সঠিকভাবে যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা প্রস্তুত করা হবে: এমপি রবি


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১১, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: সদর উপজেলা অধিক্ষেত্রের মুক্তিযোদ্ধা যাচাই-বাছাই কার্যক্রম অনুষ্ঠিত হয়েছে। শনিবার সকালে সদর উপজেলা ডিজিটাল কর্নারে সদর উপজেলা প্রশাসনের আয়োজনে সদর উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা যাচাই বাছাই কমিটির সভাপতি সংসদ সদস্য মুক্তিযোদ্ধা মীর মোস্তাক আহমেদ রবি’র সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত হয়। এ সময় সাংসদ বলেন,  মুক্তিযোদ্ধারা  জাতির শ্রেষ্ঠ সন্তান। তাদের এ ঋণ জাতি কোন কিছুর বিনিময়ে শোধ করতে পারবেনা। সরকার মুক্তিযোদ্ধাদের সম্মানীভাতা বৃদ্ধি করেছে। সঠিকভাবে যাচাই বাছাইয়ের মাধ্যমে মুক্তিযোদ্ধা তালিকা প্রস্তুত করা হবে। বাংলাদেশ আজ বিশ্বের সাথে তাল মিলিয়ে এগিয়ে যাচ্ছে। বিশ্বের দরবারে বাংলাদেশ আজ উন্নয়নের রোল মডেল। বাংলাদেশ এখন বহি:বিশ্বের কাছে হাত পাতেনা। নিজের পায়ে মাথা উঁচু করে দাড়িয়েছে দেশ। দেশের দারিদ্রতার হার কমেছে। দেশের এ উন্নয়নের অগ্রযাত্রা এগিয়ে যাবে। কোন অপশক্তি উন্নয়নের অগ্রযাত্রা বাঁধাগ্রস্ত করতে পারবেনা। দেশের নিজস্ব অর্থায়নে তৈরী হচ্ছে বহু-কাঙ্খিত পদ্মাসেতু। জননেত্রী শেখ হাসিনা সরকার সমাজের পিছিয়ে পড়া গরীব, দুখী ও ভিক্ষুকদের কর্মসংস্থানের মাধ্যমে দারিদ্রতা কমিয়ে এনেছেন। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে বাংলাদেশ আজ স্বয়ং সম্পূর্ণ। সদর উপজেলার ১৪টি ইউনিয়ন থেকে অনলাইনের মাধ্যমে আবেদন জমা পড়েছে ১শ’ ৫৯টি এবং সরাসরি আবেদন জমা পড়েছে ৩১টি। প্রথমদিনে পৌরসভা ও সদরের ৫টি ইউনিয়নের জমাকৃত তালিকা যাচাই-বাছাই করা হয়। ১১ ফেব্রুয়ারি শনিবার পৌরসভা, ১নং বাঁশদহা ইউনিয়ন, ২নং কুশখালী ইউনিয়ন, ৩ নং বৈকারী ইউনিয়ন, ৪ নং ঘোনা ইউনিয়ন ও  ৫নং শিবপুর ইউনিয়নের মুক্তিযোদ্ধাদের যাচাই বাঁছাই অনুষ্ঠিত হয়েছে। এ সময় উপস্থিত ছিলেন কমিটির সদস্য সচিব সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ নূর হোসেন সজল, সাবেক জেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মীর মাহমুদ হাসান লাকি, মুক্তিযোদ্ধা আবুল খায়ের সরদার, সদর উপজেলা সমাজসেবা অফিসার মো. রোকনুজ্জামান, কেন্দ্রীয় কমান্ড কাউন্সিলের প্রতিনিধি সদস্য প্রফেসর ড. মো. আব্দুল বারী, জেলা কমান্ডারের প্রতিনিধি সদস্য আমির হোসেন জোয়ার্দ্দার, সদর উপজেলা কমান্ডার মো. হাসানুল ইসলাম, মুবিম এর প্রতিনিধি জেলা ডেপুটি কমান্ডার মো. আবু বক্কর সিদ্দিক ও জামুকা প্রতিনিধি সদস্য আব্দুল গফুরসহ কমিটির নেতৃবৃন্দ।