মেহেদির রঙে রঙিন করে ঘর সাজানো হলোনা উর্মির


প্রকাশিত : মে ২৮, ২০১৭ ||

যশোর প্রতিনিধি: মেহেদীর রঙে জীবন রাঙানো হলোনা উর্মি খাতুনের। শুক্রবার গভীর রাতে চৌগাছার  গ্রাম থেকে নববধূর লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। তিনি চৌগাছা উপজেলার পলুয়া গ্রামের মতিয়ার রহমানের মেয়ে ও একই উপজেলার কোমরপুর গ্রামের জামাল হোসেনের স্ত্রী।
নিহতের পারিবারিক সূত্রে জানা যায়, আট মাস আগে জামাল হোসেনের সঙ্গে ঊর্মি খাতুনের বিয়ে হয়। কিছুদিন পর থেকে তাদের মধ্যে দাম্পত্য কলহ দেখা দেয়। গত শুক্রবার শ্বশুরবাড়ির লোকজন তার বাবার বাড়িতে খবর দেন, ঊর্মি গলায় দড়ি দিয়ে আত্মহত্যা করেছেন। এসময় তার চাচা আতিয়ার রহমান ও ফুফা খলিলুর রহমানসহ আত্মীয়-স্বজনরা সেখানে গিয়ে ঊর্মির লাশ দেখতে পান। এ ঘটনায় তাদের সন্দেহ হয়। তারা চৌগাছা থানায় লিখিত অভিযোগ দিলে পুলিশ লাশ উদ্ধার করে শনিবার সকালে যশোর জেনারেল হাসপাতালে পাঠিয়েছে ময়না তদন্তের জন্য। চৌগাছা থানার এসআই আনোয়ারুল আজিম লাশ উদ্ধারের কথা নিশ্চিত করেছেন।
খলিলুর রহমান বলেন, ‘ঊর্মির মা মারা গেছে, আর বাবা মালয়েশিয়ায় থাকেন। যে কারণে তার চাচা এবং আমরা ঘটনাস্থলে যাই। কিন্তু লাশ দেখে আমাদের সন্দেহ হয়। তাই ময়না তদন্তের জন্য আবেদন করেছি।