মাদক কর্মকর্তা পরিচয় দিয়ে সিপাই সেলিম টোল তুলছে ৪শ’ মাদক ব্যবসায়ীর কাছ থেকে


প্রকাশিত : মে ১৪, ২০১৭ ||

ইয়ারব হোসেন: প্রতি মাসের ১ তারিখে সাতক্ষীরা মাদকদ্রব্য অফিস থেকে জেলার বিভিন্ন এলাকায় টাকা তুলে আসছে ওই অফিসের দারোগা পরিচয় দিয়ে সেলিম। তালিকা ধরে মাসে মাসে টাকা আদায় করে থাকেন তিনি। টাকার পরিমান কম নয়। প্রায় ৪০০ তালিকাভুক্ত মাদক ব্যবসায়ি। বড় মাদক ব্যবসায়ির কাছ থেকে মাসে ১০ থেকে ২০ হাজার টাকা। মাঝারি মাদক ব্যবসায়ির কাছ থেকে ৮ থেকে ১০ হাজার টাকা। ছোট মাদক ব্যবসায়ির কাছ মাসে ৫ থেকে সর্বনিন্ম ১ হাজার টাকা। প্রতি মাসে এ সংস্থাটির নামে  কয়েক লাখ টাকা আদায় করা হচ্ছে। একই সাথে জেলার তিনটি দেশী মদের দোকান থেকে মাসে প্রায় ৫০ হাজার টাকা আদায় করা হয়।

নাম ব্যবহার করা যাবে না এমন অনুরোধ করে ঝাউডাঙ্গা, বাশদা, কুলেরডাঙ্গি, কুশখালি, সাতানি, পরানদা, নেবাখালি, বকচরা, কাঠিয়া, সরকার পাড়া, কলারোয়া, কুলিয়া ,বয়েরা, কালিগসহ সাতটি উপজেলার বিভিন্ন এলাকায় মাদক ব্যবসায়ীরা জানান আগের চেয়ে কিছুটা মাদক বিক্রি কমেছে। কিন্ত মাদকদ্রব্য অফিস থেকে বার বার তাদের উপর চাপ সৃষ্টি করা হচ্ছে আগের মত টাকার জন্য। চাহিদামত টাকা না দিলে গাজা, ইয়াবা, ফেন্সিডিল নিয়ে যেয়ে তাদের বাড়ি থেকে উদ্ধার দেখানো হচ্ছে। দেওয়া হচ্ছে মামলা।

মাদক ব্যবসা ছেড়ে সদ্য পুলিশের কাছে আত্মসমর্পনকারি দুই মাদক ব্যবসায়ি জানান, আমরা মাদক ব্যবসা ছেড়ে মাঠে কাজ করে সংসার চালাচ্ছি। মাদক আর জীবনে ধরবো না। ব্যবসার সাথে যে সময় জড়িত ছিলাম তখন মাদকদ্রব্য অফিসে মাসে উভয়কে ৩ হাজার করে টাকা দিতে হতো। টাকা নিয়ে যেত সেলিম নামের এক দারোগা। কিন্তু মাদক ব্যবসা ছাড়ার পরও তাদের কাছে টাকা নিতে আসছে।  সেলিম নামে এক ব্যক্তি নিজেকে মাদকদ্রব্য অফিসের দারোগা পরিচয় দিয়ে মাসে মাসে টাকা নিতে আসছে। তাদের কাছে মোবাইল ফোনে টাকা চাওয়া হচ্ছে। সাতক্ষীরা মাদকদ্রব্য অধিদপ্তরের পরিদর্শক লাকি পারভীন জানান, সেলিম দারোগা নয় সিপাই। তার বিরুদ্ধে যে অভিযোগ উঠেছে তা খতিয়ে দেখা হবে।