খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়ক পিচের উপর ইট দিয়ে চলছে সংস্কার


প্রকাশিত : মে ৩, ২০১৭ ||

ডুমুরিয়া (খুলনা) প্রতিনিধি: বৃষ্টিতে কাদা আর রৌদ্রে ধুলো-বালি মেখে প্রতিনিয়ত যাতায়াত করছে খুলনা সাতক্ষীরা মহাসড়কের যাত্রীরা। অবশেষে এ দূর্ভোগ নিরসনে ডুমুরিয়ার টিপনা শেখ বাড়ী হতে দাসপাড়া পর্যন্ত প্রায় ৫ শত মিটার জরাজীর্ন সড়কে পিচের উপর ইটের সোলিং দিয়ে চলছে সড়ক সংস্কারের কাজ। এ কাজের স্থায়ীত্ব নিয়ে সাধারণ মানুষ রয়েছে উদ্বিগ্নে। সংশ্লিষ্ট সূত্রে জানা যায়, খুলনা-সাতক্ষীরা মহাসড়কের ডুমুরিয়া উপজেলার টিপনা শেখবাড়ী হতে টিপনা দাসপাড়া পর্যন্ত প্রায় ৫’শ মিটার রাস্তা দীর্ঘদিন পিচ ও খোয়া উঠে বড় বড় গর্তে পরিণত হয়েছে। প্রায় এক বছরের মধ্যে এ ভাংগা রাস্তায় বাস-ট্রাক উল্টে ও খাদে পড়ে ৩/৪ জনের প্রাণহানি এবং অনেকেই পঙ্গুত্বের শিকার হয়েছেন। সড়ক ও জনপথ বিভাগ বছরে ৪/৫ বার খোয়া, বালি, পিচ দিয়ে বার বার সংস্কার করলেও এক সপ্তাহ যেতে না যেতেই আবার পূর্বের ন্যায় বড় বড় গর্তে পরিণত হয়। ফলে বৃষ্টি হলে ওই গর্তে জমে হাঁটু পানি আর রোদে ধুলো বালিতে ভরা থাকে পুরো রাস্তাটি। ব্যস্ততম এ সড়কে অত্যন্ত ঝুঁকির মধ্য দিয়ে যানবাহনে চলাচল করতে হয় যাত্রীদের। কথা হয় বাসযাত্রী টাউন পাইকগাছার গুরুদাস মন্ডলের সাথে। তিনি বলেন, প্রতিনিয়ত খুলনায় এ রাস্তা দিয়ে যাতায়াত করি কিন্তু টিপনা দাসপাড়ার সামনে আসলে গাড়ীর ভিতরেও নাকে মুখে রুমাল কাপড় দিয়ে দম বন্ধ করে এটুকু রাস্তা পার হতে হয়। এমনকি গাড়ীর মধ্যেও কোন যাত্রীর কাপড় চোপড় ভাল তাকে না। টিপনা শেখবাড়ি রাস্তার পাশে বসবাস কারী ষাটোর্ধ আলতাপ হোসেন কাজল বলেন, দিনে রাতে রাস্তার ধুলো বালিতে ঘরের মধ্যে রান্না করা খাবার নষ্ট হচ্ছে, পরিবারের লোকজনের শ^াসকষ্ট দেখা দিচ্ছে এবং ধুলো বালিতে পাশের কোন গাছপালা বাড়তে পারছে না। পরিবেশের মারাত্বক ক্ষতি হচ্ছে। গৃহবধু নাজমা বেগম জানান রাস্তা খারাপ হয়ে ধুলোা বালিতে আমরা কোন খাবার খেতে পারছি না, ছেলে মেয়েদের সবসময় রোগ ব্যাধি লেগেই আছে। তাছাড়া ঘরের মধ্যে রাখা কাপড়চোপড় ধুলো বালিতে ময়লা হচ্ছে। এমন অভিযোগ ওই গ্রামের সামাদ শেখ, আমজাদ হোসেন, কারিমুল ইসলাম, শহীদ শেখ, আসলাম হোসেন সহ অনেকেরই। এ ব্যাপারে খর্ণিয়া ইউপি চেয়ারম্যান শেখ দিদারুল হোসেন দিদার বলেন এ রাস্তাটি খুবই বেহাল দশা। গাড়ী চলাচলে রাস্তার দুপাশে বসবাসকারীরা দুর্বিসহ জীবন কাটাচ্ছেন। বর্তমানে রাস্তা সংস্কারে পিচের উপর যে ইটের সোলিং দেয়া হচ্ছে তা নিয়েও রয়েছে সংশয়।