বিজিবি’র বিশেষ ব্যবস্থাপনায় হরতাল-অবরোধেও ভোমরা স্থল বন্দরে চালু রয়েছে আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম


প্রকাশিত : জানুয়ারি ৯, ২০১৪ ||

ডেস্ক রিপোর্ট: বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের (বিজিবি) বিশেষ উদ্যোগে হরতাল ও অবরোধের মধ্যেও মঙ্গলবার থেকে সচল রাখা হয়েছে সাতক্ষীরার ভোমরা বন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম। এ জন্য বন্দর এলাকা জুড়ে বিজিবি’র টহল বাড়ানো হয়েছে।
ভোমরা সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের সাধারণ সম্পাদক অহিদুল ইসলাম জানান, বিএনপি-জামায়াতের অবরোধ ও হরতাল কর্মসূচিতে গত ২৬ অক্টোবর থেকে গত সোমবার পর্যন্ত ভোমরা বন্দরের আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম কার্যত অচল হয়ে পড়ে। এর মধ্যে পাঁচটি সরকারি ছুটিসহ আটদিন আমদানি-রপ্তানি কার্যক্রম চলেছে।
তিনি আরো জানান, ভোমরা বন্দরের অচলাবস্থা কাটাতে সোমবার দুপুর দু’টোর দিকে তাদের এসোসিয়েশনের সম্মেলনকক্ষে এক জরুরী সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় বিজিবি’র খুলনা সেক্টর কমান্ডার কর্নেল নূরুল হুদা, বিজিবি’র ৩৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক এটিএম ইমাম আহসান, ভারতের ঘোজাডাঙা সিএন্ডএফ (কার্গো) এজেন্ট এসোসিয়েশনের সভাপতি ভোলা নাথ ঘোষ, সাধারণ সম্পাদক পরিমল রায় ছাড়াও ভোমরা সিএন্ডএফ এজেন্ট এসোসিয়েশনের কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন। সভায় বিজিবি’র বিশেষ নিরাপত্তায় ভোমরা সরকারি ওয়ারহাউজে আমদানিকৃত পণ্য খালাসের সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সেক্ষেত্রে ট্রাকভর্তি আমদানিকৃত পণ্যের কোন ক্ষয়ক্ষতি সংশ্লিষ্ট ছাড়কারককে বহন করতে হবে বলে জানানো হয়। বাংলা ট্রাকে পণ্যভর্তির পর তা দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানোর জন্য বেশকিছু ট্রাক একত্রিত করে বিজিবি’র সহায়তা দেওয়ার বিষয়ে নিশ্চয়তা দেওয়া হয়। সে অনুযায়ী মঙ্গলবার এ বন্দর দিয়ে ২৬৬ ট্রাক পণ্য আমদানি হয়। একইভাবে বুধবার সকাল ১০টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত ভারতীয় ২৩৬টি ট্রাক ভোমরা বন্দরে ঢোকে। আর রপ্তানির উদ্দেশ্যে আটটি ট্রাক ঘোজাডাঙায় পাঠানো হয়। ৩০টি’র মত ট্রাক বিজিবি’র সহায়তায় দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়েছে।
তিনি আরো জানান, বিজিবি’র ৩৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল এটিএম ইমাম আহসান বুধবার দুপুর একটার দিকে তাদের এসোসিয়েশনের সম্মেলনকক্ষে ব্যবসায়ীদের সঙ্গে মতবিনিময় করেন।
সাতক্ষীরা ৩৮ বিজিবি’র অধিনায়ক লে. কর্ণেল এটিএম ইমাম আহসান জানান, দেশের অর্থনীতিকে চাঙ্গা রাখতে ভোমরা বন্দরের আমদানি ও রপ্তানি স্বাভাবিক রাখার জন্য বিজিবিকে সহায়তা করার জন্য সকলের প্রতি আহবান জানানো হয়েছে। নাশকতা সৃষ্টিকারীদের জন্য কঠোর ব্যবস্থা নেওয়ার ঘোষণা দেওয়া হয়েছে।
ভোমরা স্থল বন্দরের কাস্টমসের সহকারি কমিশনার উত্তম কুমার বিশ্বাস জানান, গতকাল ২৩৬টি ট্রাক আমদানি ও আট ট্রাক ভর্তি পণ্য রপ্তানি হয়। গত দু’দিনে বিজিবি’র সহায়তায় ৬০ ট্রাক পণ্য দেশের বিভিন্ন স্থানে পাঠানো হয়েছে