কলারোয়ার খোরদোয় ছাত্রী ধর্ষণের অভিযোগে লোকাস গ্রেপ্তার


প্রকাশিত : মার্চ ৭, ২০১৭ ||

খোরদো (কলারোয়া) প্রতিনিধি: যশোর জেলার মনিরামপুর উপজেলার চাকলায় ৬ষ্ঠ শ্রেণির এক ছাত্রী (১২) কে ধর্ষণের সময় লোকাস নামের এক ব্যক্তিকে হাতে নাতে ধরে পুলিশে দিয়েছে জনতা। সোমবার সকালে খোরদো বাজারে এ ঘটনা ঘটে। এলাকাবাসি ও পুলিশ জানায়, কলারোয়া উপজেলার খোরদো গ্রামের খালার বাড়িতে রেখে ছাত্রীর মা ৪ বছর পুর্বে মালয়েশিয়া যায়। পিতার মৃত্যর পর থেকে ওই ছাত্রী তার খালার বাড়িতে থাকে। লেখাপড়া করে চাকলা মাদ্রাসায়।  কলারোয়া উপজেলার খোরদো গ্রামের (খৃষ্টানপাড়ার) মৃত সতীশ রায়ের পুত্র ২ কন্যা ১ পুত্রের জনক, লোকাস রায় (৩৮) খোরদো বাজারে জুতা পালিশ ও জুতা ব্যাগ সেলাাইয়ের কাজ করে। ঘটনার ৩দিন পুর্বে পিতা মাতাহারা অসহায় ছাত্রী সান্ডেল ও স্কুল ব্যাগ সেলাই করতে দিয়ে যায় লোকাসের কাছে। এসময় মোবাইল ফোন নম্বর নেয় লোকাস। ব্যাগ সান্ডেল সকালে দিবে এই কথা মোবাইল ফোনে জানায়। গত ৬ মার্চ সকাল ৬টার দিকে দোকান খুলে ব্যাগ দেওয়ার কথা বলে  দোকান ঘরের  ভিতরে নিয়ে ওই ছাত্রীর মুখ চেপে ধরে জোর পুর্বক ধর্ষণ করে লেঅকাস। ছাত্রীর গুঙানী ডাক চিৎকারে বাজারের তরকারী দোকানদার আক্কাজ আলী ও একই গ্রামের সাবান আলী বিশ্বাসের পুত্র পলাশ সহ লোকজন দরজা খুলে ভিতরে ঢুকে আপত্তিকর অবস্থায় লোকাসকে আটক করে খোরদো পুলিশ ফাড়ির এসআই হাসানের নিকট সৌর্পদ করে। এ ঘটনায় কলারোয়া থানায় ১টি মামলা হয়েছে।