যৌথবাহিনীর অভিযানে বিএনপি-জামায়াতের ১২ কর্মী আটক, দু’শিবির কর্মীর কারাদণ্ড


প্রকাশিত : জানুয়ারি ২, ২০১৪ ||

ডেস্ক রিপোর্ট: যৌথবাহিনীর সদস্যরা অভিযান চালিয়ে জামায়াত-বিএনপি’র ১২ কর্মী-সমর্থককে আটক করেছে। মঙ্গলবার রাত সাতটা থেকে বুধবার বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত সাতক্ষীরার বিভিন্ন উপজেলায় এ অভিযান চালানো হয়।
এদের মধ্যে দু’শিবির কর্মীকে নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগে এক বছর করে বিনাশ্রম কারাদণ্ড দিয়েছেন ভ্রাম্যমাণ আদালত।
আটককৃতরা হলেন- কালিগঞ্জ উপজেলার চালতেতলা গ্রামের হানিফ গাজীর ছেলে শিবির কর্মী মোসাফির হোসেন (২২), একই উপজেলার পশ্চিম মৌতলা গ্রামের সৈয়দ আলী মল্লিকের ছেলে আকবর আলী মল্লিক (২৫), দেবহাটা উপজেলার শুশিলগাতি গ্রামের আবুল হোসেনের ছেলে শিবির কর্মী মতিউর রহমান (২২), একই উপজেলার দাদপুর গ্রামের আকবর আলীর ছেলে শাকদুল ইসলাম (১৫), টাউন শ্রীপুর গ্রামের মুনাজাত গাজীর ছেলে হোসেন আলী (২০), ভাতশালা গ্রামের খোকন গাজীর ছেলে বিএনপি কর্মী আব্দুল্লাহ (২৬), তালা উপজেলার মহান্দি গ্রামের জামায়াত কর্মী মীর আউয়ুব আলী (৫০), তৈলকুপি গ্রামের বিএনপি কর্মী লাকি গাজী (৩৭) ও খলিষখালীর বিএনপি কর্মী নুর আলী মোড়ল (৪৫), দেবহাটা উপজেলার সখিপুরের জামায়াত কর্মী সাইফুল ইসলাম (২৭), কলারোয়া উপজেলার দেয়াড়া ইউনিয়নের বিএনপি কর্মী আজগর দফাদার (৩৫) ও শ্যামনগর উপজেলার পার্শেমারী গ্রামের বিএনপি কর্মী লিটন তরফদার (৩৫) ।
জেলা পুলিশের বিশেষ শাখার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ডিএসবি) আযম খান জানান, নাশকতা সৃষ্টির অভিযোগে মঙ্গলবার রাত থেকে গতকাল বিকেল সাড়ে ৫টা পর্যন্ত তাদেরকে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে আটক করা হয়েছে। কালিগঞ্জে আটককৃত শিবির কর্মী মোসাফির ও আকবর আলীকে এক বছরের কারাদণ্ড দিয়েছে ভ্রাম্যমাণ আদালতের বিচারক কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সৈয়দ ফারুখ আহম্মেদ। এ ছাড়া দেবহাটার সাইফুল ইসলাম পারুলিয়া বাসস্ট্যান্ডে যুবলীগ নেতা মাহামুদুর রহমান খোকনের সেন্ট্রাল ফ্যাশান পোড়ানো মামলায় জড়িত থাকার কথা পুলিশের কাছে স্বীকার করেছে।