উৎসবমূখর পরিবেশে বিভিন্ন শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন


প্রকাশিত : মার্চ ৩১, ২০১৭ ||

ব্রহ্মরাজপুর ডি. বি. গার্লস হাইস্কুল
নিজস্ব প্রতিনিধি: উৎসবমূখর পরিবেশে বৃহস্পতিবার (৩০ মার্চ ২০১৭) সদর উপজেলার ব্রহ্মরাজপুর ডি. বি. মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে অনুষ্ঠিত হয়েছে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচন। নির্বাচনে ৯জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করে। সকাল ৯টা থেকে শুরু হয় ভোট গ্রহণ, চলে দুপুর ২টা পর্যন্ত। ৩৩৯জন ভোটারের মধ্যে ২৮৭জন তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করে। প্রত্যেক ভোটার প্রতি শ্রেণির কমপক্ষে একজনসহ পাঁচ শ্রেণির আটজনকে ভোট প্রদানের সুযোগ পায়। এতে সর্বোচ্চ ভোটে ২জন এবং পাঁচ শ্রেণির পাঁচ জন সহ মোট সাতজন নির্বাচিত হয়। নির্বাচিতরা হলো জান্নাতুল ফেরদৌস মিম, ফারজানা মিথিলা, পূজা সাহা, সুমাইয়া সুলতানা আঁখি, সুমাইয়া সুলতানা, অর্পিতা দাস ও তমালিকা সরদার।
ভোট গণনা শেষে এ ফলাফল ঘোষণা করে প্রধান নির্বাচন কমিশনার নাসিমা খাতুন। নির্বাচন চলাকালে পরিদর্শন করেন সদর উপজেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক গনেশ চন্দ্র মন্ডল, স্কুলের সভাপতি মুক্তিযোদ্ধা আব্দুস ছোবহান, প্রধান শিক্ষক এমাদুল ইসলাম দুলু, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসের একাডেমিক সুপারভাইজার সানজিদা খানম, অভিভাবক সদস্য নজর উদ্দিন সরদার, সেলিম হোসেন প্রমুখ। নির্বাচনে সমন্বয়কের দায়িত্ব পালন করেন সহকারি শিক্ষক নজিবুল ইসলাম ও শহীদুল ইসলাম। এছাড়া সহকারি প্রধান শিক্ষক অনুজিৎ কুমার মন্ডল, শিক্ষক দেবব্রত ঘোষ, অরুণ কুমার ম-ল, হাফিজুল ইসলাম, মৃণাল বিশ্বাস, গীতা রাণী সাহা, ভানুবতী সরকার, খালেদা খাতুন, শামীমা আক্তার নির্বাচনে অবাধ সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণ পরিবেশে ভোট গ্রহণে সহায়তা প্রদান করেন।
দেবীশহর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়: দেবহাটা উপজেলার নওয়াপাড়া ইউনিয়নে দেবীশহর মাধ্যমিক বালিকা বিদ্যালয়ে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে প্রধান নির্বাচন কমিশন হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন দশম শ্রেণির ছাত্রী হামিদা পারভীন ও সহকারী নির্বাচন কমিশনার হিসাবে দায়িত্ব পালন করেন দশম শ্রেণির ছাত্রী আসমা খাতুন ও অষ্টম শ্রেণির ছাত্রী তানজিমা খাতুন। নির্বাচনে ১১জন প্রার্থী অংশগ্রহণ করে। এর মধ্যে থেকে ৮ জন নির্বাচিত হয়। মোট ভোটারের সংখ্যা ছিল ২৬২ জন। কিন্তু ভোটারের উপস্থিতি ছিল ২০২ জন। এর মধ্যে ১টি ভোট নষ্ট হয় এবং ২০১টি ভোট কাউন্ট করা হয়। নির্বাচিতরা হলো ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী জান্নাতুল পারভীন লতা, ১০ম শ্রেণির ছাত্রী রাশিদা আক্তার (বৃষ্টি), ৮ম শ্রেণির ছাত্রী সুরভী পারভীন, ৭ম শ্রেণির ছাত্রী বৃষ্টি রং, ৯ম শ্রেণির ছাত্রী রোমানা পারভীন, ৭ম শ্রেণির ছাত্রী নূরজাহান পারভীন, দশম শ্রেণির ছাত্রী ছারিয়া পারভীন (লিমা), ৬ষ্ঠ শ্রেণির ছাত্রী চন্দ্রা দুলাই নির্বাচিত হয়। নির্বাচন পর্যবেক্ষক হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বিদ্যালয়ের প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি মনোরঞ্জন মুখার্জি মনি বাবু, প্রধান শিক্ষিকা অনিমা সিংহ, সহকারী শিক্ষিকা বিলকিস বানু, শিক্ষক সুকুমার ঘোষ, জয়দেব কুমার সরকার, আজিবর রহমান, তাপস কুমার সরদার, সুমিত বাসক।
কাজীরহাট হাইস্কুল: বৃহস্পতিবার উৎসবমুখর পরিবেশে স্টুডেন্ট কেবিনেট নির্বাচন অনুষ্ঠিত হয়েছে। ছাত্রদের মধ্য থেকে নির্বাচিত রিটানিং অফিসার আরমান মেহবুব ও প্রিজাইডিং অফিসার বিপ্লব হোসেনের পরিচালনায় মোট ভোটার ছিল ৪০৪ জন। সকাল নয়টা থেকে দুপুর দুইটা পর্যন্ত এ ভোট চলে। সভাপতি পদে আব্দুল্লা, সহ-সভাপতি পদে মহিনুর রহমান, সাধারণ সম্পাদক পদে ইউনুচ আলী, কোষাধ্যক্ষ পদে লাইলা আফরোজ নির্বাচিত হয়। এর আগে চার জন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় নির্বাচিত হয়েছিলো বলে জানান প্রতিষ্ঠানের সহকারী প্রধান শিক্ষক শাহিনুর রহমান।
নবারুন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়: সাতক্ষীরা সদর উপজেলার নবারুণ উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ে স্টুডেন্টস কেবিনেট নির্বাচনে ৬ষ্ঠ শ্রেণি হতে ১০ম শ্রেণির ছাত্রীদের ভোট অনুষ্ঠিত হয়। নির্বাচনে মোট ৭৫১ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেন। নির্বাচনে ৬ষ্ঠ হতে ১০ম শ্রেণির ছাত্রীদের মাঝে ৩১জন শিক্ষার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করে। অবাধ, সুষ্ঠ, নিরপেক্ষ নির্বাচনের মাধ্যমে  বিজয়ী হন ৭জন শিক্ষার্থী বিজয়ী হয়। নির্বাচিতরা হলেন ১০ম শ্রেণির ছাত্রী সাদিয়া , ৯ম শ্রেণির অর্পিতা, সারিকা, ৮ম শ্রেণির তাসকিয়া ও মারিয়া, ৭ম শ্রেণির নাসরিন এবং ৬ষ্ঠ শ্রেণির সুমাইয়া হক। প্রধান নির্বাচন কমিশনার হিসেবে দায়িত্ব পালন করেন দশম শ্রেণির ছাত্রী ফারহানা নেওয়াজ। এ সময় উপস্থিত ছিলেন নবারুন উচ্চ বালিকা বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আব্দুল মালেক গাজী সহ সকল শিক্ষক ও শিক্ষার্থীবৃন্দ ।
শাখরা কোমরপুর এজি মাধ্যমিক বিদ্যালয়: শাখরা কোমরপুর এজি মাধ্যমিক বিদ্যালয় সকাল ৯টা থেকে ভোট গ্রহন শুরু হয়। চলে বেলা ২টা পর্যন্ত কেবিনেট নির্বাচন পরিচালনা করেন বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক  আহমেদ শরিফ ইকবাল সহ শিক্ষকবৃন্দ।