শ্যামনগরে চেয়ারম্যানে জামায়াত, ভাইস চেয়ারম্যানে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থীদের জয়

সামিউল মনির/শাহাজান হোসেন: সাতক্ষীরার শ্যামনগর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে জামায়াত নেতা মাওলানা আব্দুল বারী (দোয়াত কলম) ৬৯১৭১ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী ও উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক জিএম আনিছুজ্জামান আনিচ (আনারস) পেয়েছেন ৩১৬১৭ ভোট।
এদিকে, ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেতা মহসীন-উল মুলক (উড়োজাহাজ) ৭০০৭৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার একমাত্র প্রতিদ্বন্দ্বী জেলা যুবলীগের সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুস সাত্তার (তালা) পেয়েছেন ৪৬৯৪৯ ভোট।
এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি সমর্থিত প্রার্থী নুরজাহান আক্তার ঝরনা (ফুটবল) ৬৭২৪৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। তার নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বী আওয়ামী লীগ সমর্থিত ডলি আইয়ুব (রাজহাঁস) পেয়েছেন ৩৩৬১৬ ভোট।
বৃহস্পতিবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোটগ্রহণ করে গণনা শেষে রাত সোয়া ১২টায় বেসরকারিভাবে এ ফলাফল ঘোষণা করেন উপজেলা নির্বাচনের সহকারী রিটার্নিং অফিসার ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার তবিবুর রহমান।
ঘোষিত ফলাফল অনুযায়ী চেয়ারম্যান পদের অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী ও গাবুরা ইউনিয়নের প্রাক্তন চেয়ারম্যান জিএম সফিউল আযম লেনিন (চিংড়ি) ১৮৭৩৫ ভোট এবং ইসলামী আন্দোলনের নেতা মাওলানা আবু বক্কার সিদ্দিক (কাপ পিরিচ) ৩৭৭২ ভোট পেছেয়েন।
মহিলা চেয়ারম্যান পদের অন্যান্য প্রার্থীদের মধ্যে জাপা (এ) সমর্থিত পাপিয়া হক (কলস) ১৩৩৭৭ ভোট ও নুরজাহান আক্তার (প্রজাপতি) ২৩৬৬ ভোট পেয়েছেন।
শ্যামনগর উপজেলা নির্বাচনে ৮৬টি ভোট কেন্দ্রে ২ লাখ ২২ হাজার ৩শ ৮ জন ভোটারের মধ্যে ১ লক্ষ ২৭ হাজার ৩৬০ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। এর মধ্যে ১০ হাজার ৭৫৪ টি ভোট নষ্ট হয়।
যা মোট ভোটারের ৫৭.২৮ শতাংশ।

সাতক্ষীরা পৌরসভা: ৮নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনে প্রার্থীদের গণসংযোগ

নিজস্ব প্রতিনিধি: আগামী ১ মার্চ অনুষ্ঠিতব্য সাতক্ষীরা ৮নং ওয়ার্ডের উপ-নির্বাচনের কাউন্সিলর প্রার্থীরা শেষ সময়ের প্রচার-প্রচারণায় ব্যস্ত সময় অতিবাতি করেছেন।
গত বুধবার সন্ধ্যায় শফিকুল ইসলাম বাবু ফুটবল প্রতীক নিয়ে ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন। তিনি ৮নং ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় লিফলেট বিতরণসহ ভোটারদের দোয়া কামনা করেন। এ সময় তার সাথে ৮নং ওয়ার্ডের গণ্যমান্য ব্যক্তিরা উপস্থিত ছিলেন।
এদিকে, একইদিন সন্ধ্যায় আব্দুল আনিছ খান চৌধুরী বকুল মোরগ প্রতীক নিয়ে ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় ব্যাপক গণসংযোগ করেছেন। এ সময় উপস্থিত ছিলেন, কামলানগর জাগরণ সংঘের উপদেষ্টা আব্দুল মাজেদ খান, সভাপতি কামরুল ইসলাম, বিশিষ্ট ব্যবসায়ী শাহ মো. সাইফুল ইসলাম, আব্দুল গাজী, আব্দুস সবুর, আলম, লুৎফুর গাজী, মো. হোসেন, টগর, সাগরসহ ওয়ার্ডের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ।

শ্যামনগরে শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণ

শ্যামনগর প্রতিনিধি: সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে শ্যামনগরে উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের ভোট গ্রহণ সম্পন্ন হয়েছে। দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া চতুর্থ উপজেলা পরিষদ নির্বাচনের দ্বিতীয় দফায় ভোটাররা নির্বিঘেœ ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। প্রশাসনের পাশাপাশি আইনশৃঙ্খলা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত সদস্যদের সতর্কাবস্থার কারণে উপজেলার কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি।
বৃহস্পতিবার সকাল থেকে উপজেলা কেজি স্কুল, নকিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়, নকিপুর পাইলট মাধ্যমিক বিদ্যালয় ও নাগবাটি এবং জয়নগর, বুড়িগোয়ালীনি ফরেস্ট মাধ্যমিক বিদ্যালয়, ভেটখালীসহ বিভিন্ন কেন্দ্র ঘুরে কয়েকটি স্থানে ভোটারদের দীর্ঘ লাইন দেখা যায়। তবে অধিকাংশ কেন্দ্রে বিগত উপজেলা নির্বাচনের বিচারে ভোটার উপস্থিতি তুলনামূলক কম হলেও উপজেলার কোন কেন্দ্রের কোথাও কোন পক্ষকে ভোটারদের প্রভাবিত করার চেষ্টায় তৎপর থাকতে দেখা যায়নি। নির্বিঘেœই তারা নিজস্ব ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছে। প্রার্থীরাও জোরেশোরে কোথাও অপ্রীতিকর পরিস্থিতির সৃষ্টি হয়েছে বলে অভিযোগ তোলেননি।
কোন কোন কেন্দ্রে পঞ্চাশ শতাংশ ভোট পড়লেও কোথাও আবার ৬৫ শতাংশের বেশী ভোট পড়তে দেখা গেছে। বিশেষ করে গাবুরার চাঁদনীমুখা কেন্দ্রে প্রায় পয়ষট্টি শতাংশ ভোট পড়ে। আবার বুড়িগোয়ালীনি ফরেস্ট ম্যাধ্যমিক বিদ্যালয় কেন্দ্রে ভোট পড়ে পঞ্চাশ শতাংশ।
উপজেলার মোট ১২টি ইউনিয়নের ৮৬টি কেন্দ্রে একযোগে ভোট করা হয়। এ উপলক্ষে আগের দিন থেকে গোটা উপজেলাকে নিরাপত্তার চাদরে ঢেকে দেওয়া হয়। বুধবার দুপুরের পর থেকে ভ্রাম্যমাণ আদালত মাঠে নেমে পড়ে। ফলে আগেরদিন থেকে উপজেলার সর্বত্র শান্তিপূর্ণ পরিবেশ বিরাজ করছিল।
এদিকে অভিযোগ থাকার কারণে বুধবার ১১ জন প্রিজাইডিং অফিসারকে প্রত্যাহার করে নুতনদের সংশ্লিষ্ট কেন্দ্রে পাঠানো হয়। ফলে বেশ জাঁকজমকপূর্ণ পরিবেশে মানুষ ভোটাধিকার প্রয়োগ করতে পারায় সর্বত্র উৎসবের আবহ সৃষ্টি হয়। অধিকাংশ কেন্দ্রে নির্ধারিত চারটার মধ্যে ভোটাররা ভোট প্রয়োগ করে।
ছাত্রলীগের সভাপতি আটক
বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে বারটার দিকে শ্যামনগর উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি শেখ মিজানুর রহমানকে আটক করা হয়। জাল ভোট দেয়াসহ ভোট কেন্দ্রে গোলযোগ সৃষ্টির অভিযোগে ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেটের নির্দেশে নকিপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় কেন্দ্র থেকে পুলিশ আটক তাকে করে। এর আগে সকালে আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী জিএম সফিউল আযম লেনিনের ব্যানার টানানোর সময় তার কর্মী হাফিজুর ও আলমগীরকে মারধর করে দলীয় সমর্থকরা। এ ঘটনার কিছুক্ষণ পর উপজেলা জামায়াতের রোকন সাচ্চুকে একই কেন্দ্রে মারধর করে আওয়ামী লীগের সমর্থকরা। বেলা দশটার দিকে উপজেলা ছাত্রদলের সাধারণ সসম্পাদ তৈয়েবুর রহমান নাজমুল হককে মারপিট করে এই লোকজন। পরে অবস্থার অবনতি হলে তাকে শ্যামনগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।
এর আগে সকাল আটটার দিকে উপজেলা আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সফিউল আযম লেনিন অভিযোগ করেন, শংকরকাঠি কেন্দ্র থেকে তার পোলিং এজেন্টদের বের করে দেয়া হয়েছে। এদিকে দুপুরের দিকে শ্যামনগর সদর ইউনিয়নের গোপালপুর কেন্দ্রের পার্শ্ববর্তী এক আওয়ামী লীগ নেতার পোষ্য কুকুরকে মারধরকে কেন্দ্র করে স্থানীয় আওয়ামী লীগ ও বিএনপি কর্মী সমর্থকদের মধ্যে উত্তেজনার সৃষ্টি হলে বিজিবি সদস্যরা তাৎক্ষণিকভাবে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে। এসব তুচ্ছ ঘটনার বাইরে উপজেলার আর কোথাও কোন ধরনের অপ্রীতিকর পরিস্থিতির খবর পাওয়া যায়নি।
এদিকে আমাদের কাশিমাড়ী প্রতিনিধি রবিউল ইসলাম জানান, দুপুর একটার দিকে কাশিমাড়ীর জয়নগর গ্রামের ঋষিপাড়া থেকে হাফিজুর রহমান নামের স্কুল পড়–য়া এক শিশুকে আটক করে ভ্রাম্যমাণ আদালত। সে ৫৭ নং জয়নগর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের পঞ্চম শ্রেণিতে লেখাপড়া করে। এসময় তার হাতে থাকা ব্যাগ থেকে ১৬টি বোমা উদ্ধার করা হয়। স্থানীয়রা জানায়, পড়ে থাকা ব্যাগটি কুড়িয়ে পাওয়ার পর কৌতূহলবশত বাড়িতে নিয়ে যাওয়ার সময় ভাম্যমাণ আদালতের হাতে সে আটক হয়।
গাবুরা প্রতিনিধি আসাদুল ইসলাম জানান, গাবুরা ইউনিয়নের ৬নং ওয়ার্ড নিয়ে গঠিত চাঁদনীমুখা কেন্দ্রে মোট ৬৪ শতাংশ ভোট পড়েছে। মোট ১৮২৯ ভোটের মধ্যে ভোটাধিকার প্রয়োগ করে ১১৮৮ জন। এর মধ্যে সফিউল আযম লেনিন (চিংড়িমাছ) ৩২৩, মাও. আব্দুল বারী (দোয়াত কলম) ৫৫৬ ও আনিছুজ্জামান আনিচ (আনারস) ১১৩ ভোট পান। এছাড়া কাপ পিরিচ নিয়ে মাওলানা আবু বক্কার ৮ ভোট পেলেও বাতিল হয়ে যায় ১৮৮ ভোট।
নীলডুমুর প্রতিনিধি আব্দুল হালিম জানান, উপজেলার বুড়িগোয়ালীনি ফরেস্ট মাধ্যমিক বিদ্রালয় কেন্দ্রে ভোট পড়েছে শতকরা পঞ্চশ ভাগ। এখানে মোট ২৮৯০ জন ভোটারের মধ্যে ১৪৫২ জন ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। এর মধ্যে বাতিল হয়ে যায় ৪৯ ভোট। এছাড়া সফিউল আযম লেনিন চিংড়ীমাছ নিয়ে ১৬৬, আনিছুজ্জামান আনারষ নিয়ে ২০৪, কাপ পিরিচ নিয়ে মাওঃ আবু বক্কার ৮ ও দোয়াত কলম নিয়ে মাওঃ আব্দুল বারী ১০২৪ ভোট পায়।
রমজাননগর প্রতিনিধি আক্তার হোসেন জানান, সুন্দরবন তীরবর্তী বনজীবী প্রধান কালিঞ্চি কেন্দ্রে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে পাপিয়া হক ও নুরজাহান আক্তার কোন কোন ভোট পায়নি। তবে চেয়ারম্যান পদে মাও. আব্দুল বারী দোয়াত কলম নিয়ে ১০৯১, আনিছুজ্জামান আনিচ আনারস নিয়ে ২৭৭, আওয়ামী লীগের বিদ্রোহী প্রার্থী সফিউল আযম লেনিন চিংড়িমাছ প্রতীকে ২৩৩ ও শাসনতন্ত্র আন্দোলনের নেতা মাও. আবু বক্কার কাপ পিরিচ নিয়ে ৪৬ ভোট পান।
এছাড়া মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে বিএনপি নেত্রী নুরজাহান আক্তার ঝরনা উড়োজাহাজ প্রতীকে ১১০৪ ও আওয়ামী লীগ নেত্রী ডলি আইয়ুব রাজ হাঁস প্রতীকে ৩৭৪ ভোট পান। ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ সমর্থিত প্রার্থী এসএম আব্দুস সাত্তার (তালা) ৪৬৭ ও বিএনপি নেতা মহসীন-উল মুলক বল ১২০৩ ভোট পান।

আসামিদের ফাঁসি চাইলেন জামায়াত-বিএনপি’র সহিংসতায় নিহত আ.লীগ কর্মী এজাহারের বৃদ্ধ মাতা

ডেস্ক রিপোর্ট: রাতে আর ঘুম আসে না। যখনই ছেলেটার কথা চিন্তা করি তখন মনে হয় দুনিয়ায় আমার আর বেঁচে থেকে লাভ কি। যারা রাতের আঁধারে এজাহার আলীকে নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে মারল তারা আমার চোখের সামনে ঘুরে বেড়াচ্ছে। পোতা (ছেলের ছেলে) দু’টোর হুমকি দিচ্ছে। আর পুলিশ বলছে আসামিদের খুঁজে পাচ্ছি না। এ অবস্থায় কি করে বেঁচে থাকব! তোমরা একটু এসপি স্যারকে বললে তিনি কিছু করতে পারেন কিনা দেখো না বাবা।
বৃহস্পতিবার সকালে সরেজমিনে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার বল্লী ইউনিয়নের আমতলা-বাসাবাটি খেয়াঘাটে গেলে এভাবেই আকুতি জানান জামায়াত-বিএনপি’র নেতা কর্মীদের হামলায় নিহত আওয়ামী লীগ কর্মী এজাহার আলীর মাতা বৃদ্ধ সাঈদা বেগম। এ সময়ে গ্রামের আবাল বৃদ্ধ বণিতা সেখানে ভীড় জমায়। তিনি বলেন, মিজানুর রহমান পিকলু, মুনসুর মোড়ল, কাশেম মোড়ল, খায়ের মোড়ল, ইয়ারুল, উজ্জল, আনারুল, শফিকুল, হাফিজুল্লাহসহ যারা আমার ছেলেকে মেরেছে তারা প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। আমার পোতা মামলার বাদী ইসরাইলসহ বাড়ির লোকজনদের জীবন নাশের হুমকি দিচ্ছে। আমি ওদের ফাঁসি চাই। ফাঁসি না হলে গ্রামে বাস করা যাবে না। একপর্যায়ে এজাহার আলীর পোড়া ব্যবসা প্রতিষ্ঠান দেখাতে দেখাতে কানায় ভেঙে পড়েন তিনি।
একইভাবে এজাহার আলীর স্ত্রী নীলুফা ইয়াসমিন, প্রতিবেশি মোক্তার আলী ও আবু সাঈদ জানান, যৌথবাহিনী আসার পর হত্যাকারীদের অনেকে পালিয়ে থাকলেও উপজেলা নির্বাচনে আওয়ামী লীগের পক্ষে ভোট দেওয়ার নিশ্চয়তা দিয়ে জামায়াত-বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা আবারো এলাকায় ফিরে এসেছে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তাসহ উর্দ্ধতন পুলিশ কর্মকর্তাদের জানিয়ে কোন লাভ হচ্ছে না।
নিহতের ছেলে ও মামলার বাদী ইসলাইল জানান, প্রথমেই স্থানীয় লোকজনের সহায়তা দিয়ে পুড়িয়ে দেওয়া দোকান ঘরের একাংশ তৈরি করা হয়েছে। সরকার আমাদের ক্ষতিপূরণ বাবদ আট লাখ টাকা দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রীর ঘোষণা অনুযায়ী বিজিবি তাদের ঘর তৈরি করে দিচ্ছে। এরপরও যদি হত্যাকারীরা ঘুরে বেড়ায় তাহলে তারা যাবেন কোথায়। ইসরাফিল অভিযোগ করে বলেন, হত্যাকারীরা প্রকাশ্যে আসায় যারা তাদের সহযোগিতা করেছিল তারা আর পাশে থাকতে সাহস পাচ্ছে না।
এ ব্যাপারে মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা উপপরিদর্শক ইয়াছিন আলী জানান, এ মামলায় সুজন নামের এক শিবির কর্মীকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে। এজাহারভুক্ত মিজানুর রহমান পিকলু ছাড়া বাকি পাঁচজন হাইকোর্ট থেকে গত ১০ ফেব্রুয়ারি তিন সপ্তাহের অগ্রিম জামিন পেয়েছে। অজ্ঞাতনামা আসামিদের গ্রেপ্তারের জন্য চেষ্টা চলছে।
প্রসঙ্গত, গত ৭ ডিসেম্বর দিবাগত রাত দেড়টার দিকে সাতক্ষীরা সদর উপজেলার আমতলা গ্রামের ক্ষুদ্র ব্যবসায়ী আওয়ামী লীগ কর্মী এজাহার আলীকে (৫২) ঘুমিয়ে তাকা অবস্থায় পেট্রোল দিয়ে ও গান পাউডার ছড়িয়ে দোকানের চারপাশে আগুণ লাগিয়ে দেয়। দরজা খুলে পালানোর সময় তাকে জামায়াত-বিএনপি’র সন্ত্রাসীরা নৃশংসভাবে কুপিয়ে ও পিটিয়ে হত্যা করে।

অনুর্ধ-১৬ ইয়াং টাইগার্স জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপ উদ্বোধন

আব্দুর রহিম: সাতক্ষীরা স্টেডিয়ামে বিসিবি’র আয়োজনে ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার ব্যবস্থাপনায় বৃহস্পতিবার সকাল ৯টায় অনুর্ধ-১৬ ইয়াং টাইগার্স জাতীয় ক্রিকেট চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৩-১৪ এর খুলনা বিভাগীয় পর্যায়ের সি গ্র“পের খেলা উদ্বোধন হয়েছে।
খেলার উদ্বোধন করেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সাধারণ সম্পাদক শেখ নিজাম উদ্দীন।
বৃহস্পতিবার উদ্বোধনী ম্যাচে বাগেরহাট জেলা দল প্রথমে ব্যাটিংয়ে নেমে ৪০.৪ ওভারে সবকটি উইকেট হারিয়ে ৯৯ রান সংগ্রহণ করে। জবাবে খুলনা জেলা দল ২৫.৪ ওভারে ৩টি উইকেট হারিয়ে ১০০ রান করে জয়লাভ করে।
উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে আরও উপস্থিত ছিলেন জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সাধারণ সম্পাদক আহম্মদ আলী সরদার, যুগ্ম সম্পাদক শেখ আব্দুল কাদের, কোষাধ্যক্ষ সাইদুর রহমান শাহীন, নির্বাহী সদস্য আ.ম. আখতারুজ্জামান মুকুল, মারুফুল হক, জেলা ক্রীড়া অফিসার, কাজী সাফিউল আযম, বিসিবি’র প্রশিক্ষক মুফাচ্ছিনুল ইসলাম তপু, খুলনা ও বাগেরহাট জেলা দলের কর্মকর্তা প্রমুখ।

‘ভদ্রভাবে কথা বলেন, ভাই বলছেন কেন, স্যার বলেন’

নিজস্ব প্রতিনিধি: ‘স্যার’ না বলায় সাংবাদিকের সাথে দুর্ব্যবহার করলেন সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) এমএম মাহমুদুর রহমান। বৃহস্পতিবার বেলা সাড়ে ১১টায় সাতক্ষীরা প্রেসক্লাবে বসে দৈনিক পত্রদূতের নিজস্ব প্রতিনিধি আব্দুস সামাদ একটি সংবাদ সংক্রান্ত ব্যাপারে সদর সহকারী কমিশনারের বক্তব্য গ্রহণের জন্য মোবাইলে যোগাযোগ করে ভাই বলে সম্বোধন করায় তিনি দুর্ব্যবহার করেন।
জানা যায়, সাতক্ষীরা সদর উপজেলার হাওয়ালখালি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে অনিয়ম ও দুর্নীতির অভিযোগে জেলা প্রশাসকের নিকট দাখিল করা অভিযোগের প্রেক্ষিতে পত্রপত্রিকায় সংবাদ প্রকাশ হলে তদন্ত শুরু হয়। জেলা প্রশাসক সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার কাছে অভিযোগটি প্রেরণ করলে তিনি বিষয়টি তদন্তের জন্য সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) এমএম মাহমুদুর রহমানকে দায়িত্ব দেন। গত ১৩ ফেব্রুয়ারি ঘটনাটির তদন্ত হয়। তদন্তের প্রায় ১৫ দিন অতিবাহিত হলেও তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেননি তিনি। তদন্ত প্রতিবেদন কবে নাগাদ জমা দেয়া হতে পারে এ তথ্য জানার জন্য তার সাথে মোবাইলে যোগাযোগ করে ভাই বলে সম্বোধন করায় তিনি ওই সাংবাদিকের সাথে দুর্ব্যবহার করেন। এ সময় এমএম মাহমুদুর রহমান বলেন, ভদ্র ভাবে কথা বলেন, ভাই বলছেন কেন, স্যার বলেন। আপনি যে সাংবাদিকই হন না কেন, আর যেই হোক না কেন আমাকে স্যার বলেতে হবে।
এদিকে, এলাকাবাসীর অভিযোগ, বিদ্যালয়ের অনিয়ম ও দুর্নীতির সত্যতা ধামা চাপা দিতে প্রধান শিক্ষকের নিকট থেকে উৎকোচ নিয়ে সদর সহকারী কমিশনার (ভূমি) এমএম মাহমুদুর রহমান প্রতিবেদন দিতে গড়িমসি করছেন।
এলাকাবাসী আরো জানায়, এসব কারণেই বাংলাদেশে কোন তদন্ত কমিটি আলোর মুখ দেখে না।

খুলনায় গোলটেবিল আলোচনায় বিশেষজ্ঞদের অভিমত: তথ্য অধিকার আইন কার্যকরণে এর ‘ধারা ৭’ সংশোধন প্রয়োজন

পত্রদূত ডেস্ক: তথ্য অধিকার আইনের ‘ধারা-৭’ এর প্রয়োগে তথ্য প্রাপ্তি এবং প্রদানে প্রায়শই নানা প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি হচ্ছে। এই প্রতিবন্ধকতা দূর করতে তথ্য অধিকার আইনের ‘ধারা ৭’ এর সংশোধনের ওপর গুরুত্ব আরোপ করা হয়েছে।
খুলনায় তথ্য অধিকার আইন, ২০০৯ এর ধারা ৭ বিষয়ক গোলটেবিল আলোচনা বক্তারা এ অভিমত ব্যক্ত করেন। এমআরডিআই ও মানুষের জন্য ফাউন্ডেশন এ বৈঠকের আয়োজন করে।
বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রধান তথ্য কমিশনার মোহাম্মদ ফারুক। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা বিভাগের বিভাগীয় কমিশনার আব্দুল জলিল; তথ্য কমিশনের সচিব ফরহাদ হোসেন এবং খুলনা মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার মাহবুব হাকিম।
গোলটেবিল আলোচনায় মূল প্রবন্ধ উপস্থাপন করেন এমআরডিআই এর এ্যাডভাইজার, প্রোগ্রাম অপারেশানস এবং তথ্য কমিশনের প্রাক্তন সচিব নেপাল চন্দ্র সরকার এবং সঞ্চালনা করেন এমআরডিআই’র নির্বাহী পরিচালক হাসিবুর রহমান মুকুর।
মূল প্রবন্ধে নেপাল চন্দ্র সরকার তথ্য প্রদানে বাংলাদেশের সংবিধানের ৩৯(২) অনুচ্ছেদ, তথ্য অধিকার বিষয়ক আন্তর্জাতিক সনদ ও বিশ্বের কয়েকটি উল্লে¬খযোগ্য দেশের তথ্য অধিকার বিষয়ক আইনে উল্লি¬খিত বিধি নিষেধের সাথে তথ্য অধিকার আইনের ধারা ৭ এর তুলনামূলক আলোচনা বিশ্লেষণ উপস্থাপন করেন এবং ধারা ৭ এর কয়েকটি উপধারা হুবহু বহাল রাখা, কয়েকটি পুনঃবিন্যাস, দুটি ধারা সংশোধন ও দুটি ধারা বাদ দেয়ার সুপারিশ করেন। পাশাপাশি ধারা ৭ (ন) এর শেষে যে অতিরিক্ত শর্তের উল্লে¬খ রয়েছে তার অপব্যবহারের উদাহারণ তুলে ধরে সেটি সংশোধনের প্রয়োজনীয়তার কথাও বলেন তিনি। তিনি ধারা ৭ অপব্যবহারের বেশকয়েকটি উদাহারণও গোলটেবিল আলোচনায় তুলে ধরেন।
অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি প্রধান তথ্য কমিশনার মোহাম্মদ ফারুক বলেন, ধারা ৭ এর উল্লে¬খ করে অনেক দায়িত্বপ্রাপ্ত কর্মকর্তাই তথ্য প্রদানে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে চাইছেন। তথ্য কমিশনের শুনানিতে আমরা এ ধরনের অনেক ঘটনা পাচ্ছি। তবে অধিকাংশ ক্ষেত্রে তথ্য কমিশন তথ্য প্রদানের নির্দেশ দিয়েছে। সংশোধনের মাধ্যমে ধারা ৭ কে আরো সময়োপযোগী করলে এর অপব্যবহার করার সুযোগ কমবে।
খুলনা জেলা এবং খুলনা বিভাগের অন্যান্য জেলার সরকারী কর্মকর্তা, এনজিও প্রতিনিধি, আইনজীবী ও সাংবাদিকবৃন্দ এই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

কলারোয়ায় বাস দুর্ঘটনায় আহত ২৪

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়ায় সাতক্ষীরাগামী যাত্রীবাহী সংগ্রাম পরিবহন নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে কমপক্ষে ২৪ জন আহত হয়েছে। এদের মধ্যে ৫ জনকে গুরুতর অবস্থায় উদ্ধার করে স্থানীয় হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। বৃহস্পতিবার ভোর রাতে কলারোয়ার কাজীরহাট ইট-ভাটার সামনে যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কে এ দুর্ঘটনা ঘটে।
স্থানীয় ও প্রত্যক্ষদর্শী সূত্রে জানা গেছে, ঢাকা থেকে বুধবার রাত ৯টার দিকে সাতক্ষীরার উদ্দেশ্যে ছেড়ে আসা সংগ্রাম পরিবহনের একটি নরমাল কোচ (ঢাকা-মেট্টো-ব-১১-৬৩৩৫) ৩৫-৪০ জন যাত্রী নিয়ে বৃহস্পতিবার ভোর সাড়ে ৪টার দিকে কাজীরহাট বাজার পেরিয়ে ইটভাটার কাছে নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে মহাসড়কের পূর্বপার্শ্বের একটি আম গাছের সাথে ধাক্কা খেয়ে রাস্তার পশ্চিম পার্শ্বের জমিতে পড়ে যায়। এ সময় আম গাছের একটি বড় ডাল পরিবহনের ভিতরে ঢুকে পড়ে। তখন গাড়িতে থাকা সকল যাত্রী বাঁচাও বাঁচাও করে চিৎকার করতে থাকে। পরপরই কলারোয়া থানা পুলিশসহ এলাকার সাধারণ মানুষ এসে আহতদের উদ্ধার করে কলারোয়া হাসপাতালে চিকিৎসার জন্য নিয়ে যায়। দুর্ঘটনায় প্রায় সকল যাত্রী কম বেশি আহত হলেও গুরুতর আহতদের মধ্যে আশাশুনি উপজেলার কাপসান্ডার আবু বকর ছিদ্দিকীর ছেলে আদম (২৮), আবেদ আলীর ছেলে আসাদুর সরদার (৩৫), ব্যাংদাহার আব্দুর রশিদের স্ত্রী ছবিরন (৪৫) ও আব্দুল বারিক সরদারের স্ত্রী নার্গিসের (৪২), আমজাদ (১৮), হাসানুজ্জামান (৩০), আসাবুর (৩০), সোহেল (২০), সিরাজুল (৪০), রোজিনা (৩৫), মাইনুল হক চৌধুরি (৫০), অঞ্চনা (৩০), আকলিমা (২৫), বর্ষা (৪) ও মীমের নাম জানা গেছে। যাদের পরবর্তীতে সাতক্ষীরা হাসপাতালে নেয়া হয়েছে।

তালায় ঘোষ সনৎ চেয়ারম্যান, ইখতিয়ার ভাইস চেয়ারম্যান ও জেবুন্নেছাকে মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী ঘোষণা করেছে আ.লীগ

