কোরবানী ঈদকে সামনে রেখে কামারপাড়ার কারিগররা এখন ব্যস্ত


প্রকাশিত : আগস্ট ২২, ২০১৭ ||

নিজস্ব প্রতিনিধি: কামারপাড়া। ঠুন ঠান শব্দে মুখরিত। সময় নেই কথা বলার। দিন রাত চলছে চাপাতি, দা, বটি, ছুরি তৈরির কাজ। আরমাত্র কয়েকদিন পর ঈদুল আযহা। জেলার কামারপাড়ায় চলছে কোরবানির পশু জবাইয়ের জন্য অস্ত্র তৈরির কাজ। কামার পাড়ার কারিগররা কর্মব্যস্ত হয়ে পড়েছেন। তবে লোহার দাম কম থাকলেও কয়লার দাম বেশি থাকায় মজুরি একটু বেশি নিতে হচ্ছে বলে জানিয়েছে কারিগররা। শহরের মুনজিতপুর গ্রামের ছখিল উদ্দিন কামার জানান, সারা বছর ঈদুল আযহার জন্য অপেক্ষা করেন কামারিরা। এ সময়টিতে যারা কোরবানির পশু জবাই করেন তারা প্রত্যেকে চাপাতি, দা, বটি, ছুরি তৈরি করেন। বছরের অন্যান্য সময়ের চেয়ে এ সময়টিতে কাজ বেশি হওয়ার কারণে লাভ বেশি হয় বলে তিনি জানান। সাতক্ষীরা মাগুরা, বড়বাজার, ইটাগাছা, নলতা, বড়দল, তালা, ইসলামকাটি, কলারোয়া, বাঁকা, আনুলিয়া, প্রতাপনগরসহ বিভিন্ন গ্রামে হিন্দু কামারদের বসবাস। এদের কাজ মূলত কোরবানির ঈদের সময় বেশি হয়। এই সময় অনেকেই বাড়িতে পশু কোরবানি দেন। পর্যাপ্ত কসাই পাওয়া যায় না বলে অনেকেই বাড়িতে নিজেরা কোরবানি পশুর নিজেরা কাঁটাছেলা করেন। এ সময় দরকার পড়ে মাংস কাটার দা ও ছুরির। আর সেগুলো তৈরি করেন কামাররা। তারা দেশিয় প্রযুক্তিতে লোহা আগুনে গরম করে পিটিয়ে তৈরি করেন দা, ছুরি প্রভৃতি। কামারি আব্দুল গফুর জানান, সারা বছর কামারদের যে কাজ হয় কোরবানীর ঈদের সময় তার কয়েক গুণ বেশি কাজ হয়। একজন কর্মকার সারাদিন কাজ করে ২/৩শ’ টাকা আয় করেন। যা দিয়ে তাদের সংসার চলে। কিন্তু কোরবানির ঈদের সময় এ আয় বেড়ে যায় কয়েকগুণ। ফলে কামাররা এ সময়টার জন্য সারা বছর অপেক্ষায় থাকেন।