সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে পাবলিক লাইব্রেরিতে আলোচনা সভা


প্রকাশিত : মে ২০, ২০১৭ ||

১৯ মে ২০১৭ বিকেল ৪টায় সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন কমিটির উদ্যোগে ও আয়োজনে সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরিতে সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয় নামক পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবিতে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়।

 

‘সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয়: প্রয়োজনীয়তা ও প্রাসঙ্গিকতা’- শীর্ষক আলোচনা সভায় কমিটির উদ্যোক্তা ও চেয়ারম্যান সীমান্ত আদর্শ কলেজের সহকারী অধ্যাপক মো. মনিরুজ্জামান মন্ময় মনিরের সভাপতিত্বে ও সঞ্চালনায় গুরুত্বপূর্ণ আলোচনা করেন সংসদ সদস্য মিসেস রিফাত আমীন, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ কেন্দ্রীয় কমিটির সদস্য প্রফেসর ড. আশরাফুল আলম, প্রাবন্ধিক কবির রায়হান, আবৃত্তিকার মনিরুজ্জামান ছট্টু, ভালুকা চাঁদপুর কলেজের প্রভাষক কবি সালেহা আকতার, বাংলাদেশ উদীচী শিল্পীগোষ্ঠী সাতক্ষীরার সভাপতি শেখ সিদ্দিকুর রহমান, মুক্তিযোদ্ধা সরদার নাজিমউদ্দীন, স্বাধীনতা শিক্ষক পরিষদ, সাতক্ষীরার আহবায়ক প্রভাষক এম সুশান্ত, সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির সাহিত্য সম্পাদক কবি তৃপ্তিমোহন মল্লিক, জাগ্রত সাতক্ষীরার সভাপতি কবি সায়েম ফেরদৌস মিতুল, প্রগতিশীল সাংস্কৃতিক ঐক্য জোট সাতক্ষীরার আহবায়ক কবি মুনসুর রহমান, কবি মাগফুর রহমান। সংগীত পরিবেশ করেন সীমান্ত আদর্শ কলেজের বিজ্ঞান বিভাগ দ্বাদশ শ্রেণির ছাত্র পঙ্কজ দেবনাথ। আবৃত্তি করেন বিশ্ববিদ্যালয় বাস্তবায়ন কমিটির সদস্য কবি বিশ্বরূপ চন্দ্র ঘোষ, আবৃত্তিকার মালিহা আফরোজ মিতুল, আবৃত্তিকার তনিমা ঢালী। এসময় উপস্থিত ছিলেন সাতক্ষীরা কেন্দ্রীয় পাবলিক লাইব্রেরির যুগ্ম সম্পাদক আমিনুল হক, সাতক্ষীরা সিটি কলেজের প্রভাষক বিধান চন্দ্র দাশ, আব্দুর রহমান কলেজের প্রদর্শক হাফিজুর রহমান, আশাশুনি কবিতা পরিষদের সদস্য বাবুল আকতার, কবি গুলশান আরা প্রমুখ।
প্রফেসর ড. আশরাফুল আলম বলেন, সাতক্ষীরাতে পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় চাই। এ দাবি মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছে। বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করার জন্য সরকার কমিটি গঠন করতে পারেন ও কোন জায়গায় স্থাপিত হবে সে বিষয়েও সরকারের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। কমিটির চেয়ারম্যান মন্ময় মনির বলেন, সাতক্ষীরাতে অটোনোমাস পূর্ণাঙ্গ পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠা করা একান্ত প্রয়োজন। এতে করে সাতক্ষীরার সাথে বিশ্বের বিভিন্ন দেশের মানুষের সাথে সাংস্কৃতিক মিথষ্ক্রিয়া হবে। শিক্ষা-দীক্ষায় সাতক্ষীরা এগিয়ে যাবে। অনেকের কর্মসংস্থান হবে। কোন কলেজকে বিশ্ববিদ্যালয় ঘোষণা না করে স্বতন্ত্র স্থানে বিশেষ করে লাবসা ঝাউডাঙ্গা ও আগরদাঁড়ী ইউনিয়নের মধ্যবর্তী বাইপাস সড়কের পাশে বিশ্ববিদ্যালয়টি স্থাপিত হলে ভালো হয়। সংসদ সদস্য মিসেস রিফাত আমীন এমপি বলেন, সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সকলের সম্মতির সাথে আমি এমত পোষণ করি। এবং এই বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার লক্ষ্যে সর্বান্তকরণে সহযোগিতা ও প্রচেষ্টা চালিয়ে যাবো ইনশাল্লাহ। সাতক্ষীরা-৪ আসনের সংসদ সদস্য এসএম জগলুল হায়দারও পূর্ণ সহযোগিতা করার আশ্বাস দিয়েছেন। বক্তারা সকলেই সাতক্ষীরা বিশ্ববিদ্যালয় প্রতিষ্ঠার দাবি জানিয়েছেন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি