বসন্ত বাতাসে শিল্পকলায় ‘সাদা-কালো স্মৃতির পাতায়’ হারানো দিনের গান (ভিডিওসহ)


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৪, ২০১৭ ||

মো. আসাদুজ্জামান সরদার: বসন্তের মাতাল হাওয়ায় সুরের মুর্ছনায় সাতক্ষীরা শিল্পকলা একডেমিতে ‘সাদা-কালো স্মৃতির পাতায়’ হারানো দিনের গানের আসরে মেতেছিলেন সবাই।

গানের আড্ডায় সুরের আবেশে শিল্পী ও দর্শক শ্রোতার মিলন মেলা। মঞ্চে গান শুরু করেছিলেন এপার বাংলার দ্বিতীয় হেমন্ত খ্যাত মনজুরুল হক। পুরানো সেই দিনের কথা, ভুলবি কিরে হায়…ও সে চোখের দেখা প্রাণের কথা সেকি ভোলা যায়… বিশ্ব কবির অবিনাশী এ গানের সুরে কণ্ঠ দেন শিল্পী মনজুরল হক। তারপর গাইলেন স্মৃতি রোমন্থনকারী সেই ভূবন মোহিনী গান। মুছে যাওয়া দিনগুলি আমাই পিছু ডাকে…স্মৃতি যেন আমারে বেদনার রঙে রঙে ছবি আঁকে…। মনজুর গাইলেন বন্ধু তোমার পথের সাথীকে চিনে নিও…। কণ্ঠশিল্পী শামীমা পারভীন রন্তা গাইলেন, গীতিময় সেই দিন…চিরদিন…। মাথায় লাল ক্যাপ পরে সুরের সাধক শিল্পী আবু আফফান রোজ বাবু শোনালেন তরুণ প্রজন্মের চির চাওয়া সেই গান, সুন্দরী গো দোহাই তোমার…..। রোজবাবু গাইলেন ‘ওরে নীল দরিয়া আমায় দে রে দে ছাড়িয়া…। বেদনাহত হৃদয়ে সান্ত¦না দিয়ে গাইলেন, আমি সাত সাগর পাড়ি দিয়ে কেন সৈকতে বসে আছি। জীবনানন্দ হয়ে, সংসারে আজো সব কিছু ভুলে যেনো করি লেনদেন, .কবিতায় পড়া সেই বনলতা সেন…। এভাবেই চলতে থাকে একর পর এক চির চেনা গানের সুর।
পুরানো দিনের গান শুনে আর বসে থাকতে পারেননি সাতক্ষীরার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক সার্বিক এএফএম এহতেশামুল হক। তিনিও মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে সুরেলা কণ্ঠে গেয়ে উঠলেন বিরহ কাতর মানুষের সান্ত¦না মান্না দে’র.. কতদিন দেখিনি তোমায়…….তবু মনে পড়ে তব মুখখানি….স্মৃতির মুকুরে মম…আজো তবু ছায়া পড়ে রাণী…। তারপর সবার অনুরোধে গাইলেন…কতদিন তুমি নাই কাছে…।
এরপর  অতিথি মঞ্চ থেকে উঠে আসলেন আরো একজন অতিথি। তিনি হলেন জেলা পরিষদের প্রধান নির্বাহী এএনএম মইনুল ইসলাম। গাইলেন এতদিন পরে তুমি…..তুমি কী এখনও দেখেছ স্বপন…. আমারে এসব পুরোনো সেই দিনের গান শুনে সুরের মুর্ছনায় হারিয়ে যায় সকল দর্শক শ্রোতা।
বৃহস্পতিবার সন্ধ্যায় সাতক্ষীরা জেলা শিল্পকলা একাডেমী আয়োজন করে হারানো দিনের গাানের আসর। সকল গান উপভোগ করেন সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক আবুল কাশেম মো. মহিউদ্দিন, তার পতœী সেলিনা আফরোজসহ প্রশাসনের কমকর্তাবৃন্দ ও তাদের পরিবার।

অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন সাতক্ষীরা সাতক্ষীরা সদর উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: নুর েহাসেন সজল।