মন্তব্য কলাম: কোনটি সংবাদ? নিমাই ঢালীর কান্না, না কি নেতাদের বকবক


প্রকাশিত : মে ৪, ২০১৭ ||

<অতিথি পাখি>
নিমাই ঢালী অসহায়, গরীব, পঙ্গু মানুষ। তিনি দু’ছেলের উপর ভর করে প্রেসক্লাবে গিয়ে অন্তত পাঁচটি নিউজ চ্যানেলের ক্যামেরার সামনে সাতক্ষীরা সদর এমপিসহ তার কাছের লোকজনের বিরুদ্ধে দুর্নীতি দমন কমিশনে দাখিল করা অভিযোগ করে যান। সেই অভিযোগের ভিত্তিতে গণমাধ্যমে সংবাদ প্রচার হলো। প্রকাশিত-প্রচারিত সংবাদের প্রতিবাদে মিছিল-সমাবেশ হলো।

 

মিছিল-সমাবেশে বলা হলো, নিমাই ঢালীকে ডেকে এনে চা’ খাইয়ে গল্পপুছক করে ষড়যন্ত্রমূলকভাবে সংবাদ প্রকাশ করা হয়েছে। কারা করেছে? বিএনপি-জামায়াত করেছে। হায়রে কপাল, স্বার্থে ঘা’ পড়লে কখন যে কাকে কিভাবে বিএনপি-জামায়াতের অনুসারী বানানো হয়, তা বলা মুশকিল। যেন, বিএনপি-জামায়াত বানানো মেশিন। যাই হোক, এটা নিয়ে রাজনীতি করার কোন সুযোগ নেই।
এবার মূল প্রসঙ্গে আসি, নিমাই ঢালীর কান্না সংবাদের বিষয়বস্তু হওয়ার যোগ্য? না সাবেক এমপি জব্বারের তৎপরতায় মাছখোলায় বেতনা নদীর উপর নির্মিত ব্রিজ উদ্বোধন করতে গিয়ে নেতাদের বকবকানি (বক্তব্য) সংবাদের বিষয়বস্তু হওয়ার যোগ্য? প্রশ্ন থাকলো পাঠকের কাছে।
শুধু কি তাই, এ’ অনুষ্ঠানে ও’ অনুষ্ঠানে গিয়ে ‘আমি জনগণের চাকর। এরপর ইংরেজিতে……………’-ই বোধ হয় সংবাদ হওয়ার যোগ্য? এসব নিয়ে উপহাসও করতে দেখেছি অনেককে।
জেলার বাইরে অবস্থানরত বন্ধুরা মাঝে মাঝেই ফোন করে শোনে, *সাতক্ষীরার রাস্তা-ঘাটের কি অবস্থা রে? লজ্জায় পড়ে উত্তর দিতে হয়, ভাল না। *এমনি কি অবস্থা? উত্তরে বলতে হয়, মানুষ গরু বিক্রি করতেও ভয় পাচ্ছে। *এই যে প্রাইমারি স্কুলে নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরী নিয়োগ হলো, এতে কি অবস্থা? উত্তরে বলতে হলো, তোর কাজ নেই। এসব প্রশ্ন করছিস কেন। *আচ্ছা বাইপাস সড়ক আলিপুর চেক পোস্টে সংযুক্ত হওয়ার কথা ছিল না, সেদিন গিয়ে দেখলাম মেডিকেল কলেজের সামনে দিয়ে হচ্ছে। এতে তো মেডিকেল কলেজ ধ্বংস হবে। উত্তরে বলতে হলো, তুই চুপ করবি, না ফোন কেটে দেবো।
সব উত্তরই জানা ছিল, কিন্তু দেবো ক্যামনে। নিমাই ঢালীর মতো সৎ সাহস তো নেই আমার। নিমাই ঢালীর অফুরন্ত প্রাণশক্তির কারণে মিডিয়া তার পাশে দাড়িয়েছে। কিন্তু আমি তো বোবা, আমার পাশে যদি না দাঁড়ায়। এই ভয় পাই আর কি।
একজন নিমাই ঢালীর অবস্থাই তুলে ধরে সার্বিক পরিস্থিতি। নিমাই ঢালীর ছেলের চাকরিটা ছিল নৈশ প্রহরী কাম দপ্তরীর। অষ্টম শ্রেণি পাশের চাকরি এটা। তাও আউটসোর্সিংয়ের ভিত্তিতে বেতন। আর সেই চাকরি নিয়েও আমাদের সভ্য নেতাদের বাণিজ্য আমাদের চোখ খুলে দেয়। সেই নেতারাই আবার নিমাই ঢালীদের গালি পাড়েন। সত্যি অদ্ভুত। (বিকাল ৫টা, ৩.৫.১৭, সাতক্ষীরা)।

 

আরো পড়তে:

নিমাইকে দুয়ে ছেন্দে খেল নেতারা: সর্বস্ব বেচে কিনে সাড়ে ৪ লাখ টাকায় ছেলের চাকুরি না হওয়ায় স্ট্রোক, পঙ্গু হওয়ায় নিজেও চাকুরিও গেল, প্রতিবন্ধি ভাতার কার্ড দেওয়ার আশ্বাস এমপি রবির

সদর এমপি রবি’র বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অভিযোগে অনুষ্ঠিত সমাবেশে বক্তারা এটা আট কলামের লীড নিউজ হতে পারে না

সদর এমপির বিরুদ্ধে নিমাই চন্দ্র ঢালীর অভিযোগ (অভিযোগের ফটোকপি)

এ কী কথা শুনি আজ মন্থরার মুখে