জেলায় ধান চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু

 

আব্দুর রহিম: সাতক্ষীরায় সরকারি ঘোষণা অনুযায়ী বোরো মৌসুমের ধান চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে। মঙ্গলবার আনুষ্ঠানিকভাবে ধান চাল সংগ্রহ অভিযানের শুভ উদ্বোধন করা হয়। অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) লস্কার তাজুল ইসলাম প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কর্মসূচির উদ্বোধন করেন।

এসময় উপস্থিত ছিলেন, জেলা মার্কেটিং অফিসার আকমল হোসেন, সদর উপজেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা কাজী লিয়াকত হোসেন, চালকল মালিক সমিতির সহ-সভাপতি আব্দুল খালেক, সাংগঠনিক সম্পাদক বাপ্পী, কোষাধ্যক্ষ আব্দুর রশিদসহ সদর উপজেলার মিল ও চাতাল মালিকরা।

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, জেলা খাদ্য নিয়ন্ত্রণ কর্মকর্তা শৈলেন চন্দ্র রায়। উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে বক্তারা বলেন, সারা দেশের ন্যায় সাতক্ষীরায়ও গত ২ মে থেকে বোরো মৌসুমে ধান ও চাল সংগ্রহ অভিযান শুরু হয়েছে। এ অভিযান চলবে আগামী ৩০ সেপ্টেম্বর পর্যন্ত। সাতক্ষীরা সদর উপজেলায় চাল সংগ্রহ অভিযানে লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ হাজার ৪৭৪ মেট্রিক টন এবং ধানের লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণ হয়েছে ৭৭৯ মেট্রিক টন। সরকার ১৮ টাকা ৫০ পয়সা দরে প্রতি কেজি ধান এবং ২৯ টাকা দরে প্রতি কেজি চাল কেনার সিদ্ধান্ত নিয়েছে। বক্তারা ধান চাল সংগ্রহ অভিযান কে সফল করতে সদর উপজেলার চালকল ও চাতাল মালিকদের আন্তরিকভাবে এবং সততার সাথে কাজ করার আহবান জানান।

পিএন স্কুল মাঠের তারার মেলা

শহীদুল ইসলাম: হাজার জনতার আর্শীবাদের শতদল মাথায় রেখে এবং শ্রদ্ধা ও ভালোবাসার মনিহার বুকে ধারণ করে সংবর্ধিত হয়েছেন জাতীয় ক্রিকেট দলের গর্বিত তারকা নন্দিত খেলোয়াড়, সাতক্ষীরার কৃতি সন্তান রবিউল ইসলাম শিবলুসহ আব্দুর রাজ্জাক, আনামুল হক বিজয়, শম্ভু সরকার ও তাপস ঘোষ। সম্প্রতি জিম্বাবুয়ের হারারেতে অনুষ্ঠিত টেস্ট খেলায় শিবলু ম্যান অব দ্য সিরিজ নির্বাচিত হওয়ায় দেশের তথা আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাতক্ষীরার পরিচিতি নতুন মাত্রা পেয়েছে। সাতক্ষীরার মাটিতে জন্ম নেয়া এ গর্বিত ক্রিকেটারদের ফুলের মালা, ফুলের ডালা দিয়ে বরণ করেছে সাতক্ষীরা পৌরবাসী। ফুলে ফুলে ভরে যায় শিবলুর সংবর্ধনা মঞ্চ। সাতক্ষীরার গুণী ও জ্ঞানী ব্যক্তিদের আর্শীবাদের শতদল বর্ষিত হয়েছে এই তারকাদের প্রতি। হাজার হাজার ভক্তদের শ্রদ্ধা আর ভালোবাসার মনিহার গলায় পরে সিক্ত হয়েছেন তারা।

মঙ্গলবার সন্ধ্যায় শহরের সুলতানপুর পিএন স্কুল মাঠে সংবর্ধনা মঞ্চে ক্রিকেট তারকাদের মেলা বসে। শিবলুর সাথে সংবর্ধিত অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় দলের আরেক আলোকিত তারকা আব্দুর রাজ্জাক ও আনামুল হক বিজয়। এছাড়া তাপস ঘোষ ও শম্ভু সরকারের মতো তারকারা সংবর্ধনা মঞ্চে জ্যোতি ছড়িয়ে আলোকিত করেছেন।

সংবর্ধনা অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শেখ নিজাম উদ্দীন। প্রধান  অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংবর্ধিত অতিথিদের মাঝে ভালোবাসার আবীর ছড়িয়েছেন পুলিশ সুপার মো. আসাদুজ্জামান। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে সংবর্ধিতদের এগিয়ে যাবার জন্য প্রাণ উজাড় করে আশীর্বাদ করেছেন জেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার ও শম্ভু সরকারের গর্বিত পিতা কিশোরী মোহন সরকার, রেড ক্রিসেন্ট সোসাইটির সাধারণ সম্পাদক শেখ নূরুল হক, বিশিষ্ট সমাজ সেবক ও ব্যবসায়ী ডা. আবুল কালাম বাবলা, শিবলুর গর্বিত পিতা শেখ নূরুল ইসলাম, মাতা আসমা খাতুনসহ অনেকে। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন প্রভাষক আতীকুজ্জামান আতীক। অনুষ্ঠানে জমকালো সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের আয়োজন করেন কাজী ফিরোজ আহমেদ।

পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে সনাকের মতবিনিময়

‘স্বচ্ছতা জবাবদিহিতা আর অংশগ্রহণ, সাতক্ষীরা পৌরসভায় বাড়াবে উন্নয়ন’ এই স্লে¬াগানকে সামনে রেখে সচেতন নাগরিক কমিটি সনাক-সাতক্ষীরার আয়োজনে মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় সাতক্ষীরা পৌরসভা কার্যালয়ে উপ-কমিটির সভাপতি এ্যাড. একেএম শহিদুল¬াহ’র সভাপতিত্বে স্থানীয় সরকার ব্যবস্থাপনায় স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা নিশ্চিতকরণে সাতক্ষীরা পৌর কর্তৃপক্ষের সাথে এক মতবিনিময় সভা অনুষ্ঠিত হয়।

সভায় বক্তব্য রাখেন পৌর মেয়র এমএ জলিল, প্যানেল মেয়র শেখ শফিক উদ্ দৌলা সাগর, সনাক সভাপতি আব্দুল মান্নান, সনাক সদস্য পল্টু বাশার, প্রথম আলোর নিজস্ব প্রতিবেদক ও সনাক সদস্য কল্যাণ ব্যানার্জি, মহিলা কাউন্সিলর ফরিদা আক্তার বানু বিউটি, কাউন্সিলর আছাদুজ্জামান অঞ্জু, শাহিনুর রহমান, মাসুম, বিল্ল¬াহ শাহিন, ফারহানা দিবা সাথী, সনাক সাতক্ষীরা’র এরিয়া ম্যানেজার মাসুদ রানা প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্তৃপক্ষের সাথে সনাকের মতবিনিময়

‘চাই শিক্ষা খাতে স্বচ্ছতা ও জবাবদিহিতা’ এই স্লোগানকে সামনে রেখে সচেতন নাগরিক কমিটি সনাক-সাতক্ষীরার নেতৃবৃন্দ মঙ্গলবার সকাল ১১.৩০টায় জেলা প্রাথমিক শিক্ষা কর্তৃপক্ষের সাথে মতবিনিময় করেছে।

সভায় উপস্থিত ছিলেন সহকারি জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার মো. মহিউদ্দীন, সনাক সদস্য প্রফেসর আব্দুল হামিদ, পবিত্র মোহন দাশ, এরিয়া ম্যানেজার মাসুদ রানা, রাজারবাগান সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রেহানা আফরোজ, সিলভার জুবলী মডেল সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক চায়না ব্যানার্জি, সনকা সরকারি প্রথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক ইকবল করিব প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

মানব পাচার প্রতিরোধ আইন পর্যালোচনা বিষয়ক মতবিনিময়

শহর প্রতিনিধি: মানব পাচার প্রতিরোধ আইন ২০১২ পর্যালোচনা বিষয়ক এক মতবিনিময় সভা মঙ্গলবার রাত ৮টায় শহরের একটি অভিজাত হোটেলে অনুষ্ঠিত হয়েছে।

ওয়ার্ড ভিশন বাংলাদেশ’র সহযোগিতায় ও রোটারি ক্লাব অব সাতক্ষীরার আয়োজেন জেলার বিভিন্ন শ্রেণির পেশার মানুষ এতে অংশ নেন।

সভায় নূর ইসলামের সভাপতিত্বে¡ প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন নারী ও শিশু নির্যাতন দমন ট্রাইবুনালের জেলা জজ মো. ফখরুদ্দিন। বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য দেন সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, পৌর মেয়র এম এ জলিল, চেম্বার অব কমার্সের সভাপতি আব্দুল মান্নান ও জেলা আইনজীবী সমিতির সভাপতি শাহ আলম।

মুক্ত আলোচনায় অংশ নেন চেম্বারের পরিচালক মনিরুজ্জামান মুকুল, প্যানেল মেয়র শফিক উদ দৌলা সাগর, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান শাহানাজ পারভীন মিলি, শিক্ষক মোবাশেরুল হক জ্যোতি, কাউন্সিলর ফরিদা আক্তার বিউটি, সাউথ ইস্ট ব্যাংকের পরিচালক আব্দুল হাই, ফাস্ট সিকিউরিটি ব্যাংকের পরিচালক আব্দুর রউফ, স্বদেশ পরিচালক মাধর চন্দ্র দত্ত, মহিলা পরিষদের জোসনা দত্ত প্রমুখ। অনুষ্ঠানটি পরিচালনা করেন চাইল্ড সেফটি নেট প্রজেক্টের কো-অর্ডিনেট হাফিজুর রহমান।

বক্তব্যরা বলেন, সাতক্ষীরা সীমান্তবর্তী জেলা হওয়ায় মানব পাচারের ঝুঁিক বেশি। তাই মানব পাচার প্রতিরোধে করতে হলে শুধুমাত্র এই আইনের অধীনে মামলা তদন্ত করার জন্য আলাদা তদন্ত সেল গঠন করতে হবে। একই সাথে মানব পাচার প্রতিরোধ আইন ২০১২ এর কয়েকটি ধারা সংস্কার করে যুগোপযোগী করতে হবে।

 

 

 

কেসিসি নির্বাচন: জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে আধুনিক খুলনা গড়ার অঙ্গীকার করলেন মেয়র প্রার্থীরা

 

পত্রদূত ডেস্ক: বৃহত্তর খুলনা উন্নয়ন সংগ্রাম সমন্বয় কমিটি আয়োজিত জনগণের মুখোমুখি অনুষ্ঠানে কেসিসি নির্বাচনে অংশ নেয়া তিন মেয়রপ্রার্থী নির্বাচিত হলে খুলনাকে আধুনিক নগরীতে পরিণত করবেন বলে অঙ্গীকার করেছেন।

মঙ্গলবার সকালে শহীদ হাদিস পার্কে এ অনুষ্ঠানে নগরীর বিভিন্ন এলাকার মানুষ অংশ নেন। অনুষ্ঠানে জনগণের বিভিন্ন প্রশ্নের উত্তর দেন সম্মিলিত নাগরিক কমিটির মেয়র প্রার্থী তালুকদার আব্দুল খালেক, ঐক্যবদ্ধ নাগরিক ফোরামের মেয়র প্রার্থী মনিরুজ্জামান মনি ও খুলনা নাগরিক উন্নয়ন সমন্বয় কমিটির প্রার্থী শফিকুল ইসলাম মধু।

উন্নয়ন কমিটির সভাপতি শেখ আশরাফ-উজ-জামানের সভাপতিত্বে ও মহাসচিব শেখ মোশাররফ হোসেনের পরিচালনায় এবং বিভাগীয় প্রেসক্লাব ফেডারেশনের চেয়ারপার্সন লিয়াকত আলীর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে তালুকদার আব্দুল খালেক বলেন, বিগত ২০০৮ সালের আগের খুলনা ও বর্তমান খুলনার মধ্যে এক বিরাট পার্থক্য সৃষ্টি হয়েছে। আগামী নির্বাচনে খুলনাবাসী সে মূল্যায়ন করবে বলেও তিনি আশাবাদ ব্যক্ত করেন।

মনিরুজ্জামান মনি বলেন, উন্নয়ন কমিটির ২৩ দফাই শুধু নয়, বরং এর বাইরেও কোন পদক্ষেপ নেয়ার সুযোগ থাকলে সেগুলো বাস্তবায়ন করে সততা ও নিষ্ঠার সাথে একটি আধুনিক খুলনা গড়তে তিনি বদ্ধপরিকর থাকবেন। একই সাথে কেসিসিকে দুর্নীতিমুক্ত রাখতে খুলনার সাংবাদিক সমাজকেও অগ্রণী ভূমিকা পালনের আহবান জানান তিনি।

শফিকুল ইসলাম মধু বলেন, শুধু খুলনা মহানগরীর উন্নয়নই নয়, পদ্মা সেতু নির্মাণসহ দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের সার্বিক উন্নয়ন এবং কেডিএ-কেসিসির সমন্বয়ের মাধ্যমে খুলনাকে গড়ে তোলা হবে আধুনিক ও পরিচ্ছন্ন নগরীতে।

অনুষ্ঠানে নাগরিকদের পক্ষ থেকে শতাধিক নির্ধারিত প্রশ্ন করা হলেও লটারির মাধ্যমে ৩৩টি প্রশ্নের উত্তর দেন তিন মেয়রপ্রার্থী। এসময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, শেখ আব্দুল মান্নান, এসএম দাউদ আলী, মোল্লা জালাল উদ্দিন এমপি, সংরক্ষিত আসনের এমপি নূর আফরোজা আলী, জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশিদ, বীর মুক্তিযোদ্ধা শেখ আব্দুল কাইউমসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতৃবৃন্দ, নাগরিক নেতৃবৃন্দ, পেশাজীবীসহ বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ।

পুলিশের পৃথক অভিযানে প্রাইভেট কার ও ফেনসিডিলসহ আটক ২

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদর থানা ও গোয়েন্দা পুলিশের পৃথক অভিযানে একটি প্রাইভেটকার ও ৫৩৯ বোতল ফেনসিডিলসহ ২ জন আটক হয়েছে। মঙ্গলবার ভোরে সাতক্ষীরা শহর উপকণ্ঠের বাকাল চেকপোস্ট ও ছয়ঘরিয়া মোড় এলাকা থেকে তাদের আটক করা হয়।

সদর থানার অফিসার ইনচার্জ আমান উল্যাহ আমান জানান, রাতে আসামি গ্রেপ্তারের উদ্দেশ্যে ছয়ঘরিয়া মোড় এলাকায় সদর সহকারি পুলিশ সুপার মোস্তফা কামালের নেতৃত্বে পুলিশের একটি দল টহল দিতে থাকে। এসময় ভোরের দিকে ঢাকা মেট্রো-গ-১৩-৩৯৬৩ নম্বরের সিলভার কালারের একটি প্রাইভেট কারকে সিগন্যাল দিলে তারা পুলিশকে চ্যালেঞ্জ করে। এক পর্যায়ে প্রাইভেটকারটি তল্লাশি করে তার মধ্য থেকে ৩৫০ বোতল ফেনসিডিল উদ্ধার করা হয়। এসময় চালক খুলনার সোনাডাঙ্গা এলাকার লিয়াকত আলী তালুকদারের ছেলে মাসুদ রানা (২৬) কে আটক করা হয়। প্রায় একই সময়ে শহরের অপর প্রান্তে বাকাল চেকপোস্ট এলাকায় ডিবি পুলিশের ওসি সরদার মোশাররফ হোসেনের নেতৃত্বে একটি দল গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অবস্থান নিয়ে ১৮৯ বোতল ফেনসিডিলসহ কক্সবাজার জেলার উখিয়া থানার হাকিমআলী পাড়ার নজু মিয়ার ছেলে আব্দুল্যাহ আবু আলম (২২) কে আটক করেন।

