জেলা আইনজীবী সমিতির ১৬ মার্চ নির্বাচন স্থগিত চেয়ে দেওয়ানী মামলা: আজ চুড়ান্ত শুনানী, আইনজীবী সমিতির নির্বাচন আবারও অনিশ্চিত!


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৭ ||

পত্রদূত ডেস্ক: সাতক্ষীরা জেলা আইনজীবী সমিতির কার্যনির্বাহী কমিটির সভাপতি ব্যতিত সাধারণ সম্পাদক সহ কয়েকজন কার্যকরী সদস্য একটি নির্বাচন কমিশন গঠন করে। যার পরিপ্রেক্ষিতে সভাপতি এবং অপর কয়েকজন কার্যকরী সদস্য অপর একটি কাউন্টার নির্বাচন কমিশন গঠন করে।

২০১৩ সালের গঠনতন্ত্র পাশাপাশি ২০১৭ সালের নতুন গঠনতন্ত্র নিয়ে বিরোধ দেখা দেয়। যার ফলে ঐতিহ্যবাহী আইনজীবী সমিতির ভাবমুর্তি নষ্ট হয় এবং নির্বাচন অনিশ্চিত হয়ে পড়ে। আইনজীবী সমিতির ঐক্য ধরে রাখার জন্য ভাবমুর্তি উজ্জল করার জন্য এবং সার্বিক উন্নয়নের লক্ষ্যে আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. আব্দুল মজিদ (২) এর আহবানে সিনিয়র আইনজীবী ও সাবেক জিপি, পিপি এবং সাবেক সভাপতিদের আমন্ত্রণ জানিয়ে আনুষ্ঠানিক সভায় সর্বসম্মত সিদ্ধান্তক্রমে ইতোপূর্বে সভাপতি মনোনিত নির্বাচন কমিশন ও সাধারণ সম্পাদক মনোনিত দুটি নির্বাচন কমিশন বাতিল করা হয় এবং নতুন নির্বাচন কমিশন গঠন করা হয়। সর্বসম্মত সিদ্ধান্ত হয় যে, ২০১৩ ও ২০১৭ গঠনতন্ত্রে যাই লেখা থাক সবকিছু বাদ দিয়ে একটি সুন্দর, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ নির্বাচন করা হবে। কিন্তু নতুন নির্বাচন কমিশন ১৬ মার্চ নির্বাচনী তপশীল ঘোষণা করে এবং উল্লেখ করে ২০১৩ সালের গঠনতন্ত্র অনুযায়ী নির্বাচনের তপশীল ঘোষণা করা হল। যেখানে নির্দিষ্টভাবে প্রত্যেক পদের পাশে বয়স সীমা উল্লেখ করা হয়েছে। যা মিটিংয়ের সিদ্ধান্ত বহির্ভূত। সেক্ষেত্রে যুগ্ম-সম্পাদক পদে ১০ বছরের প্রাকটিস উল্লেখ করা হয় এবং সদস্য পদে ৩ বছরের প্রাকটিস উল্লেখ করা হয়। সে কারণে ইতোপূর্বে বিপুলভোটে নির্বাচিত যুগ্ম-সম্পাদক এড. মো. আকবর আলী প্রাকটিস বয়সের কারণে মনোনয়নপত্র বাতিল হয় এবং সদস্য পদে এড. মো. রফিক এর মনোনয়নপত্র বাতিল হয়। যা সকলকে হতবাক করে দিয়েছে। বিষয়টি মনোনয়নপত্র বাতিলকৃত প্রার্থীরা ২৮ ফেব্রুয়ারী আপীলের নির্দিষ্ট দিনে প্রধান নির্বাচন কমিশনার বরাবর আপীল করলেও তা বাতিল করা হয়। সে কারণে ক্ষুদ্ধ আইনজীবীদের পক্ষ থেকে এড. মো. নুরুল আমীন বাদী হয়ে বিজ্ঞ সাতক্ষীরা সদর সহকারী জজ আদালতে দেওয়ানী ৩৯/২০১৭ নং মামলা দাখিল করেছে। মামলার বিবাদীরা হল আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. আব্দুল মজিদ (২), প্রধান নির্বাচন কমিশনার এড. আব্দুর রউফ(১), সহকারী নির্বাচন কমিশনার এড. তারক কুমার মিত্র, এড. মো. জহুরুল হক, এড. আনিসুর কাদির ময়না, এড. লাকী ইয়াছমিন। মামলার বিবরণে জানা যায় আইনজীবী সমিতির সভাপতি এড. আব্দুল মজিদ (২) গঠনতন্ত্র বহির্ভূতভাবে একক সিদ্ধান্তে নির্বাচন কমিশন গঠন করেছেন এবং উক্ত নির্বাচন কমিশন ১৬ মার্চ বার্ষিক নির্বাচনের তারিখ ধার্য্য করেছেন। বাদী এড. মো. নুরুল আমীন আর্জিতে আরো উল্লেখ করেছেন, ২৩ ফেব্র“য়ারী বেলা ১২টায় উক্ত ৬ জন বিবাদীদের নির্বাচন বন্ধ করার কথা বললে বিবাদীগণ তাদের কিছু করার নেই বলে আস্ফালন করেন। দৈনিক পত্রদূতে পাঠানো এক প্রেস বিজ্ঞপ্তিতে এ খবর জানা গেছে।