্নয়ন করেছে। যুদ্ধাপরাধী সন্ত্রাসীরা মিলেমিশে ১৮ দল গঠন করে গণতন্ত্রকে হত্যা করার ষড়যন্ত্রে লিপ্ত হয়েছে। বিএনপি নেতৃত্বাধীন ১৮ দলীয় জোট যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচাতে মরিয়া হয়ে উঠেছে। ওরা পবিত্র কোরান শরীফ, হাদীস শরীফ, জায়না নামাজ, টুপি, তসবিহ পোড়ায়। ওরা দেশকে তালেবানি জঙ্গি রাষ্ট্রে পরিণত করতে চায়। ওরা ইসলামের ৫টি মূল ভিত্তি মানে না। ওরা কোরান মানে না, নবীজীর সুন্নাত মানে না। ওরা মানে মওদূদীকে। ওরা নবীজীর উম্মত নয়। ওরা মওদুদীর উম্মত। যে ব্যক্তি একবার লা ইলাহা ইল্লাল্লাহু মুহাম্মাদুর রাসুল্লাহ (স.) পড়েছেন তিনি কখনো নাস্তিক হতে পারে না। অথচ বিএনপি-জামায়াতের প্রেতাত্মা হেফাজতে ইসলামের আমীর মাও. আহমেদ শফী গোটা দেশের মানুষকে আস্তিক আর নাস্তিকের সনদ দিচ্ছেন। নাস্তিক তো ওরাই যারা কোরান-হাদীস পোড়ানোর মতো জঘণ্য ঘটনার বিচার দাবি করে না। তিনি বিএনপি-জামায়াতের কঠোর সমালোচনা করে বলেন, বিএনপি-জামায়াত তাদের খাছলত পাল্টায়নি। এ প্রসঙ্গে মন্ত্রী বলেন, খাছলত যায় না ধুইলে, আর ইজ্জত যায় না মইলে। বিএনপি-জামায়াতের জন্ম হয়েছে মানুষ হত্যা করে। হরতালের নামে ওরা গাড়িতে আগুন দিয়ে মানুষ পুড়িয়ে হত্যা করে। নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শনিবার সাতক্ষীরার ভোমরাস্থল বন্দর উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।
তিনি আরো বলেন, বর্তমান সরকার ক্ষমতায় আসার পর ৭টি নতুন বন্দর হয়েছে। এখনো ৫টি নতুন বন্দর এ বছরের মধ্যেই হবে। ১১ হাজার ৪৭৩ কোটি টাকা ব্যয়ে সরকার ৫৩টি নদী খনন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে। দেশে ২২ হাজার কিলোমিটার নদী খনন হয়েছে উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, মহান মুক্তিযুদ্ধের সময় যে নদীগুলো ছিলো বাঙালির প্রেরণার জীবন্ত উৎস সে নদীগুলোর উৎস মুখ বন্ধ করে দিয়েছিলো। ‘পদ্মা মেঘনা যমুনা তোমার আমার ঠিকানা’ মুক্তিযুদ্ধের এ শ্লোগানের কথা স্মরণ করে শাহাজান খান এমপি বলেন, বাংলার শ্রোতধারা আজ হারিয়ে যাচ্ছে। কোথায় হারিয়ে গেল পদ্মা মেঘনা যমুনার সেই কলতান। বিএনপি-জামায়াত দেশের নৌ পথে কে ধ্বংসের দ্বারে ফেলে দিয়েছিলো। কোকো-৪ নামের লঞ্চ দুর্ঘটনায় মারা গিয়েছিলো শত শত মানুষ। কোকো শুধু দুর্ঘটনা ঘটায় উল্লেখ করে নৌ মন্ত্রী বলেন, ভোমরা স্থলবন্দরের অবকাঠামো উন্নয়নে ১৭ একর ৫ শতক জমি অধিগ্রহণ করা হয়েছে। এখনো ২৫ একর জমি অধিগ্রহণ করা হবে। ভোমরা বন্দরে পুলিশ ক্যাম্প স্থাপন করা হবে। গো-ডাউনের নিরাপত্তার জন্য ফায়ার সার্ভিস অতীব জরুরী।