পৃথক দুটি মাদক চোরাচালানীর ঘটনায় দুটি মামলা দায়ের করা হয়েছে।

জালালাবাদ ইউপি’র বাজেট ঘোষণা

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়া উপজেলার ২নং জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের বাজেট ঘোষণা করা হয়েছে। মঙ্গলবার বেলা ১১টার দিকে ইউনিয়ন পরিষদের সম্মেলনকক্ষে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্য দেন উপজেলা পরিষদের ভাইস চেয়ারম্যান আমিনুল ইসলাম লাল্টু।

ইউপি চেয়ারম্যান মাস্টার শওকত আলির সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত উন্মুক্ত বাজেট অধিবেশনে অংশগ্রহণ করেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রাজ্জাক, মাওলানা নুরুল ইসলাম, ইউপি সদস্য আজগর আলি, সাইফুল ইসলাম, সুলাইমান, শাহিনুর রহমান, মোজাব্বার আলি, রবিউল ইসলাম, সুফিয়া খাতুন, নাছিমা খাতুন, শাহনারা খাতুন, সাংবাদিক শেখ জুলফিকারুজ্জামান, এমএ সাজেদ, আজমিরা পারভীনসহ সর্ব স্তরের স্থানীয় জনসাধারণ।

অনুষ্ঠানে জালালাবাদ ইউনিয়ন পরিষদের ২০১৩-১৪ অর্থ বছরের ৭৪ লাখ ২ হাজার ১শ’ ৭৮ টাকার বাজেট ঘোষণা করা হয়। প্রস্তাবিত এই বাজেট উপস্থাপন করেন ইউপি সদস্য নুরুল ইসলাম। অনুষ্ঠান সঞ্চালন করেন ইউপি সদস্য আলি মাহমুদ।

 

বসতবাড়ি ফিরে পাওয়ার দাবিতে প্রেসক্লাবে এক অসহায় মহিলার সংবাদ সম্মেলন

 

নিজস্ব প্রতিনিধি: আদালতের নিষেধাজ্ঞা উপেক্ষা করে ও  মিথ্যা মামলার ফাদে ফেলে  আইলা উপদ্রুত শ্যামনগর উপজেলার উত্তর আটুলিয়া গ্রামের একটি পরিবারের বসত ভিটার জমি জোরপূর্বক দখল করে নিয়েছে স্থানীয় ভূমিদস্যুরা। মঙ্গলবার সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে এক সংবাদ সম্মেলনে এই অভিযোগ করেন উত্তর আটুলিয়া গ্রামের আকবর আলী মোড়লের স্ত্রী খাদিজা আক্তার সোনা মনি।

সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্যে সোনা মনি বলেন, তার স্বামী আকবর আলী মোড়ল চার বছর আগে শ্যামনগর উপজেলার আটুলিয়া ইউনিয়নের কুপট মৌজার এসএ ৩৬৯নং খতিয়ানের এসএ ৫৯ দাগে ৯ শতক জমি ক্রয় করে ভোগ দখল করে আসছে। তার স্বামী একা ভাই হওয়ায় ভিটাবাড়ি সংলগ্ন ওই জমির উপর নজর পড়ে এলাকার চিহ্নিত ভূমিদস্যু নুর ইসলাম মোড়লের। তিনি ওই জমি থেকে উচ্ছেদের জন্য আমার স্বামীসহ বৃদ্ধ শ্বশুর ও শ্বাশুড়ির নামে মিথ্যা মামলা দিয়ে হয়রানি শুরু করেন। আমার পরিবারের সদস্যদের উপর একাধিকবার হামলাসহ এ পর্যন্ত৬টি মিথ্যা মামলা করেছেন। এরপরও নুর ইসলাম থেমে থাকেননি। গত ১০ মে নুর ইসলাম মোড়ল তার লোকজন নিয়ে জোরপূর্বক ওই জমি মাপজোক করে খোটা মারে এবং সীমানা প্রাচীর নির্মাণ কাজ শুরু করে। এ ঘটনায় শ্যামনগর থানায় একটি লিখিত অভিযোগ দেয়ার পর দুই দিন কাজ বন্ধ রাখে। এরপর ১৭ মে থেকে আবারও কাজ শুরু করেছেন। বিষয়টি থানায় বারবার জানালেও কোন ব্যবস্থা নেয়া হয়নি। গত ২৬ মে আমাদের আবেদনের প্রেক্ষিতে আদালত নিষেধাজ্ঞা জারি করলেও ভূমিদস্যু নুর ইসলাম কাজ বন্ধ রাখেননি।

তিনি অভিযোগ করে বলেন, এসব ঘটনার প্রতিবাদ করায় নুর ইসলাম ও তার লোকজন হত্যার উদ্দেশ্যে আমাকেও  ব্যাপক মারপিট করে। তাদের হামলায় আহত হয়ে দীর্ঘদিন আমি হসপাতালে চিকিৎিসাধীন ছিলাম। বিনা অপরাধে তিনি আমার স্বামী আকবর আলীকে জেল খাটিয়েছেন। তারা আমার পরিবারের সদস্যদের মিথ্যা মামলায় জড়িয়ে হয়রানি করাসহ প্রতিনিয়ত হত্যার হুমকি দিচ্ছে। বসতবাড়ি হারিয়ে এখন তারা দিশেহারা হয়ে পড়েছে। তিনি বসতবাড়ি ফিরে পাওয়াসহ ভূমিদস্যু নুর ইসলাম ও তার বাহিনীর লোকজনের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণে প্রধানমন্ত্রী ও স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীসহ আইন প্রয়োগকারী সংস্থার জরুরী হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

এসএসসিতে উত্তীর্ণ ২১৫ জন শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দিয়েছে ঋশিল্পী

 

ঋশিল্পী ডেভেলপমেণ্ট প্রজেক্টের আওতায় শিক্ষা সহায়তা প্রকল্পের এসএসসি উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের সংবর্ধনা দেয়া হয়েছে। গত ২৭ ও ২৮ মে এ উপলক্ষে আয়োজিত অনুষ্ঠানে ২১৫ জন শিক্ষার্থীকে সংবর্ধনা দেয়া হয়।

অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা সরকারি কলেজের সহযোগী অধ্যাপক বিশ্বাস সুদেব কুমার ও সহকারি অধ্যাপক শাহিনুর রহমান। আলোচনাকালে তাঁরা শিক্ষার্থীদের কলেজ জীবনে প্রবেশ, করণীয় ও বর্জনীয় বিষয়ে উপদেশ এবং ভর্তি সংক্রান্ত বিভিন্ন নির্দেশনা প্রদান করে। অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সমাজ সেবক গোলক চন্দ্র রায়।

অনুষ্ঠানে ঋশিল্পীর পরিচালক ভিনসেনজো ফালকোনে এনসো ও রেক্টর গ্রাজিয়েলা মেলানো লাওরা বাল্যবিবাহ বর্জন করে উচ্চ শিক্ষায় প্রবেশ ও সোনার পরিবার গঠনের জন্য শিক্ষার্থীদের প্রতিশ্রুতিবদ্ধ হওয়ার আহবান জানান। এছাড়াও অনুষ্ঠানে কয়েকজন মেধাবী শিক্ষার্থী ও অভিভাবক অনুভূতি ব্যক্ত করে বক্তব্য রাখেন।

অনুষ্ঠানে অন্যান্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঋশিল্পীর সহকারি পরিচালক এমএ বারী, সমাজ সেবক কণক তেয়ারী, ঋশিল্পীর প্রোগ্রাম ম্যানেজার সভারঞ্জন শিকদার ও আমার সোনার পরিবারের প্রোগ্রাম সংগঠক রেনেথা এ্যাডলিনা বাড়ৈ। অনুষ্ঠান শেষে মেধাবী শিক্ষার্থীদের পুরস্কার প্রদান করা হয়। উল্লেখ্য, ঋশিল্পীর সহায়তায় চলতি বছরে ৪ জন প্রতিবন্ধীসহ মোট ২১৫ জন শিক্ষার্থী এসএসসি পাশ করে। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

বিএনপি চেয়ারপারসনের সাথে খুলনা জেলা বিএনপির নেতাদের সাক্ষাৎ

ডেস্ক রিপোর্ট: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার সাথে সাক্ষাৎ করেছেন খুলনা জেলা বিএনপির সভাপতি অধ্যাপক মাজিদুল ইসলাম ও সাধারণ সম্পাদক এসএম শফিকুল আলম মনা। সোমবার রাত সোয়া ১১টায় চেয়ারপারসনের গুলশান অফিসে গিয়ে নেতৃবৃন্দ তার সাথে সাক্ষাৎ করেন। আলোচনাকালে খালেদা জিয়া খুলনার রাজনৈতিক পরিস্থিতিসহ আসন্ন সিটি করপোরেশন নির্বাচন সম্পর্কে খোঁজ খবর নেন।

শফিকুল আলম মনা জানান, বিএনপি চেয়ারপারসন খালেদা জিয়া কেসিসি নির্বাচনে ঐক্যবদ্ধভাবে কাজ করে সরকারের অনিয়ম, দুর্নীতি দুঃশাসনের জবাব দেয়ার আহবান জানিয়েছেন। সিটি করপোরেশন নির্বাচনে সফল হওয়ার পর তত্ত্বাবধায়ক সরকারের অধীনে আগামী সংসদ নির্বাচন দাবিতে কঠোর ও দুর্বার গণআন্দোলন গড়ে তোলার জন্য খুলনাবাসীর প্রতি আহবান জানান।

উল্লেখ্য, কেসিসি নির্বাচনে মেয়র পদে প্রতিদ্বন্দ্বিতার জন্য মনোনয়পত্র জমা দেন এস এম শফিকুল আলম মনা। পরে দলীয় সিদ্ধান্ত মেনে নিয়ে তিনি মনোনয়নপত্র প্রত্যাহার করেন। মনাকে ঐক্যবদ্ধ নাগরিক ফোরামের ব্যানারে প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী খুলনা মহানগর বিএনপির সদ্য পদত্যাগী সাধারণ সম্পাদক মনিরুজ্জামান মনির প্রধান নির্বাচনী এজেন্ট করা হয়েছে। এরপর চেয়ারপারসনের ডাকে এ সাক্ষাৎ অনুষ্ঠিত হয়।

