শার্শায় শ্রমিক অবরোধের নামে চলছে চাদাবাজি!


প্রকাশিত : ফেব্রুয়ারি ২৮, ২০১৭ ||

শার্শা (যশোর) প্রতিনিধি: রবিবার খুলনা বিভাগের ১০ জেলায় পরিবহন ধর্মঘট শুরু হলে যশোর জেলার শার্শা উপজেলার ধর্মঘটের প্রতিফলন নেই বাগআঁচড়া, কলোরোয়া ও নাভারণ রোডে। তবে ধমৃঘটের প্রভাব পড়েছে বেনাপাল বন্দরে। শার্শা উপজেলার বাগআঁচড়া, নাভারণ ও বেনাপোল শ্রমিক ইউনিয়নের তেমন কোন কার্যক্রম নেই। তারা বরং অবোরধের নামে চালাচ্ছে চাঁদাবাজি। দিনের বেলায় অবরোধের কথা বলে দূরপাল্লা চলাচলকারি গাড়ি আটকে রাখছে। কিন্তু হর হামেশায় চলছে মাইক্রো, প্রইভেটকার, নছিমন ও আলমসাদুসহ নানা ধরণের যানবহন। আর এ যানবহনগুলো টাকার বিনিময়ে বাগআঁচড়ার শ্রমিক নেতারা চলাচল করতে দিচ্ছে। দূরপাল্লার ট্রাকগুলো সকালে আটকে রেখলেও রাতের আধারে সেগুলো ছাড়া হচ্ছে। কিন্তু তার বিনিময়ে আটককৃত যানবহন গুলোকে গুণতে হচ্ছে মোটা অংকের টাকা। রাতে সাধারণ শ্রমিকরা চলে যাওয়ার পরপরই এভাবে চাঁদাবাজি চালাচ্ছে বাগআঁচড়া, নাভারণ ও বেনাপোল শ্রকিম ইউনিয়নে নেতা সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান (কিনা), সদস্য জামির হোসেন ও ড্রাইবার আমিনুর রহমান। প্রতি দূরপাল্লার গাড়ি থেকে ২০০০ থেকে ৭০০০ টাকা চাদা নিয়ে ছেড়ে দিচ্ছে চোখের আড়ালে। এতে করে আবার অনেক ড্রাইবার হয়রানি হচ্ছে এসব নেতাদের কাছে। স্টপে দাড়িয়ে থাাকা এক ড্রাইভারের সাথে কথা বলে জানা যায়, যে সকল ড্রাইভাররা টাকা দিতে না চাইলে তাদের কে গালিগালাজ করা হচ্ছে। রাজনৈতিক দলের প্রভাব খাটিয়ে শ্রমিক নেতা আনিসুর রহমান (কিনা), জামির, আমিনুর অবরোধকে চাদাবাজির স্টাইল বানিয়েছে। এ ব্যাপারে শ্রমিক নেতা ও শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আনিছুর রহমান (কিনা) এ কাছে জানতে চাইলে, তিনি কোন কথার উত্তর না দিয়ে চলে যান।