তিনি বলেন, পদ্মা সেতু হলে ভোমরা বন্দরের গুরুত্ব দেশের অন্য যে কোন বন্দরের চেয়ে বৃদ্ধি পাবে। তিনি বলেন, ভোমরা থেকে রাজধানী ঢাকার দূরত্ব ৩৫০ কিলোমিটার। কোলকাতা থেকে ব্যবসা বাণিজ্যের প্রাণ কেন্দ্র হবে ভোমরা। ভোমরা বন্দরের সুফল ভোগ করবে গোটা বাঙালি জাতি।
নৌ-মন্ত্রী বলেন, বিএনপি-জামায়াতের শাসন আমলে মংলা বন্দর অচল ছিলো। মংলা বন্দর এখন সচল। প্রতিমাসে মংলা মন্দরে এখন ৩০০/৪০০ জাহাজ যাওয়া আসা করছে। মন্ত্রী বলেন, পটুয়াখালীতে দেশের তৃতীয় সমুদ্র বন্দর হচ্ছে। ৪২ বছরে অনেক সরকার এসেছে আর গেছে। কিন্তু কোন সরকার দেশের উন্নয়নে কাজ করেন নি। ৪২ বছরে আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় ছিল ১৩ বছর, বিএনপি ১৬ বছর, জাতীয় পার্টি ৯ বছর। দেশের নদী খননের জন্য জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ৭টি ড্রেজার কিনেছিলেন। এরপর কোন সরকার ড্রেজার কেনে নি। বর্তমান সরকার ক্ষমতায় এসে ৩টি ড্রেজার কিনেছে।
আরো ৮টি ড্রেজার কেনা হচ্ছে। আগামী বছরের মধ্যে দেশে ২২টি ড্রেজার আনা হবে। দেশের নদী বাঁচাতে হলে ৫০টি ড্রেজার দরকার। সময় দরকার ৯ বছর।
শাহাজান খান বলেন, স্বাধীনতার পর দেশে ফেরি ছিলো ১৫টি। বঙ্গবন্ধু কিনেছিলেন ৮টি। এরশাদ কিনেছেন ৮টি। বর্তমান সরকার চলতি বছরে আরো দশটি ফেরি কিনছে। আগামী এক বছরে আরো ২২টি ফেরি নামানো হবে। চট্টগ্রাম সমুদ্র বন্দর কে সরকার ঢেলে সাজিয়েছে। দেশে ৪টি মেরিন একাডেমী চালু হতে যাচ্ছে। বিএনপি ১৬ বছরে যে উন্নয়ন করেছে বর্তমান সরকার ৪ বছরে তার দশগুণ উন্নয়ন করেছে। বিএনপিকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে দিয়ে তিনি বলেন, আমার বক্তব্য মিথ্যা প্রমাণ করতে পারলে জীবনে আর কোনদিন রাজনীতি করবো না। মন্ত্রী বলেন, বিমাতা সুলভ নয়, আপন মায়ের মতো ভালোবেসে ভোমরা বন্দরকে আদর্শ বন্দর হিসেবে গড়ে তুলবো।
বাংলাদেশ স্থলবন্দর কর্র্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান ময়েজ্জদীন আহমেদের সভাপতিত্বে উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন, জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি ইঞ্জিনিয়র শেখ মুজিবুর রহমান এমপি, জেলা প্রশাসক ড. মুহা. আনোয়ার হোসেন হাওলাদার, জেলা পরিষদ প্রশাসক মুনসুর আহমেদ, পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান, সাতক্ষীরা জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাতক্ষীরা পৌর মেয়র এমএ জলিল, ভোমরা সিএন্ড এফ এজেন্ট এ্যাসোসিয়েশনের সভাপতি নেছার উদ্দীন, ভোমরা স্থল বন্দর শ্রমিক নেতা আবুল হোসেন, মেহেদী হোসেন প্রমুখ।
এর আগে প্রধান অতিথি নৌপরিবহনমন্ত্রী লাল ফিতা কেটে বন্দরের শুভ উদ্বোধন ঘোষণা করেন। এসময় ভোমরা বন্দরের শ্রমিক কর্মচারী ও ব্যবসায়ীরা আতশ বাজি ফুটিয়ে উল্লাস করে। এসময় একটি বর্ণাঢ্য ব্যান্ড পার্টি নেচে গেয়ে বাজনা বাজিয়ে ভোমরা বন্দর প্রদক্ষিণ করে।

নওয়াপাড়ায় দু’পাচারকারী আটক, ভারতে পাচারকালে নড়াইলের দু’মহিলা উদ্ধার

মিজানুর রহমান, গাজীরহাট: ভারতে পাচারকালে নড়াইলের দু’মহিলাকে উদ্ধার ও দু’পাচারকারীকে আটক করে পুলিশ সোপর্দ করেছে এলাকাবাসী। শনিবার রাত ১০টা ৩০ মিনিটে দেবহাটা উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নের জগন্নাতপুর গ্রাম থেকে তাদেরকে আটক করে এলাকাবাসী।
আটককৃত পাচারকারী হলো, দেবহাটার রমনাথপুর গ্রামের আব্দুল আজিজের ছেলে আফজাল হোসেন। অপরজনের নাম আমিনুর। তার পরিপূর্ণ ঠিকানা জানা যায়নি।
পুলিশ জানায়, ভাল কাজের প্রলোভন দেখিয়ে দু’মহিলাকে ভারতে পাচারের জন্য নিয়ে আসলে গ্রামবাসী পাচারকারীদেরসহ তাদের আটক করে পুলিশে দেয়। পুলিশ আফজালের উদ্ধৃতি দিয়ে জানিয়েছে, জিজ্ঞাসাবাদে আফজাল বলেছে, তার নেপালে বিউটি পার্লার রয়েছে। সেখানে কাজ দেওয়ার জন্য তাদের নিয়ে যাওয়া হচ্ছিল। তাদের বিরুদ্ধে মামলার প্রস্তুতি চলছিল।

যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুরাতন ভবনে ফাটল, আতংক

যশোর প্রতিনিধি: যশোর মেডিকেল কজেল হাসপাতালের পুরনো ভবনে ফাটল দেখা দিয়েছে। ঝুঁকিপূর্ণ ওই ভবনে প্রতিদিন অন্তত ১শ’ রোগী ভর্তি হয়ে চিকিৎসা সেবা নিচ্ছেন। এতে চিকিৎসক, কর্মচারী, রোগী ও তাদের স্বজনের মধ্যে আতংক দেখা দিয়েছে। যশোর মেডিকেল কলেজ হাসপাতালের পুরনো ভবনে রয়েছে পুরুষ সার্জারি ও মহিলা সার্জারি ওয়ার্ড। প্রতিদিন মারামারি, সড়ক দুর্ঘটনা ও আঘাতপ্রাপ্ত হয়ে পুরুষ ও মহিলারা এ দু’ওয়ার্ডে ভর্তি হন। তারা ঝুঁকির মধ্যে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ভবনের কয়েকটি স্থানে ফাটল ধরেছে। ফাটলের কারণে ভবনের দেয়ালের ছাদের পিলার থেকে প্লাস্টার সিমেন্ট বালি খসে পড়ছে। ভবনের পশ্চিম পাশের পিলারের অর্ধেক প্লাস্টার ইতোমধ্যে খসে পড়েছে।
নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক কয়েকজন কর্মচারী বলেন, অনেক পুরনো ভবন তাই এ অবস্থা হয়েছে। বর্তমানে এটি ঝুঁকিপূর্ণ বলে মনে করছেন তারা। সাধারণ রোগীরাও আতংকের মাঝে ওয়ার্ডে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। অনেক রোগী সার্জারি ওয়ার্ড থেকে বদলি করিয়ে অন্য ওয়ার্ডে ভর্তি হয়ে চিকিৎসা নিচ্ছেন। এ ঝুঁকিপূর্ণ ভবন নিয়ে শংকিত রয়েছেন হাসপাতাল কর্তৃপক্ষও।
হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক ডা. সালাহ উদ্দীন আহমেদ বলেন, হাসপাতালের ভবনটির সংস্কার কাজের করানোর দায়িত্ব গণপূর্ত বিভাগের। এ কারণে ঘটনাটি তাদেরকে জানানো হয়েছে। তারা সংস্কার করবে। আমাদের কিছু করার নেই। গণপূর্ত বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলী সরোয়ার হোসেন বলেন, হয়তো হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ আমাদেরকে চিঠি দিয়েছে। এটা আমার জানা নেই। আমি যশোরের বাইরে রয়েছি। এসে তারপর বলতে পারবো।

যশোরের রানা’র সম্পাদকের ছেলে অঞ্জন হত্যা মামলায় চূড়ান্ত প্রতিবেদন দাখিল

বদরুদ্দিন বাবুল, যশোর: যশোরের দৈনিক রানারের প্রয়াত সম্পাদক আর এম সাইফুল আলম মুকুলের ছোট ছেলে তানভীর হাসান অঞ্জন হত্যা মামলার আসামিদের অব্যাহতি চেয়ে দেয়া চূড়ান্ত প্রতিবেদন গ্রহণ করেছে আদালত। গত বুধবার চূড়ান্ত প্রতিবেদনের উপর না রাজি আবেদনের শুনানি শেষে সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রথম আদালতের বিচারক সুমি আহমেদ আসামিদের অব্যাহতি দিয়ে মামলাটি নথিজাত করার আদেশ দিয়েছেন। মামলা সূত্রে জানা যায়, ২০০৭ সালের ৯ জুলাই দুপুরে বাসার বাথরুম থেকে অঞ্জনের গুলিবিদ্ধ লাশ পুলিশ উদ্ধার করে। এ সময় আইন শৃঙ্খলা বাহিনীর সদস্যরা বাথরুম থেকে গুলির খোসা উদ্ধার করে। তখন উদ্ধার হয়নি অস্ত্রটি। এ ব্যাপারে নিহতের মা হাফিজা আক্তার শিরিন আটজনকে সন্দেহভাজন আসামি করে একটি হত্যা মামলা করেন।
২০১২ সালের ২ নভেম্বর সিআইডির সহকারি পুলিশ সুপার এবিএম সিদ্দিকুর রহমান আটক ও সন্দেহভাজন আসামিদের অব্যাহতি চেয়ে আদালতে চূড়ান্ত প্রতিবেদন জমা দেন। এরা হলো, নিহতের চাচা মঞ্জুরুল আলম টুটুল, আব্দুল মান্নান, নজরুল ইসলাম সোহাগ, সুমন মিয়া, নান্না কাজী, বনি কাজী, বাচ্চু কাজী ও রিয়াদ কাজী। প্রতিবেদনে উল্লেখ করা হয়, বাসার বাথরুমটি সুরক্ষিত। অঞ্জনের নানী এ বাথ রুম ব্যবহার করত। সেদিন সকালে তার নানী এ বাথরুম ব্যবহার করেছিল। তাতে প্রমাণিত হয় রাতে কেউ পালিয়ে ছিল না বাথরুমে। এর আগে অঞ্জন আত্মহত্যার উদ্দেশ্যে একবার ঘুমের বড়ি সেবন করেছিল। সে নিজে পিস্তল সংগ্রহ করে মাথায় গুলি করে আত্মহত্যা করে বলে তদন্তে প্রকাশ পায়। এ চূড়ান্ত প্রতিবেদনের উপর মামলার বাদী হাফিজা আক্তার শিরিন আদালতে না রাজি আবেদন করেন। আবেদনের শুনানি কালে অতিরিক্ত চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট আদালতের বিচারক বিব্রত বোধ করেন। এবার চিফ জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট এ মামলার না রাজি আবেদনের উপর শুনানির জন্য সিনিয়র জুডিসিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট প্রথম আদালতে পাঠানোর আদেশ দেন। এ আবেদনের শুনানি শেষে বিচারক সুমি আহমেদ তা না মঞ্জুর করে আসামিদের অব্যাহতি ও মামলাটি নথিজাত করার আদেশ দিয়েছেন।