 

নগরঘাটা ইউপির বাজেট ঘোষণা

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: তালা উপজেলার নগরঘাটা ইউনিয়ন পরিষদের বাজেট অধিবেশন মঙ্গলবার বিকাল ৪টায় নগরঘাটা বোর্ড সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় মাঠে অনুষ্ঠিত হয়।

ইউনিয়ন পষিদের চেয়ারম্যান মহব্বত আলী সরদারের সভাপতিত্বে বাজেট অধিবেশনে প্রধান অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন, তালা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার। অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন মুক্তিযোদ্ধা ও শিক্ষক সুভাষ সরকার, অধ্যাপক ইছাক আলী, আব্দুস সবুর, নগরঘাটা ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি স.ম আক্তারুল আলম, সাধারণ সম্পাদক কামরুজ্জামান লিপু ও ইউনিয়ন পরিষদের সদস্যবৃন্দ।

বাজেট অধিবেশনে ইউপি চেয়ারম্যান সরাসরি জনগণের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন। এ সময় অগ্রাধিকার ভিত্তিতে স্থান পাওয়া কাজগুলো আগামী অর্থবছরে সম্পন্ন করা হবে বলে জানান তিনি।

অনুষ্ঠানে ২০১৩-১৪ অর্থবছরের জন্য ১ কোটি ২৪ লক্ষ টাকার সম্ভাব্য বাজেট ঘোষণা করা হয়। আলোচনা শেষে ইউনিয়নের শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান কবি নজরুল মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নিমতলা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে পুরস্কৃত করা হয়। এছাড়া ইউনিয়নের ১৪ জন মুক্তিযোদ্ধাকে সম্মাননা, ৫ জন এ+ প্রাপ্ত, ৮ম শ্রেণিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত ২ জন ও ৫ম শ্রেণিতে বৃত্তিপ্রাপ্ত ৫ জন শিক্ষার্থীকে পুরস্কৃত করা হয়।

 

দেবহাটায় নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস উপলক্ষে আলোচনা

মঙ্গলবার দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আয়োজনে বিশ্ব নিরাপদ মাতৃত্ব দিবস পালিত হয়। সকাল ৮টায় এ উপলক্ষে একটি র‌্যালী বের হয়ে বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে।

এরপর সকাল ১০টায় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের অডিটোরিয়ামে এক আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় সভাপতিত্ব করেন দেবহাটা উপজেলার স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. আকছেদুর রহমান। আলোচক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের ভারপ্রাপ্ত আবাসিক চিকিৎসক ডা. শামীমুল কবীর, দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের এনসিডি কর্ণারের চিকিৎসক ডা. বিশ্বজিৎ মন্ডল, ডা. আবুল হোসেন, ডা. রনজিৎ কুমার রায়, ডা. মাসুম মল্লিক, ডা. শুভ্র সৈকত ও দেবহাটা উপজেলা অসংক্রামক রোগ প্রতিরোধ প্রকল্পের ফিল্ড কো-অর্ডিনেটর ডা. সুব্রত ঘোষ।

আরো উপস্থিত ছিলেন দেবহাটা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের প্রধান অফিস সহকারি স্বদেশ কুমার রায়, পরিসংখ্যানবিদ আব্দুল খালেক, স্বাস্থ্য পরিদর্শক ইসমাইল হোসেন, অফিস সহকারি জাহিদুল ইসলাম, রফিকুল ইসলাম, আব্দুল আজিজ। সভায় নিরাপদ মাতৃত্ব নিশ্চিতকরণে সকলের সহযোগিতা কামনা করা হয় এবং কিভাবে মাতৃমৃত্যুর হার কমিয়ে প্রায় শূন্যের কোটায় আনা যায় তা নিয়ে আলোচনা করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

 

অভয়নগরে ট্রাক-পিকআপ সংঘর্ষে দু’জন নিহত

 

যশোর প্রতিনিধি: যশোরের অভয়নগর উপজেলার পাঁচকবর এলাকায় ট্রাক ও পিকআপ ভ্যানের মুখোমুখি সংঘর্ষে পিকআপের চালক ও হেলপার নিহত হয়েছেন। মঙ্গলবার সকাল ৮টার দিকে যশোর-খুলনা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে। নিহতদের নাম জানা যায়নি।

অভয়নগর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) কাজী আব্দুস সালেক জানান, সকালে পাঁচকবর এলাকায় খুলনাগামী একটি ট্রাক ও যশোরগামী একটি পিকআপের মুখোমুখি সংঘর্ষ হয়। এতে পিকআপের চালক ঘটনাস্থলেই মারা যান এবং অভয়নগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপে¬ক্সে নেওয়ার পথে মারা যান হেলপার। লাশ দু’টি  শনাক্ত করার চেষ্টা চলছে বলে তিনি জানান।

তালায় কমিউনিটি ক্লিনিকের সুফল পাচ্ছে মানুষ: বিদ্যমান সংকট দূরীকরণের দাবি

ইলিয়াস হোসেন, তালা (সদর): তালা উপজেলার ৩৬টি কমিউনিটি ক্লিনিকে ৩৩ জন ডাক্তারের বিপরীতে কর্মরত আছেন ১০ জন ডাক্তার। বাকী ২৩টি পদ শূন্য রয়েছে। দিনের পর দিন পদগুলো খালি থাকলেও তাতে বসার লোক নেই। বসানোর ব্যবস্থাও হচ্ছে না। ফলে ব্যাহত হচ্ছে ডিজিটাল স্বাস্থ্যসেবা। সেবা থেকে বঞ্চিত হচ্ছে এ জনপদের প্রায় কয়েক লক্ষ মানুষ।

সরেজমিনে ক্লিনিক ঘুরে এবং উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিস সূত্রে জানা গেছে, ১৯৯৮ সালে জনগণের দোর গোড়ায় স্বাস্থ্যসেবা পৌঁছে দেয়ার লক্ষ্যে তৎকালীন আওয়ামী লীগ সরকার তালা উপজেলায় ৩৬টি কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করে।

কমিউনিটি ক্লিনিকগুলো হচ্ছে. ধানদিয়া, মানিকহার, মিঠাবাড়ি, আসাননগর, যুগিপুকুরিয়া, কাশিপুর, সরুলিয়া, তৈলকুপি, জুসখোলা, মেলেকবাড়ি, মাহমুদপুর, জগদানন্দকাটি, শিরাশুনি, তেরছি, কলিয়া, কাজিডাঙ্গা, উথুলি, মাদরা, বারুইহাটি, চোমরখালি, বয়ার ডাঙ্গা, কৃষ্ণনগর, রাজাপুর, হরিহরনগর, শাহাজাতপুর, কৃষ্ণকাটি, জালালপুর, দোহার, মহান্দি, হাজরাকাটি, নলতা, মাছিয়াড়া, জেয়ালা, আটারই, ডাঙ্গানলতা ও খানপুর কমিউনিটি ক্লিনিক।

সূত্র জানায়, এসব ক্লিনিকে প্রতিদিন সকাল ৯টা থেকে বিকাল ৩টা পর্যন্ত নিরবচ্ছিন্নভাবে স্বাস্থ্যসেবা দেয়ার লক্ষ্যে নিয়োজিত রয়েছেন কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এসব ক্লিনিক থেকে সর্ব সাধারণ প্রতিনিয়ত প্রাথমিক চিকিৎসা সেবা পাচ্ছেন। রোগীদের ব্যবস্থাপত্র দেয়ার পাশাপাশি সীমিত আকারে ঔষধ ও দেয়া হচ্ছে। প্রতিটি ক্লিনিকে প্রতি দুই মাস অন্তর ২৯ প্রকার ঔষধের একটি কাটুন সরবরাহ করে সরকার। স্বাস্থ্য বিভাগের উচ্চপদস্থ কর্মকর্তারা মনে করেন, এটাই যথেষ্ট। কিন্তু মাঠ পর্যায়ের কর্মকর্তারা মনে করেন, প্রাপ্ত ঔষধ গ্রামীণ স্বাস্থ্য সেবার জন্য যথেষ্ট নয়। শিশুদের ডায়রিয়া ও আমাশয় রোগের জন্য ইতোপূর্বে ইরিথ্রমাইসিন নামক একটি সিরাপ সরবরাহ করা হতো। বর্তমানে সেটির সরবরাহ বন্ধ করে দেয়া হয়েছে। ফলে শিশু স্বাস্থ্য ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে বলে জানায় সূত্র।

সরেজমিনে দেখা গেছে, প্রতিটি কমিউনিটি ক্লিনিকে প্রতিদিন ৬০ থেকে ৮০ জন রোগী সেবা নিতে আসেন। কিন্তু কাউকে ২ দিনের বেশি ঔষধ দেয়া হয় না। প্রতিটি ক্লিনিকে সপ্তাহে কমপক্ষে একবার করে একজন ডাক্তার যেয়ে সেবা দেয়ার কথা থাকলেও মাসে একবারও তা সম্ভব হচ্ছে না।

ডাঙ্গা নলতা কমিউনিটি ক্লিনিকে কানের সমস্যা নিয়ে আসা মমতাজ বেগম বলেন, আমি এসেছি কানের সমস্যা নিয়ে। কিন্তু ডাক্তার নেই। নার্স দু’রকম ঔষধ লিখে দিয়ে বলেছেন, এতে যদি যন্ত্রণা কম না হয় তবে তালা অথবা সাতক্ষীরা যেতে হবে। ডাক্তার থাকলে হয়তো এ ভোগান্তি হতো না বলে মনে করেন মমতাজ বেগম।

চোমরখালি কমিউনিটি ক্লিনিকে কথা হয় একজন রোগীর সাথে। নাম প্রকাশ করলে ঝামেলা হতে পারে এমন আশংকা নিয়ে তিনি বলেন, আমরা গরীব মানুষ। রোগ ব্যায়রাম লেগেই আছে। যা আয় করি তা দিয়ে সংসার ঠিকমতো চলে না। ঔষধ কেনবো কোথা থেকে। ক্লিনিকে এসেছি ঔষধ নিতে। কিন্তু ডাক্তার নেই। নার্স আপা আছে। কিন্তু রোগের কথা শুনে কার কাছে ফোন করে ওষুধ লিখে দিয়েছে। রোগ সারবে কী না জানি না।

আরো কয়েকটি ক্লিনিকে গিয়ে রোগীদের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ডাক্তাররা লিখে দিয়েছেন ৩০ দিনের ঔষধ। কিন্তু সরবরাহ করেছেন ২ দিনের। বাকী ২৮ দিন কীভাবে চলবে? এ প্রশ্ন করেন তারা।

তবে অনেকেই কমিউনিটি ক্লিনিকের সুফলের কথাও বলেছেন। সরুলিয়া এলাকার সুফিয়া খাতুন ও জোহরা বেগম বলেন, ৪/৫ বছর আমরা ভালো আছি। সর্দি-কাশি যাই হোক ছুটে আসি ক্লিনিকে। কিন্তু বিগত জোট সরকারের আমলে এসব ক্লিনিকগুলোতে গরু-ছাগল ঘাস খাওয়াতাম। ক্লিনিকগুলো জোট সরকার বন্ধ করে দিয়ে আমাদের সর্বনাশ করেছিলো। বর্তমান হাসিনার সরকার যা করছে আমাদের ভালোর জন্য করছে। কোন ডাক্তার আসলো আর গেলো? তা দেখার দায়িত্ব ও সেবা আদায় করে নিতে আমরা ব্যর্থ। এ ব্যাপারে তালা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডা. এএসএম জাহিরুল হাসান জনান, তালা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ৩৩ জন্য ডাক্তারের পদ থাকলেও বর্তমান ২৩টি পদ খালি থাকায় আমাদের পক্ষে প্রতি সপ্তাহে ১ দিন কমিউনিটি ক্লিনিকে যেয়ে সেবা দেওয়ার কার্যক্রম ব্যাহত হচ্ছে।

তিনি আরো বলেন, প্রত্যন্ত অঞ্চলে অবস্থিত কমিউনিটি ক্লিনিকগুলোতে বিদুৎ সরবরাহের কাজ শুরু হয়েছে এবং যেখানে বিদ্যুৎ সরবরাহ করা সম্ভব না সেখানে সৌর বিদ্যুৎ এর ব্যবস্থা করা হচ্ছে। একই সাথে এগুলোকে ডিজিটালাইজ করার লক্ষ্যে প্রত্যেকটি ক্লিনিকে ১টি করে ল্যাপটপ সরবরাহ করছে সরকার। যাতে সার্বক্ষণিক ইন্টারনেট সংযোগ থাকবে।

তিনি বলেন, প্রতি ৬০০ জন মানুষের জন্য ১টি করে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপনের ব্যবস্থা করে সরকার। তবে দিনদিন জনসংখ্যা বৃদ্ধির কারণে যদি কোন ইউনিয়নের ৩টি ওয়ার্ডের মধ্যে স্বাস্থ্য সেবার কোন ব্যবস্থা না থাকে এবং সে এলাকার কেউ যদি ৮ শতক জমি কমিউনিটি ক্লিনিক তৈরী করার জন্য দেন তবে সে এলাকায় একটি করে কমিউনিটি ক্লিনিক স্থাপন করবে বর্তমান সরকার। বর্তমানে এমন দুটি কমিউনিটি ক্লিনিকের কাজও তালা উপজেলার মাগুরা ও ধানদিয়া ইউনিয়নে চলামান আছে।

 

কেসিসি নির্বাচন : তালুকদার আব্দুল খালেকের পক্ষে ব্যাপক গণসংযোগ

খুলনা জেলা আওয়ামী লীগ’র সভাপতি ও খুলনা জেলা পরিষদ প্রশাসক শেখ হারুনুর রশীদ এবং মহানগর আওয়ামী লীগ’র সাধারণ সম্পাদক ও ১৪ দলের সমন্বয়ক মিজানুর রহমান মিজানের নেতৃত্বে মঙ্গলবার বিকাল ৫টায় নগরীর খানজাহান আলী রোডের দু’পাশে সম্মিলিত নাগরিক কমিটি মনোনীত মেয়র প্রার্থী, আওয়ামী লীগ নেতা তালুকদার আব্দুল খালেকের পক্ষে গণসংযোগ করেন।

এসময়ে নেতৃবৃন্দ রাস্তার দু’পাশে প্রতিটি বাড়ি বাড়ি যেয়ে ব্যাপক গণসংযোগ করে তালুকদার আব্দুল খালেককে পুনরায় মেয়র নির্বাচিত করে খুলনা অসমাপ্ত উন্নয়ন সমাপ্ত করার জন্য নগরবাসীর কাছে ভোট ভিক্ষা করেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বেগম নুর আফরোজ আলী এমপি, এ্যাড. রজব আলী সরদার, শেখ আনোয়ার হোসেন, ওয়ার্কার্স পার্টির নেতা দেলোয়ার উদ্দিন দিলু, মফিদুল ইসলাম, আওয়ামী লীগ নেতা মালিক সরোয়ার উদ্দিন, এ্যাড. আনিসুর রহমান পপলু, এ্যাড. কাজী আবু শাহীন, আওয়ামী লীগ নেতা মফিদুল ইসলাম টুটুল, জাকের পার্টির গোলাম নবী মাসুম, হাফেজ মো. শামীম, মুন্সি নাহিদুজ্জামান, শফিকুর রহমান পলাশ, এ্যাড. হেমাংশু, এ্যাড. সাজ্জাদ আলী, এ্যাড. এনামুল হক, সাহা শহিদুল আলম প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি