শ্যামনগরের চাঁদনীমুখা প্রাথমিক বিদ্যালয়ে কমিটি গঠনে অনিয়মের অভিযোগ


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ১৩, ২০১৭ ||

শ্যামনগর অফিস: শ্যামনগর উপজেলার ১৮১ নং পূর্ব চাঁদনীমুখা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক গোলাম বারীর বিরুদ্ধে বিদ্যালয়ে দীর্ঘদিন অনুপস্থিতির ও বিধি বহির্ভূত  কমিটি গঠন অভিযোগ পাওয়া গেছে।

 

উপজেলা প্রাথমিক শিক্ষা অফিস সূত্রে জানা যায়, পূর্ব চাঁদনীমুখা প্রাথমিক বিদ্যালয়টির পরিচলনা কমিটের মেয়াদ ৩১ ডিসেম্বর শেষ হয়। প্রধান শিক্ষক গোলাম বারী কোন প্রকার সভা আহবান না করে সরকারী নীতিমালা ছাড়াই গোপনে কমিটি তালিকা করে শিক্ষা অফিসে জমা দিয়েছেন। বিদ্যালয়ের অভিভাবকদের অজান্তে রাতারাতি কমিটিতে জিএম মঞ্জুর এলাহী কে সভাপতি করে তালিকা জমা দেওয়া হয়েছে। অথচ  জিএম মঞ্জুর এলাহী চাঁদনীমুখা পি,জে আলিম মাদ্রাসার সভাপতি থাকা সত্তেও দুটি প্রতিষ্ঠানে সভাপতি হওয়াকে কেন্দ্র করে এলাকায় ক্ষোভের জন্ম দিয়েছে। তিনি অত্র এলকায় বসবাস না করে শ্যামনগর সদরে থাকেন। ফলে তার দ্বারা বিদ্যালয়টি পরিচলনা থুবড়ে পড়বে এবং ছাত্রছাত্রীরা মানসম্মত লেখা পড়ায় বিঘœ ঘটবে। কোমলমতি শিশুরা প্রাথমিক শিক্ষা থেকে পিছিয়ে পড়বে। এদিকে প্রধান শিক্ষাক গোলাম বারী দীর্ঘ ১৫/১৬ দিন একাধারে বিদ্যালয়ে অনুপস্থিত থেকে আত্মগোপনে রয়েছেন মর্মে স্থানীয়রা জানিয়েছেন।যার কারনে লেখাপড়ার পরিবেশ বিঘœ হচ্ছে। তিনি কমিটির নামে পকেট কমিটি গঠন করে  অনুমোদন নিতে তৎপর রয়েছেন। বিদ্যালয়টিতে নতুন ভবন তৈরির কাজের অনিয়ম উঠেছে। উপজেলা শিক্ষা অফিসারকে এ বিষয়ে জানিয়েও এলাকাবাসী কোন ফল পায়নি। এ ব্যাপারে গাবুরা ইউপি চেয়ারম্যান জি.এম আলী আজম টিটো জানান, প্রধান শিক্ষককের অনুপস্থিতি ও সরকারী নীতিমালার বর্হিভূত কমিটি অনুমোদিত হলে হঠাৎ এ কমিটিকে কেন্দ্র করে আন্দোলনের রুপ নিতে পারে, যাতে শিক্ষার্থীদের ব্যাপক লেখাপড়ার ক্ষতি হবে। প্রধান শিক্ষক গোলাম বারী জানান, এ কমিটি নিয়ে কিছুটা ত্রুটি থাকলেও বিশেষ বিবেচনা করা হচ্ছে। শিক্ষা অফিসার ইসমাইল হোসেন জানান, এ বিদ্যালয়টির কমিটি সংক্রান্ত নানা অনিয়মের অভিযোগ পেয়েছি, নীতিমালার আলোকে সুরাহ করা হবে। স্থানীয় ইউপি সদস্য আঃ রহিম জানান,মঞ্জুর এলাহী ষ্ট্রোকজনিত রোগে আক্রান্ত হয়েছিলেন, যার কারনে তিনি শারিরিকভাবে দুর্বল। নীতিমালার আলোকে নতুন কমিটি ও প্রধান শিক্ষকের শতভাগ বিদ্যালয় উপস্থিতি দাবী করে প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করা হয়েছে।