আব্দুল জব্বার, তালা: আগামী ৩১ মার্চ তালা উপজেলা পরিষদ নির্বাচনকে সামনে রেখে তৃণমূল নেতাদের সরাসরি ভোটে আওয়ামী লীগের একক প্রার্থী নির্ধারণ করা হয়েছে।
এতে চেয়ারম্যান পদে উপজেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ও বর্তমান চেয়ারম্যান ঘোষ সনৎ কুমার ১৮২ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। একই পদে জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সৈয়দ ফিরোজ কামাল শুভ্র ৮৫ এবং জেলা কৃষকলীগের সভাপতি বিশ্বজিৎ সাধু ১৮ ভোট পেয়েছেন। ভাইস চেয়ারম্যান পদে জেলা কৃষক লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক ইখতিয়ার আলী ১৩৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এ পদে উপজেলা যুবলীগের সভাপতি মীর জাকির হোসেন ১০৩ এবং ছাত্রলীগের সাবেক নেতা মো. আতাউর রহমান ৪৫ ভোট পেয়েছেন। মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান পদে আওয়ামী লীগ নেত্রী জেবুন্নেছা খানম ১৪৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন। এ পদে অপর প্রার্থী মোস্তারি সুলতানা পুতুল ৭২, ভৈরবী বাছাড় ৫১ এবং হোসনেয়ারা ১৬ ভোট পেয়েছেন।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় তালা সরকারি কলেজ মাঠে ফলাফল ঘোষণা করেন তালা উপজেলা আওয়ামী লীগের সহ-সভাপতি মোড়ল আব্দুর রশীদ।
এর আগে তালা সরকারি কলেজ মাঠে দলীয় প্রার্থী বাছাই উপলক্ষে এক মতবিনিময় সভা উপজেলা আ.লীগের সভাপতি শেখ নুরুল ইসলামের সভাপত্বিতে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন জেলা আ.লীগের সভাপতি, সাবেক সংসদ সদস্য ইঞ্জিনিয়র শেখ মুজিবুর রহমান। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন সাতক্ষীরা-১ (তালা-কলারোয়া) আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক এ্যাড. মুস্তফা লৎফুল্ল¬াহ, জেলা আ.লীগের সাধারণ সম্পাদক নজরুল ইসলাম, জেলা পরিষদের প্রশাসক মুনছুর আহম্মেদ, জেলা আ.লীগের সহ-সভাপতি আবু ময়না ময়না, এমএম ফজলুল হক, সাংগঠনিক সম্পাদক ফিরোজ আহমেদ, জেলা শ্রমিকলীগের সহ-সভাপতি শেখ হারুন-অর-রশিদ, জেলা আওয়ামী আইজীবী পরিষদের সাধারণ সম্পাদক এ্যাড. আব্দুস সামাদ, আ.লীগ নেতা ও খলিলনগর ইউপি চেয়ারম্যান প্রণব ঘোষ বাবলু, উপজেলা ওয়ার্কার্স পার্টির সম্পাদক সরদার রফিকুল ইসলাম, উপজেলা ছাত্রলীগের সভাপতি সরদার মশিয়ার রহমান প্রমুখ।

কেশবপুরে শিক্ষকের বিরুদ্ধে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ

আব্দুল করিম/এমএ রহমান, কেশবপুর: কেশবপুরের পল্লীতে ভালুকঘর নিম্ন মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. মহসিনের বিরুদ্ধে এক কলেজ শিক্ষার্থীকে ধর্ষণের চেষ্টার অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত মঙ্গলবার রাতে এ ঘটনা ঘটে।
এ বিষয় বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক অসিত কুমার সরকার বলেন, এর আগেও সে বিদ্যালয়ের এক ছাত্রীর সঙ্গেও এমন ঘটনা ঘটানোর জন্য তাকে ৩ মাসের বহিষ্কার হয়েছিল। তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।
উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার বিকাশ চন্দ্র বলেন, ঘটনার সত্যতা প্রমাণ হলে তার বিরুদ্ধে যথাযথ ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

খুলনা শিপইয়ার্ডে নির্মিত অয়েল ট্যাংকারের লঞ্চিং

পত্রদূত ডেস্ক: খুলনা শিপইয়ার্ডে ইউনাইটেড শিপিং লাইনস্ লিমিটেডের জন্য নির্মিত দ্বিতীয় অয়েল ট্যাংকারটির লঞ্চিং বৃহস্পতিবার সকালে অনুষ্ঠিত হয়। লঞ্চিং অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন খুলনা শিপইয়ার্ড লিমিটেড’র ব্যবস্থাপনা পরিচালক কমডোর এস ইরশাদ আহমেদ, এনডিসি, এএফডব্লিউসি, পিএসসি, বিএন।
উল্লেখ্য, ২০১১ সালের ১৯ জুন ট্যাংকারটি (এমটি ইউশিল) তৈরীর জন্য ইউনাইটেড শিপিং লাইনস্ লিমিটেডের সাথে খুলনা শিপইয়ার্ডের চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছিল এবং চুক্তি অনুযায়ী নির্দিষ্ট সময়েই অয়েল ট্যাংকারটি লঞ্চিং সম্পন্ন করা হলো। এটি দেশীয় মেরিন হাউজ এর ডিজাইন মোতাবেক এবং জাপানীজ ঈষধংংরভরপধঃরড়হ ঝড়পরবঃু (ঈষধংংঘক) -এর জরীপে নির্মাণ করা হয়েছে। ট্যাংকারটি দৈর্ঘ্য হচ্ছে ৬৮.৫৭৪ মিটার, প্রস্থ ১০.৮ মি., গভীরতা ৫.৩ মি., ড্রাফট ৩.৯ মি., ইঞ্জিন ২ ৭২০ হর্স পাওয়ার এবং গতি ১২ নট। অনুষ্ঠানে ইউনাইটেড শিপিং লাইনস্ লিমিটেড’র প্রতিনিধি, নক্সাকার, সার্ভেয়ার ও শিপইয়ার্ডের সকল স্তরের কর্মকর্তা, কর্মচারী ও শ্রমিকরা উপস্থিত ছিলেন।

সদর উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এড. পলাশের মনোনয়নপত্র সংগ্রহ

