পাইকগাছা পৌরসভার সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসীদের হামলায় মেয়র-কাউন্সিলর ও ৩ পুলিশ কনস্টেবল আহত


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ৮, ২০১৪ ||

পাইকগাছা (খুলনা) প্রতিনিধি: খুলনার পাইকগাছা পৌরসভার ১৭তম প্রতিষ্ঠা বার্ষিকি উপলেক্ষ্য বৃহস্পতিবার রাতের সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানে সন্ত্রাসীদের হামলায় পৌর মেয়র-কাউন্সিলর ও ৩ পুলিশ কনস্টেবল গুরুতর আহত হয়েছে। কনস্টেবল মুনায়েম হোসেনকে উন্নত চিকিৎসার জন্য খুলনা পুলিশ বিভাগীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাস্থল থেকে পুলিশ বাদশা ও রাকিবুল ইসলাম নামে সন্ত্রাসীকে আটক করেছে।
পুলিশ জানায়, পাইকগাছা পৌরসভার ১৭তম প্রতিষ্ঠাবার্ষিকী উপলক্ষ্যে বৃহষ্পতিবার রাত ১১টায় সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান চলাকালে ভিলেজ পাইকগাছার আব্দুর রাজ্জাকের পুত্র বাদশা ও উপজেলা ইঞ্জিনিয়ার অফিসের জুনিয়র হিসাব রক্ষক নিছার আলীর পুত্র রাকিবুলের নেতৃত্বে ১৫/২০ সন্ত্রাসী যুবক বিশৃঙ্খলার সৃষ্টি করলে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণের চেষ্টা করে। এ সময় সন্ত্রাসীরা পুলিশের উপর দেশীয় অস্ত্র-সস্ত্র নিয়ে হামলা চালায়। এ সময় পুলিশ কনস্টেবল মুনায়েম হোসেন, কিবরিয়া, মোঃ রয়েল রক্তাক্ত জখম হয়। পরিস্থিতি জটিল আকার ধারণ করলে পৌর মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর ও ৭নং ওয়ার্ড কাউন্সিলর শেখ মাহবুবর রহমান রঞ্জু ঘটনাস্থল গিয়ে পরিস্থিতি শান্ত করার চেষ্টা করলে এ সময় সন্ত্রাসীদের হামলায় তারাও আহত হয় বলে মেয়র সেলিম জাহাঙ্গীর জানিয়েছে। এ ব্যাপারে থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা এম. মসিউর রহমান জানান, বাদশা সন্ত্রাসী কর্মকান্ড জড়িত থাকার অভিযোগে পাইকগাছা কলেজ থেকে তাকে স্থায়ীভাবে ২০১২ সালে বহিস্কার করে কলেজ কর্তৃপক্ষ। এছাড়া অতি সম্প্রতি ফসিয়ার রহমান মহিলা কলেজের মেধাবী ছাত্রীকে উত্ত্যক্ত করায় সে ছাত্রীর লেখাপড়া বন্ধ হয়ে গেছে বলে তার বিরুদ্ধে এলাকা থেকে অভিযোগ এসেছে। মেয়র, পুলিশ ও কাউন্সিলর আহত করা ও সন্ত্রাসী কর্মকান্ডের অভিযোগে থানায় দু’জনের নাম উল্লেখসহ ১২জনের বিরুদ্ধে পাইকগাছা থানায় ০৭/১৪নং মামলা হয়েছে।