জাপায় যোগ দিলেন সাতক্ষীরা জেলা এলডিপির সাধারণ সম্পাদক মামুনুর রহমান

ডেস্ক রিপোর্ট: জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেছেন সাতক্ষীরা জেলা এলডিপির সাধারণ সম্পাদক প্রভাষক এসএম মামুনুর রহমান। শনিবার বিকাল সাড়ে ৫টার দিকে অনুষ্ঠিত জেলা জাতীয় পার্টির যৌথসভায় জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন ও সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশুর হাতে ফুল দিয়ে তিনি জাতীয় পার্টিতে যোগদান করেন।
এ সময় উপস্থিত ছিলেন জেলা যুব সংহতির সাধারণ সম্পাদক আবু তাহের, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুর রশিদ, দেবহাটা উপজেলা জাতীয় পার্টির দপ্তর সম্পাদক আব্দুল গফুর, আশিকুর রহমান বাপ্পী, আকরামুল ইসলাম, আজাদ হোসেন টুটুল প্রমুখ।

নৈশ্য মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সমাবেশ

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা নৈশ্য মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে নবগঠিত ম্যানেজিং কমিটির সদস্যদের পরিচিতি, এসএসসি পরীক্ষার্থীদের বিদায় ও অভিভাবক সমাবেশ শনিবার বিকেল ৫টায় অনুষ্ঠিত হয়েছে।
ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি ও সাতক্ষীরা পৌরসভার সাবেক মেয়র শেখ আশরাফুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা পরিষদের প্রশাসক এম মুনসুর আহমেদ। অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তব্য ও মানপত্র পাঠ করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক শিখা রানী সরকার। বিশেষ অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার কিশোরী মোহন সরকার, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, সদর উপজেলা শিক্ষা অফি
;নসিার জয়নুল আবেদীন, বিদ্যালয়ের সাবেক প্রধান শিক্ষক ফজলুর রহমান শিকারী ও মুজিব হোসেন নান্নু। এসময় উপস্থিত ছিলেন সহকারী প্রধান শিক্ষক শেখ আব্দুল গফ্ফার, সহকারী শিক্ষক আবু তালেব, সাহেলা সুলতানা, রফিকুল ইসলাম বিপুসহ বিদ্যালয়ের শিক্ষক/শিক্ষিকা, অভিভাবক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ।

বিজিবি’র অভিযানে বিভিন্ন প্রকার ভারতীয় মালামাল উদ্ধার

ডেস্ক রিপোর্ট: কলারোয়া সীমান্তে বিজিবি সদস্যরা পৃথক অভিযান চালিয়ে ভারতীয় জর্জেট শাড়ি, অ্যানাগ্রা ট্যাবলেট ও বিয়ার উদ্ধার করেছে। তবে বিজিবি সদস্যরা কাউকে আটক করতে পারেনি।
উপজেলার কাকডাঙ্গা বিওপি’র নায়েব সুবেদার হূমাযুন কবীর সাংবাদিকদের জানান, তাঁর নেতৃত্বে বিজিবি সদস্যরা শনিবার বেলা ১২টার দিকে উপজেলার সীমান্তবর্তী কেঁড়াগাছি গ্রামের আমতলী নামক স্থান থেকে পাচার হয়ে আসা ভারতীয় ৭০ পিচ জর্জেট শাড়ি উদ্ধার করেন। যার আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ২০ হাজার টাকা।
অপরদিকে হিজলদি বিওপি’র নায়েব সুবেদার আব্দুর রব শনিবার সাংবাদিকদের জানান, তাঁর নেতৃত্বে বিজিবি সদস্যরা শুক্রবার রাতে উপজেলার সীমান্তবর্তী রামকৃষ্ণপুর গ্রাম থেকে ভারতীয় ২৫ বোতল বিয়ার ও ১ হাজার পিচ অ্যানাগ্রা ট্যাবলেট উদ্ধার করেন। উদ্ধারকৃত অ্যানাগ্রা ট্যাবলেট ও মাদকের আনুমানিক মূল্য ১ লাখ ৭ হাজার ৫শ’ টাকা।
এদিকে, ভোমরা বিওপি’র নায়েব সুবেদার হোসেনের নেতৃত্বে বিজিবি সদস্যরা শুক্রবার দিবাগত রাত দেড়টায় দাস পাড়া মাঠ থেকে ভারতীয় ৩ হাজার পিচ অ্যানাগ্রা ট্যাবলেট আটক করেছে। যার মূল্য এক লাখ ১০ হাজার টাকা।
অপরদিকে পদ্ম শাখরা বিওপি’র নায়েব সুবেদার হুমায়ুন কবিরের নেতৃত্বে বিজিবি সদস্যরা শুক্রবার দিবাগত রাতে চৌবাড়িয়া পাকা রাস্তার উপর থেকে ৬শ কেজি ভারতীয় ইউরিয়া সার আটক করে। যার মূল্য ৭ হাজার ৫শ টাকা।

