জেলায় সড়কে প্রাণ গেলো চার জনের


প্রকাশিত : আগস্ট ৪, ২০১৭ ||

<ul>
<li>
<blockquote>ডেস্ক রিপোর্ট: সাতক্ষীরা পৃথক তিনটি সড়ক দুর্ঘটনায় প্রাণ গেছে চারজনের। জেলার কলারোয়া, তালা ও শ্যামনগর উপজেলায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।</blockquote>
এলাকাবাসি ও পুলিশ সূত্রে জানা গেছে, আজ শুক্রবার সকাল সাড়ে ৭টার দিকে  জেলার শ্যামনগর উপজেলা সদরে কেন্দ্রীয় ঈদগাহ সংলগ্ন প্রধান সড়কের উপরে ট্রাকের চাকায় পিষ্ট হয়ে লাইলী বেগম (৬০) নামে এক মহিলা ঘটনাস্থলে নিহত হয়েছে। নিহত লাইলী বেগম (৬০) হরিনগর গ্রামের নুর ইসলাম শেখের স্ত্রী। এ ঘটনায় স্বামী নুর ইসলাম মারাত্মক আহত অবস্থায় শ্যামনগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিৎসাধীন।  নিহতের ছেলে আমিনুর জানান, মটর সাইকেল যোগে শ্যামনগর সদরে চিকিৎসকের কাছে আসার সময় ঈদগাহের নিকট পৌছালে বিপরীত দিক থেকে মুন্সিগঞ্জ-৮-০২-০০২২ ট্রাকটি চাপা দেয়। এতে ঘটনাস্থলে সে নিহত হয়। পুলিশ ঘাতক ট্রাকটিকে আটক করলেও চালক ও হেলপার পালিয়ে যায়। শ্যামনগর থানার ওসি সৈয়দ মান্নান আলী বলেন, চালক ও হেলপারকে পাকড়ানোর চেষ্টা চলছে। একইদিন সকাল ১০টার দিকে সাতক্ষীরা খুলনা মহাসড়কের ভৈরবনগর নামক স্থানে যাত্রীবাহি বাস নিয়ন্ত্রণ হারিয়ে বাড়ির মধ্যে প্রবেশ করলে ঘটনাস্থলেই দুজন নিহত হন।
প্রত্যক্ষদর্শিরা জানান,তালা উপজেলার পাটকেলঘাটায় সাতক্ষীরা গামী চলন্ত বাস সাতক্ষীরা ব-০৫-০০০৫ নিয়ন্ত্রন হারিয়ে ভৈরব নগর রাস্তার পাশে রুহুল কুদ্দুস মোড়লের বাড়ির ভিতর ঢুকে  গেলে তারাপদ মন্ডলের স্ত্রী গুরুদাসী (৪৫) গফ্ফারের মেয়ে আছিয়া (৬) ঘটনাস্থলে মারা যায় । প্রত্যক্ষদর্শি সত্রে জানা গেছে  শুক্রবার  সকাল ১০টার সময় খুলনা সাতক্ষীরা মহাসড়কের ভৈরবনগর নামক স্থানে এ দূর্ঘটনা ঘটে। এঘটনায় প্রায় ২০/২৫ জন যাত্রী আহত হয় । তাদের সাতক্ষীরা বিভিন্ন ক্লিনিক ও হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে।  পাটকেলঘাটা থানার অফিসার মহিবুল ইসলাম নিহতের ঘটনা নিশ্চিত করেছেন।
অপরদিকে আজ শুক্রবার সকাল ১১টার দিকে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে কলারোয়ায় এক মোটরসাইকেল আরোহী নিহত হয়েছে। উপজেলার ইলিশপুর-কোটার মোড় এলাকায় যশোর-সাতক্ষীরা মহাসড়কে ওই মর্মান্তিক সড়ক দূর্ঘটনাটি ঘটে। নিহত শাওন (২৭) যশোর জেলার শার্শা উপজেলার বসতপুর গ্রামের আতিয়ার রহমানের পুত্র। প্রত্যক্ষদর্শীরা জানান- সাতক্ষীরা থেকে ছেড়ে আসা যশোরগামি দ্রুত গতির যাত্রীবাহি বাস (সাতক্ষীরা-জ-০৪-০০৩৩­) বিপরীতমুখি মোটরসাইকেল আরোহি শাওনকে সজোরে ধাক্কা দেয়। এতে বাসের চাকায় পিষ্ট হয়ে ঘটনাস্থলেই মারা যায় শাওন। দুমড়ে মুচড়ে যায় বাজাজ সিটি ১০০সিসির মোটরসাইকেলটি (যশোর-হ-১১-৪০-৫৯)। দূর্ঘটনার পরপরই বাসের চালক ও হেলপার বাসটি ফেলে পালিয়ে যায়। কিছু সময়ের জন্য বন্ধ হয়ে যায় যানবাহন চলাচল। নিহত শাওন শার্শার বাগঁআচড়ার বসতপুর বাজারের ফার্নিচার ব্যবসায়ী বলে জানা গেছে। খবর পেয়ে কলারোয়া থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে লাশ ও ঘাতক বাসটি উদ্ধার করেছে বলে জানা গেছে। কলারোয়া থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) বিপ্লব দেব নাথা জানান- নিহতের লাশ উদ্ধার করা হয়েছে। ঘাতক বাসটি প্রাথমিকভাবে শ্রমিক ইউনিয়নের জিম্মায় রাখা হয়েছে।</li>
</ul>