কালিগঞ্জে বিট খাটালের আড়ালে মাদক ও অবৈধ পণ্য চোরচালানের অভিযোগ মাদক স¤্রাট কালু সিদ্দিকের বিরুদ্ধে


প্রকাশিত : মার্চ ২০, ২০১৭ ||

বিশেষ প্রতিনিধি: কালিগঞ্জে বিট খাটালের আড়ালে ফেনসিডিলসহ বিভিন্ন মাদক ও ভারতীয় পণ্য অবৈধ চোরাচালানের অভিযোগ উঠেছে ছিদ্দিক গাজী ওরফে কালু ছিদ্দিকের বিরুদ্ধে। এছাড়াও বিট খাটালের লাইসেন্স নবায়নের জন্য ট্রেড লাইসেন্সেও জালিয়াতি করেছেন এবং তথ্য গোপন করে হলফনামা প্রদান করেছেন বলে জানা গেছে। এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ ও লাইসেন্স নবায়ন না করার জন্য সাতক্ষীরা জেলা প্রশাসক, পুলিশ সুপার, কালিগঞ্জ সার্কেলের সহকারী পুলিশ সুপার এবং ১৭ বিজিবি’র অধিনায়ক বরাবর লিখিত আবেদন জানিয়েছেন স্থানীয় ইউপি সদস্য ও অবসরপ্রাপ্ত সার্জেন্ট হাবিবুর রহমান।
লিখিত অভিযোগ ও এলাকাবাসি সূত্রে জানা যায়, উপজেলার নলতা ইউনিয়নের সেহারা গ্রামের রহিম গাজীর ছেলে এলাকার মাদক স¤্রাট হিসেবে পরিচিত ছিদ্দিক গাজী একজন চিহিৃত চোরকারবারী। তিনি ১৭ নীলডুমুর বিজিবি’র খানাজিয়া বিওপি’র আওতাধীন বিট খাটালের অনুমোদন নিয়ে এর আড়ালে ভারত থেকে ফেন্সিডিলসহ বিভিন্ন মাদকদ্রব্য নিয়ে দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচারের সাথে জড়িত। হুন্ডি ব্যবসার জন্য তার রয়েছে বিশাল নেটওয়ার্ক। ইতোপূর্বে কালু ছিদ্দিক ও তার সহযোগীরা নারকেলের ছোবড়ার ভিতরে অভিনব কায়দায় ফেন্সিডিল পাচারের সময় পুলিশের অভিযানে পিকআপসহ ৩৩৬ বোতল ফেন্সিডিল আটক হয়। তার নামে বিজ্ঞ জজ আদালতে এসটিসি ১৬৮/১০ নং মামলা চলমান রয়েছে। আছে গ্রেপ্তারী পরোয়ানাও। কিন্তু অজ্ঞাত কারণে তিনি পুলিশের ধরাছোয়ার বাইরে রয়ে গেছেন। সম্প্রতি বিট খাটালের লাইসেন্স নবায়নের জন্য যে আবেদন করেছেন সেখানেও জালিয়াতির আশ্রয় নিয়েছেন তিনি। ইউনিয়ন পরিষদ থেকে চলতি অর্থ বছরের ট্রেডলাইসেন্স না নিয়ে তিনি বিগত সময়ে নেয়া ট্রেড লাইসেন্সে জালিয়াতি করে জমা দিয়েছেন। কাগজপত্র পর্যালোচনা করার সময় বিষয়টি নিয়ে সন্দেহ হলে উপজেলা নির্বাহী অফিসার গোলাম মাঈনউদ্দিন হাসান নলতা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমানকে অবগত করেন। যাচাই-বাছাইয়ে জালিয়াতির বিষয়টি ধরা পড়েছে বলে জানা গেছে। নলতা ইউনিয়ন পরিষদের ১নং ওয়ার্ডের সদস্য হাবিবুর রহমান জানান, আগামী ৩০ চৈত্র পর্যন্ত তার পূর্বের লাইসেন্সের মেয়াদ আছে। পরবর্তীতে আবারও এই চিহিৃত মাদক স¤্রাটকে বিট খাটালের অনুমোদন দিলে তিনি পূর্বের ন্যায় মাদকসহ বিভিন্ন ভারতীয় পণ্য অবৈধভাবে নিয়ে এসে দেশের অভ্যন্তরে পাচার করে দেশের ক্ষতি করবেন বলে ধারণা এলাকাবাসির। ওই মাদক স¤্রাটের বিরুদ্ধে কঠোর আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণ ও বিট খাটালের লাইসেন্স নবায়ন না করার জন্য তিনি নীলডুমুর ১৭ বিজিবি’র অধিনায়ক বরাবর আবেদন জানিয়েছেন। জেলা প্রশাসক বিষয়টি তদন্ত করে প্রতিবেদন দেয়ার জন্য কালিগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসারকে নির্দেশ দিয়েছেন বলে তিনি জানান।
এব্যাপারে জানার জন্য ছিদ্দিক গাজীর মোবাইলে (০১৯১২৬৪১৯৬০) একাধিক বার যোগাযোগ করা হলেও সেটি বন্ধ পাওয়া যায়। তবে ছিদ্দিক গাজী বিট খাটালের লাইসেন্স নবায়নের জন্য প্রদত্ত ট্রেড লাইসেন্সে জালিয়াতি করেছেন ও হলফনামায় মিথ্যা তথ্য দিয়েছেন বলে নিশ্চিত করেছেন নলতা ইউপি চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান পাড়।