আশাশুনি প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে অভিযোগ অস্বীকার করেছেন মমতাজ গাজী

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনি প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করে নিজের বিরুদ্ধে শ্রমিকদের অভিযোগ প্রত্যাখ্যান করেছেন প্রতাপনগর ইউনিয়নের কল্যাণপুর গ্রামের মৃত হাজী বাল্লক গাজীর ছেলে মমতাজ ওরফে মনতেজ গাজী।
সংবাদ সম্মেলনে লিখিত বক্তব্য ও সাংবাদিকদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন, কল্যাণপুর মৌজায় তার ৪০ বিঘা জমিসহ এলাকার অনেকের জমি লীজ নিয়ে জনৈক খলিলুর রহমান বাবু দীর্ঘ ১৮/২০ বৎসর ঘের করে আসছেন। ডিডের মেয়াদ শেষ হয়ে যাওয়ার পর জমির মালিকরা নিজেদের জমিতে নিজেরাই মৎস্য চাষ করার উদ্যোগ নেন।
তিনি আরও বলেন, আমি আমার ৪০ বিঘা জমি বিঘাপ্রতি ৮ হাজার টাকা হারে আমার ভাই ও ভাইপো কওছার আলি গাজী, রশিদ গাজী ও তৌহিদুল গাজীকে মৌখিকভাবে মৎস্য চাষ করার অনুমতি দিয়েছি। জমিতে তারা কিভাবে বাঁধ দিচ্ছে, কাদের শ্রমিক নিয়োগ করেছে, কোথা থেকে টাকা দিয়েছে এসব আমার জানা নেই এবং জানার প্রয়োজনও নেই। কিন্তু স্থানীয় কয়েকটি পত্রিকায় ৩১ জানুয়ারিসহ অন্যান্য তারিখে আমাকে জড়িয়ে জন-মজুরদের টাকা না দেয়াসহ বিভিন্ন মিথ্যা অভিযোগ এনে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণ মিথ্যা ও উদ্দেশ্যমূলক। আমি পত্রিকায় প্রকাশিত জনৈক রফিকুল, সিরাজুল বা অন্য কারো সাথে জমি সংক্রান্ত বা পত্রিকায় প্রকাশিত অভিযোগ সম্পর্কে কোন কথা বলিনি বা কেউ আমার কাছে এসব নিয়ে যোগাযোগও করেনি। আমার জমিতে মৎস্য চাষ করার দায়-দায়িত্ব কওছার, রশিদ ও তৌহিদ গাজীদের।

কলারোয়া ও আশাশুনিতে গ্রেপ্তার ১০

কলারোয়া/আশাশুনি প্রতিনিধি: কলারোয়া থানা পুলিশ অভিযান চালিয়ে ওয়ারেন্টভুক্ত ৪ আসামিকে গ্রেপ্তার করেছে।
থানা সূত্র জানায়, শনিবার ভোররাতে কলারোয়া থানার এসআই হারাধন কুন্ডু ও জাহাঙ্গীরের নেতৃত্বে পুলিশ খুলনা খালিশপুর থানার মামলার (নং-১৪, তাং-১২/৫/১০ইং) ওয়ারেন্টভুক্ত পলাতক আসামি কলারোয়া উপজেলার ভাদিয়ালী গ্রামের মৃত হারিবুল্যাহ সরদারের পুত্র আজগর আলী সরদার (৬০), তার স্ত্রী নুরিমা বেগম (৫০), তাদের পুত্র আনিছুর রহমান (৩৫) ও পুত্রবধু ফাইমা বেগম (৩০) কে গ্রেপ্তার করে।
এদিকে, আশাশুনিতে পুলিশের অভিযানে গ্রেপ্তারী পরোয়ানার ৬ পলাতক আসামি গ্রেপ্তার হয়েছে।
পুলিশ জানায়, শুক্রবার রাতে উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় সহাকরী পুলিশ সুপার (কালিগঞ্জ সার্কেল) মীর মনির হোসেনের নেতৃত্বে আশাশুনি থানার অফিসার ইনচার্জ তরিকুল ইসলাম, এসআই আকরাম হোসেন, এএসআই হুমায়ুন কবির ও এএসআই ইমদাদ হোসেন সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে অভিযান চালিয়ে উপজেলার আনুলিয়া ইউনিয়নের জিআর ১৭২/০৯নং মামলার আসামি রাজাপুর গ্রামের উজির গাজীর পুত্র আব্দুস সামাদ ওরফে বোমারু সামাদ, জিআর ১০৪/০৯নং মামলার আসামি একই গ্রামের বাবর আলী মোড়লের পুত্র নজরুল, রেজাউল ইসলামের পুত্র শাহিনুর, জিআর ১৭০/১১নং মামলার আসামি উত্তর একসরা গ্রামের মৃত সানা উল্লাহর পুত্র আনছার আলী, আনছার আলীর পুত্র আনিছ আলী ও আকবর আলীর পুত্র আলাউদ্দিনকে গ্রেপ্তার করেন। শনিবার আসামিদের কোর্ট হাজতে প্রেরণ করা হয়।

শ্যামনগরে মটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের হোতা রাশেদুল আটক

শ্যামনগর অফিস: শ্যামনগরে মটরসাইকেল চোর সিন্ডিকেটের হোতা রাশেদুলকে আটক করেছে পুলিশ। সে বংশিপুর গ্রামের রুস্তম আলীর ছেলে। এসময় তার কাছ থেকে মটরসাইকেলের বেশ কয়েকটি চাবি উদ্ধার করা হয়েছে।
পুলিশ জানায়, রাশেদুল কয়েকটি মামলার ওয়ারেন্টভুক্ত আসামি। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে শ্যামনগর থানার এসআই লিয়াকত হোসেন শনিবার সন্ধ্যা ৬ টায় শ্যামনগর বাজার থেকে তাকে আটক করে। তার কাছে মটরসাইকেলের ১১টি চাবি পাওয়া গেছে।

পাটকেলঘাটায় ১৬ দলীয় ব্যাডমিন্টন টুর্নামেন্টে তালা চ্যাম্পিয়ন

পাটকেলঘাটা প্রতিনিধি: পাটকেলঘাটা বন্ধু সংঘ আয়োজিত ১৬ দলীয় ব্যাডমিন্টন প্রতিযোগিতায় তালা উপজেলা সদরের হাবিব-তরিকুল জুটি চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। রানার আপ হয়েছে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিয়াউর রহমান-সেলিম জুটি। টুর্নামেন্টের ১ম সেমি-ফাইনালে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি ২-১ সেটে তালার আরিফ-ফরহাদ জুটি হারিয়ে ফাইনালে উত্তীর্ণ হয়। অপর সেমি-ফাইনালে মিঠাবাড়ীর খলিলুর-মনির জুটিকে ২-০ সেটে পরাজিত করে তালা সদর ফাইনালে সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির সাথে খেলার যোগ্যতা অর্জন করেন। ফাইনাল খেলায় সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতি জুটিকে ২-০ সেটে পরাজিত করে তালা সদর জুটি চ্যাম্পিয়ন হওয়ার কৃতিত্ব অর্জন করেন। এছাড়া তৃতীয় নির্ধারণী ম্যাচে তালার ব্রেকহাম-ফরহাদ জুটি ২-০ সেটে মিঠাবাড়ি জুটিকে পরাজিত করে। ম্যান অব দ্যা সিরিজের পুরস্কার অর্জন করেন সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির জিয়াউর রহমান। স্বচ্ছ খেলা উপহার ও ভদ্র দলের পুরস্কার দেওয়া হয় মিটাবাড়ির খলিলুর-মনির জুটিকে।
খেলা শেষে পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, পাটকেলঘাটার ব্যবসায়ী অমিত কুমার সাধু, পাটকেলঘাটা প্রেসক্লাবের সাংগঠনিক সম্পাদক খান হামিদুল ইসলাম, অর্থ সম্পাদক সৈয়দ মাসুদ রানা, সাংবাদিক শাহিনুর রহমান, নজরুল ইসলাম রাজু, ইয়াছীন আলী সরদার, রিপর হোসাইন, সাতক্ষীরা পল্লী বিদ্যুৎ সমিতির এজিএম (জিএস) নিরাপদ দাস, এমএস মিজানুর রহমান, এজিএম (নিপর) আব্দুস সালাম, শিক্ষক প্রবীর সরকার, প্রভাষক আশরাফ আলী, মাস্টার সঞ্জয় দেবনাথ, কাজী রোকনুজ্জামান। খেলায় আম্পিয়ারের দায়িত্ব পালন করেন বন্ধু সংঘের মোস্তফাজ্জামান টুটুল। টুর্নামেন্ট পরিচালনা করেন, আমিনুর ইসলাম শুভ, মামুনুর রহমান মামুন, উজ্বল, বাচ্চু, সাইমুন, সুকান্ত মল্লিক, রুবেল প্রিন্স, সোহেল হোসেন প্রমুখ।

ধানদিয়ায় সম্ভাব্য উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী বিশ্বজিৎ সাধুর মতবিনিময়

মুুজিবুর রহমান, পাটকেলঘাটা: জেলা কৃষকলীগের সভাপতি ও আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের সম্ভাব্য চেয়ারম্যান প্রার্থী বিশ্বজিৎ সাধু শনিবার বিকাল ৪টায় ধানদিয়া ইউনিয়নের সেনেরগাঁতী বাজারে দলীয় নেতা-কর্মী, সমর্থকদের সাথে মতবিনিময় করেছেন। এ সময় তিনি আসন্ন উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে সকলের দোয়া ও সহযোগিতা কামনা করেন।
তার সাথে ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ডা. শহিদুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক মাস্টার শহিদুল ইসলামসহ আওয়ামী লীগ, কৃষকলীগ, ছাত্রলীগসহ অন্যান্য সহযোগী সংগঠনের নেতা-কর্মীরা উপস্থিত ছিলেন।

জাতীয় পার্টির যৌথসভায় আশরাফুজ্জামান আশুকে সদর উপজেলা নির্বাচনে চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা

আব্দুর রহিম: শনিবার দুপুর ১২টায় জেলা জাতীয় পার্টি ও সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির যৌথসভায় সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে আশরাফুজ্জামান আশুকে চেয়ারম্যান পদে প্রার্থী ঘোষণা করেছে দলটি।
সভায় সভাপতিত্ব করেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন। বক্তব্য রাখেন জেলা জাতীয় পার্টির সহ-সভাপতি শেখ নুরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশু, যুগ্ম সম্পাদক খালিদুর রহমান, দপ্তর সম্পাদক কাজী আবু তাহের, সদর উপজেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আনোয়ার জাহিদ তপন, পৌর জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক শেখ আবু সাদেক, জেলা যুব সংহতির সভাপতি শেখ শাখাওতুল করিম পিটুল, পৌর ছাত্র সমাজের সভাপতি বদরুজ্জামান বদু, কালিগঞ্জ উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মাহবুবুর রহমান, তালা উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি চেয়ারম্যান নজরুল ইসলাম, সাধারণ সম্পাদক এসএম আলাউদ্দীন, দেবহাটা উপজেলা জাতীয় পার্টির যুগ্ম সম্পাদক আনোয়ার হোসেন আনু, কলারোয়া উপজেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি মুনসুর আলী, ১৪নং ফিংড়ী ইউনিয়ন সভাপতি হুমাউন কবির, ১নং বাশদহ ইউনিয়ন সভাপতি সুলতান আহমেদ, অধ্যাপক মামুনুর রহমান।
সভায় সকলের মতামতের ভিত্তিতে সদর উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান প্রার্থী হিসাবে জেলা জাতীয় পার্টির সাধারণ সম্পাদক আশরাফুজ্জামান আশুর নাম ঘোষণা করেন জেলা জাতীয় পার্টির সভাপতি শেখ আজহার হোসেন।
এ সময় উপজেলা জাতীয় পার্টি ও ইউনিয়ন পর্যায়ের নেতা-কর্মীরা হাত তুলে তাকে সমর্থন জানান।

শ্রীউলায় উপজেলা চেয়ারম্যান প্রার্থী এবিএম মোস্তাকিমের নির্বাচনী পথসভা

আহসান হাবিব, আশাশুনি: আশাশুনি উপজেলা পরিষদের অনুষ্ঠিতব্য নির্বাচনে চেয়ারম্যান পদপ্রার্থী এবিএম মোস্তাকিম শনিবার শ্রীউলা ইউনিয়নে গণসংযোগ শেষে নাকতাড়া কালিবাড়ী বাজারে এক নির্বাচনী পথসভায় মিলিত হন।
পথসভায় সভাপতিত্ব করেন, শ্রীউলা ইউপি চেয়ারম্যান আবু হেনা সাকিল। ইউপি সদস্য ইয়াছিন আলীর উপস্থাপনায় পথসভায় প্রধান অতিথি এবিএম মোস্তাকিম বলেন, আশাশুনি উপজেলাকে সাম্প্রদায়িক সম্প্রীতির দূর্গ গড়ে তুলতে চাই। এছাড়া তিনি আশাশুনি উপজেলার উন্নয়নে বিভিন্ন এলাকায় অসমাপ্ত কাজ বর্তমান সরকারের সর্বাঙ্গীন সহযোগিতান্তে সমাপ্ত করতে চাই।
অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন, আশাশুনি উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোল্যা রফিকুল ইসলাম, কৃষকলীগের সভাপতি স ম সেলিম রেজা, কুল্যা ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি ইয়াহিয়া ইকবাল, দরগাহপুর ইউনিয়ন আ.লীগের সভাপতি জিএম আক্তারুজ্জামান, বড়দল ইউনিয়ন আ.লীগের সেক্রেটারি আব্দুর রহমান ফকির, সাবেক ছাত্রলীগ সভাপতি মহিতুর রহমান সহ স্থানীয় সর্বস্তরের জনগণ।

এমপি রবির সাথে পাবলিক লাইব্রেরির নেতৃবৃন্দের মতবিনিময়

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরি অত্যন্ত পুরাতন ও ঐতিহ্যবাহী জ্ঞানচর্চার একটি প্রতিষ্ঠান। জেলার জ্ঞানপিপাসু মানুষের জ্ঞানচর্চার জন্য এ প্রতিষ্ঠানকে আরো সুন্দর ও সুশ্রী করতে হবে। আমাদের বর্তমান যুব সমাজ ধ্বংসের দিকে ধাবিত হচ্ছে। মাদকের হাত থেকে যুব সমাজকে বাঁচাতে হলে কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির মতো জ্ঞানচর্চার স্থান গড়ে তুলে যুবকদের মাদক থেকে ফিরিয়ে আনতে হবে।
শনিবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির নেতৃবৃন্দের সাথে মতবিনিময়কালে নবনির্বাচিত সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি এসব কথা বলেন।
কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির সিনিয়র সহ-সভাপতি মোজাম্মেল হকের সভাপতিত্বে সভায় আরো বক্তব্য রাখেন, পৌর আওয়ামী লীগের সভাপতি ও রেডক্রিসেন্ট সোসাইটির সেক্রেটারি শেখ নুরুল হক, সহ-সভাপতি শেখ আবুল কাশেম, যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল হক, অর্থ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্বল, সদস্য রেজাউল ইসলাম, মারুফা আক্তার স্বপ্না, রফিকুল ইসলাম প্রমুখ।

জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগে বাস্তুচ্যুতদের সুরক্ষায় জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নের দাবিতে মানববন্ধন

প্রাকৃতিক দুর্যোগের সবচেয়ে বেশি ঝুকিপূর্ণ দেশ বাংলাদেশ। এ দেশের মানুষ প্রতিনিয়ত ঘূর্ণিঝড়, বন্যা, খরাসহ বিভিন্ন প্রাকৃতিক দুর্যোগ মোকাবেলা করে টিকে থাকে। উন্নত বিশ্বের ভোগবিলাসিতার জন্য বিশ্ব প্রতিনিয়ত উষ্ণ হচ্ছে, সাগরের পানির উচ্চতা সমভূমির চেয়ে বেড়ে যাচ্ছে। এর ফলে দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে বাংলাদেশসহ দরিদ্র এবং ঝুঁকিতে থাকা দেশের মানুষের। এসব দেশের মানুষ দুর্যোগের কবলে পড়ে প্রতিনিয়ত জীবনহানি, সম্পদের ক্ষয়ক্ষতির শিকার হয়ে বাস্তুুচ্যুত হচ্ছে। হারিয়ে যাচ্ছে বাংলাদেশসহ দরিদ্র দেশসমূহের কৃষি জমি। সংকটে পড়ছে তাদের খাদ্যের সংস্থান। বাস্তুুচ্যুত হওয়ার ফলে এসব মানুষের জীবন মারাত্মক ঝুঁকিতে পড়ছে। তারা খাদ্য, বাসস্থানসহ কোন কিছু আর ঠিকমতো গ্রহণ করতে পারছে না। এজন্য এখনই বাস্তুুচ্যুত এসব মানুষকে রক্ষায় রাষ্ট্রীয়ভাবে জাতীয় নীতিমালা প্রণয়ন করতে হবে।
শনিবার সকাল ১১টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সামনে জলবায়ু পরিবর্তনজনিত দুর্যোগে বাস্তুচ্যুতদের সুরক্ষায় জাতীয় নীতিমালা প্রণয়নের দাবিতে রাষ্ট্রীয় নীতি নির্ধারকদের প্রতি আহবান জানিয়ে নেটওয়ার্ক অন ক্লাইমেট চেঞ্জ ইন বাংলাদেশ-এনসিসিবি’র উদ্যোগে পালিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তারা এসব কথা বলেন।
জেলা জলবায়ু এডভোকেসি ফোরামের সভাপতি ফারুক রহমানের সভাপতিত্বে নেটওয়ার্ক অন ক্লাইমেট চেঞ্জ ইন বাংলাদেশ-এনসিসিবি আয়োজিত মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি ও দৈনিক পত্রদূতের ভারপ্রাপ্ত সম্পাদক আবুল কালাম আজাদ, বর্তমান সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জল, আইনজীবী শেখ আজাদ হোসেন বেলাল, সাংবাদিক ও সমাজকর্মী অধ্যাপক আনিসুর রহিম, রাজনৈতিককর্মী নিত্যানন্দ সরকার, সাংবাদিক ও মানবাধিকার কর্মী অসীম বরণ চক্রবর্তী, জেলা মহিলা পরিষদের সাধারণ সম্পাদক জ্যোসনা দত্ত, জেলা জলবায়ু এডভোকেসি ফোরামের সদস্য ইউপি সদস্য রিয়াজুল ইসলাম প্রমুখ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন সাংবাদিক আবদুল বারি, উন্নয়নকর্মী, অপরেশ পাল, আবু জাফর সিদ্দিকী, শ্যামল কুমার বিশ্বাস, লুইস রানা গাইন, শিশু ফোরামের মাসুম প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের মানববন্ধন

সারাদেশে সহিংসতা, মুক্তিযোদ্ধা হত্যা, মুক্তিযোদ্ধাদের উপর হামলা, ভিন্ন ধর্মাবলম্বীদের উপর নির্যাতনকারীদের গ্রেপ্তার ও বিচারের দাবিতে সাতক্ষীরা জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ড শনিবার সকালে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছে।
জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সভাপতি বিজয় ঘোষের সভাপতিত্বে মানববন্ধন কর্মসূচিতে প্রধান অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা-২ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহম্মেদ রবি। বক্তব্য রাখেন জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার এনামুল হক বিশ্বাস, মুক্তিযোদ্ধা মোস্তফা নূরুল আলম, মিজানুর রহমান, আঃ গফফার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সন্তান কমান্ডের সহ-সভাপতি লায়লা পারভিন সেজুতি প্রমুখ। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন মুক্তিযোদ্ধা আব্দুর রশিদ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