আসন্ন সদর উপজেলা পরিষদ নির্বাচনে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এড. আল মাহমুদ পলাশ মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেছেন। বৃহস্পতিবার জেলা নির্বাচন অফিস থেকে তিনি মনোনয়নপত্র সংগ্রহ করেন।
এদিকে ভাইস চেয়ারম্যান প্রার্থী এড. আল মাহমুদ পলাশ নির্বাচনী গণসংযোগ, পথসভা ও বিভিন্ন স্থানে ভোটারদের সাথে মতবিনিময় সভা অব্যাহত রেখেছেন। বৃহস্পতিবার দিনভর তিনি সদর উপজেলার বলাডাঙ্গা, মাধবকাটি, ঝাউডাঙ্গা, তুজুলপুর আকড়াখোলা, মুকুন্দপুর, আমতলা, বল্লী, আজিমপুর, পাথরঘাটাসহ বিভিন্ন এলাকায় গণসংযোগ ও সাধারণ মানুষের সাথে মতবিনিময় করেন। এসময় উপস্থিত ছিলেন, তারিকুল ইসলাম, জাহাঙ্গীর হোসেন, আব্দুল হাই, আমিনুর রহমান চঞ্চল, ইউনুস আলী প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি

কলারোয়ায় বিষপানে কিশোরীর আত্মহত্যা

কলারোয়া প্রতিনিধি: কলারোয়ায় এক কিশোরী বিষপানে আত্মহত্যা করেছে।
কলারোয়া থানা পুলিশ ও এলাকাবাসী সাংবাদিকদের জানান, বৃহস্পতিবার উপজেলার শাকদহ গ্রামের মিনাজ উদ্দিনে কন্যা বুড়ি খাতুন (১২) দীর্ঘদিন ধরে রোগ যন্ত্রণায় ভুগছিলো। এ অবস্থায় বৃহম্পতিবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে বাড়িতে সকলের অগোচরে ঘরে থাকা কীটনাশক পান করে নিজ বাড়িতে আত্মহত্যা করে বুড়ি। এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় একটি অপমৃত্যু মামলা (নং-০৫/১৪)হয়েছে।

বলাবাড়িয়া মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে অভিভাবক সদস্য নির্বাচন সম্পন্ন

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনির বলাবাড়িয়া আমজাদ আলী মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে ম্যানেজিং কমিটির অভিভাবক সদস্য নির্বাচন সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার সকাল ৮টা থেকে বিকাল ৪টা পর্যন্ত বিরতিহীনভাবে নির্বাচনের ভোট গ্রহণ করা হয়।
এতে ২শ ৫৬ জন ভোটারের মধ্যে ২শ ৩৭ জন ভোট প্রয়োগ করেন। ৭টি ভোট বাতিল বলে গণ্য হয়।
উপজেলা রিসোর্স সেন্টারের ইন্সট্রাক্টর অপূর্ব মন্ডলের পরিচালনায় অনুষ্ঠিত নির্বাচনে ২টি প্যানেলে ৫টি পদের বিপরীতে ১০ জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে।
নির্বাচনে পুরুষ প্রার্থী গোকুল চন্দ্র সানা (হরিণ) ১৩৯ ভোট, নির্মল চন্দ্র বাইন (টিউবওয়েল) ১১৭ ভোট, অমিয় রায় (চেয়ার) ১০৭ ভোট, ধর্মদাশ মন্ডল (মোরগ) ১০৫ ভোট ও মহিলা প্রার্থী সুধা রাণী মন্ডল (কলস) ১২৯ ভোট পেয়ে বিজয়ী হন। এছাড়া প্রতিদ্বন্দ্বী প্রার্থী নিশিকান্ত মন্ডল ৮৩ ভোট, হরিপদ মন্ডল ৮২ ভোট, তেজেন্দ্রনাথ মন্ডল ৬৯ ভোট, সাবেক মেম্বর দীলিপ কুমার মন্ডল ৬৩ ভোট ও কুসুম রাণী মন্ডল ৯৬ ভোট পেয়ে পরাজিত হন।

আশাশুনিতে এতিম শিশুদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ

আশাশুনি ব্যুরো: আশাশুনিতে দরিদ্র এতিম শিশুদের মাঝে বিনামূল্যে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়েছে। বৃহস্পতিবার উপজেলার বালিয়াপুর পল্লী সমাজের অস্থায়ী কার্যালয়ে ব্র্যাক সামাজিক ক্ষমতায়ন কর্মসূচির আয়োজনে ও পল্লী সমাজের অর্থায়নে দরিদ্র ও এতিম বাচ্চাদের মাঝে শিক্ষা উপকরণ বিতরণ করা হয়।
অনুষ্ঠানে পল্লী সমাজের সহকারী প্রধান সুষমা রাণী সরকারের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন, বলাইপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষিকা মন্নুজান খানম। বিশেষ অতিথি হিসাবে উপস্থিত ছিলেন-এসভিআই’র জেলা ব্যবস্থাপক হাওয়া খাতুন। সার্বিক সহযোগিতায় ছিলেন, ফিল্ড অর্গানাইজার রাজু আহম্মেদ ও পল্লী সমাজের ও ব্র্যাক স্কুলের শিক্ষক-শিক্ষিকা, অভিভাবক ও সদস্যবৃন্দ।