শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার দ্বিতীয় দিনে শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের উপচেপড়া ভীড়


প্রকাশিত : জানুয়ারি ২৮, ২০১৭ ||

পত্রদূত ডেস্ক: শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্কে তিনদিনব্যাপী ডিজিটাল উদ্ভাবনী মেলার দ্বিতীয় দিন (শুক্রবার) ছিলো শিক্ষক-শিক্ষার্থীদের দখলে। সকালে শিক্ষার্থীদের স্বত:স্ফূর্ত অংশ গ্রহণে অনুষ্ঠিত হয় কুইজ প্রতিযোগিতা। এতে জেলার বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখরিত হয়ে ওঠে শহীদ আব্দুর রাজ্জাক পার্ক। বিকেলে শিক্ষকদের সক্রিয় উপস্থিতিতে মেলা প্রাঙ্গনে বিরাজ করে উৎসবমূখর পরিবেশ। মেলার স্টলগুলোতে উপচে পড়া ভীড় লক্ষ্য করা যায়। হালকা মেঘ ও কুয়াশাচ্ছন্ন শীতের বিকেল জমে ওঠে পারস্পারিক অভিজ্ঞতা বিনিময়ের মধ্য দিয়ে। জেলার নামকরা স্কুলের স্বনামধন্য শিক্ষকরা মিলিত হন মেলায়। পাঠদানে মাল্টিমিডিয়ার প্রয়োগ শীর্ষক সেমিনারে তুলে ধরা বর্তমান শিক্ষা পদ্ধতির বিভিন্ন আকর্ষণীয় বিষয়। মাল্টিমিডিয়া প্রজেক্টরের মাধ্যমে ডিজিটাল কনটেন্টে ক্লাশ পরিচালনার সুফল তুলে ধরে পাক্কা বক্তব্য দেয় সদরের ঘোনা হাইস্কুলের শিক্ষার্থী ও জাতীয় পর্যায়ে বক্তৃতা প্রতিযোগিতায় পুরস্কারপ্রাপ্ত আরোভী সুলতানা।
অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) এএফএম এহতেশামুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন। এছাড়া অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন জেলা শিক্ষা অফিসার (অতিরিক্ত দায়িত্বে) এসএম আব্দুল্লাহ আল মামুন, সদর উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিসার, সদর উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষক সমিতির সভাপতি রেজাউল ইসলাম, মাছখোলা হাইস্কুলের প্রধান শিক্ষক শাহাজান আলী, ভোমরা রাশিদা বেগম মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক রাশিদা খাতুন প্রমুখ। এসময় জেলার বিভিন্ন স্কুল কলেজ ও মাদরাসার শিক্ষক ও প্রশাসনের পদস্থ কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। মেলায় নওয়াবেকী কলেজের শিক্ষক মনজুর এলাহী মাল্টিমিডিয়ায় সেমিনারের বিষয়বস্তু সুনিপুনভাবে উপস্থাপন করেন। সমগ্র অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা শিক্ষা অফিসের তথ্য ও গবেষণা কর্মকর্তা ইমরান হোসেন।
প্রধান অতিথির বক্তব্যে জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন বলেন, শিক্ষকরাই জাতি বিনির্মাণের কারিগর। শিক্ষকরা অর্থের আশা করে না, তারা সম্মান চায়। শৈশব স্মৃতির কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, পিতা মাতার পরেই শিক্ষকের স্থান। শিক্ষকরাই পারে একটি বিজ্ঞান মনস্ক সমৃদ্ধ জাতি গড়তে। তিনি শিক্ষার আলোয় আলোকিত সমাজ বিনির্মাণে সকলের সহযোগিতা কামনা করে আধুনিক শিক্ষাপদ্ধতিতে আনন্দময় পরিবেশে ক্লাশ পরিচালনায় শিক্ষকদের আন্তরিকতার সাথে দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানান।