জেলা অনুর্ধ ১৮ ক্রিকেট দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের পরিচিতি সভা


প্রকাশিত : জানুয়ারি ৩০, ২০১৪ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: ইয়াং টাইগার্স অনুর্ধ ১৮ জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপে অংশগ্রহণকারী সাতক্ষীরা জেলা দলের খেলোয়াড় ও কর্মকর্তাদের এক পরিচিতি অনুষ্ঠান বুধবার সকাল সাড়ে ১০টায় পুলিশ সুপারের কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়।
অনুষ্ঠানে জেলা পুলিশ সুপার ও জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র সহ-সভাপতি চৌধুরী মঞ্জুরুল কবিরকে জেলা ক্রীড়া সংস্থা’র মনোগ্রাম সম্মিলিত ব্লেজার পরিয়ে ও ফুল দিয়ে শুভেচ্ছা জানানো হয়। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য রাখেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শেখ নিজাম উদ্দীন। এসময় উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি আশরাফুজ্জামান আশু, বদরুজ্জামান খান, জামান খান, কোষাধ্যক্ষ সাইদুর রহমান শাহিন, যুগ্ম সম্পাদক আহম্মাদ আলী সরদার, আব্দুল কাদের, ফিফা রেফারি তৈয়েব হাসান বাবু, নির্বাহী সদস্য কবির উদ্দীন আহমেদ, মমতাজুন নাহার ঝর্ণা, প্রশিক্ষক খন্দকার আরিফ হাসান প্রিন্স, প্রশিক্ষক আব্দুল গফ্ফার, শেখ মারুফুল হক, লুৎফর রহমান সৈকত, আক্তারুজ্জামান মুকুল, মীর তাজুল ইসলাম রিপন, ইদ্রীস আলী বাবু, রুহুল আমিন, মেহেদী হাসান, প্রশিক্ষক মুফাচ্ছিনুল ইসলাম তপু, ফারহা দিবা খান সাথী প্রমুখ।
সভায় জানানো হয়, সাতক্ষীরা জেলা দল আগামী ১ ফেব্র“য়ারি খুলনা জেলা দল, ৩ ফেব্র“য়ারি বাগেরহাট জেলা দল ও ৫ ফেব্র“য়ারি মাগুরা জেলা দলের সাথে যশোর স্টেডিয়ামে আজমীর হোসেন আসিফের নেতৃত্বে মুখোমুখি হবে।
অনুষ্ঠানে পুলিশ সুপার চৌধুরী মঞ্জুরুল কবির খেলোয়াড়দের উদ্দেশ্যে বলেন, সাতক্ষীরা ক্রীড়াঙ্গণে একটি সম্ভাবনাময় জেলা। দেশের ক্রীড়াঙ্গণে সাতক্ষীরার খেলোয়াড়দের বিচরণ রয়েছে। জাতীয় দলে স্থান করে নিয়েছে রবিউল ইসলাম শিবলু, সোম্য সরকারসহ অনেকে। নিয়ম শৃঙ্খলা শেখার সব চেয়ে ভালো স্থান খেলার মাঠ। খেলার মাঠে গেলে অনেক কিছু শেখা যায়। পুলিশ আর খেলোয়াড়দের মধ্যে পার্থক্য মাঠে খেলোয়াড়রা যুদ্ধ করে আর পুলিশ সন্ত্রাসীদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ করে। খেলাধূলা আর সংস্কৃতি এ দুটি বিষয়ে পিছিয়ে পড়া সমাজ ভুল পথে ধাবিত হয়। রাজনৈতিক সহিংসতার মধ্যেও সাতক্ষীরার ক্রীড়াঙ্গণকে চাঙ্গা রাখতে পারা সাতক্ষীরাবাসীর সফলতা।