হাওয়ালখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি: সাতক্ষীরা সদর উপজেলার হাওয়ালখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষাক গোলাম সরোয়ার ও বিগত স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি’র বিরুদ্ধে আর্থিক অনিয়মের অভিযোগ পাওয়া গেছে। তাদের বিরুদ্ধে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের দাবি জানিয়ে ৮ জানুয়ারি জেলা প্রশাসকের নিকট আবেদন করেছেন এলকাবাসী। জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছাদুজ্জামানকে তদন্ত পূর্বক ব্যবস্থা গ্রহণের নির্দেশ দিয়েছেন।
অভিযোগে বলা হয়েছে, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বাঁশদাহ ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের হাওয়ালখালী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষাক গোলাম সরোয়ার ও বিগত স্কুল পরিচালনা কমিটির সভাপতি আনারুল ইসলাম নিজেদের মধ্যে সখ্যতা বজায় রেখে দীর্ঘদিন ধরে স্কুলে বিভিন্ন প্রকার অনিয়ম ও দুর্নীতি করে আসছে। ২০১১ সালের ২৮ ফেব্র“য়ারি স্কুল চত্বরে থাকা ৫টি মেহগনি গাছ ও ১টি বকুল গাছ কোন নিয়ম না মেনে গোপনে বিক্রয় করে ৮৪ হাজার টাকা আত্মসাৎ করেছেন। কাওনডাঙ্গা গ্রামের রেফাজউদ্দীনের কাছ থেকে ১১ হাজার ১শ টাকায় একটি জাম গাছ বিক্রয় করে জোর পূর্বক আদায় করে। এছাড়া দীর্ঘ ১০ বছর স্কুল প্রাঙ্গণে থাকা একটি পুকুর কাওনডাঙ্গা গ্রামের আকবর ঢালীর ছেলে বাবলু ঢালীর নিকট লিজ দিয়ে বছরে ১ হাজার ৩শ টাকা করে মোট ১৩ হাজার আত্মসাৎ করেন।
এছাড়া বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীদের অভিভাবকদের কাছ থেকে উপবৃত্তি দেয়ার নাম করে জনপ্রতি ২০ টাকা হারে আদায় করে ৬৪ হাজার ৮শ টাকা আত্মসাৎ করেছেন।
অভিযোগে আরও বলা হয়েছে, গত বছরের ২৭ মে স্কুল পরিচালনা কমিটির নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে বিপুল ভোটে খোরশেদ আলম রিপনের প্যানেল নির্বাচিত হয়। তবে, প্রধান শিক্ষক পূর্ণাঙ্গ কমিটি ঘোষণা না করে বিগত কমিটি দিয়ে স্কুলে সমস্ত কার্যক্রম পরিচালনা করে আসছেন।
এ বিষয়ে বিদ্যালয়ের ভারপ্রাপ্ত প্রধান শিক্ষাক গোলাম সরোয়ার গাছ কর্তনে কারো অনুমতি নেয়া হয়নি উল্লেখ করে বলেন, গাছ বিক্রির টাকা স্কুলের বিভিন্ন কাজে ব্যয় করা হয়েছে। এছাড়া বাকি টাকা জমা আছে।
তবে, এ বিষয়ে সাতক্ষীরা জেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার ও সদর উপজেলা শিক্ষা অফিসার অবহিত নয় বলে জানান।
সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আছাদুজ্জামান জানান, জেলা প্রশাসকের একটি নির্দেশ পেয়েছি। বিষয়টি তদন্ত করতে সাতক্ষীরা সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) কে নিদের্শ দেয়া হয়েছে। দুর্নীতি প্রমাণ হলে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

উদ্ধার হওয়া কচ্ছপগুলো পৌর দীঘিতে অবমুক্ত

শেখ তানজির আহমেদ: প্রায় ২’শ কেজি জীবিত কচ্ছপ উদ্ধার করেছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশের সদস্যরা। শনিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে সাতক্ষীরা-খুলনা মহাসড়কের বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সাতক্ষীরা ৩৮ ব্যাটালিয়ন সদর দপ্তরের সামনে থেকে খুলনাগামী যাত্রীবাহী বাস তল্লাশি করে দুটি বস্তাতে বন্দি অবস্থায় কচ্ছগগুলো উদ্ধার করা হয়। তবে, এ সময় কচ্ছপগুলোর মালিককে সনাক্ত করা সম্ভব হয়নি।
বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সাতক্ষীরা ৩৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমাম আহসান ঘটনাটি নিশ্চিত করেছেন।
এদিকে, উদ্ধার হওয়া কচ্ছপগুলো মিষ্টি পানির হওয়ায় বনবিভাগের মাধ্যমে সাতক্ষীরা পৌর দীঘিতে অবমুক্ত করেছে বিজিবি। এ সময় উপস্থিত ছিলেন বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ সাতক্ষীরা ৩৮ ব্যাটালিয়নের অধিনায়ক লে. কর্নেল ইমাম আহসান, সাতক্ষীরা পৌর মেয়র এমএ জলিল, বনবিভাগের রেঞ্জার জহুর আহমেদ, সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবের সাবেক সভাপতি আবুল কালাম আজাদ, প্রেসক্লাবের সাধারণ সম্পাদক মোস্তাফিজুর রহমান উজ্জ্ল, সাংবাদিক এম কামরুজ্জামান প্রমুখ।
এদিকে, কচ্ছপগুলো অবমুক্তকরণের পর এক শ্রেণির মানুষকে সেগুলো ধরতে অপচেষ্টা করতে দেখা গেছে। অনেকে ধরেছেও।